• টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। যে কোনো নতুন আলোচনা শুরু করার আগে পুরোনো লিস্টি ধরে একবার একই বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে কিনা দেখে নিলে ভালো হয়। পড়ুন, আর নতুন আলোচনা শুরু করার জন্য "নতুন আলোচনা" বোতামে ক্লিক করুন। দেখবেন বাংলা লেখার মতো নিজের মতামতকে জগৎসভায় ছড়িয়ে দেওয়াও জলের মতো সোজা।
  • ইসলাম ও ইসলামফোবিয়া

    ...
    বিভাগ : আলোচনা | ১৫ নভেম্বর ২০১৫ | ৪৬২ বার পঠিত
  • প্যারিস থেকে চিত্রশিল্পী সাহাবুদ্দিনঃ
    "এত ভয় আগে কখনও পাইনি। এত অসহায় আগে কখনও মনে হয়নি নিজেকে। মুম্বইতে যে রকম হামলা হয়েছিল, প্যারিসে হুবহু সে রকমই দেখলাম। মুম্বইয়ের ঘটনা টিভিতে দেখেছিলাম। ভয়ঙ্কর! এ বার প্যারিসে নিজেই সেই পরিস্থিতির মধ্যে পড়ে গেলাম। এমন জঘন্য কাজ কারা ঘটাতে পারে! কোন ধরনের মানুষ তারা? অথবা আদৌ মানুষ কি? আমার সত্যিই আতঙ্কের ঘোর কাটছে না। গোটা রাত ঘুমতে পারিনি। এখন কথা বলতেও কষ্ট হচ্ছে। কিন্তু ঘুমিয়ে পড়ব, তেমন মানসিক স্থিতিতে পৌঁছতে পারছি না।"
আরও পড়ুন
Mushal Parba o Mukhosh - ...
আরও পড়ুন
We the People - ...
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • শ্যাম | 208.7.62.204 | ৩০ নভেম্বর ২০১৫ ২২:১৪687974
  • আমি শুধু এটাই বলতে চেয়েছি যে প্রথম গাল্ফ ওয়ার নিয়ে আপনার অ্যানালিসিসটায় ভুল আছে। বাবা বুশের ব্যাপারটা যেভাবে ইন্টারপ্রেট করেছেন ওরকম না হওয়ার সম্ভাবনা বেশী :-) এনিওয়ে, লেটস মুভ অন। ইরানের ব্যাপারটা নিয়ে লিখবেন বলেছিলেন, পড়ার অপেক্ষায় আছি।
  • দ্রি | 104.242.228.108 | ৩০ নভেম্বর ২০১৫ ২২:৫২687975
  • "কারন ইরাক কুয়েত দখল না করলে হয়ত আমেরিকার কন্টিনিউড প্যাট্রনেজ পেতেও পারতো, কারন ইরান আমেরিকার দীর্ঘস্থায়ী শত্রু আর ইরানের এগেন্সটে বাবা বুশ ইরাককে হয়ত ব্যবহার করতেও পারতো।"

    কিন্তু ইরাক কুয়েত দখল না করলে, প্লাস তেলের দাম না বাড়লে তো লোন পেমেন্টের ব্যবস্থা করতে হত। সেটা করতে গেলে দেশের মানুষের ওপর বার্ডেন চাপাতে হত। এবং সেটা যদি সাদ্দাম করত, তাহলে সে সত্যিকারের ব্রুটাল ডিক্টেটার হতে পারত। কিন্তু একটুর জন্য সেটা ফস্কে গেল। আর আমেরিকার কন্টিনিউড প্যাট্রনেজ মানে কী? আরো লোন? সে তো মারাত্মক ব্যাপার! ভবিষ্যতে গিয়ে আরো বড় ঝাড়। এক যদি না ইরানকে যুদ্ধে হারাতে পারত।

    ইরাকের কুয়েত আক্তমণের চেয়ে অনেক বড় অপরাধ ছিল ইরান আক্রমণ।

    এই হল একটি মুনির একটি মত।
  • তারিখ দেখুন | 192.69.243.8 | ৩০ নভেম্বর ২০১৫ ২৩:৩০687977
  • মার্চ ১২, ২০০৯।
  • PM | 53.251.91.216 | ৩০ নভেম্বর ২০১৫ ২৩:৫১687978
  • দেখসি , দেখসি। তারপরেই তো ভাবছি সেই দোর্দন্ড প্রতাপ ভাগবত মশাই হঠাত মিয়ানো মুড়ি হয়ে গেলেন কেনো?
  • PM | 11.187.252.24 | ০৩ ডিসেম্বর ২০১৫ ১৪:৪৮687979
  • গ্রিস থেকে ডিপোর্টেড , কিন্তু পাকিস্তান ঢুকতে দিচ্ছে না। খুব-ই দুঃখ জনক।

    http://www.dawn.com/news/1223954/30-pakistani-deportees-from-greece-held-at-islamabad-airport

    বেআইনী অভিবাসী দের SoP টা জানেন নিশ্চই। টারগেট দেশে পৌছে প্রথম কাজই হলো পুরোনো নাগরিকত্বের সমস্ত কাগজ (পাসপোর্ট সমেত) নষ্ট করে ফেলা, যাতে কোন দেশ থেকে এসেছে সেত অভিবাসন দফ্তর আইডেন্টিফাই করে ডিপোর্ট করতে না পারে।
  • pi | 192.66.29.11 | ০৬ ডিসেম্বর ২০১৫ ২৩:২২687980
  • এই সমাধান ও বক্তব্য নিশ্চয় এখানে অনেকেরই খুব পছন্দ হবেঃ

    'The president of a Christian US university has called on students and staff to carry concealed weapons on campus after the San Bernardino shootings in California, saying gun permits would "end those Muslims".

