এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • অসিতবরণ বিশ্বাস | 2409:4088:9ec3:bf02::d349:9012 | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১০:০০528660
  • সত্যি কথা বলেছেন। এখন বাঙলা কোথায়? পূর্ববঙ্গ এখন বাংলাদেশ আর তার পশ্চিমপ্রান্তে পশ্চিমবঙ্গ। তা এই পশ্চিমবঙ্গ এখনো নাম পাল্টে বাংলা হয়নি। এই পশ্চিমবঙ্গে বাংলাপক্ষ বলে কী একটা আছে শুনেছি। বাংলাভাষার জন্য নাকি কীসব কাজ করছে। তো, এখানে পশ্চিমবঙ্গে এখনো কেউ কেউ রাজনৈতিক সভায় বাংলায় ভাষণের পরে হিন্দিতেও ভাষণ ঝাড়েন। পাবলিক ফটাফট খায় আর চটাপট হাততালি দেয়। আমরা বেশ 'এনজয়' করি।
  • Probal Dasgupta | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৩:২৮528669
  • পশ্চিমবঙ্গ থেকে পশ্চিমে (বা অন্যান্য ভিনদেশে) যাওয়া কয়েকজন তারকাস্থানীয় অভিবাসী বাংলায় অলঘু বিষয়ে প্রবন্ধ লেখেন। রণজিৎ গুহ প্রচুর লিখেছিলেন। দীপেশ চক্রবর্তীও কম লেখেননি, কোনো সময় লেখা বন্ধও করেননি। সুদীপ্ত কবিরাজ আগে লিখতেন, মাঝে থেমে গিয়েছিলেন, সম্প্রতি অনেক লিখেছেন, লিখে চলেছেন। ইত্যাদি। যাঁরা তারকাস্থানীয় নন এমন কয়েকজনও লেখেন না তা নয়। মধ্যপ্রাচ্যে সংসার পাতা আমার ছাত্র রজত ঘোষ নিয়মিত বাংলায় লিখে চলেছেন। এঁর মতো আরো আছেন বলে খবর পাই।
     
    দৃষ্টান্তস্থানীয় কেউ কেউ যতদিন বাকি আছেন ততদিন খুব বেশি হতাশ হবার কারণ দেখি না। তবে আপনার বিষণ্ণতার কারণ বুঝি। যথেষ্টই কারণ রয়েছে।
     
    আর বাংলাদেশ থেকে যাঁরা পশ্চিমে গেছেন তাঁদের যে সামূহিক কৃতিত্বের কথা আপনি লিখেছেন, পার্থ বাবু, সে কৃতিত্ব অকুণ্ঠ প্রশংসার যোগ্য। সেরকম উৎসাহ পশ্চিমবঙ্গ থেকে যাওয়া বাঙালিদের যে নেই তার একটা কারণ, ভারতে বসে বাংলা ভাষার চর্চা যাঁরা করেন তাঁদের অনেকটা দেওয়ালে পিঠ দিয়ে কাজ করে যেতে হচ্ছে। ফলে যাঁরা বিদেশে যান, ভাষার ব্যাপারে তাঁদের মনোবলের পুঁজি গোড়াতেই একটু কম থাকে। বাংলাদেশে, ভাষার ক্ষেত্রে কোনো কোনো পশ্চাদপসরণ ঘটে থাকলেও, মোটের উপর বাংলা ভাষাতেই যে দেশটা চলে এ ব্যাপারে কোনো সংশয় নেই। লোকেরা প্রমিত বাংলা গদ্যকে নিজেদের রুচি মাফিক ব্যবহার করে থাকে, পরস্পরের ত্রুটি ধরতে খুব বেশি ব্যস্ত থাকে না। আমি লক্ষ করেছি, বাংলাদেশে দোকানের নাম লেখা সাইনবোর্ড থেকে শুরু করে প্রকাশ্য পরিসরের বিজ্ঞপ্তি পর্যন্ত শহরের রাস্তাঘাটে যা দেখা যায় সেই বাংলা লেখায় বানান ভুলের অনুপাত খুবই কম। পশ্চিমবঙ্গে লোকে অনেক বেশি হেলা ফেলা করে কিছু একটা লিখে দেয়। ভাষার প্রতি দু দেশে শ্রদ্ধার তফাতটা এই এলাকায় পরিষ্কার দেখা যায়।
  • প্রত্যুষ বন্দ্যোপাধ্যায় | 115.187.59.3 | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৩:৩৫528670
  • সর্বস্তরে বাংলা ভাষা 'লাগু' করার জন্যে সরকারের ওপর 'প্রেসার ক্রিয়েট' করুন। কোনও রকম 'নাকাবন্দি' আমরা সহ্য করব না। 'কেন কি' বাংলা আমার 'মাদার টাং'। 
     
