ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • সৌপ্তিক কান্ড - ১০ 

    Anjan Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৭ মে ২০২২ | ১৮২ বার পঠিত | রেটিং ৪.৫ (২ জন)
  • কলতান  দীপ্সিতাকে নিয়ে গিয়ে স্থানীয় থানায় একটা জেনারেল ডায়েরি করালো। দেখা গেল ও সি মোহন সিং কলতান গুপ্তর নামের সঙ্গে ভালভাবেই পরিচিত। কলতানকে অবশ্য এই প্রথম চোখে দেখল সে । যথেষ্ট সম্মান দেখাল কলতানকে । 
    ----- ' আপনি চিন্তা করবেন না ..... কয়েক ঘন্টার মধ্যে ট্রেস করে ফেলব ...... ' মোহন সিং-এর স্বর আত্মবিশ্বাসী ।
    ------ ' নো স্যার .... ইট ডাসনট সিম টু বি অল দ্যাট ইজি ..... এদের কাছে অনেকগুলো সিম থাকে । ইটস দেয়ার ইরোটিক প্লেজার টু স্টক দা গার্লস ....' 
    ----- ' হ্যা .... সেটা অবশ্য ঠিক কথা .... '
    ------ ' ঠিক আছে ..... আপনাকে জানিয়ে গেলাম ..... যা করবার আমিই করব  । আপনাদের ডাকলে যেন পাই .... আপনাদের হেল্প ছাড়া তো কিছু করতে পারব না .....  '
    ----- ' এত বলতে হবে না মিস্টার গুপ্ত । এটা আমাদের ডিউটি ..... ইউ ক্যান রেস্ট অ্যসিওরড ..... '
    দীপ্সিতাকে বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে কলতান বাসরাস্তার দিকে বাইক চালাচ্ছিল । সামনে দেখতে পেল স্বস্তিক আর একটা মেয়ে যাচ্ছে, জিন্স আর টি শার্ট পরা । পিছন থেকে বেশ স্মার্ট লাগছে ।  এ..ই বোধহয় রুদ্রা, স্বস্তিকের বান্ধবী ।  আজ রবিবার ছুটির দিন । জায়গাটা স্বস্তিকের পাড়া থেকে বেশ খানিকটা দূরে । দুজনে মগ্ন হয়ে কথা বলতে বলতে যাচ্ছে । পিছন থেকে দেখেও স্বস্তিককে বেশ চিন্তান্বিত মনে হচ্ছে । চিন্তাগ্রস্ত মানুষের হাঁটার ছন্দ    অবিন্যস্ত হয় । সে স্বস্তিককে ডাকল না। পিছনে দূরত্ব আর একটু বাড়িয়ে নিল । তারপর কি মনে হল রাস্তার একপাশে বাইক দাঁড় করিয়ে মোবাইল বার করে স্বস্তিকের নম্বর ছুঁয়ে দিল । স্বস্তিক চলতে চলতেই ফোন ধরল । 
    ------ ' হ্যা .... হ্যালো স্যার ...... কোথায় আপনি ? বলুন ..... '
    ----- ' না, এমনি একবার ফোন করলাম .... তোমরা সব ঠিক আছে তো ? '
    ----- ' হ্যা .... এমনি ঠিক আছি ..... তবে ....'
    ----- ' তবে কি ? '
    ----- না .... তেমন কিছু না ... আপনাকে বলতে খারাপ লাগে .... পেটি ব্যাপার .... '
    ------ ' না না .... তদন্তের ব্যাপারে এভরিথিং কাউন্টস ইউ নো .....অবশ্য খুব পার্সোনাল ইসু হলে আলাদা কথা .... '
    ----- ' না স্যার.... পার্সোনাল ইসু হলেও আপনাকে বলতে কোন অসুবিধে নেই ..... এখন আমি একটু বাইরে আছি । একটু পরে আপনাকে ফোন করছি .....'
    ------' বেশ ....তাহলে ঘন্টা দুই পরে ফোন করো।'
    ----- ' ঠিক আছে স্যার  .... '
    রুদ্রা জিজ্ঞাসা করল, ' কে ? '
    ----- ' কলতান গুপ্ত ..... '
    ----- ' তাই নাকি ? '
    ------ ' অভিষেকের ব্যাপারটা জানাব ? আমার আর ভাল লাগছে না । '
    ----- ' জানাও ..... কিন্তু এত ট্রাইফল ব্যাপার ....... ঠিক আছে, বলতে পার .... '

      কলতান এবার ওখান থেকেই অভিষেক পালকে একটা ফোন করল ।  ফোন বেজে যেতে লাগল । অবশেষে শোনা গেল ----' আপনি যে নম্বরে ফোন করছেন সেই ব্যক্তি এখন উত্তর দিতে পারছেন না '

     কলতান বাড়ি ফিরে আসার প্রায় আধঘন্টা পর স্বস্তিকের ফোন এল । 
    স্বস্তিক সবিস্তারে অভিষেকের রুদ্রাকে জ্বালাতন করার ব্যাপারটা জানাল ।
    ------ ' এটা এমনিতে কোন কগনিজেবল ম্যাটার নয় । তবে গোয়েন্দাদের মন তো সন্দেহে ভরা । তাই এ ব্যাপারটাও বিবেচনার মধ্যে রাখলাম । কি করব .... সবকিছুতে সন্দেহ করাই তো আমাদের কাজ । হুঁ .... যেটা বলছিলাম .... তোমরা এখন কিছু করো না । কখন কি করতে হবে আমি বলে দেব । আমি বলবার পরেই করবে  .... ঠিক আছে ? '
    ------ ' ঠিক আছে স্যার ..... জানাবেন .... '

      মৃদুলের সঙ্গে সন্ধেবেলায় বাজারের ঠিক সামনে দেখা হয়ে গেল অভিষেকের ।
    ------ ' কিরে ....কোথায় থাকিস ? তোর তো দেখাই পাওয়া যায় না  .... ' মৃদুল বলে ।
    ----- ' আর বলিস না ..... ভীষণ বিজি ছিলাম কিছুদিন ..... '
    ------ ' কেন .... কি ছিল ? '
    ------ ' এ..ই ব্যবসার কাজ , বাড়ির কাজ ..... সব মিলিয়ে ...বিশ্রী অবস্থা .....'
    ------ ' অ ..... এর মধ্যে স্বস্তিকের সঙ্গে দেখা হয়েছিল নাকি ? ' 
    ------ না না । বললাম না , একদম সময় পাচ্ছি না ..... '
    ----- ' রুদ্রার সঙ্গে কথা হয়েছে নাকি ? ' মৃদুল আলটপকা ছুঁড়ে দেয় ।
    চমকে ওঠে অভিষেক ।  ঠিকরে ওঠে প্রতিক্রিয়া।
    ------ ' রু ..দ্রা !  মানে, স্বস্তিকের ...ইয়ে .... ওর সঙ্গে আমার কথা হতে যাবে কেন  ? আজব কথা ! কি যে বলিস ..... '
    ------ ' না ... এমনি বললাম ..... চেনশোনার মধ্যে খোঁজখবর তো লোকে নিতেই পারে ....'
    ------ ' ওর সঙ্গে আমার চেনাই বা কি আর  শোনাই বা .... কেন বলতো ... তোকে কেউ কিছু বলেছে ? ' অভিষেক উল্টো চাপ দেয় ।
    ------ ' আরে  না না ..... আমাকে কে কি বলবে !
    মনে হল তাই জিজ্ঞেস করলাম । আচ্ছা .... চলি রে এখন ..... কাজ আছে .... '
    যাবার আগে মৃদুল পরিষ্কার লক্ষ করল অভিষেকের মুখে কঠিন আস্তরণ পড়ল । মৃদুল চলে যাবার পরেও সে ওখানে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে কি সব ভাবতে লাগল ।
    দুদিন পরের কথা । ঠিক দুপুরবেলা । রুদ্রা ইউনিভার্সিটির ক্যান্টিনে । ইংরেজি এম এ-এর 
    জনা ছ সাত মিলে আড্ডায় মজেছে । এই সময়ে ফোন বাজতে লাগল রুদ্রার । নম্বর দেখেই বুঝতে পারল অভিষেকের কল । ধরল না । বেজে বেজে থেমে গেল । দু মিনিট বাদে আবার বাজতে লাগল । শ্যামলেন্দু বলল, ' কি রে .... ফোনটা ধর .... '
    ----- ' আরে দূর .... ছাড় তো .... ফালতু ফোন ...'
    রুদ্রা মুখ বেঁকিয়ে বলে ।'
    ----- ' সত্যি .... কোম্পানিগুলো এত জ্বালায় না ..... ব্লক করাও যায় না ..... '
    ----- ' যা বলেছিস .... '
    রুদ্রা আবার আড্ডায় মজে । নাম্বার ব্লক করার কথাটা মাথায় ঘুরতে লাগল । ভাবল, এটা কেন মাথায় আসেনি । একটু পরেই একটা কাঁক ... কাঁক করে একটা মেসেজ ঢুকল । রুদ্রা আড্ডায় ডুবে ছিল । মেসেজটা দেখল না । ঠিক পাঁচ মিনিট পরে আর একটা মেসেজ ঢুকল । এবার রুদ্রা মোবাইল তুলে চোখ বুলিয়ে নিল ।
    ' ..... Tomar sange khub dekha korte icche kare .... tumi jadi raji thako amra dekha korte pari .... asha Kari amake ferabe na .... tumi taratari janio .... Jaygata bole debo '
    নম্বরটা অজানা । অভিষেকের নয় ।
     রুদ্রার মুখ দিয়ে বেরিয়ে গেল ,  ' হোয়াট ননসেন্স ..... ইডিয়টটা কতগুলো সিম ব্যবহার করছে কে জানে ? '
    ভাবল, ' ব্যাপারটা স্বস্তিককে জানিয়ে দিতে হবে । ও নিশ্চয়ই কলতান গুপ্তকে জানাবে । জিনিসটা এক্সট্রিম হয়ে যাচ্ছে ..... '
    আড্ডায় আর তেমনভাবে মিশতে পারল না রুদ্রা । আজকে আর ক্লাস নেই । অন্যদিন বসন্ত কেবিনে গিয়ে বসে আরও তিন চারজন জিগরি দোস্তের সঙ্গে  । আজ ওসব ভাল লাগল না । মনটা কেমন বিক্ষিপ্ত হয়ে গেল । মিনিট দশেক বাদে বাস  স্টপে গিয়ে দাঁড়াল অন্যমনস্কভাবে ।
        এই সময়ে আবার রুদ্রার ফোন বেজে উঠল । ভয়ে ভয়ে মোবাইল খুলল রুদ্রা । মোবাইলের পর্দায় দেখাচ্ছে ----- ' স্বস্তিক কলিং  .... '
    ----- ' হ্যা ..... বল স্বস্তিক .... তুমি কোথায় ? '
    ----- ' এখন বাড়িতে আছি ..... আজ অফিসে যাইনি । শরীরটা ভাল নেই .... সিক লিভ নেব .... যেটা বলছিলাম ..... একটু আগে একটা বড় অ্যক্সিডেন্টের হাত থেকে বেঁচে গেছি .....খুব জোর প্রাণে বেঁচে গেছি বলতে পার ...... ' স্বস্তিকের গলা উদভ্রান্ত শোনায় ।
    ----- ' সে কি ! ! কি করে ..... কোথায় ? ' রুদ্রা উৎকন্ঠায় ফুটিফাটা হয়ে হয়ে যায় ।
    ------ ' সেসব দেখা হলে বলব ...... তুমি এখন কোথায় ? '
    ------ ' ইউনিভার্সিটির সামনে ..... বাস স্টপে । বাড়ি ফিরছি ..... '
    ------ ' খুব সাবধানে ..... তোমার জন্য আমার ভীষণ চিন্তা হচ্ছে ..... তোমার কথা ভীষণ মনে হচ্ছে .... '
    ------ ' আমারও ঠিক তাই ..... তোমার কথা ভীষণ মনে হচ্ছে । কলতান স্যারকে জানিয়েছ কিছু ? '
    ------ ' না এখনও জানাইনি  .... জানাব ....  '
    ------ ' ঠিক আছে .... দাঁড়াও, আমি আসি আগে .... আমারও কিছু জানাবার আছে ..... '
    রুদ্রা বাসে উঠে পড়ল ।

        কলতানের কাছে টেলিকম ইঞ্জিনিয়ার পল্লব ধরের ফোন এল বেলা চারটে নাগাদ । 
    ----- ' হ্যা কলতানদা ..... লোকেশানটা ট্র্যাক করা গেছে ..... রাজপুর । সাবস্ক্রাইবার ডিটেকশান হয়ে গেলেই আপনাকে জানাব ।'
    ---- ' ঠিক আছে ..... ঠিক আছে ....তাই জানিও... ‌আর হ্যা ....জি ডি করা হয়ে গেছে...'
    ------ ' আচ্ছা ঠিক আছে ....ঠিক আছে .... '
    ------ ' ওকে ..... পল্লব ....থ্যাঙ্কস এ লট ... '
    ----- ' মোস্ট ওয়েলকাম কলতান দা ..... '

         কলতান কুলচার জন্য অপেক্ষা করছিল । ওর আসবার কথা আছে । ওর সঙ্গে কিছু আলোচনা করার দরকার । কারো সঙ্গে কথা বলে নিলে মাথাটা খোলসা হয় । না হলে নিজের সঙ্গেই নিজে কথা বলে যেতে হয় অবিরত ।

       ঠিক দশ মিনিট পর হঠাৎ দীপ্সিতার ফোন এল । 
    ------ ' হ্যা ... দীপ্সিতা বল .... '
    ----- ' কি বলব স্যার .... আপনাকে আবার ডিসটার্ব করছি .....'
    ----- ' আরে বল বল .... কি হয়েছে বল .... '
    ----- ' আবার একটা মেসেজ এসেছে স্যার .... আপনাকে পাঠাব ? '
    ----- ' অবশ্যই .... এক্ষুণি পাঠাও .... আর কিছু করতে হবে না । কখন কি করতে হবে আমি বলে দেব ..... যখন বলব তখন করবে .... ডোন্ট প্যানিক ..... '
    ------ ' আচ্ছা স্যার .... ' 

    ( ক্রমশঃ )

    ************************************************************************************

        

     

        

       

     
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Gopa Deb | ১৭ মে ২০২২ ১৩:১২507764
  • তাড়াতাড়ি আসুক  ১১ নম্বর 
  • Mousumi Banerjee | ১৭ মে ২০২২ ১৫:৪৭507772
  • খুব জমে গিয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি পেতে চাই পরের পর্ব।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। বুদ্ধি করে মতামত দিন