    Jerry Falwell Jr, the president of Liberty University in Virginia, told an audience of around 10,000 people at the campus that he's started carrying a gun since the shootings and called on pupils, teachers and staff to apply for permits.

    "I've always thought if more good people had concealed carry permits, then we could end those Muslims before they walked in," he said.'

    লোকজন কত মন দিয়ে এই বক্তব্য শুনছে, তাও দেখে নিনঃ
    http://www.huffingtonpost.co.uk/2015/12/06/liberty-university-guns-weapons-san-bernardino-jerry-falwell-jr_n_8731636.html?ncid=fcbklnkukhpmg00000001

    এখানে গিয়ে এনার আরো মণিমুক্তো পেলামঃ
    http://www.theguardian.com/world/2001/sep/19/september11.usa9

    ওরে বাবা রে !
  • ... | 74.233.173.193 | ০৭ ডিসেম্বর ২০১৫ ১৫:০৯687981
  • If you want India to be Hindu, you're a fascist.
    If you want Israel to be Jewish, you're a racist.
    If you want the whole world to be Muslim, congratulations, you're a peaceful moderate Muslim!
  • Du | 82.64.108.179 | ০৮ ডিসেম্বর ২০১৫ ১০:১৭687982
  • আল জাজিরা দেখাচ্ছে 'মাই জিহাদ' বলে একটা অনুষ্ঠান মুসলিম টীচারেরা কিভাবে জিহাদের মুকাবিলা করার চেষ্টা করছেন।
  • দ্রি | 91.17.31.10 | ১৩ ডিসেম্বর ২০১৫ ১১:২৮687984
  • সান বার্নান্ডিনোর শুটিংএর অফিশিয়াল ভার্শান আমরা সবাই জানি। দোষী একজন কাপ্‌ল।

    কিন্তু একজন আই-উইটনেসের বক্তব্য অনুযায়ী তিনজন মেল শুটার ছিল।



    Scott Pelley: One of the witnesses today is Sally Abdelmageed, who works at the Inland Regional Center, the building where the attack took place. She saw the attackers enter the building and we spoke to her by phone.

    Sally Abdelmageed: I heard umm shots fired and it was you know from an automatic weapon so you know it was very unusual… why, you know why would we hear shots? As we look out the window a second set of shots goes off, and its just pop-pop-pop-pop-pop-pop and we saw a man fall to the floor.

    Then we just looked and we saw three men dressed in all black military attire with vests on they were holding assault rifles and they (breathes) as soon as they opened the door to building three and one of them opened up the door to building three, he started to spray shoot, you know shoot all over into the room, that’s the room that we typically have conferences in, and we just heard more gunshots go off. I got my phone. I reached for my phone. I called 9-1-1 and I just hid under my desk. I didn’t see anymore, I just heard more gunshots go off as I was talking to the dispatch. We went into my manager’s office, locked the door, barricaded it. We heard running and things happening upstairs. About 30 minutes later someone came to the door, knocked on the door. But we didn’t obviously answer. Then another 60 minutes later someone came and took us into a secure room.

    Scott Pelley: Ms. Abdelmageed, can you describe to me in as much detail as you can, what did the gunmen look like?

    Sally Abdelmageed: I couldn’t see his face, he had a black hat on and from my view all I could see was a black hat and black long sleeve shirt, possibly gloves on. Ummm… he had black cargo pants on the kind with the zippers on the side and the big puffy pockets. He had a huge assault rifle and he had extra ammo. He was coming ready for, he was coming ready for something. To reload I don’t know. He had [inaudible] magazines. Umm… I couldn’t see what else, I just saw three dressed exactly the same.

    Scott Pelley: You’re certain that you saw three men?

    Sally Abdelmageed: Yes, it looked like their skin color was yeah, was white. They looked like they were athletic build and umm… they appeared to be tall.

    When the call is over, Pelley ends the segment by saying, “and of course we’ve just learned that one of the suspects was actually a woman.”
  • দ্রি | 47.187.129.166 | ১৩ ডিসেম্বর ২০১৫ ১১:৪৫687985
  • মার্ক স্টুট তার মেয়ে মির‌্যান্ডার থেকে যে ফোন পেয়েছিলেন, তাতেও তিনজন গানম্যানের কথা ছিল।

    Stutte was off Wednesday, but his daughter Miranda, a county vector control technician, was attending the event, he told KTLA in a live phone interview.

    “It was a like a Christmas party, an award party that we were having,” Stutte said.

    “She went to the restroom and she called me. She was huddled up in the restroom, and three gunman came in and they started shooting people — colleagues that I work with,” Stutte said.

    Miranda happened to have gone to the restroom before gunfire erupted, Stutte said. She did not see the shooters, but heard the shots, he said.

    “It was really, really super scary,” he said, audibly crying. “I’m far away; I couldn’t do anything for her.”

    http://ktla.com/2015/12/02/i-couldnt-do-anything-for-her-says-father-whose-daughter-called-from-san-bernardino-shooting/
  • pi | 24.139.209.3 | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫ ০৭:৫৭687986
  • '#WelcomeRefugees: Milestones and key figures
    We want to make it easy for Canadians to stay updated as we welcome Syrian refugees. You can get regular updates on our key figures, highlighting the progress we are making through this initiative.

    Get the latest progress updates.

    25,000
    Syrian refugees to be resettled in Canada
    1,594
    refugee applications have been finalized
    1,165
    Syrian refugees have arrived in Canada
    Open hearts and welcoming communities: it's the Canadian way
    Resettling refugees is a proud and important part of Canada's humanitarian tradition. It reflects our commitment to Canadians and demonstrates to the world that we have a shared responsibility to help people who are displaced and persecuted.'