    ভাল লাগছে তো পড়তে ?
    এগুলো কিন্তু দৈনিক সংবাদ পত্রে বহুল ব্যবহৃত।
  • Arindam Basu | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৫:২৫528671
  • "দৃষ্টান্তস্থানীয় কেউ কেউ যতদিন বাকি আছেন ততদিন খুব বেশি হতাশ হবার কারণ দেখি না"
     
    দৃষ্টান্তস্থানীয়রা না থাকলেও হতাশ হবার কোন কারণ নেই।
     
    বাংলা কেবল কলকাতার লোকে বলে না, তার একটা ব্যাপ্তি এবং পরিধি রয়েছে, শুধু বাংলা নয়, সারা পৃথিবী জুড়ে। 
  • আ খোঁ | 2402:3a80:a31:3011:0:56:cf28:b701 | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৯:১৫528674
  • অকারণ বাংলাদেশ বিরোধিতার যেমন কোনো কারণ দেখি না, তেমনি বাংলাদেশ নিয়ে এই অকারণ হাভাতেপনাও বিরক্তিকর। লেখাটা যতক্ষণ প্রবাসীদের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল ততক্ষন তাও না হয় একরকম ছিল। কিন্ত যখন তিনি সারা পশ্চিমবঙ্গের বাঙালি সম্পর্কে জাজমেন্ট দেওয়া শুরু করেন তখন আর জাস্ট নেওয়া যায় না।
    ওনার সম্ভবত কোনো ধারণাই নেই কতরকম প্রতিকূলতাকে সঙ্গী করেই এপারের বাঙালি বাংলা ভাষা নিয়ে লড়ে চলেছে। বাংলাদেশে বাংলাভাষা নিরঙ্কুষ -- এই বিশাল মাপের সুবিধে না পেয়েও। ওনার এই ইগনোরেন্স একেবারেই ঠিক নয়। ওই একইরকম ইগনোরেন্স থেকেই ভাষা শহীদদের ক্ষেত্রেও অকারণ হিন্দু l-মুসলমান টেনে এনেছেন। বাংলাদেশের ভাষার লড়াই ছাড়াও বাংলা ভাষা নিয়ে বাঙালির আরো অনেক লড়াই রয়েছে, সে বোধহয় উনি খবর রাখার প্রয়োজন বোধ করেন না। বরাকে যে এগারোজন শহীদ বাংলাভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছেন, তাঁদের নামের লিস্ট উনি একটু খোঁজ করলেই পেয়ে যাবেন। বরকত, জব্বারের মতো ভাষা শহীদদের ধর্ম দিয়ে দাগানোর যে বিপজ্জনক দিকটিকে নিজের লেখায় সেঁটে দিলেন তার প্রতিঘাতে কেউ যদি বরাকের সত্যেন্দ্র দেব, কুমুদ দাস, কমলা ভট্টাচার্যর শাহাদাতে ধর্ম দাগাতে শুরু করে তখন উনি কী বলবেন! উনি অবশ্য নিরাপদ দূরত্বে থাকেন।
     
    বোকা বন্ধু সবসময়ই ভীষণ বিপজ্জনক।!!!
  • r2h | 208.127.71.78 | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২১:১০528678
  • মজার ব্যাপার হলো বরাকের এগারোজনের শহীদের প্রসঙ্গ শুধুই একুশের কাউন্টার হিসেবে শোনা যায়।

    ১৯৬১তে বাংলা ভাষার জন্যে যে রক্ত ঝরেছে তার উত্তরাধিকার ভারতীয় বাঙালী বহন করেনি। একুশের উত্তরাধিকারীরা পৃথিবীকে নিজেদের কন্ঠস্বর শুনতে বাধ্য করেছে।

