এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৬:৩৫52681
  • হ্যাঁ টেকনলজিই তো বাঁচাবে। ইতিহাস মনে হয় ভুলে গেছেন।

    আজকে গেটস ফাউন্ডেশন যেসব কাজ করছে সেসবই তো জল, খাদ্য, আর স্বাস্থ্য নিয়ে। বিশুদ্ধ জল আর অষুধ কি হাতির শুঁড় আর পাখির ল্যাজে বেধে সরবরাহ করা হবে? শুনছি ভুটানে নাকি ড্রোন দিয়ে অষুধ সরবরাহ করা হচ্ছে।

    বিশ্বাস করুন আমাকে আর আপনাকে নেব্রাস্কা নিয়ে না ভাবলেও চলবে। আমার আগের পোস্নো গুলো?
  • d | 144.159.168.72 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৬:৩৬52649
  • সবাইকে আর্থ ডে'র শুভেচ্ছা। :-)
  • dc | 132.164.236.159 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৬:৪৭52650
  • "অর্থাৎ পরিবেশ বিষয়ে কথা বার্তা বলতে গেলে প্রথমে গুহা বাসী হতে হবে"

    একদম ভুল বুঝেছেন। পরিবেশ নিয়ে অবশ্যই চিন্তা করা উচিত, গ্লোবাল ওয়ার্মিং কিকরে কমানো যায় সে ভাবনাও ভাবা উচিত। তার জন্য কার্বন ট্যাক্স, কার্বন ক্রেডিট ট্রেডিং এসব নানান মেকানিজম নিয়ে অনেক দেশ চিন্তাভাবনাও করছে। আবার কার্বন ডাইঅক্সাইড সিকুয়েস্ট্রেশন নিয়েও প্রচুর রিসার্চ হচ্ছে। এমিশান কমানো, ক্লিন এনার্জি ইউজ করা, সরকারের তরফ থেকে এমিশান নর্মস তৈরি করা, এরকম নানান উপায়ের কথা ভাবা হচ্ছে। stop flying altogether টাইপের অবাস্তব সল্যুশান নিয়ে অবশ্যই কেউ ভাবছেনা, তবে গ্রিনহাউস গ্যাস এমিশান কিভাবে কমানো যায় সে নিয়ে নানারকম সোশিও-পলিটিকাল-ইকনমিক-টেকনোলজিকাল চিন্তাভাবনাও হচ্ছে, পদক্ষেপও নেওয়া হচ্ছে।

    সবাইকে আর্থ ডের শুভেচ্ছা, আপনাকেও ঃ)
  • amit | 213.0.3.2 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৭:৪৫52651
  • dc-কে অনেক ধন্যবাদ। ইন ফ্যাক্ট এই যে টেকনোলজি গুলোর কথা বললেন, কর্মসূত্রে সেসবের কিছু কিছু কাজে নিজেই জড়িয়ে আছি। আর মজাটা হলো বেশির ভাগ রিসার্চ হয় ক্যাপিটালিস্ট দেশে, যেগুলোর নাম শুনলেই এই লেখাটির লেখকের পিত্তি জ্বলে ওঠে। গত ২০-৩০ বছর এ এসব দেশেই কয়লার ব্যবহার কি অনুপাতে কমেছে তা না জানলে অবাক লাগবে। কিন্তু অল্টারনেটিভ গ্যাস বা অন্য এনার্জি এসেছে বলেই সেটা কমানো গেছে, সব বন্ধ করে দিয়ে নয়। এই সব "ভেঙ্গে দাও , গুড়িয়ে দাও " মানসিকতা দিয়ে অন্তত সভ্য দেশ চলে না।

