• বুলবুলভাজা  ইস্পেশাল  উৎসব  শরৎ ২০২০

  • গারদের এপার ওপার

    অমিতাভ মুখোপাধ্যায়
    ইস্পেশাল | উৎসব | ২২ অক্টোবর ২০২০ | ৪০০ বার পঠিত | ৪.৫/৫ (২ জন)
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার



  • ঘুণ আর জং পড়ছে, ধরতে পারছিনা রূপ,
            যেন ক্ষয়াটে কাঠের ফ্রেম
    আমি তো দীর্ঘ সময় এখানে ছিলাম, এই না বলার মধ্যে,
    এই হাততালির চটাপট শব্দের মধ্যে, এই পেঁয়াজের
                       খোসার নিবিড়ে
    দ্যাখো, কুমিরে পোকার বাসা, টিভির প্লাগের পাশে,
    উৎস থেকে রস টেনে, কেমন লালা দিয়ে দিয়ে সুগঠিত,
    নিজেকে আকার দিল, ধারণা দিল, মর্যাদা দিল,
    পার্থিব চড়ার উপর উঠে দাঁড়িয়ে বলল
    জয় পরাজয়ের কথা, মেটে রঙের প্রকৃত ম্যাজিক,
    হাঁসখালির মাঠ পেরিয়ে ঢুকে পড়ল
                      গ্রিলের এপারে...
    টিলার উপর যেকটা মাথা গোনা যাচ্ছিল, উঁচিয়ে থাকা
    পতাকা ও মুঠো করা হাত, যত বুট আর টুপির স্পর্ধা,
    এখন গোপন মন্ত্র, সকলে অনুচ্চার বইয়ের পাতায়,
    বুকের ঈষৎ বাঁ দিকে ছলছল করছে তরল,
    এ কি ভালোবাসা! নতুন মোড়কে সংলাপ!
    তোমার আমার সেই লণ্ঠনের নীচে, জমা পাঠ শেষে
                         বিষ ও বিষাদ!

    ~~~~




    অপচয়ের ভিতর দিয়ে যাচ্ছি, এই রাস্তা
                     খুব সাংকেতিক
    কয়েকটা ব্যাঙ প্রতিভায়, আধুলির দোষে, দোতলার
    টেরেস থেকে, ঝুঁকে, কুড়িয়ে নিল আমের মঞ্জরি
    চায়ের পেয়ালা তখন আরও বেদনার মতো
       বেজেছে, প্লেট ও চামচ তার সুরটুকু ধরে আছে
    যদিও কোথাও মীড় নেই, বাগানে, বাজারে
        হাসি বিনিময়ে নেই তেমন করুণ
    কে কাকে সনাক্ত করি ! আজ এই বন্ধ দুয়ার থেকে
    খ্যাপা কুকুরের ডাক, লালা ছিটকে লাগেনা কারো
    জামার কলারে, উঠে আসেনা বেপরোয়া ঘন সব
                            ইচ্ছেরা
    কে কার ভিতর দিয়ে যাচ্ছি ! একলা
        পথে কারোর সঙ্গে দেখা হবে না জেনে

    ~~~~




    তোমায় আমি লিখতে পারছি না, বাজার দোকান
    রান্নাবান্না বাসনকোসনের জঙ্গলে যেন এক বাঘ,
    বোঁটকা সোঁদা গন্ধের ভিতর এক নিভৃত অঞ্চল
    যাতে আমি শুয়ে শুয়ে বিছানায় নক্ষত্র শুঁকি,
    খেয়ে ফেলি তার মিষ্টি আর সুস্বাদ, টক সব গন্ধগুলো
           পিতলের পাত্রে রাখি,কল্পে যাবার কল্পিত...

    ভরা জ্যোৎস্না, মরা আবেগে এসবের অনেকটা
           জানা হলো, আগের চেয়ে বেশি কিছু টাটকা
    সাগরেরর মা গেছে কাল সন্ধেবেলা, ফিরবেনা বলে
    কুলোতে তোমার ছবি এঁকে গেছে,
    আজ দিন নয়, রাতও নয়, অবয়বের বাইরের গন্ধ
                      ভিতরের মজ্জা হাড়হীন
    আমি শুয়ে আছি, তুমিও কি! আগের অধ্যায় খুঁড়ে
         বেরিয়ে এসেছো হলুদ কালো ডোরা!
    ছড়ানো আঁশের মধ্যে শুয়ে আছে জঙ্গল, আর রাতভোর
    জঘন্য সুন্দর গন্ধে নিজেকে বিছিয়ে আছি
                      বাঘ গুড়িগুড়ি হানা দেবে বলে

    ~~~~


    ১১

    সামনে লোহার বীম, টানা টানা চৌকো খুপি আর চারদিকে
                     ঝালাইয়ের কড়া দাগ
    ওপারে সমুদ্র, নাকি জলের ভূমিকামাত্র, উথলে
    ওঠা দিনরাত্রি, বেসুর ভরা সকাল, রাত সংকেতময়
    এদিকে হেঁচড়ে নিয়ে যাওয়া মানুষের দাগ, তার সফলতা
                    ক্লান্তি আর কান্নার পরিমাপ
    ওদিকে পলিথিনের পোশাক, ভিনগ্রহী প্রাণিদের মুখের
                       আদল, নীলবাতির যাতায়াত
    যতদূর চোখ যায়, ঝাপসা কাদাটে পথ,
                      টায়ারের আল্পনা…
    কোথায় চলে গেছে ও ?
    ডাকলে ফিরে তাকাচ্ছে না কেন?
    ভূমিকা অংশ থেকে পড়া যাচ্ছে না প্রস্তাবনা
    উপান্তে নদীটি নেই, কালি ঘাম ধুয়ে টাটকা স্নানের মায়া
    নেই... আজ আমরা কেউই নেই বলে বুনো উটেরা বালি
    ছড়াচ্ছে, আলো কমে আসছে বসতির ছোটো ছোটো
                 নিভৃত নির্মমে

    ছবিঃ ঈপ্সিতা পাল ভৌমিক

    পড়তে থাকুন, শারদ গুরুচণ্ডা৯ র অন্য লেখাগুলি >>
  • বিভাগ : ইস্পেশাল | ২২ অক্টোবর ২০২০ | ৪০০ বার পঠিত | ৪.৫/৫ (২ জন)
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • সায়ন্তন চৌধুরী | ২৩ অক্টোবর ২০২০ ০০:০২98786
  • ভালোই লাগলো; অনেকটা নরম দৃশ্যকল্প-নির্ভর হলেও যেহেতু তৎসম সুললিত শব্দ ব্যবহারের বদলে, বিশেষত শেষ কবিতাটায়, ঝালাইয়ের কড়া দাগ, পলিথিনের পোশাক, নীলবাতির যাতায়াত প্রভৃতি এসেছে, তাই ভালো লাগল; শুধু টায়ারের আলপনা জাতীয় শব্দবন্ধ মাথার ভেতর কিছু অপ্রয়োজনীয় যোগাযোগ তৈরি করল।

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খেলতে খেলতে মতামত দিন