• খেরোর খাতা

  • ঠিকানা বদল হবে

    Anamitra Roy লেখকের গ্রাহক হোন
    ৩০ অক্টোবর ২০২০ | ৯০ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • আমাদের জীবনের অনেককিছুই আমাদের নিয়ন্ত্রণে থাকেনা, এরকমটা আগে মনে হতো। এখন বুঝি যে আমাদের জীবনের কোনওকিছুই আমাদের নিয়ন্ত্রণে থাকেনা। মাঝে মাঝে এই সারসত্য ভুলে গেলে মহাজগৎ মনে করিয়ে দেয়। নিজেই সংকেত পাঠায় আবার যে, আসলে ঠিক এখানেই থাকার কথা ছিল এই মুহূর্তে। আগেরদিন একটা লেখায় ব্যান্ডেলের বাড়ি ছাড়ার সময়ের কথা লিখেছিলাম; কীভাবে পন্ডিচেরির অরোভিল নিকটবর্তী অঞ্চলে পৌঁছতে গিয়ে কলকাতার অরবিন্দ নগরে এসে আবিষ্কার করলাম পাড়ায় একটা অ্যাপার্টমেন্টের নাম অরোভিল। সেই বাড়ি ছেড়ে বেরোতে হয়েছিল ২০১৬ সালের ৩১শে অক্টোবর। বেরোনোর কথা ছিল না, বেরোতে হয়েছিল। সেখান থেকে পাটুলি কিউ ব্লকের এই বাড়িতে এসে আবিষ্কার করলাম উল্টোদিকের জংলা জমিতে বেগুনি রঙের ফুল ফুটে আছে। জিনিসপত্র গোছগাছ করতে গিয়ে মাথার ওপর থেকে একটা বই মেঝেতে পড়ে হাট হয়ে খুলে গেলো। বইয়ের পাতায় লেখা, "সমীর সাহা, পাটুলি"! মা-বাবার বিয়েতে উপহার পাওয়া বই; ভদ্রলোক সম্ভবত হুগলি জেলার জিরাট অঞ্চলের পাটুলিতে থাকতেন। এদিকে আবার একটা ৩১শে অক্টোবর আসছে। পাটুলি থেকে সার্ভে পার্ক চলে যাচ্ছি এবার। এবং আবারও, যাওয়ার কথা ছিল না, যেতে হচ্ছে অসময়ে। সতেরো-আঠেরো-উনিশ, তিনটে অক্টোবর মাস কেটেছে মাঝখানে; সামনের জমিতে ওই বেগুনি ফুলগুলো আর আসেনি। দিনদশেক হলো ওরা ফিরে এসেছে আবার। যেন মাথা তুলে বলতে এসেছে, চলে যাওয়ার সময় হয়েছে তাই ফিরে এসেছি। আসার সময় আমরাই হাত ধরে নিয়ে এসেছিলাম, চলে যাওয়ার সময় শেষবার বিদায়টুকুও আমরাই জানাবো।


    এছাড়া আরও কিছু মজার ব্যাপার আছে এখানে। যেটুকু না বললে বোঝানো যাবে না সেটুকুই লিখছি। বাকিটা কোনওদিনই লিখবো না, জানতে চেয়েও লাভ নেই। যে দু'একজন খুব ঘনিষ্ঠ মানুষ এসব ব্যাপারে সামান্য একটু কিছুও জানেন তাঁদেরও অনুরোধ করবো মুখে তালা ঝুলিয়ে রাখতে কারণ এখানে অন্যান্য মানুষেরা ইনভল্ভড। তাদের অনুমতি ছাড়া তাদের বিষয়ে আলোচনা করাটা ঠিক হবে না একেবারেই। 


    এইবার মহাজাগতিক চক্রান্তটার কথা বলি। গতবার কাজুর একবছরের জন্মদিন পেরিয়ে পরবর্তী সেপ্টেম্বর মাসে ঘটেছিল ঘটনাটা। এবার সুফির একবছর বয়স পেরিয়ে আরেক সেপ্টেম্বর।  দুটো ক্ষেত্রেই বাড়ি ছেড়ে যেতে বাধ্য হওয়ার কারণ যে মূল ঘটনা সেখানে একটি অন্য চরিত্রের খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল এবং দুক্ষেত্রেই সেই ব্যক্তিরা আমাদের খুব পুরনো এবং খুব কাছের কোনও বন্ধু। মানে, বন্ধুর চেয়ে পরিবার বলা ভালো, এতটাই কাছের। লোকদুটো অবশ্যই আলাদা, কিন্তু একজনের নাম রূপেশ হলে আরেকজন রূপঙ্কর। এছাড়াও, দুক্ষেত্রেই একজন মহিলা খুব গুরুত্বপূর্ণ, যিনি কোথাও না থেকে গোটা ঘটনাটাতেই ছিলেন। মানে বলা যেতে পারে, তাঁরা হয়তো তখন নিজেদের বাসায় নিদ্রারত এবং দীর্ঘদিন মূল ঘটনার সঙ্গে জড়িত কোনও চরিত্রের সাথে কোনওভাবেই তাঁদের বিন্দুমাত্র যোগাযোগও নেই, অথচ ঘটনার প্রাথমিক কারণ তাঁরাই। আলাদা ব্যক্তি, কিন্তু এক্ষেত্রেও একজনের নাম সুচেতনা হলে আরেকজন সুরঞ্জনা। মাঝখান থেকে প্রত্যেকবারই আমি একা জীবনানন্দ-র মতো মহাজাগতিক ট্রামের তলায়! এসব ক্ষেত্রে বলতে হয় 'দোষ কারও নয় গো মা / আমি স্বখাত সলিলে ডুবে মরি শ্যামা' অথবা 'আমি দোষ দিব না কাউরে / দোষ দিয়া কি হবে রে'... ইত্যাদি। এই পোস্টটিও একটি মহাজাগতিক পোস্ট। একথা দ্বিতীয় গানটি যাঁরা জানেন তাঁরা বুঝবেন। কারণ, এই গানের উল্লেখ এখানে নাই ঘটতে পারতো, অথচ আমার আগের বাড়িওয়ালার নাম সুবল!


    যাই হোক, মহাজগতের কাছে এপ্রিল ফুল হইয়া কোনও এক পয়লা এপ্রিলের প্রাকলগ্নে কোনও এক সার্ভে ভিউ পার্ক ছেড়েছিলাম, আর এবার পয়লা নভেম্বর থেকে ঠিকানা হতে চলেছে ১৩৫৫, সার্ভে পার্ক। এইটুকুই কাজের কথা, বাকিটা ভাট। সেই বাড়িতেও কলকাতা শহরের মধ্যেই আশ্চৰ্যভাবে ব্যালকনির উল্টোদিকে বিশাল ফাঁকা জমি। কে জানে, হয়তো পৌঁছে দেখবো সেখানেও বেগুনি রঙের ফুল ফুটে আছে। না থাকলেও হয়তো অন্য কোনও সংকেত আসবে অন্য কোনওভাবে যে আসলে ঠিক এরকমই হওয়ার ছিল, আর অন্য কোনওকিছুই হতে পারতো না কোনওভাবেই। এক জীবনে এইটুকু শান্তিই যথেষ্ট!

  • ৩০ অক্টোবর ২০২০ | ৯০ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
আরও পড়ুন
আঁধি - Jahar Kanungo
আরও পড়ুন
আলু - Samik Sanyal
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। দ্বিধা না করে প্রতিক্রিয়া দিন