ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • সেই যে আমার নানা রঙের দিনগুলি।

    Bhudeb Sengupta লেখকের গ্রাহক হোন
    ২২ এপ্রিল ২০২২ | ৪১৬ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • এই এক জীবনে কলকাতার কতো কি পরিবর্তন দেখলাম তা বলার নয়। যখন যেমন মনে পড়বে লেখার চেষ্টা করব। তখন কলকাতার উপকন্ঠে জলাশয়ের সংখ্যা অনেক বেশী ছিল।তার টানে পানকৌড়ি, বক ও মাছরাঙাদের আনাগোনা লেগেই থাকত। একটি তেতুল গাছে বকের আস্তানা ছিল।মেঘলা দিনে যখন অসংখ্য বকের জন্য গাছটি সাদা হয়ে যেত তখন ভারি সুন্দর দেখাত।সেকালের কলকাতায় পাখি প্রচুর  দেখা যেত।সকালে পাখির ঝাঁককে দলবেঁধে খাবারের সন্ধানে পূব দিকের জলাভূমির দিকে যেতে দেখতাম ।আবার শেষ বিকেলে  দলবেঁধে তাদের পশ্চিম আকাশে  অস্তগামী সূর্যের পটভুমিকায় ঘরে ফেরা মুগ্ধ হয়ে দেখার মতো ছিল।মাঝে মাঝে দেখেছি বাড়ির ছাদে শকুন বসতে।কেননা বাড়ির  অদূরে খালপাড় সংলগ্ন এলাকায় ভাগাড় ছিল।ছাদ থেকে যেদিকেই তাকাতাম দেখতাম অসংখ্য নারকেল গাছের সারি।এগুলো এখন আর দেখা বিশেষ যায়না। তার বদলে সব বহুতল ইটের খাচা আপনার দৃষ্টি ও কল্পনা শক্তির ব‍্যাঘাত ঘটাবে।দেখেছি  ভরা নকশাল আমলে স্কুলে  অগ্নিসংযোগের মতো ঘটনা। বাংলা মিডিয়ম স্কুলগুলিই এর শিকার হতো।কোন ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে অগ্নিসংযোগের ঘটনা কখনো শুনেছি বলে মনে পড়েনা।কত তাজা প্রাণকে মায়ের কোল খালি করে চলে যেতে দেখেছি। দেখেছি পুলিশের ধরপাকড়, রেড ও  নানাবিধ অত‍্যাচার।তখন যাদের বাড়ির কেউ পুলিশে চাকরি করত তারাও কেউ নিশ্চিন্তে থাকতে পারত না। একটি ফাকা মাঠের মধ্যে কারো জমি চিন্হিত করে পাচিল দিয়ে ঘেরা ছিল।তার গায়ে বড় করে লেখা ছিল "১৯ মে আসছে দিন, কংগ্রেস কে কবর দিন"। ঐ কবর কথাটি​​​​​​​​​ জন্য মনে হতো ভিতরে বোধহয় কবরস্থানই আছে।৭০ এর দশক নাকি ছিল মুক্তির দশক।চীনের চেয়ারম্যান ছিল নাকি আমাদের চেয়ারম্যান।বন্দুকের নলই ছিল ক্ষমতার উৎস।আর শিক্ষা ব‍্যবস্থা নাকি ছিল  সব বুর্জোয়া শিক্ষা ব‍্যবস্থা।অন্তত দেওয়াল লিখনে এমনই লেখা থাকত। প্রিয়জন বাড়ি ফেরা না অব্দি সবাই ভয়ে ভয়ে থাকত।সে বড় সুখের সময় ছিলনা।অন্ধকার থেকে আলোয় ফিরলে মনে পড়ে পাড়ায় পাড়ায় কালীপূজার পরে ও শীতের সময় বিভিন্ন জলসার আয়োজন। রবীন্দ্রজয়ন্তী উপলক্ষে আবৃত্তি, নৃত‍্যনাট‍্য,নাটক। কত প্রথিতযশা শিল্পী কে জলসায় দেখেছি।তখন তারা কত বিখ্যাত শিল্পী সে বোধও ছিলনা। প্রত‍্যেক পাড়ায় অবধারিত ভাবে একটি নেতাজি সংঘ,সবুজ সংঘ অথবা তরুণ দল থাকতই। প্রত‍্যেক বছরে পাড়ার ক্লাবগুলোতে সরস্বতী পূজা হতোই।