    কানাডিয়ান সরকারের সাইট থেকে।
    http://www.cic.gc.ca/english/refugees/welcome/

    সত্যি, কীসব কগনিটিভলি ইম্পেয়ারড লোকজন, ভাবাই যায়না !
  • pi | 24.139.209.3 | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫ ০৭:৫৮687987
  • এদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য এখানে হাততালি পড়লো না ? এখানের অনেকের মন কি বাত বলে দিলেন তো !!
  • SS | 160.148.14.38 | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫ ০৯:২২687988
  • ন, কানাডা সরকার মোটেই কগনিটিভলি ইম্পেয়ারড নয়। রিফিউজি সিলেক্শান প্রসেস বলছে - (সরকারি ওয়েবসাইট)
    Selecting and processing Syrian refugees overseas
    Interested refugees will be scheduled for processing in dedicated visa offices in Amman and Beirut. Visa processing capacity will also be enhanced in Turkey.

    Approximately 500 officials, including temporary visa officers, are being deployed to staff these offices.
    An interview will be scheduled with professional, experienced visa officers who will collect information to facilitate issuing visas. Not all applicants interviewed will be selected as part of this initiative but their application may be re-considered in the future.
    Immigration processing will be completed overseas. This includes full immigration medical examination, including screening for communicable diseases such as tuberculosis. Security screening will include collecting biographical information, and biometrics, such as fingerprints and digital photos, which will be checked against immigration, law enforcement and security databases.

    Upon completion of the screening, refugees will be given permanent resident visas and preparations will be made for their transportation to Canada.
    Each Syrian refugee will undergo a robust, multi-layered screening before departing for Canada, including collection of biometrics.

    এই রকম রিগরাস ব্যাকগ্রাউন্ড চেকিং থাকলে সাধারণত লোকের আপত্তি থাকরবে না। আর লিংক দেবার আগে একটু পড়ে দেওয়াই ভাল।
    মোদ্দা কথা, আন অ্যাকম্প্যানিড ইয়ং ম্যান হলে এখন রিফিউজি হয়ে ঢোকা মুশকিল।
    আর একটা লিংক -
    Selecting and processing Syrian refugees overseas
    Public Safety minister Ralph Goodale says the Syrians will be heavily vetted by the UN refugee agency as well as Canadian intelligence and security forces before getting on a plane to Canada.

    "They will be examining the biographical information, the biometrics, the results of the interviews. If they sense there's anything there that causes them concern or discomfort or doubt, they will set aside that file and move on to the next applicant," he says.

    Goodale says the most vulnerable will be chosen to be settled in Canada - that includes women, children, families and the elderly. Goodspeed says that makes sense if they're trying to get large numbers of refugees in, but it could mean single unaccompanied men may have to wait.
  • pi | 74.233.173.198 | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫ ১০:২৩687990
  • অন্তর্যামীরা বোধহয় জানতে পারেন কী পড়ে দেওয়া হয় না হয়। আমেরিকার সিলেকশন প্রসেসটাও এখানে লেখা ছিল। আরেকবার দেব ? ঃ)
  • pi | 74.233.173.193 | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫ ১০:৩১687991
  • Name: pi

    IP Address : 24.139.209.3 (*)Date:30 Nov 2015 -- 08:18 AM

    এটা কি ঠিক ?

    'It would be extremely challenging for an individual with a fake Syrian passport to enter the United States through this gauntlet. That’s why of the 784,000 refugees who have come to the United States in the 14 years since 9/11, none have committed an act of domestic terrorism and only three have been charged with any terrorism-related crime.
    CNN reports that “[t]he refugee program is simply the toughest way for any foreigner to enter the U.S. legally.”
    Moreover, the individuals like those who conducted the Paris attacks — French and Belgian nationals — have absolutely no reason to subject themselves to such scrutiny with fake documents. These individuals could simply use their EU passport to enter the United States without a visa. Belgium and France are part of the United State’s visa waiver program. The only thing you need to do to enter the country is “answer a few questions on a form on the Internet, and have a passport with a digital photograph.”
    It makes no logical sense that individuals like the Paris attackers would seek to use the Syrian refugee program to enter the U.S. when far easier methods are available.'
  • pi | 74.233.173.193 | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫ ১০:৩৮687992
  • SS | 160.148.14.8 | ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫ ০০:০৩687995
  • পাই Dec 17th. 10.23 AM,
    লিংক তো দিয়েছিলেন আমেরিকার তুলনায় কানাডা কত উদার, রিফিউজিদের সাদরে গ্রহণ করছে সেটা দেখানোর জন্যে। কানাডা রিফিউজিদের প্রোফাইলিং করছে, বায়োমেট্রিক ডেটা চেক করে তবে প্লেনে উঠতে দিচ্ছে এটা জানলে ঐ লিংক দিতেন কি? এটুকু বুঝতে অন্তর্যামী হতে হবে কেন?
    আর এবার আমার লিংক দেবার পালা।
    গত ২১শে অক্টোবর হাউসের হোমল্যান্ড সিকিওরিটি কমিটির একটা হিয়ারিং ছিল। তাতে FBI ডিরেক্টর জিম কোমি টেষ্টিফাই করেছিলেন এই রিফিউজি সিচুয়েশান নিয়ে। কিছু কোট -
    Federal officials say “gaps” remain in their ability to screen Syrian refugees headed into the country, even as their ability to check incoming migrants has improved.
    During a Senate Homeland Security Committee hearing on Thursday, FBI Director James Comey sounded a cautious note that is likely to be picked up by critics of the White House’s plan to welcome more refugees into the U.S.
    “My concern there is there are certain gaps ... in the data available to us,” Comey said.
    “There is risk associated of bringing anybody in from the outside, but specifically from a conflict zone like that,” he added.
    “There is no such thing as a no-risk enterprise and there are deficits that we face.”
    In particular, the lack of solid on-the-ground intelligence assets in Syria has clouded the U.S.’s ability to crosscheck the backgrounds of every refugee hoping to come to the U.S., Comey and other national security officials told the Senate panel.
    http://thehill.com/policy/national-security/256399-gaps-persist-for-screening-syrian-refugees-officials-say
    পুরো হিয়ারিং শুনতে চাইলে -
    http://www.c-span.org/video/?328793-1/fbi-director-james-comey-oversight-hearing-testimony

    আপনার প্রিয় CNN থেকে -
    What are the challenges associated with vetting these refugees?
    Given the abysmal security situation in Syria and the fact that the United States does not maintain a permanent diplomatic presence in the country, it's sometimes difficult for U.S. authorities to gather the information they need to thoroughly vet a Syrian applicant.
    FBI Director James Comey hit on the issue at a congressional hearing last month, when he told lawmakers, "If someone has never made a ripple in the pond in Syria in a way that would get their identity or their interest reflected in our database, we can query our database until the cows come home, but there will be nothing show up because we have no record of them."
    This particularly comes into play when trying to evaluate an applicant's criminal history.
    "In terms of criminal history, we do the best we can with the resources that we have," one senior administration official said.
    Another official emphasized that the vetting process is a holistic one, and they try to take a broader view of an applicant with the available information they're about to aggregate and verify.
    http://www.cnn.com/2015/11/16/politics/syrian-refugees-u-s-applicants-explainer/
    এই হিয়ারিং এর পর হাউসের DHS কমিটি একটা রিপোর্ট বের করে। এতে বেশ কিছু রেকমেন্ডেশান ছিল। রিপোর্টের লিংক -
    https://homeland.house.gov/wp-content/uploads/2015/11/HomelandSecurityCommittee_Syrian_Refugee_Report.pdf
    এই হিয়ারিং এর পরেই প্রায় ৪০ জন ডেমোক্র্যাট দলের বিরুদ্ধে গিয়ে রিপাবলিকান্দের সাথে ভোট দেয়। যদিও তার মানে এই নয় যে US আর রিফিউজি অ্যাক্সেপ্ট করবে না।
    হোম ওয়ার্ক - ব্যাখ্যা লিখুন হাউসে ভোট হলেই সেটা কেন ল হয় না।
    আরা ভিসা ওয়েভার ব্যাপারে আর একটা বিল পাশ হয়েছে হাউসে - কোনো EU সিটিজেন যদি গত পাঁচ বছরের মধ্যে ইরাক, ইরাণ, সিরিয়া কিংবা সুদানে ট্র্যাভেল করে থাকে তাহলে তাদের US আসতে ভিসা লাগবে। এটা খুব তাড়াতাড়ি ল হয়ে যাবে।
    মনে হয় না এত সব লিংক আপনি পড়বেন। কিন্তু এখানকার ট্রাডিশান অনুযায়ী গুচ্ছ লিং পেস্ট করে গেলাম।
  • pi | 24.139.209.3 | ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫ ০১:২৯687996
  • কোন কোন দিদিমণির এরকম অন্তর্যামী সিন্ড্রোম থাকে বটে। আর লোকজনের কগনিটিভ এবিলিটি নিয়ে জ্ঞান দেবার বাই ঃ) ( দুঃখিত, র‌্যুড শোনালে। তবে রিফ্যুজি ইস্যুতে কগনিটিভ এবিলিটি নিয়ে কথা আপনিই তুলেছিলেন বলেই বললাম)

    কানাডা কী করছে না করছে, সব দেখেই দিয়েছি। আর কেউ এরকম কোন দাবি করেনি, কোন চেক না করে লোকজনকে ঢুকতে দেওয়া হোক। এনিয়ে তর্ক করলে সেটা ছায়ার সাথে যুদ্ধটা চালানো হবে।

    আমেরিকায় কারেন্ট কী প্রসেস, সেটা উপরের ইমেজে স্টেপ বা স্টেপ আছে। যেটা কিনা 'takes 18-24 months and includes the collection of biometric data, security checks, interviews and background investigations.'
    তারপরেও আমেরিকায় সিরিয়ান রিফ্যুজি নিয়ে এই গেলো গেলো রব নিয়ে প্রশ্ন তো উঠবেই।

    তবে, কানাডা আর আমেরিকার মেজরিটি লোকজনের রিফ্যুজি সংক্রান্ত অ্যাটিচুডে যে তফাত আছে, আর সেটা পলিটিশিয়ানদের কাজেও রিফ্লেক্টেড হয়, সেটা নিয়ে দ্বিমত থাকলে সার্ভের রেজাল্টটা দেখে নিতে পারেন। বসে বসে বাংলা অনুবাদের সময় নেই। বেশি টাইপ করতেও পারছিনা। তাই কোট করে দিলাম।
    'Two-thirds of Canadians (65 per cent) support the Liberal government’s promise to bring 25,000 Syrian refugees to Canada, according to a recent Nanos survey. About a third (34 per cent) oppose the move either strongly or somewhat.

    Attitudes in the United States, meanwhile, are starkly different. According to a survey published by Bloomberg in mid-November, just 28 per cent of Americans support the Obama administration’s plan to accept 10,000 Syrian refugees. An additional 11 per cent would support the plan if the refugees were screened by religion, with Christians accepted and Muslims excluded. This survey was fielded before the recent mass shooting in California, which some politicians and pundits have linked to the Syrian refugee issue (although the perpetrators were neither refugees nor of Syrian origin).'

