• খেরোর খাতা

  • বেলা গুটমানের অভিশাপ 

    বাইরে দূরে লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ২৩৭ বার পঠিত
  • প্রয়াত শিক্ষকের সমাধির সামনে হাঁটু গেড়ে বসে আছেন একজন হাতজোড় করে। দু চোখে বইছে অশ্রুধারা। 


    ভিয়েনার এই বিশাল সমাধি ক্ষেত্রে একা বসে যিনি কাঁদছেন তাঁর নাম ইউসেবিও, ফুটবলের প্রবাদ পুরুষ। ১৯৬৬ সালে পরতুগালকে বিশ্ব কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে নিয়ে যাবেন।


    ইউসেবিও আজ কেবলমাত্র প্রণাম জানাতে আসেন নি। তিনি এসেছেন তাঁর প্রয়াত শিক্ষকের কাছে করুণা ভিক্ষা করতে। ভগ্ন কণ্ঠে তিনি অনুরোধ করছেন আমার প্রনম্য ফুটবল গুরু, ফিরিয়ে নাও তোমার অভিশাপ। আগামী কাল তোমার পুরনো দল বেনফিকা ইউরোপিয়ান কাপ ফাইনাল খেলবে মিলানের বিরুদ্ধে। শাপ নয়, আশীর্বাদ কর যেন বেনফিকা এ খেলায় জেতে।


    পরের দিন ইউরোপিয়ান কাপ ফাইনালে বেনফিকা ১-০ গোলে হেরে গেল মিলানের কাছে। ১৯৬৫।


    বেলা গুটমান ক্ষমা করেন নি। তাঁর শাপে বেনফিকা কখনো ইউরোপিয়ান কাপ জিতবে না। 


    বেলা গুটমান বুদাপেশটের এক ইহুদি পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন ১৮৯৯ সালে। বাবা মা দুজনেই নৃত্য শিক্ষায় খ্যাতি অর্জন করেছেন। বেলা সেটাই শিখলেন প্রথমে কিন্তু পরে মন গেলো ফুটবলে। এম টি কে হুঙ্গারিয়া দলের হয়ে খেলে দু বার  লীগ জেতার সম্মান পেলেন। গেলেন ভিয়েনা। সেখানে লীগ জিতলেন হাকয়া নামের একটি ইহুদি দলের পক্ষে খেলে। ১৯২৪ সালে হাঙ্গেরির জাতীয় দলের জার্সি পরে খেললেন প্যারিস অলিম্পিকে। কখনো চুপ চাপ থাকার মানুষ ছিলেন না। বেলা গুটমান অভিযোগ জানালেন। প্যারিসে খেলোয়াড়ের চেয়ে বেশি কর্মকর্তা এসেছেন। সে রকম একজন কর্মকর্তার ঘরের সামনে মরা ইঁদুর ঝুলিয়ে দিয়েছিলেন। কিছু দিন নিউইয়র্কে খেলেছেন। তারপর হাঙ্গেরিতে ফিরে কোচিং। সালটা ১৯৩৯। ইহুদি নিধন শুরু হয়েছে কিন্তু হাঙ্গেরিতে কিছু হয় নি। ১৯৪৪ সালে জার্মানরা হাঙ্গেরি দখল করে। গুটমান ধরা পড়লেন। অতএব কনসেনট্রেশান ক্যাম্প। বাকি পরিবার আউশউইতসের অগ্নিকুণ্ডে বলি। তিনি কোনমতে প্রাণটা বাঁচিয়ে আধমরা হয়ে ফিরলেন। যুদ্ধের পরে আবার হাঙ্গেরিতে কোচিং। সেটা ছেড়ে গেলেন রোমানিয়া  কারণ তারা কোচের বেতন টাকায় নয়, খাবারে দিতেন। পায়ের তলায় চাকা। কোচিং করতে গেলেন ইতালি। এ সি মিলান ১৯টি ম্যাচ জেতার পরেও তাঁকে বরখাস্ত করা হয় প্রেসকে বেলা বলেন, কারণটা আমার জানা নেই। আমি ক্রিমিনাল নই। ব্রাজিল গেলেন। তারপর পর্তুগাল - প্রথমে পোরতো তারপর বেনফিকা।  


    পরের পর পর্তুগিজ লীগ জেতে বেনফিকা। ইউরোপিয়ান কাপ (আজকের চ্যাম্পিয়ন্স লীগের পিতামহ) পর পর দুবার  ১৯৬১ সালে বেনফিকা হারাল বার্সেলোনাকে ১৯৬২ তে রিয়াল মাদ্রিদকে রিয়াল মাদ্রিদ তখন ইউরোপীয় ফুটবলের শীর্ষে হেরে যাওয়ার পরে প্রবাদ পুরুষ ৩৪ বছরের ফেরেঞ্চ পুসকাস তাঁর মাদ্রিদ জার্সি খুলে বেনফিকার বিশ বছর বয়েসি মোজাম্বিকান খেলোয়াড় ইউসেবিওকে পড়িয়ে দিয়ে বলেন "বেনফিকার এবং তোমার দিন আগত ওই আমরা  অস্তাচলের সূর্য"।


    পরপর দুবার ইউরোপিয়ান কাপ জিতে বেলা গুটমান তাঁর স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে গেলেন বেনফিকা বোর্ডের সামনে। ঠিক কত টাকা বেতন বা বোনাস বৃদ্ধি দাবী করেছিলেন সেটা জানা যায় নি। তবে বোর্ডকে বলেছিলেন "আমার কথা শুনলেন না। এরপর একশ বছর কেটে যাবে বেনফিকা কোনোদিন ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন হবে না"। 


    বেলা গুটমান দুর্বিনীত চঞ্চল, পরিব্রাজক অভদ্র অনেক কিছু নামে আখ্যাত হয়েছেন। কিন্তু আজকের ফারগুসন ভেঙ্গার মউরিনিও গারদিওলারা কোচ হিসেবে যে সম্মান পান তার পুরোধা বেলা গুটমান। কর্মকর্তা বা বোর্ড নয়,  কোচ এক ফুটবলের টিমের ম্যাজিশিয়ান। ইউরোপীয় ফুটবল ইতিহাসে বেলা গুটমান এক অনমিত নাম। 


    অভিশাপের কি ফল হল?


    এর তালিকাটি নিম্নরূপঃ


    ১৯৬১     ইউরোপিয়ান কাপ     বিজয়ী বেনফিকা                 ৩-২       বারসেলোনা 


    ১৯৬২     ইউরোপিয়ান কাপ     বিজয়ী বেনফিকা                 ৫-৩      রিয়াল মাদ্রিদ 


    ১৯৬৩    ইউরোপিয়ান কাপ     বিজয়ী মিলান                     ২-১       বেনফিকা


    ১৯৬৫     ইউরোপিয়ান কাপ    বিজয়ী মিলান                     ১-০        বেনফিকা


    ১৯৬৮     ইউরোপিয়ান কাপ    বিজয়ী ম্যান ইউ                  ৪-১        বেনফিকা


    ১৯৮৩    ইউএফা কাপ          বিজয়ী আন্দারলেখত             ২-১        বেনফিকা 


    ১৯৮৮    ইউরোপিয়ান কাপ    বিজয়ীআইনডহোভেন            ৬-৫       বেনফিকা 


    ১৯৯০     ইউরোপিয়ান কাপ    বিজয়ী মিলান                      ১-০        বেনফিকা 


    ২০১৩     ইউরোপা লীগ         বিজয়ী চেলসি                      ২-১        বেনফিকা 


    ২০১৪      ইউরোপা লীগ         বিজয় সেভিলা                     ৪-২        বেনফিকা 


    ১৯৬২ সালে বেনফিকাকে যে শাপ দিয়েছিলেন বেলা গুটমান সেটা কাটতে ৪১ বছর বাকি। 

     

  • আরও পড়ুন
    বার্ড - Sambaran Sarkar
  • বিভাগ : অন্যান্য | ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ২৩৭ বার পঠিত
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • aranya | 162.115.44.103 | ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ২৩:৪১102709
  • বাঃ 

  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভ্যাবাচ্যাকা না খেয়ে মতামত দিন