    তার ওপর কলকাতাকেন্দ্রিক বাঙালী সংস্কৃতির ব্যাপারে নিতান্ত কূপমণ্ডুক। সামান্য অন্য ডায়ালেক্ট শুনলেই এ কেমনধারা বাংলা, অথবা ইষ ক্ষীই সুইট এর মাঝে দোল খায়।

    "কিন্তু মজার ব্যাপার হলো, পশ্চিমবঙ্গের বাঙালি বাংলাদেশের বাঙালিকে ইনফিরিয়র মনে করে, এবং তাদের নীচু চোখে দেখে।" কলকাতাকেন্দ্রিক প্রবাসী বাঙালীদের বিষয়ে আমারও একই পর্যবেক্ষণ।
    আমি মাঝে মাঝে নানান সংস্থার সচেতনতামূলক জিনিসপত্রের অনুবাদে ভলান্টিয়ার করি। বাংলায় ফ্লায়ার পোস্টার দেখে কলকাতার বন্ধুদের প্রতিক্রিয়া - 'এসব কাদের কাজে লাগবে... ও আচ্ছা বাংলাদেশিদের'।
    স্যাম্পল সাইজ বিশাল কিছু না যদিও, ধারনা ভুল হলে খুশি হব।
  • মালা মৈত্র | 2402:3a80:198d:6a88:778:5634:1232:5476 | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২১:৩৯528681
  • পশ্চিমবঙ্গে বাংলাটা ঠিক জানা নেই বলতে অনেকে গর্ব বোধ করেন (সবাই নয়)। সভা সমিতিতে ইংলিশে না বললে নিজেকে ঠিক শিক্ষিত বলে প্রমাণ করা যায় না। আমাদের মত কিছু হতভাগ্য শুধু হাহুতাশ করি। কিন্তু আমাদের ক্ষমতা এত সীমিত যে নিজের চোখের জল কেই কুম্ভীরাশ্রু বলে মনে হয়। তবু এই বিষয়ে কথা বলতে বলায় পার্থ বন্দ্যোপাধ্যায় কে ধন্যবাদ।
  • ফ্যাসিষ্ট | 77.111.245.11 | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০১:৫৮528695
  • “বাবারা, তোমরা একজন একজন কইরা যাও, আমার মাইয়াটা ছোট”……..হিন্দু বাঙালি পূর্ণিমা শীলের মায়ের করা বাংলা ভাষায় এই আকুতি যে বাংলাদেশী মুসলমানদের উদ্দেশ্যে, তারাও কিন্তু বাংলাই বলতো। শুধু হিন্দু হবার জন্যে বাংলা ভাষা পূর্ণিমাকে যৌন নির্যাতন থেকে বাঁচাতে পারেনি। ভাষা দিবসে এদের জন্য থাকল একরাশ হতাশা কারণ এজেন্ডায় ফিট করবে না বলে পার্থবাবু বাংলদেশের জন্য একঝুড়ি মিথ্যে বলে এদের কথা চেপে যাবেন। সব কিছুই দিনের শেষে প্রোপাগান্ডা। 
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1964:7350:378:5634:1232:5476 | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৩:২৫528709
  • ইউরোপ আমেরিকার প্রবাসী বাঙালি সম্পর্কে বলতে পারবো না। কিন্ত কলকাতা কেন্দ্রিক বাঙালি সম্পর্কে র২হ একটু সরলীকরণ করে ফেলছেন মনে হচ্ছে। মানে কলকাতা কেন্দ্রিক বলতে যদি কলকাতায় বসবাসকারীরা হন। স্টিরিওটাইপের বাইরেও একটা বড় দুনিয়া থাকে। একটু চোখ তুলে দেখতে হয়।  
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1964:7350:378:5634:1232:5476 | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৪:৩৯528710
  • এখনকার অসংখ্য মানুষ, এমনকি অল্পবয়েসীরাও নাটকে গানে বাংলায় নানান চর্যা চালিয়ে যাচ্ছেন। এই কলকাতায় বসেই। মফস্বলের কথা তো ছেড়েই দিলাম। প্রমিত বাংলার বাইরেও নানান ডায়লেক্ট নিয়ে অসাধারণ পরীক্ষা নিরীক্ষা করছেন।  হ্যাঁ, মূলধারার প্রচারের বাইরে। একটু খুঁজে দেখতে হবে আর কী। যেটা কেউ আলোচনাতেই আনে না, বাংলাদেশের বাংলা জাতীয় বুর্জোয়ার পুঁজির পুরো ঠেকনাটাই পায়। সেটাই ডিসাইডিং। তবুও এপারে কিছুই হয় না এই কান্না - কী বলবো, যাউগ্গা।
    গোদা উদাহরণ দিই একটা।
    বাংলা ভাষা ও বাঙালি আইডেন্টিটি নিয়ে প্রতুলদা আর কবীরের দুটি গানের এমন দৃষ্টান্ত আর কই? ওপারেও...
    'আমি বাংলায় গান গাই' আরেকটি 'বাংলার ধনুকের ছিলায় ছিলায়'...
    এঁরা দুজনেই কী বলে কলকাত্তাইয়া। 
  • r2h | 165.1.200.98 | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২০:৫৬528715
  • অবশ্যই, চোখ তুলে দেখতে হয়, অনেকেই অনেক কিছু করছেন।
    তবে ব্যতিক্রমটা ব্যতিক্রমই।

