• টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। যে কোনো নতুন আলোচনা শুরু করার আগে পুরোনো লিস্টি ধরে একবার একই বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে কিনা দেখে নিলে ভালো হয়। পড়ুন, আর নতুন আলোচনা শুরু করার জন্য "নতুন আলোচনা" বোতামে ক্লিক করুন। দেখবেন বাংলা লেখার মতো নিজের মতামতকে জগৎসভায় ছড়িয়ে দেওয়াও জলের মতো সোজা।
  • ফেসবুক গপ্পচর্চা

    দ্যুতি
    বিভাগ : অন্যান্য | ১৪ মার্চ ২০২০ | ১৯৩ বার পঠিত
  • একটু অন্য গল্প করি। আমি খুব ছোট থেকেই গল্পের বই নিয়ে বেশ চুজি। আমি তেমন করে কার্টুন পড়িনি বা দেখিওনি। অথচ আমিও অনন্দমেলার সেই শুরু থেকে ভক্ত। টিনটিন ছবি দেখতাম, কিন্তু পড়লে কেমন গুলিয়ে যেত আমার। সেই বয়সে সবাই দেখি অনন্দমেলা মানেই আগে টিনটিন। ভাই ও তাই। আমার গাবলু,সদাশিব তাও ভালো লাগতো। ছবি বেশি টানতো। আমি প্রফেসর শঙকু পড়তে পারিনি। আজ আর চেষ্টা করি না। কিন্তু কাকাবাবু সিরিজ, এমনি ফেলুদা আমি পড়েছি। এভাবে বড় হতে গিয়ে কিছু জিনিস আমার জন্য নয় হয়ে গেল। ভাই স্পাইডারম্যান, জঙ্গল বুক দেখত আমার টাইটেল সং অব্ধি দৌড়, তারপর চলে যেতাম। আমি খুব ছোট থেকে প্রচুর পারিবারিক বই গল্প পড়েছি। আমি ওসব বইয়ে সব সময় বাস্তব খুঁজেছি। অতিনাটকীয়তা আমার হজম হত না। মোটামুটি আমার ঘরানা টা বোঝানো গেল। ছেলে এক সময় খুব কার্টুন গিলতো। ওর সাথে ডোরেমন আর সিনচন একটু আধটু,মিঃ বীন এসব দেখেছি। এখন আরো কত রকম সব সিরিজ,মুভি, ছেলে বোঝায়, বলে, কিছু ঢোকে, কিছু উপর দিয়ে যায়। যে সবের বেস নেই সেসব নিয়ে গল্প। আমার বোঝার নয় ওসব। মেয়ে মনে হয় এসবে কিছুটা আমার মত। এসব তো গেল।

    আমি এই নেটে বসে অনেক লেখা পড়ি। সব ওই অভিজ্ঞতা, সত্যি ঘটনা, স্মৃতি এরকম। মাঝে মাঝে দু একটা গল্প পড়ে ফেলি। সেসব গল্পে কত লাইক আর কত কমেন্ট। সব এই পারিবারিক গল্প। কিন্তু আমার ভীষণ খারাপ লাগে সেসব। আমার আজকের বক্তব্য এ নিয়েই।

    আজ নেটে যে সব পারিবারিক কাঠামোয় গল্প লেখা হয় সেগুলো এরকম কেন? আর পাব্লিক এত সস্তার যে বিনা প্রতিবাদে সেসব গেলে, তাদের ওয়াও, দারুণ মন্তব্য দেন। শাশুড়ি জাঁদরেল এরকম চরিত্র পেলে কমেন্ট বক্স ভরে ওঠে তাদের শাশুড়ির গুষ্টির তুষ্টি করে। কোথাও স্বামী খারাপ, প্রেমিক বঞ্চনা করলো,ননদ বা দেওর, কমেন্ট বক্সে নিজেদের জীবনের নেগেটিভ গল্প। কেউ কেউ সেখান থেকে নারী চরিত্র টাকে এমন দেখান যে সব সময় সেই নারী কিছু করে খেল দেখিয়ে জিতবেন, সব প্রতিকূলতা জয় করবেন।

    এই গল্পগুলোয় প্রচুর গাঁজাখুরি মেশানো।আমি ভুল করে পড়ে ফেললে কেমন অস্বস্তি হয়। আমজনতা কেমন খায় এসব তাই ভাবি।চরিত্রের সাথে মিশে গিয়ে কমেন্ট করেন। লেখার গুণ হয়ত এটাই। এরাই জানেন পাব্লিক কি খায়। আমার বরের মত লোকের কথায়, তোমার মত সিরিয়াস কে,কিছু তো মুটে মজুর, রিক্সাওয়ালাদের লেভেলের, এন্টারটেনমেন্টের হবে। এসব ই আমি বুঝি। এই রোজকার ফ্যামিলি ড্রামার চাটনি খুব মিঠে। কিন্তু আমি নিতে পারি না। আমি এক দুটো লেখায় অন্য মন্তব্য করে দেখেছি লিখছেন যিনি নিতে পারেন না। কিছু পাঠক চটেন। তাই আর ওসব করি না। আজ এই সকাল সকাল একটা গল্প পড়লাম।, গল্পের নাম দেখে পড়তে ইচ্ছে হয়। তারপর সেই কেমন যেন গল্প। এক বাবার গল্প। কিন্তু তার মধ্যে যে করুণ ব্যাপার আছে সেটা আমি নিতে পারলাম না।

    কে কি লিখবেন সেটা সত্যি তাঁর ব্যাপার। আমার এসব কথা খুব অবান্তর লাগতে পারে। বইমেলায় এরকম কিছু বেস্ট সেলার দেখলাম। আমার শুধু মনে হয়, সবের মান নেমে যাচ্ছে। এগুলো মোটেও ভালো গল্প নয়। এ শুধু সেই সন্ধ্যা রায়ের দুপুর কাটানো বাংলা মুভি। কিছুটা প্যানপ্যানানি, কিছু ঢিশুম ঢুশুম কিছু আত্মতৃপ্তি। এতে কোথাও এক ছটাক সাহিত্য মান, চরিত্রের বাঁধন, দৃঢ়তা নেই। শুধু প্লট আছে। সেসব আবার বেশিরভাগ ধার করা। অনেকেই কিছু গল্প সযত্নে ঝেপে লেখেন। ধরাও পরেন তবু লেখেন।

    জানি এটা ফেসবুক। আমার এসবের সায় দিতেও কিছু পাঠক থাকবেন। ফিকশন আর নন ফিকশন লেখা বেশ আলাদা। আমি পাঠকদের বলতে পারি,প্লিজ একটু বুঝে কমেন্ট দিন। আমার প্রচুর বন্ধুর লাইক পাই ওসব লেখায়। সেগুলো আমার যন্ত্রণা বাড়ায়। অতিনাটকীয়তা থাক। কিন্তু বাস্তবকে বড্ড ভুল ভাবে দেখানোটা ঠিক না। যেমন, কোনো এক বয়স্কা মা আনটি ডাক টাও নাকি শোনেন নি, তার আংটি মনে হয়েছে, অথচ তার ছেলে বড় অমুক তমুক। এই যে শুধু শুধু মা কে এতটা ডাউন দেখানো এটা অবাস্তব অন্তত আজকের দিনে। আজকের গল্পে মা নাকি সাত মাসে পেটে মেয়ে সন্তান জেনে তাকে মেরে দিয়েছেন, বাবার গল্প,বাবাকে মহান দেখাতে এমন গল্প ফেঁদেছেন। কিন্তু ওই ভ্রূণ হত্যার কি করুণ বিবরণ। এগুলো ঘোর বাস্তব তাই তো! সেটাও যেমন আবার আমার মনে হয় এগুলো একটা নেগেটিভ প্রচার।

    অনেক হল,আমার মনে হয় কিছু চেঞ্জ দরকার। লিখতে পারি, সিনেমা দেখাতে পারি, বানাতে পারি বলে যাকিছু খাওয়াবো পাব্লিককে এটা ঠিক না। সে রিলেশনশিপ, সেক্স যাইহোক না কেন।
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • করোনা ভাইরাস

  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত