বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • আমার স্বাধীনতা দিবস 

    Manab Mondal লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৫ আগস্ট ২০২২ | ৮৪ বার পঠিত
  • আমি ভুলেই গিয়েছিলাম আজ আমাদের স্বাধীনতা দিবস। হঠাৎ আমার এক পাকিস্তানি বন্ধু Happy Independence Day বলে জরিয়ে ধরলো। তখন মনে পড়লো আজ স্বাধীনতা দিবস। তারপর যখন ঘরে এসে মোবাইলটা ঘাটলাম। তখন দেখলাম একদল লোক, নিজেদের ডিপিতে ভারত পতাকা ছবি দিয়েছেন। আরেক দল লোক কিছু দেশপ্রেমিক এর ছবি দিয়েছেন। আর একজন দেখলাম লিখেছেন, ডিপি বদলে স্বাধিনতা দিবস পালন করে লাভ নেই , শাষক বদলাও আসল স্বাধীনতা পেতে।
    বুঝতে অসুবিধা হলো না দেশের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন নিয়ে রাজনৈতিক দল গুলো , শক্তি পরীক্ষা খেলায় মেতে উঠেছে। তবে আমি ঠিক এখন আর এই রকম ভাবে স্বাধীনতা দিবস কিংবা প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করতে উৎসাহিত হতে পারি না মন থেকে । তবে ছোট বেলায় হতাম। কারণ পতাকা তোলার পর , জিলিপি খাওয়ানো হতো যে।
     
    কিন্তু সব আসতে আসতে বদলে গেলো।দোলন দিদি মুনি আসার পর সব বদলে গেলো আসলে। অঙ্কের শিক্ষক হিসাবে এসেছিলো। কিন্তু ইতিহাস, ভুগোল, সাহিত্য সব পড়াতো। ও কখন গল্পের ছলে আমাদের সিলেবাসের পড়া গুলো শিখিয়ে দিতো। আবার সিলেবাসের বাইরে জিনিস পড়াতো। আমাদের গ্রামের লাইব্রেরী টা দিদিমণি সাজিয়ে তুলেছিল। আমি উচ্চ মাধ্যমিক দেওয়া পর ও জোর করে শহরে পাঠিয়েছিলো। আমাকে শহরে পড়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছিল। কিন্তু ওর বিপদের সময়, আমরা কেউ ওর পাশে দাঁড়াতে পারে নি। ওর অপরাধ ছিলো, আমাদের জঙ্গলটা ও অভয়ারণ্য হিসেবে ঘোষণা করার আবেদন করা। ও গ্রীন ট্রাবুন্যালের কাছে বারবার আবেদন করেছিল জঙ্গলটাকে অভয়ারণ্য ঘোষণার জন্য। তাই প্রথমে অস্ত্র পাওয়া গেছে বলে ওকে গ্রেফতার করা হয় । পরে বলা হলো, ও দেহব্যবসা করতো। ও জেলের মধ্যে আত্মহত্যা করেছিলো। দিনটা আমি ভুলি নি। কারণ ঐ দিনটা দিদি মুনির অনুরোধে আমি শেষবারের মতো গ্রামে স্বাধীনতা দিবস পালন করছিলাম, গ্রামের বাচ্চাদের নিয়ে। আমরা চেষ্টা করেলে হয়তো স্বীকৃতি পেয়ে যেতো আমাদের জঙ্গলটা ও অভয় অরন্য হিসাবে। তবে তাহলে তো আমার আর বিদেশে আসা হতো না। এরকম লাইফস্টাইল থাকতো না।
    আজ আমাদের জঙ্গলে অনেক রিসোর্ট হোটেল হয়েছে। আমরা আমাদের জমি বেচে বিদেশে আসতে পেরেছি আরকি চাই। আপনি বলবেন অভয়ারণ্য হওয়াটা জরুরী ছিলো। কিন্তু অভয়ারণ্য হবে না হবে সেটা ঠিক করে বড় বড় কর্পোরেটরা। উদাহরণ চাই।
    এই কয়দিন আগে মহারাষ্ট্রে একনাথ সিন্ধে মুখ্যমন্ত্রী হয়ে প্রথম যে অর্ডারটা দিয়েছে, -- মুম্বইয়ের ২০০০ একর এর "আরে বনাঞ্চল"-এই মেট্রোর কারশেড হবে। আরে-র আদিবাসী এবং মহারাষ্ট্রের পরিবেশপ্রেমী মানুষদের দীর্ঘদিনের প্রতিবাদের ফলে ২০২০ সালের অক্টোবরে মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব আরের ৮০০ একর -কে "সংরক্ষিত বনাঞ্চল" বলে ঘোষণা করে, এবং মেট্রো কারশেড প্রকল্প সেখান থেকে সরিয়ে নিয়ে যায়। উল্লেখ্য, আরের বনাঞ্চলে শুধু কারশেড নয়, প্রাইভেট শহর (রেসিডেন্সিয়াল কমপ্লেক্স, এয়ারপোর্ট ইত্যাদি নিয়ে) হবার পরিকল্পনা ছিল। মেট্রো কারশেড হলে সেসব হবার জট খুলত। আরের ৮০০ একর "সংরক্ষিত বনাঞ্চল" ঘোষণা করে দেবার ফলে সে গুড়ে বালি পড়ে। তাই হয়তো সরকার বদলে গেলো।
    দোলন দিদিমণি তাই হয়তো সেদিন দেহ ব্যাবসায়ী বদনাম নিয়ে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছিলো। কারণ ও প্রতিটা পদক্ষেপ অসাধু ব্যবসায়ীদের বিপদে ফেলছিলো। তাই আমি স্বাধীনতা দিবস পালন করি না কারণ এদেশে স্বাধীনতা আমাদের জন্য নয় ।
    গত পাঁচ বছরে কর্পোরেট লোন মুকুৰ (written off) হয়েছে বার্ষিক ২ লক্ষ কোটি টাকা করে। মুকুব হবার অপেক্ষায় প্রতি বছর জমছে এর প্রায় পাঁচ গুণ করে বাজে লোন (MPA) ।2022 সালের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যবাজেট ৮৬ হাজার কোটি, শিক্ষাবাজেট ১ লক্ষ কোটি, বিদ্যুৎত্ৰাজেট ১৬ হাজার কোটি, কৃষিবাজেট ১.৩ লক্ষ কোটি, টেলিকম বাজেট ৮৫ হাজার কোটি, ক্রীড়াবাজেট ৩ হাজার কোটি, পরিবেশবাজেট ৩ হাজার কোটি টাকা। তাহলে হিসেবে করে দেখুন প্রমানিত হবে খুব সহজেই আপনার আমার চেয়ে সরকার চোখে, আম্বানিরা অনেক বেশি গরীব। 
    এদেশে চোর নেতাদের জন্য ছাত্ররা পথে নামে। কিন্তু দোলন দিদিমুনি বাঁচাতে, কোন ছাত্র এগিয়ে আসে না।,,,,
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। না ঘাবড়ে মতামত দিন