এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • চীনের কাহিনী ১ : নিউলান ও চ্রিনুর কাহিনী : দ্বিতীয় পর্ব

    Debanjan Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৪ জুন ২০২৪ | ১৪৫ বার পঠিত
  • এইবার তাকে চমকে দিয়ে তার সামনেই তার প্রিয় গরুটি বলে ওঠে "নিউলান এই নিউলান তুমি কি আমার কথা শুনতে পাচ্ছনা ?"

    "হ্যা পাচ্ছি " কোনো রকমে ঢোক গিলে বললো নিউলান। আসলে গরুটি যে কথা বলতে পারে এই ধারণা তার ছিলোনা। গরু বললো "শোনো তোমার তো বিয়ের বয়েস হয়েছে।তুমি কি একটি সুন্দরী পাত্রী চাওনা তোমার জন্য ?" তার গরু কথা বলছে এটাই খুব আশ্চর্য্য ব্যাপার ছিল নিউলানের কাছে এখন আবার গরু তাকে বিয়ে করতে পাত্রীর সন্ধান দিচ্ছে ! সে এতো বড় অবাক ব্যাপার জীবনে দেখেনি।   "কিভাবে" ? সে জানতে চাইলো।

    বুড়ো গরু তখন বললো , "শোনো এখান থেকে তিন মু দূরে ওই যে উত্তরের পাহাড়ে ওই মিষ্টি জলের ঝর্ণাটি আছে ওখানে আজ রাতে যখন চাঁদ উঠবে সেখানে স্বর্গ থেকে আকাশ পরীরা খেলা করতে আসবে।খেলার সময়ে ওরা নিজেদের সিল্কের ওড়নাগুলো খুলে রেখে খেলতে নামবে। তুমি ঝোপের আড়ালে লুকিয়ে থেকে যে পরীটি লাল রঙের ওড়না পরে থাকবে সেই পরীটির ওই  লাল রঙের ওড়নাটি লুকিয়ে রাখবে। ওই পরীটি আসলে স্বর্গের সম্রাজ্ঞী ওয়াং মু নিয়াং নিয়াং এর নাতনি।স্বর্গে ওর কাজ সিল্কের কাপড় বোনা অন্য দেবদেবীদের জন্য।তুমি ওর    
    লাল রঙের ওড়নাটি লুকিয়ে রাখলে ওর ওড়না ছাড়া ও আর স্বর্গে ফিরতে পারবেনা। তখন তুমি ঝোপের আড়াল থেকে বেরিয়ে এসে বলবে যে তুমি ওকে ওর ওড়না ফেরত দেবে তখনি যখন ও তোমাকে বিয়ে করতে চাইবে।  এইভাবেই তুমি তোমার পাত্রী পেয়ে যাবে। "

    সেদিন রাতে বুড়ো গরু যেমন বলেছিলো সেইভাবেই পাহাড়ি ঝর্ণার ধারে ঝোপের মধ্যে লুকিয়ে রইলো নিউলান।এরপরে অনেক রাতে যখন চাঁদ মাথার উপরে উঠেছে যখন জোসনাতে চারদিক দিনের আলোর মতো ফুটফুটে করছে , একটা খুব সুন্দর হাওয়া  বইছে , চারদিক তখন পিচ আর লি ফুলের গন্ধে মাতোয়ারা। অনেক্ষন অপেক্ষা করে নিউলান ঘুমিয়ে পড়েছিল হঠাৎ একটা খিলখিল হাসির শব্দে সে জেগে উঠে দেখলো সামনেই একদল পরম সুন্দরী মেয়ে খেলা করছে।নিউলান বুঝলো এরাই সেই স্বর্গথেকে নেমে আসা আকাশ পরীর দল। চোখ মুছে সে যেরকম বুড়ো গরু বলেছিলো সেরকমভাবে আকাশ পরীর দলের লাল ওড়না পড়া পরীটির ওড়নাটি সরিয়ে রাখলো আর অপেক্ষা করতে রাখলো ওদের খেলা শেষ হবার।
     
    প্রায় সারারাত ধরে পরীরা খেললো তারপর শেষরাতে যখন আকাশ ফর্সা হবো হবো করছে ওরা উড়ে আকাশে মিলিয়ে গেলো। রয়ে গেলো শুধু সেই পরীটি যার লাল ওড়না নিউলান লুকিয়ে রেখে দিয়েছিলো।ভীষণ ব্যাস্ত হয়ে মেয়েটি যখন ওড়না খুঁজছে তখনি নিউলান বেরিয়ে এলো ঝোপের থেকে , হাতে সেই ওড়নাটি। পরী যখন হতাশ হয়ে পড়েছিল ওড়না না পেয়ে তখনি নিউলান ঝোপ থেকে বেরিয়ে এলো আর বুড়ো গরু যা বলেছিলো তাই বললো।

    পরীটি এতোক্ষনের ব্যাপারে খুব ভয় পেয়ে গেছিলো এখন নিউলানকে দেখে ও তার প্রস্তাব শুনে সে আরো দুঃখ পেলো।কাঁদতে কাঁদতে সে বললো , "আমার নাম চ্রিনু। আমি স্বর্গীয় সম্রাজ্ঞী ওয়াং মুনিয়াং নিয়াং এর নাতনি। আমি তার সাত নম্বর ছেলের সাত নম্বর মেয়ে। আমার মা ছিলেন পৃথিবীর মেয়ে।সেই কারণেই স্বর্গে আমাকে সারাদিন শুধু সিল্কের কাপড় বুনতে বাধ্য করা হয়।এই মাসের একদিন শুধু আজকে স্বর্গের পাহারা একটু কম থাকে তাই এখনই আমি আমার অন্য বন্ধুদের সঙ্গে একটু হাওয়া খেতে পৃথিবীতে পালিয়ে আসি। আজকেও তাই এসেছিলাম কিন্তু এখন ?"

    চ্রিনুকে দেখে প্রথম থেকেই নিউলানের মনে হয়েছিল সে খুবই দুঃখী।সে নিজে ছোটবেলা থেকেই দুঃখ দেখেছে কিন্তু স্বর্গেও যে কেউ দুঃখী হতে পারে সে ভাবতে পারেনি। সে তখনি নিজের দুঃখের কথা জানালো চ্রিনুকে।তারপর তার কি মনে হলো লাল ওড়নাটা বাড়িয়ে দিলো চ্রিনুর দিকে। আসলে তখন তার মনে হচ্ছিলো এই দুঃখী মেয়েটা যদি চলে যেতে চায় তার নিজের দেশে , যাক না।তাছাড়া স্বর্গের পরীকে সে বিয়ে করে রাখবে কোথায় ?  
       
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • kk | 172.56.3.164 | ২৪ জুন ২০২৪ ১৮:১৬533679
  • বেশ হচ্ছে। লিখুন।
  • debanjan banerjee | 115.187.51.210 | ২৭ জুন ২০২৪ ১৪:৪৮533780
  • @KK
     
               অনেক ধন্যবাদ | 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লড়াকু মতামত দিন