খালি সময়ের সাথে সাথে বালকবৃন্দের পরিবর্তন হতো। মানে বালকের দল ঝানু হয়ে গেলে আবার অন্য বালকের দল সেই জায়গা নিত।  আমরা বড় হবার পরে আরও প্রায় ৩০- ৩৫ বছর পরের পরও বালকের দল পূজা চালিয়ে গেছে।তারপরও বালকের দল আছে কিন্তু প্রমোটারের জন্য খালি জায়গা ই আর নেই। দেখেছি চৈত্র মাসের মেলা,কাঠের নাগরদোলা,সার্কাস,মোটর বাইকের মরণখেলা, ৩দিন ধরে অবিরাম সাইকেল খেলা ও আরও কত কি! নববর্ষ এর দিন গুরুজনরা দিতেন একটাকা,আটআনা ।তা জমিয়ে হতো আমাদের থোলখরচ।সেই দিয়েই চলত মেলা দেখা ও উপভোগ করা।বাস ভাড়া ছিল উঠলেই দশ পয়সা। ভুল পড়ছেন না। ঐ ১০ পয়সাই।১০,১৫,২৫ পয়সা লেখা বাসের টিকিট ছাপানো হতো।বিশ্বকর্মা পূজার দিন হতো ঘুড়ি ওড়ানোর উৎসব।তার আগে কাচগুড়ো, সাবুর আঠা ও পছন্দসই রঙ দিয়ে  মান্জা দেওয়া তো ছিলই।কাটা ঘুড়ি ধরতে পারলে মনে হত সাত রাজার ধন মানিক পেলাম। একদিন পড়ন্ত বিকেলে বাড়ির ছাদে কাটা ঘুড়ি পড়ে থাকতে দেখে যে কি আনন্দ পেয়েছিলাম তা আর বলবার নয়।আসলে সে ছিল অনাবিল শৈশবের আনন্দ।যেদিন দেখলাম কাটা ঘুড়ি  ছাদের উপর অবহেলায় পরে আছে অথবা উড়ন্ত ঘুড়ির দিকে ফিরেও দেখছিনা,বুঝলাম নিজের অজান্তেই কবে বড় হয়ে গেছি। ফুরিয়ে গ্যাছে হায় আমার সেই নানা রঙের দিনগুলি।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায় | 2402:3a80:1cd3:c44b:478:5634:1232:5476 | ২২ এপ্রিল ২০২২ ১৯:৫৭506780
  • আহা, সেই সব সোনাঝরা দিনের কথা !  বড় ভাল লেখা। ধন্যবাদ বন্ধু।
  • স্বাতী চ্যাটার্জী | 45.64.227.241 | ২২ এপ্রিল ২০২২ ২১:১৭506784
  • দারুণ লাগলো পড়ে৷ছেলেবেলার স্মৃতির রোমন্থন ৷
  • Tandra Chatterjee | 2402:3a80:1963:eece:d5da:59b9:c61c:aed0 | ২২ এপ্রিল ২০২২ ২২:৫৩506804
  • Khub bhalo laglo. Amar chhotobela chokher samne bhese uthlo. Aro lekha chai
  • ডা. কাঞ্চন কুমার দাস | 103.77.138.253 | ২২ এপ্রিল ২০২২ ২৩:০০506807
  • হারিয়ে যাওয়া দিনগুলোকে ফিরে পেয়ে খুব ভালো লাগলো, কিন্তু হারানো শৈশবকে কি আর ফিরে পাবো?
    খুব পরিচ্ছন্ন লেখা, কিন্তু অপরিচ্ছিন্ন কেন ? অর্থাৎ পরিচ্ছেদ-বিভাগ নেই কেন ? পরিবর্তনের কোনো ছেদ নেই-- এটা বোঝাতেই কি ?
    ভালো থেকো বন্ধু, আর ছেদহীন ভালো-লাগায় ভরিয়ে রেখো সকলকে।
  • Bhudeb Sengupta | ২২ এপ্রিল ২০২২ ২৩:৪০506815
  • ধন্যবাদ সবাইকে। শুভরাত্রি।
  • Dr.CNC | 115.96.143.147 | ২৩ এপ্রিল ২০২২ ১৫:৩১506845
  • মানুষ খুন হলে পরে , মানুষই তার বিচার করে ।.....মনে পড়ে গেলো ....
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। কল্পনাতীত মতামত দিন