ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • তোলা জলে পোলা বাঁচে না

    Bhudeb Sengupta লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৩ জুন ২০২২ | ৫২৬ বার পঠিত
  • মা-বাবার সূত্রে আমি তো পূর্ববঙ্গীয়। যদিও আমরা ভাইবোনেরা জন্মেছি, বড় হয়েছি, সব স্বাধীন ভারতবর্ষে। ছোটবেলা থেকে বাড়িতে মার কাছে ও অন্যান্য বড়দের থেকে অনেক পূর্ববঙ্গীয় প্রবাদ বাক‍্য ও চলতি কথা শুনে বড় হয়েছি। মনে হয় সব এক জায়গায় লিখে রেখে গেলে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম আমাদের সময়ে সমাজ কেমন ছিল, সে যুগের রীতিনীতি কেমন ছিল তার একটা ধারণা পাবেন। এখন তো যুগ অনেক এগিয়ে চলেছে। হয়ত যুগের সাথে তাল মিলিয়ে অনেক প্রবাদ আর থাকবে না।

    যেমন ধরুন: ওঠ ছেমড়ি তোর বিয়া। আগে এই কথাটা কোন মেয়ের হঠাৎ বিয়ে ঠিক হলে শোনা যেত। এখন মেয়ের বা ছেমড়ির অমতে ওমন বিয়ে ঠিক করে একবার দেখুন না। 

    যাই হোক প্রথমেই বলি মার মুখে বহুবার শোনা প্রবাদ : জন জামাই ভাগনা, কেউ নয় আপনা। বোঝাই যাচ্ছে এটাই আমাদের সংসারে সার কথা। সেদিনও। আজও। ভবিষ্যতেও। ছোটবেলা থেকে এই প্রবাদের মর্মকথা আত্মস্থ করতে পারলে বড় হয়ে আর অকারণ দুঃখ পেতে হয় না।

    এরপরে যেটা খুব শুনেছি সেটা হয়তো প্রবাদ নয় তবে পূর্ববঙ্গীয় উচ্চারণে বেশ চালু কথা। আমাদের অনেক আত্মীয়দের মামাবাড়ি সমন্ধে বলতে শুনেছি: মামাবাড়িতে খাইছি কি, শুধু ডাইল (ডাল) আর গাইল (গালি বা গাল)।  কথাটি আবার রুঢ় বাস্তব নিয়ে ধারণা দেয়। অর্থাৎ তুমি যাই করো না কেন কেউ মনে রাখবে না। মনে রাখবে খালি ঐ ডাইল আর গাইল।

    মা একটা প্রবাদ খুবই বলতেন: কুকুর বসে স্বর্ণ খাটে, লাফ দিয়ে কুকুর বিষ্ঠা চাটে। অর্থাৎ অযোগ্য লোকদের তুমি যতই মাথায় তোল না কেন সে ঠিক আপনার উপযুক্ত নীচু কাজ সুযোগ পেলেই করবে। তাই অযোগ্যকে বড় দায়িত্ব দেওয়ায় আগে ভেবে দেখ।

    এরকমই একটি কথা: বান্দরের হাতে তলোয়ার। ঐ প্রাণীর হাতে তলোয়ার দিলে যা হয় আর কি। নিজের নাকটা বিনা কারণেই কাটা যেতে পারে। এখানেও সেই অযোগ্য লোককে দায়িত্ব না দেবার কথা স্মরণ করিয়ে দেওয়া আছে।
       
    এবারে একটি মজার কথা: মোটে মায় রান্ধে না, তার আবার তপ্ত আর পান্তা। মানে পরিস্কার জনৈক গৃহবধূ প্রায় কিছুই রাঁধেন না, তার রান্নার আবার গরম ঠান্ডা বা তপ্ত পান্তার আর কি আছে! মোটামুটি কিছু হলেই চোদ্দ পুরুষের উদ্ধার হয়ে যায় আর কি। আধুনিক যুগে এমন অনেক ঘরেই পাবেন। সবাই সুইগি জম‍্যাটো ইত্যাদির ভরসায় চলছে।

    আমাদের ছোটবেলায় রাত নটার সময় এন বিশ্বনাথন মহাশয়কে দূরদর্শনে ইংরেজী খবর পড়তে দেখতাম। মা তার খবর পড়া শুনে বলতেন: পন্ডিত মশাই শুদা চন্ডীমন্ডপ পাইয়া চন্ডী পড়ে ভটভটাইয়া। এই বিবরণ এতটাই বাস্তবনিষ্ঠ যে যারা দূরদর্শনে এই সংবাদ পাঠ নিয়মিত দেখতেন তারা মনে করতে পারবেন। একেবারেই খাঁটি বর্ণনা আর কি। 

    অনেক কে বলতে শুনেছি - পুঁটি মাছ খাইয়া ইলিশের ঢেকুর তোলোস ক‍্যান? এর অর্থও পরিস্কার। অকারণে হামবড়াই করা অনেকের স্বভাব। লোকের কাছে সেটা কিন্তু ঠিকই ধরা পরে যায়।

    কথা ক্ষণেও ফলে অক্ষণেও ফলে। এর অর্থ হলো কোন কথা কখন ফলে যাবে তার আর ক্ষণ নেই। তাই কুকথা না বলাই উচিৎ। 

    এক প্রতিবেশীদের মুখে খুব বলতে শুনেছি: একি আর তোমাগো আমগো ব‍্যাপার! এর অর্থ জনৈক বড় পরিবারে যা হচ্ছে তা তোমার আমার সাধ‍্যের বাইরে। ওসব বড়লোকের ব‍্যাপার সাপার। এর মধ্যে একটু সূক্ষ্ম খোঁচাও আছে। প্রতিবেশী খোঁচা দিয়ে দিলেন আমাদেরও অবস্থা সমন্ধে। তা আপনার ভালো লাগুক বা না লাগুক। 

    কিছু আত্মীয়ের বাড়ি অনেক দূরে হলেও (যেমন শেওরাফুলি, কোন্নগর ইত্যাদি) এবং আপনার একরাত্রি তাদের বাড়ি উজিয়ে গিয়ে থাকার ইচ্ছে থাকলেও, তাদের বাড়ি গিয়ে অবধারিত ভাবে শুনবেন:  তোরা তো আবার আজকেই চইলা যাবি। এমন লোকদের সমন্ধে গুরুজনদের নবদ্বীপের ভদ্রতা কথাটা খুবই ব‍্যাবহার করতে শুনেছি। কারণটা জানি না যদিও।  

    যদি শিশু মাতৃদুগ্ধ না পায় তাহলে তার বেঁচে থাকাই মুশকিল। অযত্নে ঠিক মতো বেঁচে থাকার কষ্ট নিয়ে পূর্ব বঙ্গীয় বচন: তোলা দুধে পোলা বাঁচে না। একেবারেই অমোঘ।

    অভিমান হলে বড়দের বলতে শুনেছি: আপনের থেকে পর ভালো, পরের থেকে জঙ্গল ভালো। এও তো একেবারেই খাঁটি উপলব্ধি।

    কিছু লোক আছে সংসারে যারা চোরকে বলে চুরি করতে আর গৃহস্থকে সজাগ থাকতে। এমন লোকদের বিশ্বাস কখনই করতে নেই। একটি কথা খুবই শুনেছি: হগল থুইয়া ----- চন্দন।  অর্থাৎ সব জায়গা ফেলে শরীরের এক বিশেষ জায়গায় চন্দন ঘষলে কি আর হবে? একটু স্ল‍্যাং জাতীয়, তবে অর্থ বুঝাতে মোক্ষম আর কি।

    হাগুন্তির দোষ নাই দেখুন্তির দোষ - এও মোক্ষম।  কেউ খারাপ কাজ করলে তার দোষ নেই, দোষ হলো তার যার চোখে ঐ ফষ্টিনষ্টিটা বা অসংগতিটা  ধরা পড়ল। এই ঘটনা তো হামেশাই হচ্চে।

    দুদিনের যোগী ভাতরে কয় অন্ন - একটু অবস্থা ফিরলেই পুরানো কথা পুরানো অবস্থা লোকে  ভুলে যায়।

    বরের ঘরের মাসী, কনের ঘরের পিসি - এই কথাটা অনেক শুনেছি। এমন আত্মীয়স্বজন ছিলেন যারা বর কনে দুদিকেই আত্মীয় সম্পর্কে ছিলেন।

    ভাগের মা গঙ্গা পায় না - এও এক নির্মম সত‍্য। অনেক মা শেষ বয়সে এই ছেলের বাড়িতে দুই মাস ঐ মেয়ের বাড়িতে একমাস করে কাটাতে বাধ‍্য হন। ভাগের মা হলে এই নিয়তি।

    চোরা না শোনে ধর্মের কাহিনী - এও এক চিরন্তন সত‍্য। যিনি দুষ্ট লোক তাকে ধর্ম কথা শুনিয়ে লাভ নেই। তার মন সততই অধর্মের দিকে।

    ছালাইনগা পাঁঠা - এই কথাটি খুব শুনতাম। মানে ছাল ছাড়ানো পাঁঠার মতো। এমনিতেই পাঁঠা বোকা। ছাল ছাড়ালে তার শেষ লাজ লজ্জা আব্রুও গেল আর কি। কেউ চরম নির্বোধ হলে গুরুজনদের এই কথাটা রেগে গিয়ে বলতে শুনেছি।

    যৌথ পরিবারে যিনি সব ঝামেলা সামলাতেন তাদের বলতে শুনেছি: আমি কি মাথা বাইন্দায় আইসি। অর্থাৎ সব ব‍্যাপারই আমাকেই সামলাতে হবে নাকি। আমি কি বলি প্রদত্ত !

    গোবরে পদ্মফুল - গরীব ঘরের সুন্দরী কন‍্যের জন‍্য কথাটি বেশি ব‍্যাবহার হত।

    শেষ করি এই প্রবাদটি দিয়ে। বেশী বাড় বাড়িস না পরে যাবি ঝড়ে। এ এক চিরন্তন  সত‍্য । অবস্থা বুঝে না চললে কোনোদিন পতন অনিবার্য। সদাশয় বন্ধু ও পাঠকেরা নিশ্চিতরূপে এই কথাটি সবাই মনে রাখবেন।

  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • শুভাশীষ রায় | 63.152.36.19 | ১৩ জুন ২০২২ ২০:০৫508966
  • বেশ ভালো লাগলো, পুরোন বাংলা প্রবাদ নিয়ে এই রসসিক্ত রচনা।
  • সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায় | 2402:3a80:1cd3:e62c:478:5634:1232:5476 | ১৩ জুন ২০২২ ২০:০৬508967
  • এক্কেরে ফাটাইয়া দিসো । 
  • Bhudeb Sengupta | ১৩ জুন ২০২২ ২০:০৮508968
  • চিত্র : From ইন্টারনেট 
  • Bhudeb Sengupta | ১৩ জুন ২০২২ ২০:০৯508969
  • ধন্যবাদ বন্ধুরা। সবাই ভালো থাইক আর কি।
  • Bhudeb Sengupta | ১৩ জুন ২০২২ ২০:২৪508970
  • যে প্রবাদ টি শিরোনাম হয়েছে সেটির সঠিক প্রয়োগ : তোলা দুধে পোলা বাচেনা। একটু বিস্মরণ হয়ে গ্যাছে।
  • সমীরা সাহা মুস্তাফী | 2402:3a80:1982:1a0d:3770:21d1:606d:fed3 | ১৩ জুন ২০২২ ২১:৩৪508973
  • যার কাজ তারে সাজে_এটা প্রমাণিত।
  • Bhudeb Sengupta | ১৩ জুন ২০২২ ২১:৫৯508975
  • ঠিক কথা
  • Abira Dasgupta | 49.128.165.6 | ১৩ জুন ২০২২ ২৩:০৯508977
  • Khub bhalo laglo .Chotobelar ei kothagulo aj bujte pari koto molyaban.
  • Mausumi Sen | 2401:4900:3825:4a2:1:1:4cd7:576b | ১৩ জুন ২০২২ ২৩:০৯508978
  • দারূন হয়েছে! কতকি মনেপড়ে গেল !
     
  • Bhudeb Sengupta | ১৩ জুন ২০২২ ২৩:১৪508979
  • ধন্যবাদ জানাই
  • Dishery Malakar | ১৩ জুন ২০২২ ২৩:২৭508980
  • শুদা মানে কী?
  • Bhudeb Sengupta | ১৩ জুন ২০২২ ২৩:৩২508982
  • খালি বা ফাকা হবে মনে হয়। 
  • সমীরা সাহা মুস্তাফী | 2402:3a80:1982:5c89:2466:5f6b:1ee4:d90b | ১৬ জুন ২০২২ ১০:০০509057
  • আমার আগের মন্তব্য টা বোধহয় বোঝাতে পারিনি। 
    আমি লেখকের সুন্দর লেখাটি পড়েই  তার উদ্দেশ্যেই বলেছি প্রবাদ টা। সঠিক ব্যক্তির সঠিক উপস্থাপনা।অনেক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। আরো লেখার প্রতীক্ষায় রইলাম।
     
     
  • Bhudeb Sengupta | ১৭ জুন ২০২২ ০১:৫২509082
  • ধন্যবাদ বন্ধু। ভালো থেকো।
     
  • Snehasish Gupta | 223.191.57.104 | ১৭ জুন ২০২২ ১১:৫৬509090
  • এই সব অনেক কথা আমার বাবা মা থেকে শুনেছি .
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা খুশি প্রতিক্রিয়া দিন