    লোকে দের consumption কমাতে বললে কি সবাই মেনে নেবে? চা বাগান এর শ্রমিক অভুক্ত আছে বলে কি কোনো ব্যগরাশিল্পী কি এক বেলা খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন? পরিবেশ এর বিপদ ছাড়াও সারা দুনিয়া তে রেফিউজি কম নেই , যখন যেভাবে সমস্যা আসছে , সেটার মোকাবিলা করা হচ্ছে । এবার সেই সমাধান সবার মনের মত হবে সব সময় এই অলীক স্বপ্ন আমি দেখি না। ৪০০ বছর আগে ৪০ মিলিয়ন লোক যদি বেড়ে ৭০০০ মিলিয়ন হতে পারে, তখন সমস্যাও বাড়বে , সব বন্ধ করে দিয়ে তার সমাধান যারা খোজে, তাদের কে এক হিসেবে গুহাবাসী ধরা যায়।
  • Debabrata Chakrabarty | 212.142.76.141 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৭:৫০52682
  • কাঠমোল্লা 'র উদাহরণ দিয়েছি মনে হয় - যেনারা আল্লাহ'র ( টেকনোলোজির ) গজবে ভরসা রাখেন । তেনারা বাতাসে বিষ , এবং মাটিতে সার আর টেকনোলোজির কল্যাণে টপ সয়েল উবে যাওয়া দেখতেই পারেন না , জলস্তর নেমে যাওয়া অথবা আর্সেনিক । কাঠ মোল্লা - ইহাদের বলে ।

    গেটস ফাউন্ডেসন ? ফুঃ কলা চুরি করছেন ,ইহাকে বায়ো পাইরেসি বলে ( এইনা হোলে ক্যাপিটালিজম এ ভরসা ) নিন পড়ুন ঃ- Why is Bill Gates backing red banana 'biopiracy'? - The Ecologist http://www.theecologist.org/News/news_analysis/2648196/why_is_bill_gates_backing_gmo_red_banana_biopiracy.html

    বিশুদ্ধ জল - টেকনোলোজি লাগেনা বরং টেকনোলোজি বন্ধ করতে লাগে শুধু কানপুর থেকে বেনারস একটু গঙ্গা টা দেখে নেবেন ট্যানারির গাদ আর ইন্ডাস্ট্রিয়াল ওয়েস্ট ,আর যমুনা যে কোন সময়ে ,একটু ছত্তিসগড় চলে যাবেন দেখবেন নদী কেমন পাওয়ার প্ল্যান্টের গাদ বহন করছে অতদুর না যেতে চাইলে একটু কোলাঘাট ঘুরে আসুন - যদি আজকে আপনার টেকনোলোজি বন্ধ করেন তাতেও শালা দুশো বছর লাগবে সেই গাদসাফ হতে । সারা আমেরিকার একটি জলাশয়ের জলও পানযোগ্য নয় কেন ঐ আল্লাহ'র ( টেকনোলোজির ) গজবে । ( An eye-opening new report (PDF) from Environment America Research and Policy Center finds that industry discharged 226 million pounds of toxic chemicals into America's rivers and streams in 2010. The pollution included dead-zone-producing nitrates from food processors, mercury and other heavy metals from steel plants, and toxic chemicals from various kinds of refineries. Within the overall waste, the researchers identified 1.5 million pounds of carcinogens, 626,000 pounds of chemicals linked to developmental disorders and 354,000 pounds of those associated with reproductive problems. ) এইগুলি বন্ধ করুন বিশুদ্ধ জল এমনিই পাবেন । কেন ক্যানসার ঊর্ধ্বগামী -টেকনোলজি !

    তা পেলেন জবাব আমেরিকার লাইফ এক্সপেক্টেন্সি টেকনোলোজির স্বর্গরাজ্যে? ১৭বছর লাইফ এক্সপেক্টেন্সি কম কেবলমাত্র গরীব তাই , সুতরাং দারিদ্রতা মশাই টেকনোলোজি নয় । ৪০০ বছরের টেকনোলোজি আর লাইফ এক্সপেক্টেন্সি ? - এক বাড়িতে ২টো বাচ্চা একজন ৬ মাস বয়েসে নিউমোনিয়া , আর এক জন ৮০ বছর বয়েসে হার্ট ফেল লাইফএক্সপে ক্টেন্সি কত? ৪০ বছর । মানুষের গড় আয়ু বৃদ্ধি পাওয়ার হিসাব এবং তার সাথে টেকনোলোজির সম্পর্ক ৩০ বছর পূর্বে হত এখন HLY দিয়ে হয় এবং বিগত ৪ দশকে সেই গড় নেগেটিভ । শিশু মৃত্যু হার , ওঠা নামার সাথে এই লাইফ এক্সপেক্টেন্সি সম্পর্কিত, টেকনোলোজি নগণ্য । সিয়েরা লিওন এ গড় আয়ু ৩৭ বছর মানে দেশ শুদ্ধ লোক ৩৭ বছরে পটল তুলছে ?

    সুসম খাদ্য ? না মশাই লাগেনা উল্টে টেকনোলোজি অখাদ্য খাওয়ায় - আমার দিদিমা একটা কমলালেবুতে যতটা নিউট্রিয়েন্ট পেতেন সেই পরিমাণ পেতে গেলে আপনাকে এক ডজন আর আপনার পরবর্তী প্রজন্ম কে তিন ডজন কমলালেবু খেতে হবে , কেন জানেন - টেকনোলোজি মাটির গুন তেরোটা বাজিয়েছে । হ্যা টেকনোলোজি আমাদের ম্যাক /কেএফসি /মেলানিন সহিত দুধ / প্রসেসড মিট এই সব অখাদ্য খাওয়ায় বটে ।

    টেকনলজির সাথে আয়েরও কোনো সম্পর্ক নেই? কে বলেছে নেই সেই জন্যই তো ভারতে ৫০% দরিদ্র সীমার নিচে ( ৭০% ও হতে পারে যদি ইউরোপের মাপদন্ড ধরা হয় ) ওয়ারেন বাফেট এর মোট অ্যায় পৃথিবীর ১৩৭ টি দেশের জিডিপি তুলনাতে অধিক । এই এনাদের ইকো সিস্টেমের জন্য টেকনোলজি দরকার বাকি বিশ্বের মানুষ এবং অন্য প্রজাতির জন্য অবিলম্বে বন্ধ হওয়া দরকার ।
  • Tim | 140.126.225.237 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৮:০১52683
  • টেকনোলজির ব্যাপক প্রয়োগ বন্ধ করা দরকার, ইকোসিস্টেম যাতে ব্যালান্স না হারায়, এইটাই কি মোদ্দা কথা? কিভাবে সেটা সাজেস্ট করছেন?
  • করঞ্জাক্ষ | 203.55.36.42 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৮:১৪52684
  • কেন দাও ফিরে সে অরণ্য লাইনে হাঁটলেই হবে
  • Debabrata Chakrabarty | 212.142.125.75 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৮:১৪52652
  • " dc-কে অনেক ধন্যবাদ। ইন ফ্যাক্ট এই যে টেকনোলজি গুলোর কথা বললেন, কর্মসূত্রে সেসবের কিছু কিছু কাজে নিজেই জড়িয়ে আছি।" সে তো বুঝতেই পারছি না হলে এত গায়ে ফোস্কা পরে? - তা এই যে এত টেকনোলোজি , কার্বন ট্যাক্স , সমুদ্রে চুরি করে তেজস্ক্রিয় বর্জ্য বছরের পর বছর চুবিয়ে দেওয়া ,বা সোলার , উইন্ড টারবাইন বায়ু দূষণ না কমে বেড়ে যাচ্ছে কেন ? হয়েছে গ্যাংরিন লাগাচ্ছি টিংচার আইওডিন কি চিকিৎসা বটে । ১৯৪০ এর মধ্যে তো সমুদ্রে আর খাওয়ার জন্য মাছ থাকবেনা - তা আমরা কি টিংচার আইওডিন লাগাবো আর অপেক্ষা করব পায়ের পচন কখন সারা দেহ গ্রাস করে ?

    dc বলছেন " এমিশান কমানো, ক্লিন এনার্জি ইউজ করা, সরকারের তরফ থেকে এমিশান নর্মস তৈরি করা, এরকম নানান উপায়ের কথা ভাবা হচ্ছে। " এই রকম ঢপের চপ ঐ ক্যাপিটালিস্ট দেশ যেখানে রিসার্চ হয় সেই কোয়েটো প্রটোকলের সময় থেকে খাওয়াচ্ছে - ইহাকে ' গ্রিন ওয়াশ ' বলে - কালো চিমনী সবুজ রং করে দিলে তাহা গ্রিন হয়না -গ্রিন ওয়াশ হয় ! তথ্য তাহাই বলিতেছে ।
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৮:২০52686
  • উনার দিদিমা কমলালেবু খেতেন। জিগান তো কোথায় পেতেন কমলালেবু?
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৮:২০52685
  • "এই এনাদের ইকো সিস্টেমের জন্য টেকনোলজি দরকার বাকি বিশ্বের মানুষ এবং অন্য প্রজাতির জন্য অবিলম্বে বন্ধ হওয়া দরকার ।" আপনি কোন প্রজাতি? কম্পিউটার, ইন্টারনেট এগুলো যে টেকনালজি সেইটা বোঝেন তো? আর এখন আমি সিওর ট্কনলজি অত্যন্ত খারাপ জিনিস। আপনাঅকে এইসব হাবিজাবি লেখার ক্ষমতা যেটা দেয়, সেটা খুব খারাপ জিনিস বটেই।
  • Atoz | 161.141.85.8 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৮:৩৯52687
  • কেন, আদম আর ইভ এসে দিয়ে যেত! ঃ-)
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৮:৫২52688
  • আরো কিছু কথা লিখে দিই। নইলে এখানে অনেকে উনাকে গুরু মনে করেন, আর উনার দেওয়া উল্টোপাল্টা তথ্য নিয়ে তত্ত্ব সাজাবে পরে।

    ১) HLY মানে হলো হলদি লাইফ ইয়ার্সঃ পাতি কথায় লাইফ এক্সপেক্টেন্সি উইদাউট ডিজেবিলিটি। আর সেটা ইউরোপিয়ান ইউনিয়ানের কিছু দেশ মজার করছে ১৯৯৫ থেকে (তাও প্রতি বছরের ডেটা নেই)।
    http://ec.europa.eu/eurostat/web/health/health-status-determinants/data/database

    ২) যেসব দেশগুলো ধনসম্পদে এগিয়ে, তারা এগিয়ে কেন? তার সাথে টেকনলজির কোনো সম্পক্ক নেই? ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিভোলিউশান - স্টীম ইন্জিন। উনি দেখলাম কিসব মোল্লা ফোল্লা লিখলেন - বাড়িতে আয়্না নেই?

    ৩) গরীব বলে স্বাভাবিক ভাবেই লাইফ এক্সপেক্টেন্সি কম হবে। কারণ ডাক্তার বদ্যি দেখাতে পারেনা। তা এইসব ডাক্তার বদ্যি এক্সরে মেশিন ইত্যাদিও তো টেকনলজির দান। মায় হাসপাতালের বেডটাও।

    ৪) "সারা আমেরিকার একটি জলাশয়ের জলও পানযোগ্য নয় কেন" এইটা কোথায় পেলেন? সত্যিই জানতে আগ্রহী।
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৮:৫৭52689
  • প্রযুক্তি বন্ধ। এদিকে বলছেন যে গরীব হওয়ার কারণে চিকিত্সা পায়্না। চিকিৎসা না পেলেই তো ভালো। প্রযুক্তি না থাকলে ডাক্তারই বা কোথায়? অষুধই বা কোথায়?

    ক্যাপিটালিজম নিয়ে আপনার আপত্তি থাকতেই পারে, কিন্তু সেটাকে সবদিকে চালনা করার দরকার নেই। শুধুমাত্র ইনকাম ডিস্ক্রিপেন্সিই এনাফ। এবং সেইটার সলিউশন দিন না। সেই নিয়ে আলোচোনা হোক।