    আমেরিকা আর কানাডার মেজরিটি বা একটা বড় অংশের এরকম অ্যাটিচুডের তফাত আরো অনেক ক্ষেত্রেই রয়েছে। যা পলিসিতেও প্রতিফলিত হয়েছে, বা এখনো অনেক ক্ষেত্রে হয়।
    Bowling for Columbine, Sicko মনে পড়ে গেল। এগুলো অস্বীকার করা যায় কি ? (ব্যক্তিগতভাবে আপনি এরকম অনেক মত ই সাব্স্ক্রাইব না ই করতে পারেন। )

    তবে হ্যাঁ, মেইন্স্ট্রিম মিডিয়া রিফ্যুউজিদের দায়ী করছে ও সেটা তথ্যপ্রমাণ সহ করছে, অন্যেরা সেটা করছে না আর সেটা তাদের কগনিটিভ এবিলিটির সমস্যা এটা বলার পর যখন দেখা যায়, সি এন এন এর মত মেইনস্ট্রিম মিডিয়াও প্যারিস অ্যাটাক আর রিফ্যুজি ইস্যু একসাথে আনতে মানা করছে, তখন সেটা উল্লেখ করাতে আমার প্রিয় সি এন এন বলে ভুলভাল খোঁচা দিয়ে কোন লাভ আছে কি ? ঃ)
    আমি তো কখনৈ এরকম কোন দাবি করিনি, মেইনস্ট্রিম মিডিয়ায় বেরোনো মানেই সে খবর অচ্ছুৎ। তবে সেটাকেই সদা সর্বদা একমাত্র ও শেষ কথাও মনে করিনা। ( নন মেইনস্ট্রিম মিডিয়া নিয়েও একই কথা)। ওটা বরং আপনার দাবি ছিল , তাই 'আপনার প্রিয়' মেইনস্ট্রিম মিডিয়ায় বেরোনো আপনার বিপরীত মতের প্রতিবেদনটি দিয়েছিলাম মাত্র।

    যাহোক, কালকের এই খবরটাও ভাল লাগলো।

    The federal government is ramping up efforts in a race against time to bring 10,000 Syrian refugees to Canada in just two weeks.

    During a briefing on the resettlement plan in Ottawa Wednesday, Immigration, Refugees and Citizenship Minister John McCallum said officials have managed a "massive" increase in capacity for processing of Syrians in Jordan, Turkey and Lebanon, including interviews and security and health screening.
  • pi | 24.139.209.3 | ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫ ০২:২৭687997
  • এটা আজই পড়ছিলাম।

    'Throughout the seven months it took Samer and his family to make their way from Syria to the United States, he told himself that the risk and cost would be worth it they could swap their war-ravaged homeland for what he believed was a “land of opportunity, hope and peace”.

    But the family’s arrival in the US has proved more stressful than the journey: days after they reached Texas they found themselves the unwitting subject of a national debate over potential terrorist infiltration.

    Republican presidential candidate Ben Carson said that Samer, his wife and two sons – aged two and five – could be the embodiment of America’s “worst nightmare”. Donald Trump speculated that the family, who are Christian, could be members of Islamic State.

    A month later, Samer and his family are still being held in indefinitely in separate detention centres – and his belief in America as a beacon for asylum seekers is dimming by the day.

    “My very small children are in prison,” said Samer, speaking by phone from an immigration detention centre near San Antonio. “I had no idea that the political climate was so against Syrian refugees. If I had known that it was so terrible here I wouldn’t have brought my family.”

    In his first press interview, Samer said he was struggling to reconcile his perception of the US as a Christian nation of immigrants with his own predicament. Now he fears his family will not be released and reunited by Christmas.

    “I definitely thought America would accept me,” said Samer, who has been identified by a pseudonym to protect family member.

    Speaking through an interpreter, he appeared mystified by the idea that he could be considered a threat. “We are the ones running away from war,” he told the Guardian.

    It was Samer’s bad luck to arrive just days after 130 people were killed in coordinated gun and bomb attacks in Paris. Although all of the attackers identified so far were European nationals, US politicians suggested that terrorists could be posing as Syrian refugees in order to infiltrate the country.

    As national politicians questioned the calibre of the federal government’s vetting procedures for refugees, at least 30 state governors – including Texas governor Greg Abbott said Syrian refugees would no longer be welcome.

    Earlier this month, Texas officials stepped up their efforts to block Syrian refugees by suing an aid agency and the federal government....'

    আজকের গার্ডিয়ানে আছে।

    আর মজা হল হল, ইনি কিন্তু ক্রিশ্চিয়ান।

    নাঃ, মজা বলাটা ঠিক হলনা। আইরনি।
    “They have followed every rule, completed every step in the process that results in asylum seekers being released to live with their families and told to report to court, but they are being treated differently … the saddest thing about these cases is that these people fled from a government that singled them out because of who they were – Christians. They came to our country seeking protection only to find that we are doing the same thing because of their national origin.”
  • hu | 108.228.61.183 | ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫ ০২:৪৯687998
  • Samer নামটা পড়ে একই নামের একটি ছেলের কথা মনে পড়ে গেল। ও অবশ্য লেখে Semere। ছেলেটি এরিট্রিয়ান ক্রিশ্চান। এখন আমেরিকায় আছে। বউ আর দুই ছেলে-মেয়েকে নিজের কাছে আনতে চায়। এরিট্রিয়ায় ট্রাভেল রেস্ট্রিকটেড। ওর বউ ছেলে-মেয়ে দুটোকে নিয়ে প্রথমে কিছুদিন সুদানে ছিল, তারপর ইথিওপিয়ায়। কয়েকবার আমেরিকান ভিসা রিজেক্ট হওয়ার পর নভেম্বরের ফার্স্ট উইকে ভিসা ইন্টারভিউ সাকসেসফুল হয়। এক সপ্তাহ পরে ওদের ভিসা কালেক্ট করতে বলে। ওরাও টিকিট কেটে তৈরী হতে শুরু করে। ইচ্ছে করেই হাতে কিছুদিন সময় রাখে সব গুছিয়ে নেওয়ার জন্য। ডিসেম্বর দশের টিকিট। এক সপ্তাহ পরে ভিসা নিতে গিয়ে শোনে প্রিন্টার খারাপ, তাই নাকি ভিসা প্রিন্ট হয়নি। পরের সপ্তাহে আসতে হবে। পরের সপ্তাহে গিয়ে শোনে প্রচুর ডকুমেন্ট জমে আছে নাকি, তাই দেরি হচ্ছে, আবার পরের সপ্তাহে যেতে বলে ওদের। পরের সপ্তাহেও একই কথা। এবার মেয়েটি বেঁকে বসে। ভিসা না নিয়ে সে এম্ব্যাসি ছেড়ে নড়বে না। দিন দুয়েক পরের আরেকটা ডেট দেওয়া হয় তাকে। সেদিন গিয়ে শোনে তার আর বাচ্চা মেয়েটির ভিসা হয়েছে, কিন্তু ছেলের ভিসা এখনও প্রিন্ট হয় নি। সেদিন সম্ভবত ডিসেম্বরের তিন তারিখ। আর সাতদিন বাদে ওদের প্লেনে চড়ার কথা। তার দিন দুএকের মধ্যে ইথিওপিয়ার ভিসাও শেষ হয়ে যাচ্ছে। মেয়েটি পরের দিন আবার ছোটে এম্ব্যাসিতে। ইতিমধ্যে অনলাইন স্ট্যাটাস চেকে দেখাচ্ছে ওদের সকলের ভিসাই রেডি ফর পিক আপ। এই দিন মেয়েটি যা শুনবে সেটি মোক্ষম। প্রিন্টার অবশেষে কাজ করেছে। ওদের সকলের পাসপোর্টই ওর হাতে তুলে দিয়ে এম্ব্যাসি অফিসার বলেন - আমার একটা ছোট্ট ভুল হয়েছে। তোমার দেশের জন্য একটা স্পেশাল রুল আছে যেটা আমি ফলো করি নি। তোমাদের সকলের পাসপোর্টেই ভিসা রয়েছে, কিন্তু তোমরা ট্র্যাভেল করতে পারবে না। আরো একটা চিঠি লাগবে তোমাদের, সেটা আমি খুবই তাড়াতাড়ি করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব। কিন্তু সেটা না হওয়া পর্যন্ত তোমরা আমেরিকায় ঢুকতে পারবে না। এখনও পর্যন্ত সেই চিঠি হয় নি। খুব চাইছি ক্রিসমাসটা যেন Semere ওর বউ-ছেলে-মেয়ের সাথে কাটাতে পারে। কি হবে কে জানে!
  • pi | 24.139.209.3 | ২০ ডিসেম্বর ২০১৫ ০৯:৪২687999
  • দারুণ লাগলো !
  • দ্রি | 186.10.104.240 | ২৭ ডিসেম্বর ২০১৫ ০৮:২৫688000
  • কর্সিকায় মস্কে ভাঙ্চুর।

    Demonstrators march towards the prefecture in Ajaccio during a protest on December 26, 2015, a day after demonstrators vandalised a Muslim prayer hall and trashed copies of the Koran, following a night of violence that left two firefighters and a police officer injured.

    https://www.rt.com/news/327164-
  • cb | 208.147.160.75 | ০৬ জানুয়ারি ২০১৬ ১১:২৬688002
  • এই ব্যাপারটা যতবারই পড়ছি ততবারই আশ্চর্য হয়ে যাচ্ছি। এদের জীবন কি সত্যি ই সুস্থ? এর প্রতিকার কি?

    এদের ভয়েস টা শুনেও কি এদের চেন্জ করা যাবে?

    http://www.anandabazar.com/international/kanika-on-brother-siddhartha-dhar-1.278417#

    আর একটা প্রশ্ন সম্বন্ধে উত্তর দেওয়ার জন্য তৈরি থাকুন, নাম্বার অফ সন্তান (5 or 6), এটা ফেবুতে দেখলাম। একজন কেমিস্ট শপের কর্মচারী কিভাবে সংসার চালাবে? আমি অন্য ধর্ম থেকে ২ টো লোকের উদাহরণ দিয়ে কাউন্টার করতে পারি, বাট খানিক দুর গিয়ে আর পারছি না তর্কে
  • d | 24.96.235.72 | ০৭ জানুয়ারি ২০১৬ ১০:৫৬688003
  • আহা এই সিদ্ধার্থ ধরের জয় হৌক। আম্রিকা ইউরোপে রিলিজিয়াস প্রোফাইলিঙের আওতায় এবারে "ঐ যে ওরা" করা পাবলিকও এসে যাবে ভাবতেই বেশ একটা ফিল গুড হচ্ছে
  • dd | 116.51.27.70 | ০৭ জানুয়ারি ২০১৬ ১১:১৬688004
  • "converts are always more fanatic" - এই আপ্তবাক্যটি ইতিহাসে চিরকালই চলে। পরিক্ষীত সত্য।

    আইসিসেও ব্যতিক্রম নয়। এটা তো ট্রুলি একটি ইন্টারন্যাশনাল ব্রিগেড। বহু দেশের বহু জাতের কনভার্টেরা এখানে সব থেকে ফ্যানাটিক লড়াই করে চলেছে। সিদ্ধার্থ'ই বা ব্যতিক্রম হবে কেনো?
  • PM | 116.76.131.244 | ০৭ জানুয়ারি ২০১৬ ১৮:১৫688006
  • বাঙ্গালি আবার জগত সভায় শ্রেষ্ঠ আসন লবে ঃ) প্রসেস শুরু হয়ে গেছে।

    বঙ্গে নতুন প্রজন্ম দাঙ্গা নামক বস্তুটার সাথে বহু বহুকাল বাদে আবার বইয়ের বাইরে নতুন করে পরিচিত হচ্ছে
  • ... | 190.255.241.124 | ১৩ জুন ২০১৬ ০৯:৪৫688007
  • আরো একটা হত্যাকান্ড করে গেল "শান্তির ধর্ম".
  • pi | 91.184.0.188 | ১৩ জুন ২০১৬ ০৯:৫১688008
  • আর কালকেই এই পোস্টটাও ছিল।

    A mosque in Toronto is creating a name for itself for welcoming the LGBT community, as well as to people of all faiths.

    Founder El-Farouk Khaki said it was important for him and his co-founders to create the Unity Mosque, or the El-Tawhid Juma Circle, as a space that is welcoming to anyone.

    "There's a notion, I think, out there that Muslim spaces are not welcoming, that they're not inclusive, that they don't embrace non-Muslims, or that women or LGBTQI people are somehow not welcome," said Khaki, who spoke to CBC's Matt Galloway on Metro Morning. "And so this is an intentional space designed to actually bring everybody into it."

    The mosque is hosting its 13th annual Peace Iftar at sunset on June 19. Iftar is a meal that is eaten at the end of a day's fast. Khaki said he expects 150 to 180 people to attend the communal meal.

    The meal is open to Muslims and non-Muslims, and the men and women are not separated, as they traditionally are in mosques. The women are also not required to wear a veil if they do not choose to.
  • dc | 132.174.185.242 | ১৩ জুন ২০১৬ ০৯:৫৭688009
  • "শান্তির ধর্ম" বলতে কোন ধর্মের কথা বলা হচ্ছে? অ্যামেরিকায় তো মাঝেমাঝেই মাস শ্যুটিং হয় আর সেগুলোর মধ্যে কয়েকটাতে খৃশ্চান মেল হোয়াইটরা শুটিং করে লোক মারে। তা এই খুনে খৃশ্চানরাও কি তাদের ধর্মের প্রতীক? একটু কনফিউশানে পড়ে গেলাম।
  • ... | 190.255.250.236 | ১৩ জুন ২০১৬ ১০:৫৭688010
  • Omar Mateen's father Seddique Mateen is staunch Taliban supporter and leads 'nothing to do with Islam' brigade. He indoctrinated his son with daily dose of poison and made a Jihadi monster out of him. He should be put behind bars for rest of his life.
  • ... | 190.255.250.236 | ১৩ জুন ২০১৬ ১০:৫৯688011
  • Somali Muslims celebrate Orlando massacre:

    "This is what the infidels deserve" --Yusuf Ali Alhakim
  • ... | 190.255.250.236 | ১৩ জুন ২০১৬ ১১:০১688012
  • Last week there was near riot in Islamic world to claim Muslim Identity of Muhammad Ali, lets see who claims Omar Mateen, other than 'nothing to do with Islam'.
  • pi | 57.29.228.148 | ১৪ মে ২০১৭ ০০:২৬688013
  • ভাটে ছিল। এখানেও থাক। কারণ এখানেই এই নিয়ে বিস্তর তর্ক হয়েছিল।

    name: pi mail: country:

    IP Address : 57.29.240.187 (*) Date:13 May 2017 -- 04:58 PM

    আরিব্বাস , বিপ্পালের ট্রাম্পায়ন তাইলে আপিশিয়াল ঃ)

    ঐ টইটা মোবাইলে পাচ্ছিনা। এটা অবশ্য মনে হত, ক্লিন্টন সমর্থনের অনেকেরই মনোভস্ব ট্রাম্পের সাথে যায় দেখেছিলি।

    https://mobile.nytimes.com/2017/05/08/us/legal-immigrants-who-oppose-illegal-immigration.html?referer=http://m.facebook.com/

    name: 0 mail: country:

    IP Address : 123.21.77.208 (*) Date:13 May 2017 -- 11:46 PM

    পাইয়ের দেওয়া লিংকে বিপ্লবের এবং আরও কয়েকজন লিগাল-ইমিগ্রান্টের বক্তব্য পড়লাম।
    মেনলি দু'টো আপত্তি। একটা হলো, ইল্লিগালদের জন্যে ক্রাইম বাড়বে/বাড়ছে এবং অন্যটা হলো, আমরা কতো কষ্ট ক'রে লেখাপড়া/কাজকর্ম শিখে নিজেদের যোগ্যতায় জায়গা পেয়েছি অথচ ওরা কেমন আইন, বর্ডার এইসব টপকে ঢুকে পড়েছে!

    দ্বিতীয়টা নিয়ে এটুকুই বলার (যে কথাটা এই বিরোধিতার মধ্যেও একজন লিগাল-ইমিগ্রান্টও বলেছেন বা মেনে নিয়েছেন) যে, ইল্লিগালরা বহু প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়ে, অনেক সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়েও এসেছেন সেই একই লক্ষ্যে - একটু ভালোভাবে বাঁচা - সেই সুযোগটুকু অন্ততঃ তাদের দেওয়া হোক।

    প্রথমটা (ক্রাইম ও ইল্লিগালদের সংযোগ) নিয়ে বিপ্লবের বক্তব্য যে, যাকিছু তথ্য ওনার হাতে এসেছে সেসবই সমস্ত ইমিগ্রান্টদের নিয়ে। শুধুমাত্র ইল্লিগালদের সাথে ক্রাইম-রেটের সম্পর্কের ব্যাপারে বিশেষ তথ্য নেই।
    অথচ সেরকম স্পেসিফিক তথ্য এই গুরু'র টইতেই আমি একাধিকবার দেখেছি। এক্ষুনি মনে আসছেনা। পাই, ঈশান, বা অন্য কারুর নিশ্চ'ই মনে আছে। একটা লিং দিলাম - এখানে মোটামুটি নির্মোহ ব টাইপের ইনফো পাওয়া যাবে। Criminal Immigrants : Their Numbers, Demographics, and Countries of Origin :- https://object.cato.org/sites/cato.org/files/pubs/pdf/immigration_brie
    f-1.pdf
  • pi | 172.69.135.111 | ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১১:৪০729774
  • দিনেদিনে ইসলামোফোবিয়া আরো কত বেড়ে গেল, ছড়িয়ে গেল! ব্যাপারটা মুসলিম্ফোবিয়ায় দাঁড়িয়ে গেছে।
  • Pi | 162.158.167.17 | ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৭:৩৩729783
  • "Imagine living like this every single day

    By Zoya Mateen

    Today was perhaps the fourth or the fifth day in a row when I was worried for my life while taking a commute back home. It’s been the same every day, and every other day.

    I book a cab or an auto. For those of whom my Muslim identity is apparent from my name, the drill is simple, they pick my call, tell me they are arriving at my location and then defiantly cancel the ride. For the inattentive ones, who are dissuaded from scrutinising the origins of my name because of my South Delhi address, the realisation is more personal.

    First, they’ll look at me, and look at me closely. The choice of clothes may confuse them momentarily but there is never a moment’s hesitation to pounce to the obvious question: “Aap Musalman ho kya?” “Aap Musalman toh nahi?”

    There have been days when I told them I am not. When I pretended that I am a Hindu. “Oh, mujhey aapke naam se laga aap who ho,” they grin and tell me.

    There have been days when I made a definite attempt to strike a conversation with my driver just to display my effortless use of phrases like “Hey Bhagwan” and “Hanji” hoping to convey my utter “Hinduness”, when I didn’t dare pick my mother’s phone too afraid, I might let out a “khuda hafiz”.

    And there have been days when I haven’t uttered as much as a sigh, fearing something might expose my subterfuge, fearing what he could do to me if he finds out.

    There have also been days when I have been defiant, less afraid, though only for a moment, and owned up to the fact that Im Muslim. The sudden change in bartav is unmissable, the stiffness, the stern tight-lipped scowl, sometimes outright disgust.

    Today was one of those days.

    “Aap log chaley kyun nahi jaatey..kyun Hinduon ko maar rahe ho?” he asked me. I was quiet. He prodded: “Pata nahi kya dikkat hai, bas ek din ye musalman khatam hojaye toh desh mein sab theek hojayega.” Again, silence from me.

    I usually message a friend at times like these to distract myself or to convey the risk Im putting myself in by taking public transport in this country.

    Today, I couldn’t even do that. My bladder felt solidly full, as though it would burst and release not urine but garbled prayers I was muttering.

    I eventually made it back home alive. My mother opened the door for me. Her intent eyes and creased forehead and a question: “Bahar halat kaisey hai ab?”

    She already knows everything of course. There’s always news blaring from behind when I come home, and in front of it is my father, who was slowly but painfully learning the lesson to deal in the present, to not drag history around like a ball and chain, to not be sinking in the quagmire of the past – “Pehle sab theek tha phirse hojayega” and all.

    “Please. Do me this one, great favor,” says my mum and here her voice plummeted a register, and the tone was full and sad, “Office mat jao. Stay home for a few days. Ghar se kaam karlo.”

    The conversation ends in silence. We can drop it at that, our privilege plays its part.

    But it makes me, a Muslim, laugh to hear the fears of the nationalist, scared of infection, invasion, contamination, when this is peanuts, compared to what we fear every day - dissolution, disappearance, destruction – when we step out of our homes, when we bolt our doors in the night.

    When my mother tells me not to go out, to never speak my mind, when my brother glares at me [as he will when he reads this] for telling you how angry I am, I feel small and absurdly petulant and, worse yet, I suspect they are right. I always suspected they were right. For a brief irrational moment, I may have thought the fear is fictional – a relic from the past. Now I wish, more rationally, that it was.

    Can you imagine the weight of our identity? It is an enormous rucksack so impossibly heavy that even though losing it meant losing everything, it is infinitely easier to leave all the baggage here, along with the charred remains of our past, and walk into the blackness.

    So, please don’t ask me to “be safe” to “take care” to “stay low” because I need to and not because it is all that is expected of us. We are faceless and preferably nameless to you. My religion and my identity is nothing but a tight band, a throbbing vein, and a needle to you. And this belonging you want me to believe in, this thing, it seems some long, dirty lie.

    My rage may be the only thing keeping me awake today, and I will feed off it in that righteous way you end up doing, when you are forbidden to mention out loud the wrong you are being done.

    But remember this: A man is a man is a man. His family threatened, his beliefs attacked, his way of life destroyed, his whole world coming to an end - he will fight. Make no mistake. He won't let the new order roll over him without a struggle
  • করোনা ভাইরাস

  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত