এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • হরিদাস পাল  ব্লগ

  • রাশিয়া, ইউক্রেন এবং আমেরিকা -- ভূতের মুখে রামনাম! 

    Partha Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ব্লগ | ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | ৪৯২৫ বার পঠিত
  • সমস্ত মূলধারার মার্কিন মিডিয়াতে তারা রাশিয়া এবং পুতিনকে ইউক্রেন আক্রমণ ও দখলের জন্য ক্ষুধার্ত ভিলেন হিসাবে চিত্রিত করেছে। এবং ভারত ও আমেরিকার বেশিরভাগ মানুষ এই সুরেই সুর মেলাচ্ছে কোনোরকম ভাবনাচিন্তা না করেই। 
     
    বাজারে মাস্ক মিলবে কোটি কোটি। কিন্তু থিংকিং ক্যাপ আজকাল আর পাওয়া যায়না একেবারেই। 

    কোনো সন্দেহ নেই যে ভ্লাদিমির পুতিন স্বৈরাচারী শাসক হয়ে উঠেছে সেই চেচনিয়ার দমনপীড়নের পর থেকেই। কোনো সন্দেহ নেই গণতন্ত্র ও ভিন্নমতের প্রতি পুতিনের সহনশীলতা জিরো। এবং তার শাসনামল বড় ধরনের যুদ্ধ ও সহিংসতার একটি নতুন পরিবেশ তৈরি করেছে। আমরা কেউ এই আগ্রাসনের পক্ষে নই। 

    কিন্তু হিপোক্রিসিটা অন্য জায়গায়। হিপোক্রিসি হলো এই ইস্যুতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং বড় বড় মিডিয়ার ভণ্ডামি। এই মিডিয়া -- নিউ ইয়র্ক টাইমস, সিএনএন, ফক্স -- ইরাক, আফগানিস্তান, সিরিয়া, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, লাওস এবং কার্যত সারা বিশ্বে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যা করে এসেছে, তার বিরুদ্ধে একটা কথাও বলেনি, বরং সেই বীভৎস আগ্রাসন ও গণহত্যাকে সমর্থন করে এসেছে প্রকাশ্য বা প্রচ্ছন্নভাবে। এবং তার স্যাটেলাইট সমর্থন পেয়েছে ভারতীয় মিডিয়ার কাছ থেকে। 

    মোটামুটি ব্যাপারটা হলো, মার্কিন আগ্রাসন হলো "কমিউনিজম এবং সন্ত্রাসবাদের শৃঙ্খল থেকে অন্যান্য দেশের মানুষকে মুক্ত করার জন্য ধর্মযুদ্ধ।" মগজধোলাইটা আমরা সহজেই দেখতে পাই একটু চোখ খুলে রাখলেই। অন্যদিকে রাশিয়া, চীন এবং অন্যান্য পরাশক্তিগুলি যা করে তা হল "আক্রমণ" এবং "দখল করা।" আর, দুশো তিনশো বছর ধরে ব্রিটিশ ও ইউরোপীয় দেশগুলো ভারত, বাংলা ও সারা পৃথিবীকে যে চুষে ছিবড়ে করে খেয়েছে, তার কথা তো আর কেউ বলেই না। 
     
    কারণ, ওই যেমন আমার এক ছাত্রী আজ জানালেন, "স্যার, পুরোনো ইম্পিরিয়ালিজমের কথা ভেবে নতুন এক্সপ্যানশনিজমকে সাপোর্ট করা যায়না।" অলরাইট, খুব ভালো কথা। কিন্তু পুরোনো ইতিহাসের রক্তের দাগ, ক্ষতচিহ্ন কি এই জীবনে ভুলে যাওয়া যাবে? ভিয়েতনামে এখনো এজেন্ট অরেঞ্জের কারণে বিকলাঙ্গ সন্তান জন্ম নিচ্ছে। তাদের মায়েরা কি ভুলতে পারবে সে বীভৎস অত্যাচার?

    আমি অনেক বছর ধরে খুব কাছ থেকে দেখেছি বেশিরভাগ আমেরিকান এই মগজধোলাই খেলাটা বুঝতেই পারে না, এবং সেই অজ্ঞানতা ও অশিক্ষার সুযোগ নিয়ে সমস্ত বড় মিডিয়া হাউসগুলি মার্কিন প্রশাসনের পক্ষে নিরলস প্রচার, ভয়ভীতি এবং পক্ষপাতদুষ্ট প্রতিবেদন তৈরি করে। আমরা রিপাবলিকান এবং ডেমোক্রেটিক প্রশাসনের পিছন থেকে পুতুলনাচ নাচানো যুদ্ধ কর্পোরেশনগুলোর এই খেলা সারাজীবন ধরে দেখে আসছি। মিলিটারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল কমপ্লেক্স অবিশ্বাস্যভাবে শক্তিশালী, এবং মার্কিন রাজনীতিবিদদের তাদের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর সাহস নেই। সে বুশ বলুন, ক্লিনটন বলুন, ওবামা বলুন, আজকের বাইডেন বলুন। ট্রাম্পের কথা তো ছেড়েই দিলাম। ও লোকটার কথা যত কম বলা যায়, ততই ভালো। 

    বেশিরভাগ আমেরিকান জানে না কিভাবে সামরিক শিল্প কমপ্লেক্স এবং তাদের বোয়িং, রকওয়েল, আই বি এম, জেনারেল ইলেকট্রিক, অ্যাপল, সান মাইক্রোসিস্টেম, আজকের গুগল, মাইক্রোসফ্ট, হাজার আর্মস ফ্যাক্টরি, ন্যাশনাল রাইফেল এসোসিয়েশন, তারপর প্রাইভেট প্রিজন ইন্ডাস্ট্রি যাদের স্টক শেয়ার মার্কেটে কেনাবেচা হয়,  এবং তাদের বিশাল বিশাল ব্যাঙ্ক, শেয়ার মার্কেট ও কর্পোরেট মিডিয়া একসাথে যুদ্ধু যুদ্ধু খেলা খেলে, এবং আমাদের টুপি পরিয়ে ট্রিলিয়ন ডলার প্রফিট করে। 

    আমরা কতিপয় মূর্খ যারা এই আমেরিকান-ব্রিটিশ আগ্রাসী রাজনীতির সমালোচনা করি তাদের হয় যে কোনো অর্থপূর্ণ আলোচনা থেকে বাদ দেওয়া হয়, অথবা যদি তাদের কন্ট্রোল করা খুব কঠিন হয়ে পড়ে তবে চুপ করিয়ে দেওয়া হয়। উদাহরণ -- নোম চমস্কি, হাওয়ার্ড জিন, কর্নেল ওয়েস্ট, এমি গুডম্যান, তারপর জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ জাতীয় সাম্প্রতিক উদাহরণ থেকে যে কেউ শিখতে পারে। আমাদের দেশে পরিবেশবিদ বন্দনা শিবা। 

    নিউ ইয়র্ক টাইমসের ওয়েপন্স অফ মাস ডেস্ট্রাকশনের জালি কাহিনী ভুলে যাইনি এখনো আমরা -- যে বুলশিট বুশ সরকার ইরাকে একতরফাভাবে গণহত্যা চালানোর জন্য ব্যবহার করেছিল এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কার্যত সমগ্র বিশ্বের প্রতিবাদের বিরুদ্ধে লক্ষ মানুষ হত্যা করেছিল৷ কত আর বলবো? বাংলাদেশের গণহত্যা ও গণধর্ষণ -- সে ঘাতক কিসিঞ্জার এখনো বেঁচে আছে।  

    আমরা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ থেকে এরকম আরও অনেক উদাহরণ উদ্ধৃত করতে পারি। সেই আমেরিকা ও তাদের রামনাম! 

    কথা হলো, শুনছে কে?
    _____

    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • ব্লগ | ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | ৪৯২৫ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Amit | 121.200.237.26 | ০১ মার্চ ২০২২ ১৩:২৬504512
  •  ০১ মার্চ ২০২২ ১২:২৬ প্রশ্নটা বুঝলাম না। একটু বিশদে করা যাবে ?
  • Debanjan Banerjee | ০১ মার্চ ২০২২ ১৩:২৯504513
  • রাশিয়ার মেয়েরা ভারতের মেয়েদের থেকে দেখতে কম সুন্দরী নয় তাহলে রুশ সেনা কেন ভারতের মেয়েদের তুলে নিয়ে যাবে অমিতবাবু ? এই খবরটি fake নিউজ বলেই মনে হয় আমার l 
  • dc | 122.164.233.99 | ০১ মার্চ ২০২২ ১৩:৩২504514
  • এই যাঃ নোংরামোটা আর চেপে রাখা যাচ্ছেনা। 
  • Amit | 121.200.237.26 | ০১ মার্চ ২০২২ ১৩:৩৫504515
  • ব্যাস। এই তো - দেবাঞ্জন বাবুর আসল চেহারা বেরিয়ে পড়েছে। এটারই অপেক্ষায় ছিলাম। আর কথা বাড়ানোর দরকার নেই  বিশেষ । আপনার ধর্মবাপ পুতিনের চামচাগিরি চালিয়ে যান। 
  • Debanjan Banerjee | ০১ মার্চ ২০২২ ১৩:৩৬504516
  • আমি বলছি এই যুদ্ধু কালকেই থেমে যেতে পারে যদি ইউক্রেইন্ শুধু দুটো কাজ করে l ১। ইউক্রেইন্ একটা তাজা কড়া নেতা আনুক যে রাশিয়ার হাতে হাত মিলিয়ে নব্য নাজীদের একটু শায়েস্তা করবে l ২। ইউরোপ , আম্রিকা , ন্যাটো এইসব থেকে নিজেকে একটু দূরে রাখবে l খুব কঠিন কি এই দুটো শর্ত মেনে নেওয়া ? 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। পড়তে পড়তে প্রতিক্রিয়া দিন