    অন্য কোথাও যাওয়ার দরকারই নেই, এই গুরুচণ্ডা৯ই আছে উদাহরণ, গুরুচণ্ডা৯তে যারা লেখালিখি করেন তাঁরা আছেন, সংখ্যাগুরু পব, বেশিরভাগই কলকাতাকেন্দ্রিক।

    সে তো চাড্ডিবিরোধি লোক চেনা বৃত্তে গিজগিজ করছে, কিন্তু তাতে বড় সামগ্রিক ছবি বা ট্রেন্ডটা পাল্টায় না।
  • r2h | 165.1.200.98 | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২১:০৪528717
  • বাংলাদেশের বাংলা পুরো পুঁজি পায়, পবতে বাংলা নিতান্তই অঙ্গরাজ্য, সে তো অবশ্যই।
    বহুভাষিক দেশ ভারতে হিন্দি ছাড়া বাকি ভাষাগুলিরও সমান মর্যাদা ও গুরুত্ব পাওয়া উচিত, এইটা তো জোর গলায় বলা অবশ্যই উচিত। সেটা বলার 'ট্রেন্ড' কি আছে?

    "যেটা কেউ আলোচনাতেই আনে না, বাংলাদেশের বাংলা জাতীয় বুর্জোয়ার পুঁজির পুরো ঠেকনাটাই পায়। সেটাই ডিসাইডিং। তবুও এপারে কিছুই হয় না এই কান্না - কী বলবো, যাউগ্গা।" - এই লেখাতে না এলেও এই নিয়ে আলোচনা বোধহয় গুরুতে ঘুরে ফিরে হয়েই থাকে, ফেসবুক টেসবুকেও দেখি। কেউ আনে না কথাটা - সুমন প্রতুল নাটক ডায়ালেক্টের ওপর গবেষণা ইত্যাদির মত ব্যতিক্রমী প্রয়াস বিবেচনা করলে ভুল। অনেকেই আনেন। তবে তার বিহিত যাতে হতে পারে সেই দাবি দাওয়া বড় রাজনৈতিক সত্তাগুলি করে না।
  • :\: | 139.52.176.164 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০২:২১528735
  • Copied from a FB post, a very practical statement

    “যে কোনো ভাষা জোর করে বাঁচিয়ে রাখা unfortunately সাধারণ মানুষের পক্ষে সম্ভব না; অত তলিয়ে ভাবার তাদের সময়ও নেই, মস্তিষ্কও না। হয়ত সেটা তাদের দোষও না। বাংলা ভাষা এবং সংস্কৃতি বাঁচানোর একমাত্র উপায় কিন্তু বাংলায় কথা বলা, গান লেখা, কবিতা উপন্যাস লেখা, cinema বানানোর নয়, বরং ওগুলোর incentive মানুষ কে দেওয়া, আরো সোজা ভাষায় পশ্চিমবাংলায় চাকরি বা বিজনেস আনা। আজকের জমানায় ভাষা বাঁচাতে গেলে সেই ভাষা ব্যবহার করে earn করতে পারাটা necessary……………A language that is primarily used for entertainment and culture, will not survive for long.”

     
  • dc | 2401:4900:3600:1ad2:a046:aff0:9996:efc8 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৭:৩১528737
  • আমারও মনে হয় মানুষ যে ভাষা ক্রমাগত ব্যবহার করে সেই ভাষা বেঁচে থাকে, নাহলে সেই ভাষা লুপ্ত হয়ে যায়। আর যে ভাষাগুলো বেঁচে থাকে সেগুলোরও ক্রমাগত পরিবর্তন হতে থাকে। আজ থেকে একশো বছর আগে বাংলা ভাষা একটু অন্যরকম ছিল, আজ থেকে একশো বছর পরে আবার অন্যরকম হয়ে যাবে। ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, ফ্রেঞ্চ ইত্যাদিও তাই। এনিয়ে চিন্তা করার কিছু নেই, বাংলা ভাষা বা অন্য যেকোন ভাষা থাকলে থাকবে, না থাকলে থাকবে না। কতো ভাষাই তো লুপ্ত হয়ে গেছে, আবার কতো নতুন ভাষা এসেছে। 
  • র২হ | 2601:c6:d200:2600:e49d:6e02:e2c5:2b82 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৮:০৫528739
  • গোমাংস খাওয়ার দায়ে মেরে ফেললেই বা কী, কত অভ্যাস লুপ্ত হয়েছে কত নতুন রীতি চালু হয়েছে।
     
    আপাতদৃষ্টিতে খুবই আলাদা।
    কিন্তু বাংলা নিয়ে কনসার্নটা সাধারনত সিস্টেমিক হিন্দি আগ্রাসনকে কেন্দ্র করে; এর সঙ্গে হিন্দি হিন্দু হিন্দুস্তান এজেন্ডা, দেশভাগের নানান ইন্টারেস্ট গ্রুপ, লবি ইত্যাদির নিকট সম্পর্ক।
     
    আর যেকোন আগ্রাসন ও তার কাউন্টার নিয়ে চর্চা সচেতনতার লক্ষন।
  • dc | 2401:4900:3600:1ad2:a046:aff0:9996:efc8 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৮:১৫528740
  • যাক। ঠিক এই পোস্টটা (৭ঃ৩১ এর) আমি অনেক টইতে করেছি আর ঠিক এই উত্তরটা (৮ঃ০৫ এর) র২হ অনেক টইতে দিয়েছে। আমি মাঝে মাঝে পরখ করে নি র২হ এর ওয়ার্ল্ডভিউ আগের মতোই আছে নাকি পাল্টেছে cheeky
  • র২হ | 2601:c6:d200:2600:e49d:6e02:e2c5:2b82 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৮:২৩528741
  • তা বটে
  • র২হ | 2601:c6:d200:2600:e49d:6e02:e2c5:2b82 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৮:২৪528742
  • :)
     
    আমি মাঝে মাঝে ইমোজি লিস্টি থেকে স্মাইলি চেষ্টা করি, প্রতিবারই উড়ে যায় :(
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1cd3:cabe:478:5634:1232:5476 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৮:১৫528748
  • আজকের গ্লোবাল পুঁজি সবসময়ই সমসত্ত্ব বানাতে চায়। ভাষার ক্ষেত্রেও তো তাই। হিন্দিকে সামনে রেখে সে যদি অন্য ভার্নাকুলারে খরচা বাঁচায় তো তাই করবে। সেক্ষেত্রে লড়াইটা একেবারে একপেশে বললেই চলে। বাংলাদেশের বাংলাও তো অন্যান্য আঞ্চলিকতাকে গিলে নিচ্ছে। চাকমাদের ক্ষেত্রে কী ঘটছে!
    তাই দোষারোপ না করে মাঝে মাঝে 'ব্যতিক্রম' গুলোতে আলোকপাত প্রয়োজন। মূলধারায় আনার একটা প্রচেষ্টা দরকার। এই কাউন্টার বিতর্কে একপেশে লড়াইয়ের মাঠে তাতে করে যারা লড়ছে তারা উৎসাহ পায় বই কী। সেটার গুরুত্ব এই মুহূর্তে কিছু কম না।
    আর ডিসি কী জানেন না কলোনিয়াল পুঁজি কত হাজার ভাষাকে জোর করেই নিশ্চিন্হ করে ছেড়েছে। এগুলো বোধহয় ফুট কাটার জন্যই বলেন। কিন্তু স্বাভাবিক চলাচলের ক্ষেত্রে ওঁর মতো আমিও ভাষার নিরন্তর বন্ধণহীনতার পক্ষপাতী। সেই জন্যই বাংলাদেশের বাংলার থেকেও এপারের বাংলা অনেক বেশি ডায়নামিক লাগে। (অবশ্যই ব্যক্তিগত মতামত।) বাংলাদেশের থেকেও এপারের বাংলার পশ্চাৎভূমি অনেক বড়। দ্বন্দ্বটাও তাই অনেক বড়। সেটা অনেক সময় অ্যাডভান্টেজও বটে। তাই না? শুধু 'কেন কি' ধরলে তো হবে না দাদা।
  • গংগারাম | 115.187.40.104 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২১:২২528751
  • শেষ মন্তব্যেই আ খো বাবু আসল কথাটা বলে দিয়েছেন - আজকে গ্লোবাল পুঁজি সকলকেই সমসত্ত্ব বানাতে চায়। আর এই সমসত্ব বানানোর উদ্যোগেই পশ্চিম বাংলায় বাংলা ভাষার কোন ভবিষ্যৎ নেই। বাংলার ইকোনমি নিয়ন্ত্রিত হয় ইংরেজি এবং হিন্দি ভাষা দ্বারা ,কাজেই সেখানে বাংলা ভাষা অপ্রাসঙ্গিক হয়ে পড়েছে। এর পরও ভরসার জায়গা ছিল বাংলার লোকসংস্কৃতি ,কিন্তু সেখানেও আর এস এস থাবা বসিয়েছে। কাজেই এপার বাংলায় বাংলা ভাষার ভবিষ্যৎ নেই ,যেকোন কিছুর ভবিষ্যৎ নিয়ন্ত্রণ করে অর্থনীতি ও রাজনীতি।আর আমরা অর্থনীতি রাজনীতিকে ভুলে দিয়ে ,নিজেদের দোষ আর ব্যর্থতা আড়াল করার জন্য অবাঙালিদের বিরুদ্ধে ঘৃণা চর্চা করে আনন্দ পাই।
     
    ওপার বাংলা সম্পর্কে ভাল জানি না , তাই বলতে পারব না,তবে যদ্দুর জানি , বাংলাদেশেও মানুষরা বাংলার লোকসংস্কৃতি থেকে মুখ ফিরিয়ে আরবি ছাঁচে দ্বেষাত্মক ইসলামের দিকে ঝুঁকছে। কাজেই ওপার বাংলাতেও খুব আশা দেখি না,তবে ওপার বাংলার পরিস্থিতি যদি অন্যরকম হয় , আমার ধারণা যদি ভুল হয় , তাহলে তো ভীষণ খুশি ও আশান্বিত হব। 
  • r2h | 165.1.172.197 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২১:৫১528752
  • লোকসংস্কৃতি থেকে মুখ ফিরিয়ে আরবি ধাঁচে দ্বেষাত্মকের ব্যাপারটা জানি না, তবে ভারতীয় মেগা সিরিয়েল বাংলাদেশে বিশাল জনপ্রিয়, হিন্দি ছবিও। ঐ জিনিসগুলি বাংলাদেশের জন্যও থ্রেট।
    ধর্মীয় মেরুকরণ ও বিদ্বেষ বাড়ছে সবদিকেই, সুতরাং ঐ জিনিসটাও খুব সম্ভব।

    আ-খোঁর শেষ অনুচ্ছেদের সঙ্গে অনেকটাই একমত। ডায়নামিক, দ্বন্দ্ব, অ্যাডভান্টেজ ইত্যাদি সহ।

    পশ্চাৎভূমি অনেক বড় - এই ব্যাপারটা নিয়ে একটু বিস্তার করলে ভালো হয়।
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1cd1:fa7e:278:5634:1232:5476 | ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২২:২৭528765
  • র২হ
    পশ্চাৎভূমি বলতে বাঙালির (১৯৪৭এর পর মূলত এপারের বাঙালি) মিশ্রিত সংস্কৃতির রেঞ্জটার কথা বলতে চাইছি। পুরো গ্যানজেটিক প্লেন একসময়কার বেঙ্গল প্রেসিডেনসি। একটা বিশাল রেঞ্জ। ত্রিপুরা, বরাক, আসাম থেকে শুরু করে কাশী, বৃন্দাবন, আগ্রা, দিল্লি, এলাহাবাদ, পাটনা, বিহার-শরীফ, তারপর বাঙালির একান্ত পশ্চিম অর্থাৎ মধুপুর-গিরিডি-শিমুলতলা অঞ্চল, চৈতণ্যের সঙ্গে পুরী বা অর্ধেক ওড়িশা, প্রায় পুরো হিমালয় --- এই সমস্ত জায়গায় সমস্ত সংস্কৃতিকে প্রকৃতিকে অবলম্বন করেই নিজের মতো করে গড়ে উঠেছে ছোট ছোট মিশ্রিত বাঙালি সংস্কৃতি। নানা দ্বন্দ নানা পর্যায়ে গড়ে উঠেছে নানান ন্যারেটিভ, নানান আখ্যানের শাখাপ্রশাখায় ঢুকে পড়েছে বাংলা সাহিত্যে, সংস্কৃতির নানান ধারায়। আমার মনে হয় বাংলাদেশ এটা থেকে ৪৭ থেকেই বিচ্ছিন্ন। কিন্তু ওপারের আখ্যানগুলো, লোকায়ত টুকিটাকি কিন্তু এখানে যথেষ্ট প্রবাহিত হয়েছে আমাদের মতো উদ্বাস্তুদের বিভিন্ন প্রজন্মের মাধ্যমে। সেই জন্যই আমার রেঞ্জটা অনেক বিস্তৃত মনে হয়। আমি দেশের বাইরের ডায়াস্পোরার কথা আনলাম না। সেটা প্রাসঙ্গিক হবে না। 
     
    গঙ্গারাম
    আপনার আশংকার সঙ্গে একমত। বাংলাদেশেও একই ব্যাপার। এপারে গেরুয়া জিতে গেলে বাংলার ভাষা হিসেবে হাল আরো খারাপ হবে।
    সেই জন্যই বলছিলাম সৌখিন দোষারোপের রাস্তা থেকে বেরিয়ে ছোট ছোট পকেটে যেসব লড়াইগুলো চলছে তাদের আরো বেশি করে আলোচনার মধ্যে আনা --- আমাদের সীমিত ক্ষমতার মধ্যেই। কারণ এপারের অর্থনৈতিক-রাজনৈতিক বাস্তবতায় ওগুলো যারা লড়ছেন তাঁদের প্রতি ইগনোরেন্স ছাড়া এই সৌখিনতার কোনো মানে নেই। এই পার্থবাবু নিউইয়র্কে বসে যা সব বলছেন তাতে এই হয় যে এয়ারপোর্ট থেকে বেরিয়ে কটা বাংলায় সাইনবোর্ড সেটা দিয়ে ঢাকা আর কলকাতার বাংলাপ্রীতির পরিমান মাপা হয়। রাজনীতি অর্থনীতি এসব যাক তেল লেনে। 
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1cd1:fa7e:278:5634:1232:5476 | ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২২:৩৪528766
  • বাংলাদেশের একই ব্যাপার ভুল লিখলাম। ওখানের রাজনীতি ও অর্থনীতি বাংলাকেই টানবে। তার আরবিকরণ কতটা হচ্ছে সে সম্পর্কে আমার খুব জানা নেই। গঙ্গারাম আলোকপাত করলে ভালো হয়। তবে ওপারে বাংলার চাপে যে অন্যান্য আঞ্চলিকতা বিপন্ন সেটা আন্দাজ করাই যায়। 
  • র২হ | 2601:c6:d200:2600:d47e:1e0e:44e0:59a0 | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৪:৫৬528802
  • আখোঁ, ধন্যবাদ। পশ্চাৎভূমি বিষয়ে এই পর্যবেক্ষণ ভাবার মত বটে। এই বিস্তার বোধহয় সত্যিই অনেক বিস্তৃত, বিচিত্র ও বর্ণময়।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আদরবাসামূলক প্রতিক্রিয়া দিন