• হরিদাস পাল  ব্লগ

  • গুজবের পিছনে

    Manash Nath লেখকের গ্রাহক হোন
    ব্লগ | ১০ এপ্রিল ২০১৭ | ১১৯ বার পঠিত
  • জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
  • সবাই বলছে গুজবে কান দেবেন না, কিন্তু মানুষের ধর্মই হল গুজবে কান দেওয়া।আপনি একটা ভাল খবর দিন.. সেটা বন্ধুদের মধ্যেই থাকবে কিন্তু খারাপ খবর মূহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়বে। আপনি ফেসবুকে দেখতে পেলেন আপনার এক বন্ধু লিখেছে দেগঙ্গাতে কি কিছু হচ্ছে? আপনি সেখানে গিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে জিজ্ঞাসা করলেন, আরো অনেকে করলো। একজন বলল হ্যাঁ হ্যাঁ, আমিও শুনেছি!! কি ব্যাপার কে জানে! আরো একজন প্রোফাইল এসে বলল আমার বাড়ি থেকে দশ কিলোমিটার, দাঙ্গার খবর আসছে!! আপনি মোটামুটি নিশ্চিন্ত হলেন যে খবরটার ভিত্তি আছে। উত্তেজনায় আর নিরাপত্তাহীনতায় দু চার জায়গায় ফোন করে খবরটা ছড়ালেন!

    আপনি কি জানেন পরিকল্পিত ভাবে শুধু বাঙালি হিসেবে পঞ্চাশ হাজার ফেক প্রোফাইল তৈরি করা হয়েছে। বাংলাদেশের একটি হিন্দু ছেলে আপনাকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাল। বাংলাদেশ আপনার আবেগের জায়গা, দেখলেন ছেলেটির পরিবার বন্ধুবান্ধব এর ছবি আছে। স্কুল কলেজের নাম আছে। তারপর সে আপনার কবিতায় কমেন্ট করল... আপনার পুরী যাবার ছবিতে লাইক দিল... আপনিও তার লেখা কবিতায় লাইক দিলেন... ঠিকই তো আছে! একদিন সে শেয়ার করল আমাদের পাড়ার মন্দির মুসলমানেরা ভেঙ্গে দিয়েছে! আপনি কোন কাগজে টিভি চ্যানেলে এমন কোন খবর দেখেননি... কিন্তু আপনি তাকে বিশ্বাস করলেন!আর অজান্তেই একটা চক্রান্তে জড়িয়ে গেলেন!

    হিন্দু প্রোফাইল থেকে মুসলমানকে গালাগালি করা হচ্ছে... মুসলমান প্রোফাইল দিয়ে হিন্দুকে গালাগাল করা হচ্ছে আমি আপনি দর্শক। এবার কতদিন এড়িয়ে যেতে পারবেন? আপনিও ঢুকে পড়লেন খেলাটায়.... আর দর্শক যখন খেলায় ঢুকে পড়ে তখনই এই খেলাটা সার্থক হয়ে ওঠে। আমাদের সামাজিক অবস্থান, শিক্ষাদীক্ষা, রুচি সব ভুলে আমরাও এই গালাগালি ঘেন্নাতে মেতে উঠি।নিজেদের অজান্তেই আমরা হয়ে উঠতে থাকি একজন গোঁড়া একজন মৌলবাদী। একজন চাড্ডি, মাকু, ছাগু।

    ভারতীয় মিডিয়া খুব যথাযথ ভাবেই দাঙ্গা বা ধর্মীয় উত্তেজনার খবর পরিহার করে। দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা তাকে এর থেকে বিরত থাকা শিখিয়েছে। নতুন গজানো এই সোশাল মিডিয়া তাই মৌলবাদীদের কাছে এমন গুজব আর তিলকে তাল করার জন্য শ্রেষ্ঠ মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

    আমি এদেশের একজন সাধারণ মানুষ। কোন রাজনৈতিক দলের সদস্য নই কোনদিন ছিলাম ও না।আমি কোন ইজমের দাস নই। মনে করি এখনো পর্যন্ত গনতন্ত্রের কোন বিকল্প নেই। যখন যাকে সর্বাধিক উপযুক্ত মনে করি তাকে ভোট দিই। মনে না হলে দি না। শাসক দলের সমালোচনা করার পূর্ণ অধিকার আমার আছে। সোশাল মিডিয়া একটা সামাজিক প্ল্যাটফর্ম, সব রাজনৈতিক দলই এখানে প্রোপাগান্ডা করার চেষ্টা করে। কংগ্রেস, সিপিএম, তৃণমূল সবারই সাইবার সেল আছে কমবেশি।কিন্তু এই খেলায় বিজেপি সবাইকে টেক্কা দিয়েছে।নির্বাচন বিশেষজ্ঞ প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শে এবং নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে বিজেপি প্রায় একশো কোটি টাকা সাইবার সেলের পিছনে ইনভেস্ট করে। দেশ জুড়ে অসংখ্য ফেক প্রফাইল আর ওয়েবসাইট বানানো হয় যারা দিনরাত প্রোপাগান্ডা ছড়াতে থাকবে। দরকার মত বিভিন্ন ফেক নিউজ, ভিডিও তৈরি করবে। পোস্টার মিম বানাবে সেগুলো ফেক প্রোফাইল দিয়ে ফেসবুকে আর সেখান থেকে হোয়াটস এ্যাপে ছড়াবে। এখানে একটা লিংক দিচ্ছি একটু দেখতে পারেন।
    http://amp.indiatimes.com/news/india/bjp-leader-s-kin-alleged-it-cell-member-among-11-arrested-for-running-isi-spy-ring-in-madhya-pradesh-271308.html
    এটাও দেখুন
    http://www.india.com/news/india/bjp-it-cell-chief-social-media-attacks-against-narendra-modi-critics-not-directed-by-us-528105/amp/

    আমার অনেক বন্ধু মনে করেন পথই হল আসল পথ। রাস্তায় নেমেই মৌলবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে, প্রতিবাদ করতে হবে। আমি তাদের বলবো সাইবার স্পেসের এই লড়াইটাকে হেলাফেলা করবেন না বন্ধু।সস্তা মোবাইল আর ফ্রি ইন্টারনেটের দৌলতে দেশের কোনায় কোনায় এক মুহুর্তে একটা খবর পৌছে যাচ্ছে। পেড নিউজ, ফেক ভিডিও কি তা কিন্তু অধিকাংশ মানুষ জানে না...মোবাইলে ভেসে আসা ছবি খবরকে তারা বেদবাক্য হিসেবে ধরে নিচ্ছেন।
    এই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়েই আইকন গড়ে তোলা হচ্ছে।নরেন্দ্র মোদির ইমেজ এই সোশাল মিডিয়াতেই গড়ে তোলা হয়েছে।

    আজ আমার আপনার ফ্রেন্ডলিস্ট গাদা গাদা ফেক প্রোফাইলে ভরে গেছে। স্বাস্থ্য নিয়ে, শিক্ষা নিয়ে, অর্থনীতি নিয়ে প্রশ্ন তুললেই ধর্মীয় আইডেন্টিটি নিয়ে কূট তর্ক জুড়ে দেওয়া হচ্ছে। যেন ধর্ম ছাড়া আর কোন সমস্যা দেশে নেই। গোলপোস্ট সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। হিন্দু সংহতি হিন্দু নিরাপত্তাহীনতা নিয়ে নানান খবরে উদ্বিগ্ন বন্ধুটি হয়ত এই প্ররোচনায় পা দিয়ে ফেলেছে। বামফ্রন্টের ব্যর্থতা আর তৃণমূলের অপদার্থতা হয়ত তাকে বিজেপির দিকে ঝুঁকিয়েছিল কিন্তু সোশাল মিডিয়া তাকে মৌলবাদী বানিয়ে দিল!! তার রাগ হতাশা ঘৃণাকে অন্য একটি সম্প্রদায়ের দিকে ঘুরিয়ে দিয়ে দাঙ্গা করতে প্ররোচনা দিলো। এখানে একটা ভিডিও শেয়ার করলাম একটু দেখলে বুঝতে পারবেন বিজেপির সাইবার সেল কি ভাবে কাজ করে। কিভাবে ফেক নিউজ ছড়ায়।
  • বিভাগ : ব্লগ | ১০ এপ্রিল ২০১৭ | ১১৯ বার পঠিত
আরও পড়ুন
মার - Manash Nath
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • pi | 167.51.75.108 (*) | ১০ এপ্রিল ২০১৭ ০২:৩২59628
  • একেবারেই তাই।
  • dc | 132.174.123.151 (*) | ১০ এপ্রিল ২০১৭ ০৪:১৪59629
  • এইজন্যই আমি ফেবু ব্যাবহার করিনা। আমার ফেবু প্রোফাইলে একটাও বন্ধু নেই। একবার গুরুর ফেবুর মেম্বার হয়েছিলাম, সেখান থেকেও কদিন পর পালিয়েছি।
  • i | 147.157.8.253 (*) | ১০ এপ্রিল ২০১৭ ০৪:২২59630
  • সে তো আমিও ফেবু তে নাই। কিন্তু ওয়াট্স অ্যাপে তো এই সব মেসেজ আসতেই থাকে গ্রুপে। শিক্ষিত মানুষজন সেই সব নাগাড়ে শেয়ার করেন বিন্দুমাত্র চিন্তাভাবনা না করে। গ্রুপ ছেড়ে দেওয়া কোনো কাজের কথা নয় এখন। আগে হলে ছেড়ে দিতাম। এখন এরকম মেসেজ চোখে পড়লেই যিনি শেয়ার করছেন তাঁকে জিগ্যেস কোরি-তিনি কি ভেবে এটি শেয়ার করলেন? যা লেখা আছে তা তিনি বিশ্বাস করেন? করলে কেন? তিনি আদৌ মেসেজটি পড়েছেন? ইত্যাদি।
    কাজ হচ্ছে এখনও অবধি।
  • dc | 132.174.123.151 (*) | ১০ এপ্রিল ২০১৭ ০৪:৩৮59631
  • হোয়াটসঅ্যাপেও আমি খুব কম কয়েকটা গ্রুপের মেম্বার, একেবারে চেনা বন্ধুবান্ধব বা আত্মীয়দের গ্রুপ ইত্যাদি। হ্যাঁ, এরকম গ্রুপেও মাঝে মাঝে উদ্ভট মেসেজ চলে আসে, তখন আমিও সেটা নিয়ে রিপ্লাই দি। তবে সবরকম সোশ্যাল মিডিয়ায় ইন্টারয়াকশান যতোটা সম্ভব সীমিত রাখি।
  • কল্লোল | 233.186.121.192 (*) | ১০ এপ্রিল ২০১৭ ০৪:৫৩59632
  • কেউ ব্যক্তিগতভাবে ফেবু পছন্দ নাই করতে পারেন। কিন্তু তাতে বিপদ কমে না।
    এই ধরনের কিছু চোখে পড়লে তার প্রতিবাদ করুন। অন্তত এটুকু করুন।
  • pi | 167.51.75.108 (*) | ১০ এপ্রিল ২০১৭ ০৫:৩৫59633
  • ডিসি, দ্বার বন্ধ করে ভ্রমটারে রুখি, সত্য বলে আমি তবে ইত্যাদি ঃ)
  • dc | 132.174.123.151 (*) | ১০ এপ্রিল ২০১৭ ০৫:৪৫59634
  • :d
  • SS | 160.148.14.3 (*) | ১০ এপ্রিল ২০১৭ ১২:৩১59635
  • গুজব বা ফেক নিউজ কি করতে পারে এইবারের ইউএস ইলেকশনের অ্যানালিসিস করলেই বোঝা যাবে। যাই হোক, গুগল একটা ফ্যাক্ট চেকিং টুল ইনকর্পোরেট করছে সার্চ রেজাল্টের সাথে। আশা করছি ফেসবুকও খুব তাড়াতাড়ি এইরকম কিছু একটা করবে।
    https://www.theguardian.com/technology/2017/apr/07/google-to-display-fact-checking-labels-to-show-if-news-is-true-or-false
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খারাপ-ভাল মতামত দিন