• টইপত্তর  অন্যান্য

  • পয়লা বৈশাখ ও বাংলা ক্যালেন্ডার

    JAYARSHI BHATTACHARYA লেখকের গ্রাহক হোন
    অন্যান্য | ১৪ এপ্রিল ২০২০ | ৭০৩ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • জ্যোতির্বিদ্যার দিক থেকে কিছু জিনিস বাংলা ক্যালেন্ডারের জন্য খুব জরুরি। বাংলা ক্যালেন্ডার শুধু এক সৌরবছরকে ধরেই তৈরি হয়নি, ফসল ও ঋতুপরিবর্তন যেহেতু সূর্যের গতি অনুসারে হয়, সে কারণে বাংলা ক্যালেন্ডার সূর্যের গতিকেও যথাযথ হিসাবে রেখেছিলো। গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার যেমন এম্পেরিকাল ধরণে সময়ের সাথে সাথে বদলেছে, বাংলা ক্যালেন্ডার একেবারেই তার বিপরীতে শুরুতেই এক সৌরবছর হিসেবে ৩৬৫ দিন ৬ ঘন্টা ১২ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডকে একবছর বলে ধরা হয়েছে, যা বাস্তবিক এক সৌরবছর ৩৬৫ দিন ৫ ঘন্টা ৪৮ মিনিট ৪৬ সেকেন্ডের চেয়ে প্রায় ২৪ মিনিট এগিয়ে রয়েছে। ভালোভাবে হিসেব করলে বোঝা যায়, মকর সংক্রান্তি (যেদিন সূর্য মকরক্রান্তি রেখার উপর লম্বভাবে আলো দেয়) থেকে পৌষ সংক্রান্তি এবং মহাবিষুব (যেদিন সূর্য নিরক্ষরেখার উপর একবার লম্বভাবে আলো দেয়) থেকে চৈত্র সংক্রান্তি ঠিক ১৪২৭*২৪ মিনিট~২৩ দিনের কাছাকাছি। ১৫০ বছর পরে রবীন্দ্রনাথের জন্মদিনও প্রায় ১-২ দিন পিছিয়ে গেছে। এই একই মিল দেখা যায় গার্সি সংক্রান্তি ও জলবিষুবের মধ্যেও। এভাবে পিছোতে থাকলে প্রায় ৯০০ বছর পর ১লা বৈশাখ হবে ১লা মে-র দিন।
    এত সুন্দর হিসাব করে সূর্যের গতির সাথে ক্যালেন্ডার তৈরি হলেও দুঃখের বিষয় আধুনিক বিজ্ঞান অগ্রগতির সাথে এই ক্যালেন্ডারকে আপডেট করা হয়নি। বাংলাদেশে ক্যালেণ্ডারকে বাঁচানোর নামে যা করা হয়েছে, তাতে ক্যালেন্ডারের মূল প্রাণটিই নষ্ট হয়ে গেছে। ১২-১৩ বছর আগে, ১৪ই এপ্রিলকে ক্যালেন্ডারে নতুন বছর ধরে প্রতি গ্রেগরিয়ান দিনকে একদিন হিসেবে ধরা হয়েছে সেখানে। ফলে বাংলা ক্যালেন্ডারের স্বকীয়তা সেখানে মৃত। মেঘমাদ সাহা এই ত্রুটি দূরীকরণের চেষ্টা এককালে করে থাকলেও সেটা খুব ফলপ্রসূ হয়ে ওঠেনি।
আরও পড়ুন
লোনার - Saswati Basu
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Somnath Roy | ১৫ এপ্রিল ২০২০ ০০:২১730611
  • "বাংলা ক্যালেন্ডার সূর্যের গতিকেও যথাযথ হিসাবে রেখেছিলো।" --  এই জায়গাটা একটু বোঝাবেন কাইন্ডলি?

  • JAYARSHI BHATTACHARYA | ১৫ এপ্রিল ২০২০ ০১:৫৫730615
  • সূর্যের গতি মহাবিষুব থেকে ক্রমাগত উত্তরায়ণের দিকে অর্থাৎ কর্কটক্রান্তিরেখার দিকে চলে। বাংলা ক্যালেন্ডারের আদি সূত্রপাত এই উত্তরায়ণের সময়। অর্থাৎ যতক্ষণ সূর্যের উত্তরায়ণ হবে বছর এগোবে, আষাঢ় মাসের শেষে সূর্য কর্কটক্রান্তিরেখার ওপর লম্বভাবে কিরণ দেবে। তখন উত্তর গোলার্ধে গ্রীষ্মকাল। এর তিনমাস পর আশ্বিন তথা গার্সি সংক্রান্তিতে সূর্য আবার নিরক্ষরেখার ওপর আলো দেবে। একে জলবিষুব বলে। এভাবে পৃথিবীর প্রদক্ষিণ ও সাড়ে ৬৬ ডিগ্রি হেলে থাকার ফলে নিরক্ষীয় অঞ্চলে সূর্যের যে গতি, সেই গতির সাথে তাল মিলিয়ে বাংলা ক্যালেন্ডারের ঋতু পরিবর্তন হওয়ার কথা।

  • বিপ্লব রহমান | ১৬ এপ্রিল ২০২০ ০৭:২৭730629
  • ""বাংলাদেশে ক্যালেণ্ডারকে বাঁচানোর নামে যা করা হয়েছে, তাতে ক্যালেন্ডারের মূল প্রাণটিই নষ্ট হয়ে গেছে।" 

    একে আর শুধরে নেওয়ার উপায় নাই। তাতে অবশ্যই উৎসব বা নিত্যকর্মে ভাটা পড়েনি, কালে কালে ইংরেজি ক্যালেন্ডারের কদরই বেড়েছে! কলিকাল...        

  • জয়র্ষি | ২১ এপ্রিল ২০২০ ১৭:৩৫730730
  • ক্যালেন্ডারটি কোনোভাবেই ইংরেজি নয়। রোমান বা গ্রেগরিয়ান বলা আমি পছন্দ করি। বরং ইংরেজরা এই শুদ্ধ ক্যালেন্ডার অনেক পরে গ্রহণ করে। ফলে নিউটনের জন্মদিন ৪ঠা জানুয়ারি না ২৫শে বৈশাখ এই দ্বন্দ্ব চিরকালীন। সে আরেক গল্প। 

  • জয়র্ষি | ২১ এপ্রিল ২০২০ ১৭:৩৬730731
  • দুঃখিত, ২৫শে ডিসেম্বর লিখতে গিয়ে বৈশাখ লিখেছি। লিখন প্রমাদ।

  • রৌহিন | ২১ এপ্রিল ২০২০ ২২:৪৩730743
  • শিবাংসুদা আপনার লেখাটার কথাই প্রথম মনে হয়েছিল এটা পড়ে। লিঙ্ক দিতে গিয়ে দেখি আপনি দিয়ে দিয়েছেন
  • জয়র্ষি | ৩০ এপ্রিল ২০২০ ১৩:৫০730968
  • প্রচুর তথ্য সমৃদ্ধ লেখাটা বারে বারে পড়তে সময় লাগলো নিঃসন্দেহে৷ ইতিহাসের দিকটা আমি অবশ্যই এতকিছু জানতাম না। শুধুই বার্ষিক গতির ভিত্তিতে বলছিলাম। ওখানে একটি বিষয় না বুঝে মন্তব্যও করেছি।

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ঝপাঝপ মতামত দিন