    পাখি- টারবাইন- পেলেন- হাতি এইসব বলে সিঙ্গুরে গাড়ির কারখানা না হওয়াটা যে ভালো হয়েছে সেটা প্রমাণ করতে হবেনা।
  • করঞ্জাক্ষ | 203.55.36.42 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৯:২৫52690
  • সবাই মিলে জঙ্গলে গিয়ে ক্যাপিটালিজমকে বুড়ো আঙুল দেখানো হবে।
  • amit | 212.125.29.166 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৯:৩১52653
  • সেই জন্যেই তো আগে লিখেছিলুম আপনার এত দামী তথ্যাবলী নিয়ে সেই ক্যাপিটালিস্ট দেশ যেখানে রিসার্চ হয় সেখানে গিয়ে প্রতিবাদ করছেন না কেন? যত প্রতিবাদ তো দেখি হয় গুচর পাতায় বা ইস্ট জর্জিয়া doctorate দিদির বন্ধ করা রাজপথে ! তো ওখানে সব তো এমনিতেই লালবাতি জলে গেছে, নতুন করে আর কি বন্ধ হবে? আর ওখানে বন্ধ হলেই বা বাকি দুনিয়ার কি কেশাগ্র উত্পাটিত হবে?
  • amit | 213.0.3.2 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৯:৩৮52691
  • আমেরিকার একটি জলাসয় এর জল পান যোগ্য নয় ? এই অসাধারণ ডাটা কোথা থেকে এলো? তার আগে আমেরিকার জলের স্পেসিফিকেশন দেখেছেন? ওই স্পেক মিট করতে গেলে ভারতের সব শহরে জল সাপ্লাই বন্ধ করে দিতে হয়। ওখানে যে শুধু chhorine & TSS স্পেক (বাকি গুলো আর বললাম না) রাখা হয় নরমাল household সাপ্লাই তে , সেই স্পেক আমাদের দেশে 5-ষ্টার হোটেল এর বোতলের জলেও থাকে না।

    আর প্রতি কথায় আমেরিকা কে গাল দিয়ে কি হবে নিজের ইগো চাপড়ানো ছাড়া ? একই টেকনোলজি দিয়ে বানানো refinery, আমেরিকা তে প্রচন্ড কড়াভাবে দূষণ মনিটরিং করা হয়, আর ইন্ডিয়া তে হুলিয়ে দূষণ ছড়ায় (প্রাইভেট নয় , পুরো সরকারী ) সেটা কি আমেরিকার দোষ ? গল্প দিছি না, নিজে কাজ করেছি দু দিকেই, সুতরাং এই বিষয়ে অতিবামেদের থেকে ভালই জানি, (পাখি নিয়ে জানি না যদিও) । তবে লেখা পড়ে কে জানে আর কে গলাবাজি করে বোঝা যায়

    ওপেন mind-এর সাথে তর্ক চলে, এই ধরনের অতিবাম বুজি দের সাথে খিল্লি ছাড়া আর কিছুই নয়। অদ্ভূত সব গাট জনগণ, কিছু না জেনে কিছু speculative ডাটা আর গ্রাফ নিয়ে চিত্কার করে যাবে। আর এটাই একমাত্র টোই নয় । দেখে বোঝা যায় কেন পব তে মমতার মত অপদার্থ মুখ্যমন্ত্রী হয়েছে, এই সব লোকেদের এর থেকে বেশী কিছু প্রাপ্য নয়।
  • dc | 233.189.27.242 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ০৯:৫৮52692
  • নির্মল আনন্দ :d
  • Debabrata Chakrabarty | 212.142.125.75 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১১:১৬52654
  • তথ্যাবলি দামী কিনা জানিনা তবে " সেই ক্যাপিটালিস্ট দেশ যেখানে রিসার্চ হয় " সেখান কার বটে ,আর প্রতিবাদ যদি কিছু হয় তার অধিকাংশই সেইখানে আপনি বোধ হয় এই তুচ্চু খবর টি রাখেন না ( বরং এইখানে গুচ'র পাতায় এইসব তুচ্ছ ব্যাপার নিয়ে কারো মাথা ঘামানোর সময় নেই । )

    " The People’s Climate March in September last year was, without any doubt, a game-changer. Nearly 700,000 of us took to the streets, by far the largest climate mobilisation ever. " তাও পড়ুন যদি " সেই ক্যাপিটালিস্ট দেশ যেখানে রিসার্চ হয় " সেখানে লোকে কেন পথে নামে সেই বিষয়ে অবগত হন ।
    People's Climate March: the revolution starts here | Ricken Patel #keepitintheground http://gu.com/p/4b3d6/stw
  • Tim | 140.126.225.237 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১১:১৮52693
  • কিন্তু ড্রোন যখন এসেই গেছে, পাখি শেপের ড্রোন বানিয়ে ছেড়ে দিলেই তো হয়। ইচ্ছেমত রেগুলেট করা যাবে আবার জনকল্যাণমূলক কাজেও ব্যবহার করা যাবে। (ডিঃ মঃ)
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১১:২০52655
  • হুম তা আম্রিগায় তো হবেই। ওখানে তো মনে হয় ইন্ডিয়ারও আগে গ্লোবাল ওয়ার্মিঙ্গ নিয়ে চেচামেচি হয়। ভুল হলে ঠিক করে দেবেন।

  • Debabrata Chakrabarty | 212.142.125.75 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১১:৪৫52656
  • এইটা গ্রাফ Trends in Global Emissions

    Global Carbon Emissions from Fossil-fuels 1900-2011
    Line graph of global carbon dioxide emissions from fossil fuels for 1900 through 2011. The line graph shows a slow increase from about 500 million metric tons of carbon dioxide equivalent (MMTC02E) in 1900 to about 1,500 in 1950. After 1950, the increase in carbon dioxide emissions is more rapid, reaching approximately 9,500 MMTC02E in 2011.
    Source: Boden, T.A., Marland, G., and Andres R.J. (2015). Global, Regional, and National Fossil-Fuel CO2 Emissions. Carbon Dioxide Information Analysis Center, Oak Ridge National Laboratory, U.S. Department of Energy, doi 10.3334/CDIAC/00001_V2015.
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১১:৪৯52657
  • দেবব্রত বাবু স্টিক টু ইউর পয়েন্ট। এই লেখাটা পাখি সংক্রান্ত, গ্লোবাল ওয়ার্মিঙ্গ এনে সেটাকে সাপোর্ট দিত্যে হচ্ছে কেন?
  • Atoz | 161.141.85.8 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১১:৫৩52694
  • সেই পাখির পিঠে চড়ে ঘোরাও যাবে। ঃ-)
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১১:৫৭52695
  • আছে তো। হেলিকপ্টার। কে যে তাতে চেপে এদিক ওদিক মিটিন মিছিল করতে যান।
  • Debabrata Chakrabarty | 212.142.125.75 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১২:০২52658
  • লেখা টি ঠিক পাখি সংক্রান্ত নয় - বরং আমাদের এই আগ্রাসী সভ্যতা সংক্রান্ত - হাতির পথ চলার রাস্তায় ট্রেন লাইন , পাখি মৃত্যু , প্লেন , টারবাইন , এক এক করে প্রজাতি ধ্বংস আমাদের এই লোভ এই আগ্রাসী সভ্যতা " আমাদের এই পুঁজিবাদী টেকনোলজিকাল সভ্যতার ভিত্তিই হোল লোভ। প্রকৃতির ধ্বংসলীলা ,চূড়ান্ত বায়ু দূষণ,জীবজগতের খাদ্যের উৎস ধ্বংস করা,পাখি কে আকাশ থেকে,হাতি কে জঙ্গল থেকে খেদানো। যত আমাদের বিল্ডিং গুলির উচ্চতা বেড়ে যাচ্ছে , যত আমরা উঁচু থেকে উঁচু তে জেট উড়ান ভরছি তত আমরা সরে যাচ্ছি প্রকৃতির কাছ থেকে । পাখির কাছ থেকে আকাশ আর হাতির কাছ থেকে কেড়ে নিচ্ছি জঙ্গল ।" এই সব নিয়ে । সেখানে পুঁজিবাদী টেকনোলজিকাল সভ্যতার সাইড এফেক্ট হিসাবে আত্মহত্যার পথ গ্লোবাল ওয়ার্মিঙ্গ তো আসবেই ! সেটাই তো উদ্দ্যেশ্য যে আর্থ দিবসে আমরা কোথায় সে নিয়ে একটু আলোচনা হউক ।
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১২:০৯52659
  • "আমাদের এই পুঁজিবাদী টেকনোলজিকাল সভ্যতার ভিত্তিই হোল লোভ।"

    তা সেই লোভি পুঁজিবাদী টেকনোলজিকাল সভ্যতায় যেসকল দেশরা এগিয়ে আছে সেখানেই তো লোকেদের গড় আয়ু সবথেকে বেশি। সাব সাহারান কান্ট্রি গুলোতে এমনকি ইন্ডিয়ার গন্ড গ্রামে তো এসব নেই, সেখানে লোকে নিস্চই খুব ভালো আছে?
  • S | 202.156.215.1 (*) | ২২ এপ্রিল ২০১৬ ১২:২৭52647
  • এইবারে এতো গুনী লোকেদের জন্য কুইজঃ

    ডেভালাপ্ড ওয়ার্ল্ডে গ্রীন হাউস এমিশনের সবথেকে বড় কারণ কী?
  • SS | 110.36.244.127 (*) | ২৩ এপ্রিল ২০১৬ ০২:২৭52704
  • দেবব্রতর তর্কের স্টাইল পুরো ডোনাল্ড ট্রাম্পের মত। ডোনাল্ড ট্রাম্প ডিবেটের সময় এক একটা বিশেষণ দিয়ে অপোনেন্টকে পুরো আউট করে দিতেন। যেমন, জেব বুশ -উইক, টেড ক্রুজ - লায়ার, মার্কো রুবিও - লিটল মার্কো, কার্লি ফিওরিনা - ঘোড়ার মতন মুখ। সেই রকম দেবব্রতর স্টাইল হল আমেরিকা - সাম্রাজ্যবাদী ক্যাপিটালিস্ট, বিল গেট্স - কলাচোর, যার সাথে মতে মিলছে না- কাঠমোল্লা ইত্যাদি।
  • S | 108.127.180.11 (*) | ২৩ এপ্রিল ২০১৬ ০২:৩২52705
  • সিয়েরা লিওনের (এইটা সানি লিওন ভেবে খুব উত্তেজিত হয়ে পরেছিলাম) গরীব = আমেরিকার গরীব। দুজনেরই লাইফ এক্সপেক্টেন্সি কম হওয়ার কারণ সেম।
  • | 127.194.13.179 (*) | ২৩ এপ্রিল ২০১৬ ০২:৫৩52706
  • পুরো টইটা পড়িনি, তাই খুব কিন্তু কিন্তু করে একটা জিনিস জানতে চাইছি। বলা হয়ে গিয়ে থাকলে, মাপ করে দেবেন, আর কাইন্ডলি জানিয়ে দেবেন এই মহাভারতের কোথায় সেটা বলা হয়েছে।

    @অমিত লিখেছেন, "আমেরিকার জলের স্পেসিফিকেশন দেখেছেন?", তাই অমিত হয়তো এইটা ভাল উত্তর দিতে পারবেন। আমেরিকার জলে ফ্লোরিন মেশানো হয়। 'জনস্বাস্থ্যের জন্য' এই ফ্লুরিডেশন নাকি মাইল্ড ডেন্টাল ফ্লুরোসিস করে, বেশি ফ্লোরিন মেশানোর দুর্ঘটনাও ঘটেছে।

    এটা খানিক অবাক করে যে জনস্বাস্থ্য নিয়ে আমেরিকার ট্র্যাডিশন বা ট্র্যাক রেকর্ড তত প্রোয়াক্টিভ নয়, সেখানে ফ্লুরিন নিয়ে এত সরকারি মাথাব্যথা কেন? বুঝতে সমস্যা হচ্ছে। আলোকপাত করতে পারলে ভাল হয়।

    এইটার সঙ্গে মূল পোস্টটা খুব সম্পর্কিত নয়, কিন্তু কথাটা যখন এসেই গেছে কেউ উত্তরটা দিলে ভাল হয়।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]gmail.com ।


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা মনে চায় মতামত দিন