• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • হরিপদ কেরানিরর বিদেশযাত্রা

    ঋক আর কিছুনা
    বিভাগ : ব্লগ | ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ৩৩ বার পঠিত
  • অনেকদিন আগে , প্রায় সাড়ে তিন বছর আগে এই গেঁয়ো মহারাজ , তখন তিনি আরোই ক্যাবলা , আনস্মার্ট , ছড়ু ছিলেন , মানে এখনও কম না , যাই হোক সেই সময় দেশের বাইরে যাবার সুযোগ ঘটেছিলো নেহাত আর কেউ যেতে চায়নি বলেই । না হলে খামোখা আমার নামে একটা আস্ত ভিসা হবার চান্স নেই এ তো আপনারা জানেনই । তুতলে তুতলে ইংরিজি বলি , কুতরে কুতরে কোড করি , সে হেন আমার বিদেশ যাত্রায় কলেজের সহপাঠী/পাঠিনী, দূর সম্পর্কের আত্মীয় প্রায় সামনা সামনি বলেই দিয়েছিলো , ওও বিদেশ যাচ্ছে ! সত্যি বিদেশ গুলোর আর জাত রইলো না। তা সত্যি বলতে সে কথা আমারও মনে হয়েছিলো , আমায় নির্ঘাত ঘুমের ঘোরে ভুল করে হ্যাঁ হ্যাঁ যাও বলে দিয়েছে, কিংবা আরেকটা কূট প্রশ্ন মাথায় ঘুরঘুর করছিলো , আচ্ছা আমার হাত থেকে বাঁচতেই হ্যাঁ হ্যাঁ ভাই তুই যা তো বলে দেয়নি তো? লজ্জার মাথা খেয়ে আমি অবশ্য আর কাউকে সে নিয়ে কিছু বলিনি ।
    যাক অবশেষে সে দিন সমাগত হয়েছে । আমি এর আগে এয়ারপোর্টেই যাইনি তো প্লেনে চড়া ! সুতরাং অনলাইন চেকিন জাতীয় কথাবার্তা আমার কাছে হিব্রু হবে স্বাভাবিক। আমার ফ্লাইটের দীর্ঘ সময় আগেই পৌঁছে গেছি , টেনশন বাপু আমি নিতে পারিনা। কি একখানা ফর্ম দিলো ফিলাপ করতে , অভিবাসন সংক্রান্ত না কি মনে নেই সত্যি বলছি । ফর্ম টা কোনো রকমে ফিলাপ করেছি অফিসারকে জিজ্ঞেস টিজ্ঞেস করেই , নিজের বিদ্যা বুদ্ধিতে পুরোটা করতে পারিনি সত্যি বলছি । যাকগে । কোন দিকে যাবো কি করবো তা তো তেমন বুঝিনা , তাও এদিক সেদিক জিজ্ঞেস করে কোনো রকমে উঠে নিজের সিটে বসেছি । সিটবেল্টটাও কপাল জোরে লাগিয়ে ফেলেছি । জানলা দিয়ে দেখতে পাচ্ছি কোলকাতা শহরটা আমার চেনা পরিবেশটা কেমন ছোট হতে হতে মিলিয়ে যাচ্ছে । মন খারাপ করছিলো না তেমন , উত্তেজিত বেশী ছিলাম বলেই এরপর কি হবে এরপর কি হবে জানার আগ্রহে । খেতে দিতে আমি সাগ্রহে খুলেছি, খুবই খারাপ টেস্টের খাবার দাবার ছিলো , যদিও সেটা ভারতীয় খাবারই এরপরের গুলো আরো সরেস । এ ফ্লাইটটা যাবে সিঙ্গাপুর তক । ওখান থেকে আবার প্লেন বদল ঘটবে, হংকংএ আরেকবার!! আপনারা যারা ফ্রিকোয়েন্ট ফ্লায়ার খুব খ্যা খ্যা করে হাসছেন জানি , কিন্তু এক ক্যাবলা আন্সমার্ট , গেঁয়ো ছেলের জায়গায় ভেবে দেখুন দিকি। আমার ইংরাজি যেমন শক্ত , ওদের ইংরাজিও তেমনই জটিল । সাইন ল্যাঙ্গুয়েজে কোনোরকমে তো ওয়াইফাই এর ডিটেইলস নেওয়া গেলো , বাড়িতে এট্টু খবর দিতে হবে , হোয়াটস্যাপ অত বহুল হয়ে ওঠেনি তখনো , আমার এক বন্ধুকে খবর দেবো সে আবার বাড়িতে । কোলকাতায় যথেষ্ট রাত হলেও তারা জেগেই আছে জানি । আশ্চর্য ব্যাপার ঠিক মতো পৌঁছেও গেলাম আমার নির্দিষ্ট প্লেনের সামনে । এরপর প্লেনে শুধু দুটো ঘটনাই বলব । এক, আমার কথা শুনেই বুঝেছেন , হিন্দু নন ভেজ সিলেক্ট করা আমার পক্ষে অসম্ভব জিনিস, ইনফ্যাক্ট জানতামই না অমন কিছু হয়, তাই , চিকেন বিরিয়ানি জোটেনি , জুটেছিলো ব্রকোলি সেদ্দ , আলু সেদ্ধ , পান্ডু রোগে মৃত ফ্যাকাশে ল্যাম্ব সেদ্ধ সহ একটা মিল , যা খেয়ে ব্রকোলি বিভীষিকা ঘটেছিলো আমার । আর দুই , আমার পাশের সিট ফাঁকা ছিলো , দিব্যি গুটিশুটি মেরে ঘুমাচ্ছিলাম , ঘুম থেকে উঠে দেখি আমার প্লেন টা মাঝ আকাশে স্থির হয়ে ভেসে আছে । মিনিটপনেরো পরেও একই জিনিস দেখে আমি আইল সিট এর ভদ্রলোককে জিজ্ঞেস করতে বাধ্য হই , প্লেন এরকম থেমে আছে কেন? না না আপনারা হাসবেন না , সিঙ্গেল লাইন ট্রেনে চড়ে আমার অভ্যেস , আমার পক্ষে এ প্রশ্ন কিচ্ছু অস্বাভাবিক না , হতেই পারে কিছু প্লেন পাস করার ব্যাপার আছে । উনি অবশ্য হাসেননি , হয়ত এরকম উজবুক দেখে অভ্যস্ত বা যে প্লেনে এরকম প্রায় সিটে উঠে ঘুমোতে পাররে তাকে না ঘাঁটানোই যুক্তি সম্মত মনে করেছিলেন । উনি বলে দিয়েছিলেন , যে ওটা ইলিউশন , আমরা এতো উপরে আছি খালি মেঘ দেখে অমন মনে হচ্ছে , আর তাছাড়া প্লেনের ভিতর ভাসমান অবস্থায় স্পীড বোঝা যাবে না স্বাভাবিক।
    এই যে মর্নিং শোজ দ্য ডে বলে , এই প্লেন যাত্রায় বোঝা গেছিলো আমি আরো এরকম অনেক ছড়াবো , আর এরকমই অনেক সহৃদয় লোক পাবো দূর দেশে । লস এঞ্জেলেস এয়ারপোর্টে নামার আগে নারকেল নাড়ু ডিক্লেয়ার করতে হবে কিনা এ সংকট থেকে এক ভদ্রলোক উদ্ধার করেছিলেন মনে আছে । এয়ারপোর্টে নেমে সারি সারি বাস ট্যাক্সির মেলায় আমি যখন লাগেজ নিয়ে দিশেহারা , আরেকজন আমায় বলে দিয়েছিলেন কোথা থেকে ক্যাব মেলে । আবার ক্যাবে উঠে যখন ঝাঁ চকচকে আকাশ (হ্যাঁ রাস্তার থেকে আগে আমার আকাশটাই চোখ টেনেছিলো) , দেখে হাঁ করে গিলছি , সেই ক্যাবচালকে আমার গন্তব্যস্থল জানিয়ে , উনিই আবার আমায় ফোন দিয়ে সাহায্য করেছিলেন , রুম্মেট কে জানিয়ে দিতে বলে ।
    তা তারপর তো সপ্তা দুই ল্যাজে গোবরে করে কাটলো , টাইম ম্যানেজমেন্ট জানিনা তখনো , কাজ কল মেল প্রাইয়োরাটাইজ করতে পারছি না , আটটায় কফি খেয়ে রান্নার জোগাড় করে রান্না বসিয়ে এগারোটায়টায় যখন চিকেন হুইসেল দিচ্ছে আমি তখন ইস্ত্রি টা কতটা গরম পরীক্ষা করবো কিভাবে ভাবছি ওদিকে ফোন বাজছে অফশোর কল করছে । সব মিটিয়ে এক্টায় ঘুমাতে গেছি , সাতটায় উঠে মনে পরেছে এই রে সাড়ে ছটায় তো কল ছিলো! এদিকে একটা পি ওয়ান ইস্যু! তারপর যা হয় , ধীরে ধীরে সব সামলে যায় সব অভ্যেস হয়ে যায় , সব কাজ এক্ষুনি করতে হবে না সেটা বুঝে যাওয়া যায় , লাঞ্চটা ভরে রেখে দিলে আগের রাত থেকে সকালে পনেরো মিনিট সেভিংস টা বুঝে নেওয়া যায় ।
    তারো অনেকদিন পর নীচের লেখাটা লিখেছিলাম , একদিন।
    আমি যে রাস্তাটা দিয়ে রোজ হেঁটেহেঁটে অফিস যাই সেই রাস্তাটা এখন দোটানায় পড়ে গেছে সেজে উঠেবে না বিবাগী হবে । লাল হলুদ সবুজ গাছের সারি দিয়ে সাজতেও ইচ্ছে আবার সব ছেড়ে ফেলে চলে যাওয়ার বাসনাটাও কম নয়। দূর পাহাড়ের চুড়য় বরফ জমা শুরু হয়েছে। আমার এই দেশে প্রথম শীত । আর আমি বেজায় শীত কাতুরে। তাই একটু ভয়ে ভয়েই আছি। কিন্তু এমন মন ভালো করা দৃশ্য দেখলে ভয়টাও থমকায়। শীতের হাওয়া অগ্রাহ্য করে আমি রোজ লাঞ্চ এর সময় বাইরেটা বসি।দেখি হলুদ হয়ে যাওয়া গাছ গুলো কেমন গালিচা পেতে দিচ্ছে আর একটু একটু করে কেমন নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছে । মোটে সাত মাস দেশের বাইরে, এখনও কথায় কথায় মন খারাপ করে।
    কিছুদিন আগে রকি মাউন্টেইন গিয়েছিলাম। বড্ড ভালো লেগেছিল। গাছের ছায়ার ফাঁকে রোদ্দুর , ঝর্নার জলের আওয়াজ, পাখির ডাক ছাড়া আরকোন আওয়াজ নেই। গিয়েছিলাম যাদের সাথে তাদের থেকে আলাদা হয়েগিয়েছিলাম মাঝখানে। এইসব জায়গাএ গিয়ে অনর্থক বকবক করতে ভালো লাগে না ।ইচ্ছে করে চুপটি করে সারাদিন বসে থাকি। অবশ্য বসে থাকা হয়নি। দলের বাকিরা খুজে পেয়ে গেলো।
    তারপর হাইকিং , উফফ আর পারা যাচ্ছে না আর কত দূর করতে করতে পৌছলাম একটা লেকের ধারে , ছায়া ঢাকা , নীল রোদ মেখে শুয়ে আছে ।চড়াই উতরাই করতে করতে হটাৎ চোখ জুড়নও হ্রদ দেখলে প্রানের ভিতরে বেশ আরাম হয় আর আমি এমনিতেই জল পাগলা।
    এদেশ তা আমার কাছে এখনও কেতাওয়ালা রেস্টুরান্ট এর মত। দারুন ঝকঝকে দারুন সাজপোশাক পরা লোক এসে খাবার সাজিয়ে গেলো। নিয়ম মেনে খেয়ে চলে এলাম। আর আমার দেশটা প্রচণ্ড খিদের মুখে আমার মাএর বেড়ে দেওয়া খাবার এর মত। গরুর রচনা টাইপ উদাহরন দেখেই বুঝছেন আমি পেটুক মানুষ। আর এই সাত মাস নিজের হাতের রান্না আমায় পেটুকশ্রেষ্ঠ করে তুলেছে খাবার এর কথা শুনলেই চোখ কান সজাগ হয়ে যায় , কেউ যদি ভদ্রতা করেও বলে আসিস একদিন আমাদের বাড়ি , আমি ক্যালেন্ডার বের করে বলি কবে বলোতো, তারিখটা নোট করে নিই।
    দুর্গা পুজোর দিন গুলো আর তার আগের সেই পুজো আসছে পুজো আসছে দিনগুলো তো এখানে বেজায় খারাপ ভাবে কাটল। পুজর গন্ধটাই পেলাম না । পূজোর প্রায় ১০ দিন পর টিকেট কেটে পূজো দেখতে গেছিলাম। সে বেজায় ঘটনাবহুল ব্যাপার। আমি একবন্ধু দম্পতির সাথে গিয়েছিলাম। তারা বেজায় চটে গেছে, তাদের আমার বাবা মা ভেবেছে বলে। স্বাভাবিক আমার মত ধেড়ে বাচ্ছার বাবা মা ভাবলে চটাই উচিত। আমি অবশ্য যতটা বিব্রত হওয়া উচিত ছিল ততটা হতে পারিনি। কারন সেই আবার খাওয়া। আমায় ওনারা কিড মিল খেতে ডাকছইলেন বারবার। আর আমি পূজর দিন কাউকে দুখু দিতে নেই এই আপ্তবাক্য স্মরণ করে বাচ্ছাদের এবং নিজের মনে দুঃখ দিতে নেই বলে বড়দের খাবার দু্টোই সাটাতে ব্যাস্ত হয়ে পড়ায় অন্যদিকে মন দিতে পারিনি। তবে দুগগা ঠাকুর দেখে ঢাক বাজিয়ে আর বিচিত্রানুষ্ঠান দেখে দুটো দিন মন্দ কাটেনি। কলকাতা বা বাড়ির পূজোর ধারে কাছে আসে না ত বটেই তবে নাই মামার চেয়ে কানা মামাই মন্দ কি।
  • বিভাগ : ব্লগ | ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ৩৩ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • munia | 172.229.184.102 (*) | ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৫:১৪59280
  • খুব ভালো লাগল! হাসলাম আবার পুজো আসছে তাই বিদেশের প্রথম পুজোর কথা মনে করে গলার কাছটা কেমন টনটনিয়ে উঠলো।
    আপনার লেখা শেয়ার করতে পারি?
  • ঋক আর কিছুনা | 113.77.47.194 (*) | ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৬:১৬59281
  • নিঃসন্দেহে পারেন । অনেক ধন্যবাদ , আর সত্যি বিদেশের প্রথম পুজোটা ...। :'(
  • ঋক আর কিছুনা | 113.77.47.194 (*) | ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৬:১৮59282
  • গাদাগুচ্ছের বানান ভুল করেছি লেখাটায় , তাই যারা পড়বেন ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি , এখানে কারেক্ট করাও যায় না আর।
  • Munia | 172.229.184.102 (*) | ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০১:৪২59287
  • নিশ্চয়ই, পাই দেবী :)
  • pi | 57.29.232.208 (*) | ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০২:০৫59284
  • দিব্বি লাগলো ঃ)
  • pi | 57.29.232.208 (*) | ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৩:০৮59285
  • মুনিয়াদেবী, পেস্ট করলে একটু লিন্কটাও দিয়ে দেবেন। এটাতো এই সাইটের ব্লগের লেখা।
  • ঋক আর কিছুনা | 113.77.47.194 (*) | ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৩:৩৬59286
  • থ্যাংকু পাইদি :)
  • Biplob | 236712.158.780123.135 (*) | ০৩ জানুয়ারি ২০২০ ০৭:৪৯59288
  • Can I share this in mu Blog <a href=" Mornings Images</a> if you permit me then i should be share this in my blog
  • Biplob | 236712.158.780123.135 (*) | ০৩ জানুয়ারি ২০২০ ০৭:৫০59289
  • Can I share this in mu Blog If you permit me then i should be share this in my blog
  • Sagor | 236712.158.780123.135 (*) | ০৩ জানুয়ারি ২০২০ ০৭:৫৩59290
  • আমি কি এই লেখ গুলা আমার ব্লোগে সেআর কোরতে পারি । হ্ত্ত্প্সঃ//্ব।গূদ্মোর্নিন্গ্সিমগেস।োম/২০১৯/১০/অন্গ্ল-ইর্থ্দয়-ইশেস-।হ্ত্ম্ল
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • গুরুর মোবাইল অ্যাপ চান? খুব সহজ, অ্যাপ ডাউনলোড/ইনস্টল কিস্যু করার দরকার নেই । ফোনের ব্রাউজারে সাইট খুলুন, Add to Home Screen করুন, ইন্সট্রাকশন ফলো করুন, অ্যাপ-এর আইকন তৈরী হবে । খেয়াল রাখবেন, গুরুর মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হলে গুরুতে লগইন করা বাঞ্ছনীয়।
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত