• টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। যে কোনো নতুন আলোচনা শুরু করার আগে পুরোনো লিস্টি ধরে একবার একই বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে কিনা দেখে নিলে ভালো হয়। পড়ুন, আর নতুন আলোচনা শুরু করার জন্য "নতুন আলোচনা" বোতামে ক্লিক করুন। দেখবেন বাংলা লেখার মতো নিজের মতামতকে জগৎসভায় ছড়িয়ে দেওয়াও জলের মতো সোজা।
  • অনুবাদ গল্পঃ সআদত হসন মন্টোর প্রথম গল্প

    ranjan roy
    বইপত্তর | ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ | ৯১ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা

  • পাতা : 1
  • ranjan roy | 24.99.28.246 | ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ ২৩:২৬726983
  • সবুজ চটিজোড়া
    --------------------- ( মন্টোর প্রথম গল্প)

    'আপনার সঙ্গে আর পোষাচ্ছে না, এবার আমায় তালাক দিন'।

    'সব্বোনাশ! এমন অলুক্ষুণে কথা মুখে আনলে কী করে? তোমার ওই একটা দোষ, সময়ে-অসময়ে কী যে মাথায় চাপে! জ্ঞানগম্যি লোপ পেয়ে যায়'।

    ' হ্যাঁ হ্যাঁ, আপনার তো খুব টনটনে জ্ঞান! দিনরাত্তির মদে চুর।'

    'দেখ, আমি মদ খাই বটে, কিন্তু তোমার মত মাল না টেনে মাতাল হয়ে আবোলতাবোল বকি নে!'

    'ও, আমি আবোলতাবোল বকছি?'

    'সেটা কখন বললাম? নিজেই ভেবে দেখ । এইসব হুটহাট করে তালাক-টালাক এসব কী?'

    'আমার তালাক চাই, ব্যস্‌! যে স্বামী বৌয়ের একটুও খেয়াল রাখে না, তার থেকে আর কী চাইব?'

    'তালাক বাদে যা ইচ্ছে!'

    ' আর কিইবা দিতে পারেন?'

    ' এ যে দেখছি নতুন করে বদনাম! আরে! তোমার মতো এমন কপাল ক'জনের হয়?'

    'অমন কপালের মুয়ে আগুন!'

    'শাপমন্যি কর না বলছি! কোন কথায় যে কখন চটে উঠবে বোঝা মুশকিল। কিন্তু তোমায় খুব ভালবাসি, সত্যি বলছি।'

    'হায় খোদা! এমন ভালবাসার হাত থেকে বাঁচলে হয়!'

    'আচ্ছা, এসব কথা ছাড়। বল, বাচ্চারা স্কুলে গেছে?'

    'স্কুলে যাক, চায় জাহান্নমে যাক, আপনার কী? রোজ দোয়া করছি-- মতুক, সবকটা মরে যাক'।

    'তোমার জিভ গরম চিমটে দিয়ে টেনে ছিঁড়বো! লজ্জা করে না এসব কথা মুখে আনতে? তা'ও নিজের সন্তানের ব্যাপারে?'

    'আমি বলেছি? ফালতু বদনাম করবেন না বলছি! লজ্জা তো আপনার হওয়া উচিত, নিজের স্ত্রীর সঙ্গে এইরকম রাস্তার ভাষায় কথা বলছেন? এসব আপনার কুসঙ্গের ফল।'

    ' আর তোমার মাথায় যেসব নোংরামি ঢুকেছে, সে্গুলো? সেসব কোত্থেকে এল?'

    ' কোত্থেকে আবার? আপনার থেকে'।

    'সবসময় আমারই দোষ, তোমার হয়েছেটা কী? কিস্যু বুঝতে পারছি নে।'

    'আমার কী হয়েছে? আপনি ছাড়া আর হবেটা কী? সারাক্ষণ মাথায় চড়ে নাচলে--নাহ্‌, আপনি আমায় তালাকই দিন'।

    'ব্যাপারটা কী বলত? আর একটা বিয়ে করবে? আমি একঘেয়ে হয়ে গেছি?'

    ' ছি ছি ছি! কী যে বলেন? আমাকে কি এলেবেলে মেয়েছেলে পেয়েছেন?'

    ' বেশ, তাহলে তালাক নিয়ে করবেটা কী?'

    'যেদিকে দুচোখ চায় চলে যাব। গায়েগতরে খেটে দিনমজুরি করে আমার আর বাচ্চাদের পেট চালিয়ে নেব'।

    'গায়ে খাটবে? মজদুরি করবে? তুমি? ওঠো তো বেলা ন'টা বাজিয়ে। তারপর নাশতা করে আবার বিছানায়। দুপুরে খেয়েদেয়ে কম করে তিনঘন্টা ঘুম। যাই কর, নিজেকে ধোঁকা দিও না।'
    '
    'হ্যাঁ, আমি তো সারাদিন শুয়েবসে থাকি। আর আপনিই খালি জেগে থাকেন। এই কালকেই তো! আপনার অফিস থেকে একজন লোক এসেছিল। কানে এল বলছে-- আমাদের সাহেবকে দেখ, সারাক্ষণ টেবিলে মাথা রেখে দেয়ালা করতে থাকেন'।

    'কোন হারামজাদা বলেছে ? নামটা শুনি?'

    '
  • ranjan roy | 24.99.28.246 | ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ ২৩:৫০726984
  • 'আগে আপনার ভাষা ঠিক করুন।'

    'সরি! মটকা গরম হয়ে গেছল। রাগলে জিভে লাগাম থাকে না।'

    'আমারও তো রাগ হয়েছে। কই, আমি তো কোন অভদ্র কিছু বলিনি। অসভ্যতা করতে নেই। আসলে কিছু বাজে লোকজনের সঙ্গে ওঠাবসা করতে করতে আপনার মুখ খারাপ হয়ে গেছে।'

    'আচ্ছা! জানতে পারি কি ওই বাজে লোকগুলো কে বা কারা'?
    'ওই যে, নিজেকে কাপড়ের বড় ব্যবসাদার বলে যে লোকটি! ওর কাপড়চোপড়ের দিকে কখনও তাকিয়ে দেখেছেন?যাচ্ছেতাই! নোংরার হদ্দ! ও নাকি বি এ পাশ, কিন্তু কথাবার্তা চালচলন এমন যে
    গা ঘিনঘিন করে।'

    ও কিন্তু একজন আসামী; কোর্টে মাঅমলা চলছে'।

    'সে আবার কী"

    'আছে, তুমি বুঝবে না। খামখা সময় নষ্ট'।

    'তা তো বটেই। আপনার সময় যে বড্ড দামি। আমি একটু কথা বললেই নষ্ট হয়ে যাবে'।

    ' তুমি কী বলতে চাও, ঝেড়ে কাশো দিকি!'

    ' নতুন করে কিছু বলার নেই, যা বলার আগেই বলে দিয়েছি। ব্যস্‌ আমায় তালাক দিন, আমি বেঁচে যাই। রোজ রোজ এই ঝগড়াঝাঁটি,--- আমি অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছি'।

    'তুমি তো একলাইন রোম্যান্টিক শের-শায়েরি শুনলেও অতিষ্ঠ হয়ে ওঠো। তার কী চিকিচ্ছে?'

    ' চিকিচ্ছে একটাই --তালাক।'

    'তো ডেকে আনো কোন মৌলবিকে- তোমার যখন এতই ইচ্ছে-- আমি মানা করব না।'

    'আমি আবার কোত্থেকে মৌলবি ধরে আনবো?'

    'বাহ্‌, তালাক চাইলে তুমি আর মৌলবি আনতে হবে আমাকে? ওসব ভুলে যাও। আমি হলে এক তুড়িতে দশটা ধরে আনতাম। এখন আমার কাছে আর কিছু আশা কর না-- নিজে যা ভাল বোঝ কর '।

    'আপনি আমাঅর জন্যে এটুকুও করতে পারবেন না?'

    'আজ্ঞে না'!

    'এই নাকি শুনছিলাম আপনি আমাকে খুব ভালবাসেন?'

    'বাসিই তো! তবে ধরে রাখতে, ঠেলে সরিয়ে দিতে নয়।'

    'তবে আমি কী করব?'

    ' যা প্রাণ চায়, খালি আমাকে আর বিরক্ত কর না। একজন মৌলবিকে নিয়ে এস, যে কোনও একজন। তালাকনামা লিখে দিক, আমি সই করে দেব'।

    'দেনমোহরের কী হবে?'

    'প্রশ্নই ওঠে না, কারণ তালাক তো তুমি চেয়েছ'।

    ' বাহ্‌ বাহ্‌!'

    'আরে তোমার ভাই তো ব্যারিস্টার। চিঠি লিখে জেনে নাও। স্ত্রী যখন নিজে তালাক চায়, তখন দেনমোহরের কথা তুলতে পারে না।'

    'তাহলে এক কাজ করুন; আপনিই বরং আমায় তালাক দিন'।

    'আমি কেন নিজের পায়ে কুড়ুল মারব? আমি যে তোমায় ভালবাসি।'

    'ছাই বাসেন; নইলে এমন ব্যাভার করতেন!'

    'কী এমন খারাপ ব্যবহার করেছি?'
  • ranjan roy | 24.99.28.246 | ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ ০০:১৭726985
  • 'আহা, যেন জানেন না। পরশুদিনের কথা, আমার নতুন শাড়ি --তাই দিয়ে আপনি জুতো সাফ করলেন!'

    'সত্যি বলছি, আমি করি নি'।

    'তবে কি ভূতে করেছিল?'

    'এইটুকু জানি যে সেদিন তোমার তিন বাচ্চা একটা শাড়ি দিয়ে জুতো সাফ করছিল। আমি আচ্ছা করে বকে দিয়েছিলাম'।

    ' হতে পারে না, ওরা এমন অসভ্য নয়'।

    'খুব অসভ্য, যাচ্ছেতাই। কারণ তুমি ওদের ঠিকমত শাসন কর না। আচ্ছা, আজ স্কুল থেকে ফিরলে জিগ্যেস করে দেখ-- শাড়ির ওই হাল কে করেছে'।

    'আমি কেন জিগ্যেস করব? বাচ্চা কি আমার একার? আপনার কোন দায়িত্ব নেই? আপনি কিছু করবেন না?'

    ' আজ তোমার কি যে হয়েছে! মনমেজাজের কোন হদিস পাচ্ছি নে। কী যে করি! আসল কারণটা টের পেলে তো!'

    ' আপনার যা ইচ্ছে করুন গিয়ে। আমি জানি আমাকে কী করতে হবে। ব্যস্‌, আপনি আমায় তালাক দিয়ে দিন। যে স্বামী স্ত্রীর কোনও খেয়াল রাখে না তার সঙ্গে কী করে থাকা যায়?'

    'আমি তো সবসময় তোমার খেয়াল রাখি'।

    'রাখেন? আচ্ছা, কাল যে ঈদ সে খেয়াল আছে?'

    'কেন থাকবে না? এই গতকালই তো বাচ্চাদের জন্যে নতুন বুটজুতো কিনে আনলাম। আর আতদিন আগে ওদের ফ্রকের জন্যে তোমার হাতে ষাট টাকা গুণে দিইনি?'

    'হ্যাঁ, ওই ষাটটাকায় আমার চোদ্দপুরুষ উদ্ধার হবে,'।

    ' উদ্ধারের কথা নয়, আসল ব্যাপারটা কী? এবার একটু ঝেড়ে কাশবে?'

    'ব্যাপারটা হল ষাটটাকায় হয়নি। তিন বাচ্চার অর্গান্ডি নিয়েছে চল্লিশটাকা; আর দর্জি একেকটা ফ্রকের সাতটাকা করে মজুরি নিয়েছে-- মোট একষট্টি টাকা। এবার বলুন-- আমার আর আমার বা্চ্চাদের জন্যে আপনি করেছেনটা কী?'

    'বাকি একটাকা তুমি দিয়েছ?'

    'নইলে ফ্রক এল কী করে"?

    'ঠিক আছে; এক্ষুণি একটাকা ফেরত দিচ্ছি।তাহলে এটাই রাগের আসল কারণ?'

    'ধ্যাৎ, বলছি না কালকে ঈদ!'

    'আরে বাবা-- বলেছি তো মনে আছে। দুটো মুরগি আনতে বলেছি, আর সেমাই--পায়েস হবে। তুমি কিছু করেছ?'

    'আমার বয়ে গেছে কিছ করতে।'।
    'কেন"?

    'ভাবছিলাম কাল সবুজ শাড়ি পরব, সঙ্গে সবুজ চটি। চিনেদোকানে অর্ডার দিয়ে এসেছিলাম। কতবার বললাম-- যান, একবার গিয়ে দেখে আসুন,-- তৈরি হয়েছে কি না! তা' আমার জন্যে আপনার কিছু থাকলে তবে তো! আপনি কথা কানেই তুলছেন না।'

    'মরেছে! ঝগড়াটা তাহলে একজোড়া সবুজ চটির জন্যে? ম্যাডাম, ওই সবুজ চটিজোড়া আমি পরশুদিনই নিয়ে এসেছি, আলমারিতে তোলা আছে। সারাদিন শুয়ে বসে বিছানায় গড়িয়ে সময় কাটাও, আলমারিটা খুলেও দেখ নি?'

    ( সমাপ্ত)
  • করোনা

  • পাতা : 1
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত