ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • লরেন্স অফ অ্যারাবিয়া : মুক্তিদাতার ছদ্মবেশে এক ব্রিটিশ স্পাই মাস্টার

    AR Barki লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৯ এপ্রিল ২০২২ | ১৫০ বার পঠিত
  • প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ব্রিটিশদের অন্যতম লক্ষ্য ছিল মুসলিমদের শেষ সুপারপাওয়ার অটোমান সাম্রাজ্যকে ভেঙে দেওয়া ও প্যালেস্টাইনে একটি ইহুদি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা। এই প্রতিশ্রুতি দিয়ে তারা প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ইহুদিদের সমর্থন লাভ করে।
    .
    চতুর ব্রিটিশরা বুঝতে পেরেছিল মধ্যপ্রাচ্যে আরব জাতীয়তাবাদ উসকে দিয়ে অটোমান সাম্রাজ্যকে দুর্বল করে দেওয়া যাবে। এই কাজের জন্য তারা একজন দক্ষ লোক খুঁজছিল যার মধ্যপ্রাচ্য ও অটোমান সাম্রাজ্যের ভূগোল ও রাজনীতি সম্পর্কে ভালো ধারণা আছে।
    .
    টমাস এডওয়ার্ড লরেন্স (Thomas Edward Lawrence) ছিলেন একজন ব্রিটিশ প্রত্নতত্ত্ববিদ , মিলিটারি অফিসার ও কূটনীতিক। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের প্রাক্কালে তিনি গবেষক হিসেবে অটোমান সাম্রাজ্যের বিভিন্ন প্রদেশে ব্যাপকভাবে ভ্রমণ করেছিলেন।
    .
    ব্যাপক ভ্রমণের সুবাদে তিনি অটোমান সাম্রাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে বেশ পরিচিত ছিলেন এবং তাদের জার্মান প্রযুক্তি ও সহায়তায় নির্মিত লাইন সম্পর্কে বেশ অভিজ্ঞ ছিলেন। সিরিয়া , লেভান্ত ও মেসোপটেমিয়া সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকায় ব্রিটিশরা তাঁকে কায়রোতে ইন্টেলিজেন্স স্টাফের জিওসি হিসাবে নিয়োগ দেয়।
    .
    আরবদের ভুল বুঝিয়ে ও জাতীয়তাবাদ উসকে দিয়ে কিভাবে তিনি মধ্যপ্রাচ্যে অটোমান সাম্রাজ্যকে বিব্রত করে তোলেন তাঁর পরিষ্কার চিত্র ফুটে উঠেছে এই ছবিতে। সাদা দৃষ্টিতে যে কেউ এই ছবিটি দেখলে লরেন্সকে আরব মুক্তির জনক ভেবে ভুল করে বসবে।
    .
    অবশ্য সাম্রাজ্যবাদীরা এই সমস্ত ছবি নির্মাণ করে মগজ ধোলাইয়ের উদ্দেশ্য মাথায় রেখেই। যেমন পরবর্তীতে ভিয়েতনাম , গালফ ওয়ার , আফগানিস্তান নিয়ে অসংখ্য ছবি তৈরি হয়েছে। এই সমস্ত ছবি তাদের ইমেজ খলনায়ক থেকে নায়কের দিকে নিয়ে যায়।
    .
    ১৯৬২ সালে বিখ্যাত ব্রিটিশ চলচ্চিত্র পরিচালক ডেভিড লীন পরিচালিত এই ছবিটি পরবর্তীতে বারটি অস্কার পুরস্কার লাভ করে। লরেন্স ও ফয়সালের চরিত্রে অভিনয় করেন যথাক্রমে পিটার ও'টুল ও স্যার আলেক গিনেস।
    .
    যারা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ ভিত্তিক থ্রীলার ছবি দেখতে পছন্দ করেন তাঁরা এই ছবিটি দেখতে পারেন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। দ্বিধা না করে মতামত দিন