• হরিদাস পাল  অপার বাংলা

  • 'বাবা' দিবস নিয়ে

    gautam roy লেখকের গ্রাহক হোন
    অপার বাংলা | ২০ জুন ২০২১ | ২৯৫ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • 'বাবা' দিবস নিয়ে
    গৌতম রায়

    আড়ম্বরহীন, নীরব নিভৃত সাধন বাঙালি জীবনের একটি উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য। ভারতের মানুষদের কাছে বাবা, মা, প্রিয়জনদের ভালোবার জন্যে, শ্রদ্ধা করার জন্যে আলাদা করে একটি বিশেষ দিন ধার্য করা -- এটা কি বিশ, পঁচিশ বছর আগেও ভাবা যেত? পশ্চিমি মূল্যবোধে সন্তানের প্রাপ্তবয়স প্রাপ্তির সাথে সাথে জীবন-জীবিকার তাগিদে বাবা মায়ের সঙ্গে যে সম্পর্কের নতুন বনিয়াদ তৈরি হয়, সেই বনিয়াদের ভিত্তিতে আমরা ভারতীয়রা, বিশেষ করে বাঙালিরা বিশ্বাস করি না।

    বিশ্বায়নের আগের যুগ পর্যন্ত আমাদের এই পোড়া দেশে যোগ্য-অযোগ্য কোনো সন্তানের কাছেই বাবা, মা লায়াবিলিটি বা বোঝা ছিলেন না, যেমন টা পশ্চিমি দেশে বহুকাল থেকেই দেখতে পাওয়া যায়। হ্যাঁ, একটা কাল ছিল বাঙালি সমাজে বার্ধক্যে বারাণসী। বৃদ্ধ মায়েদেরই বিশেষ করে কাশীতে পাঠাবার যে রেওয়াজ সাতের দশক পর্যন্ত বাঙালি সমাজে ছিল, তার পিছনে বাবা, মাকে বোঝা ভাবার থেকে অনেক বেশি কার্যকরী ছিল উনিশ, বিশ শতকের ক্ষয়িষ্ণু নেতিবাচক সামাজিক মূল্যবোধ, কুসংস্কার। হ্যাঁ, একটা বড়ো অংশের স্বামী পরিত্যক্তা, নিঃসন্তান বিধবাদের কাশীতে চালানের যে রেওয়াজে আম বাঙালি অভ্যস্থ হয়ে উঠেছিল, তার পিছনে কিন্তু বাবা, মা ব্যাতীত মাসী, পিসী, জ্যেঠী, খুঁড়ির দায়িত্ব না নেওয়ার মানসিকতাই সবথেকে বেশি সক্রিয় ছিল। বাবা, দিবস বা মা দিবসের আদিখ্যেতা ছিল না। আজ যখন আমরা যতো বেশি করে বাবা, মায়ের থেকে মানসিক ভাবে, আর্থিক ভাবে তো বটেই, মানে, তাঁরা যদি আর্থিক ভাবে কমজোরি হন -- তাহলে তো তাঁদের সঙ্গে বাবা দিবস, মা দিবসের ঘনিষ্ঠতাই বেশি করি। জানি না কয়বার খোঁজ নিই, বাবা, তুমি যে বলেছিলে তোমার সুগার টা খুব ফ্রাকচুয়েট করছে, কই তুমি তো ডায়গনেস্টিকের ছেলেটাকে দিয়ে সুগারটা মাপালে না?

    বাবার একটু লাজুক মুখ দেখে কপট রাগে হয়তো আমি বলে উঠলাম, আরে আমি সাত কাজে থাকি। ডায়গনেস্টিকের ছেলেটাকে তুমি ও তো একবার নিজে ফোন করতে পারতে?
    বাবা ও সলজ্জ উত্তর দিলেন; আসলে আজ মাসের বাইশ তারিখ। জানি তোর পকেটের কি অবস্থা। তাই.......।
    পকেটের তোয়াক্কা না করেই সেই রাতে আমি একটা লিরাগ্লুটাইডের পেন আর হ্যাঁ, পেলে কে নিয়ে যে বইটা বাবা পড়তে চেয়েছিলেন, নিজেই অর্ডার ও দিয়ে রেখেছিলেন সরস্বতী বুক স্টলে।কিন্তু সেই মাসের কতো তারিখ ভেবে আর আনেন নি। সেই বইটাই নির্দিধায় ধারে বইয়ের দোকানের মালিক অসীমদার কাছ থেকে আপনার বইয়ের দোকানের মাস কাবারি খাতায় লিখিয়ে নিয়ে এসে তুলে দেওয়া বাবার হাতে।
    এমন বাবা দিবস, এমন মা দিবস আমরা বাঙালিরা, ভারতীয়রা প্রতিদিন পালন করি। এ জন্যে আমাদের আলাদা করে 'দিবস' এর দরকার হয় না।
  • বিভাগ : অপার বাংলা | ২০ জুন ২০২১ | ২৯৫ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
আরও পড়ুন
আরশোলা - Rahee Turjo
আরও পড়ুন
ছাদ - Nirmalya Nag
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভালবেসে মতামত দিন