• হরিদাস পাল  বাকিসব  নেট-ঠেক-কড়চা

  • লাইফ রকস! 

    Mani Sankar Biswas লেখকের গ্রাহক হোন
    বাকিসব | নেট-ঠেক-কড়চা | ২৪ অক্টোবর ২০২০ | ২৬৭ বার পঠিত | ৩/৫ (১ জন)
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • প্রাণ বলতে আমরা যা বুঝি, তা আমরা মানুষের ইন্দ্রিয়জাত বুদ্ধিবৃত্তি ও যুক্তিগ্রাহ্যতা দিয়েই বুঝি। স্বাভাবিক। কিন্তু অনেক মহাকাশ-বিজ্ঞানী ও বায়োলজিস্ট দাবী করেন যে ‘আর্থলাইক’ নয় এরকম পরিবেশেও প্রাণের বিকাশ হতে পারে। সেই প্রাণ কী ইন্টেলেকচুয়ালি সুপিরিয়র হতে পারে? সম্ভবত হ্যাঁ। এর বিরুদ্ধে যে যুক্তি তা হল এই যে, মানুষের যা ডিজাইন তা এতই গ্র্যান্ড, অন্য কোনো ভীষণ বিসদৃশ ফর্মে, খুব ইন্টেলিজেন্ট প্রাণের উদ্ভব হতে পারে না। একটা উদাহরণ দিই। জিনাস ‘হোমো’-র যে অংশটি, অর্থাৎ যখন আমাদের এক দিদিমা প্রথম শুধু দুই পায়ের উপর ভর দিয়ে উঠে দাঁড়াল, তখনই প্রথম মস্তিষ্কের তুমুল বিকাশের সম্ভাবনা দেখা দিল। সেই প্রথম তার নিজস্ব দুটি হাত হল, ‘ফ্রি অ্যান্ড এম্পটি’ এবং ক্রমে সে বিস্তর চিন্তাভাবনা শুরু করতে বাধ্য হল যে এই খালি হাত দিয়ে সে কী কী কাজ করতে পারে। কিন্তু যতদিন সে চতুষ্পদ প্রাণী ছিল, এ নিয়ে তার খুব সামান্যই মাথাব্যথা ছিল। অর্থাৎ মস্তিষ্কের বৃদ্ধি ও উন্নততর বুদ্ধিমত্তার জন্য কমপক্ষে দুটি হাত জরুরী ছিল। (এবার বোঝা যাচ্ছে তো হিন্দু দেব-দেবীর কেন অতগুলি করে হাত?) তবে একথাও অস্বীকার করা যায় না মানুষের শরীরের যে ৬০% জল, তার কারণ তো পৃথিবীতে জলের প্রাচুর্য। ধরা যাক এমন এক গ্রহ যেখানে ইথাইল অ্যালকোহলের প্রাচুর্য আছে, তো সেখানে যদি প্রাণের উদ্ভব হয়, বলাই-বাহুল্য সেই প্রাণ-শরীরের ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ হবে ইথাইল অ্যালকোহল। এও অনুমান করা অসম্ভব নয় যে সেখানে জল খেলে ‘নেশা’ (অ্যালকোহল ডাইলিউটেড হবে) হয়ে যাবে এবং উন্নত প্রাণের উদ্ভব হলে সেই গ্রহে দেশি-বিদেশি জলের বার-কাউন্টার খোলা হবে। জোকস অ্যাপার্ট, পৃথিবীর সাপেক্ষে অনেক বিরুদ্ধ পরিবেশেও কিন্তু মাইক্রো-অর্গানিজম পাওয়া গেছে এবং এমনও হয়ত সম্ভব যে একদম নন-আর্থলাইক পরিবেশে ‘অসম্ভব’ সুপিরিয়র কোনো প্রাণ ঘাপটি মেরে বসে আছে। এখানে ‘অসম্ভব’ শুধু মানুষের রেফারেন্স ফ্রেমে অসম্ভব। সাহিত্যিক গার্সিয়া মার্কেজ একটা ইন্টার্ভিউতে বলেওছিলেন, The arrogance of those who assert that ours is the only inhabited planet is touching. I think that rather we are something like a lost village in the least interesting province of the Universe, and that the luminous discs that are passing in the night of the centuries are looking at us like we look at chickens.


    এই সব নিয়ে অন্য কোনোদিন আলোচনা করা যাবে। আমি আসলে লিখতে চাইছিলাম যা, তা হল, প্রাণ অসম্ভবকে সম্ভব করে। তার গতি অর্থহীনতার বিপরীতে। যতই বিরুদ্ধ-পরিবেশ হোক না কেন, প্রাণ, প্রাণ-ধর্মের কারণেই টিকে থাকতে চায়, মানিয়ে নিতে চায়, লড়াই করে, অভিযোজিত হয়। কিন্তু এর লিমিট ঠিক কতটা? কেউ জানে না।


    একটা উদাহরণ দিই। মহাকাশে প্রথম মাকড়সা ছিল অ্যারাবেলা এবং অনিতা, দুটি সাধারণ মাকড়সা (Cross Spiders) যাদেরকে ১৯৭৩ সালে নাসার স্কাইল্যাব স্পেস স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। কিছু প্রাথমিক অসুবিধার পরে (১ নং ছবি) অবশেষে অ্যারাবেলা একটা ডিসেন্ট মাকড়লালা-জাল (২ নং ছবি) বুনেছিল, যদিও এটা ছিল পৃথিবীর সাধারণ মাকড়সা-জালের চেয়ে কম শক্ত। ২০১১ সালেও গ্লাডিস এবং এসমারেলদা নামের দুটি মাকড়সাকে (Golden Orb Spiders) আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হয়। এবং এবারেও দেখা যায় প্রাথমিক কিছু বিভ্রান্তির পর মাকড়সা-দুটি জাল বুনতে সক্ষম হল, অর্থাৎ তাদের আচরণ মাইক্রোগ্রাভিটি-তে খুব বেশি পরিবর্তন হয়নি। এই যে ভরশূন্য অবস্থায় বারবার মাকড়সারা জাল বুনতে সক্ষম হচ্ছে, এই হচ্ছে প্রাণের জয়জয়কার। একটা যন্ত্র যে পরিবেশ বা পরিস্থিতিতে কাজ করবার কথা, অর্থাৎ যে পরিবেশ-পরিস্থিতির কথা ভেবে যন্ত্রটি ডিজাইন করা হয়েছে এবং সেই ডিজাইনকে পরিনির্মাণ করা হয়েছে, তার অন্যথা হলেই যন্ত্রটি মুখ থুবড়ে পড়বে, চেষ্টা তো অনেক দূর কী বাৎ। প্রাণ, এমনকি মাকড়সা-প্রাণও কল্পনাতীত জটিল। সে চেষ্টা করে, সম্ভব-অসম্ভব। যে প্রাণী পৃথিবীর অভিকর্ষের বিরুদ্ধে জাল বুনে শিকার ধরতে অভ্যস্ত, সেই একই প্রাণী কী কৌশলে ভরশূন্য অবস্থায় বা মাইক্রোগ্রাভিটি-তে মানিয়ে নিতে শেখে এবং ঊর্ণাজাল বুনতেও সক্ষম হয়, এই ট্রায়াম্ফ অব লাইফ, এখনকার বিজ্ঞানের কাছেও ব্যাখ্যাতীত, সুন্দর। তবে এটুকু বোঝা যায়, লাইফ রকস!

  • বিভাগ : বাকিসব | ২৪ অক্টোবর ২০২০ | ২৬৭ বার পঠিত | ৩/৫ (১ জন)
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লড়াকু মতামত দিন