এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • হরিদাস পাল  আলোচনা  রাজনীতি

  • আসলে এগুলো তো ভারতীয় নেশন -স্টেট নিয়ে তর্ক - গত ক'দিনের তর্কের প্রেক্ষিতে 

    সিএস লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | রাজনীতি | ১০ মে ২০২৪ | ২০৫৬ বার পঠিত
  • কিছু লোকের মত অন্যের ওপর চাপিয়ে দেওয়া, সেই নিয়েই গত ক'দিনের তর্ক চলছিল। গভীরে, আমার যা মনে হয়, এই তর্ক আসলে ব্যক্তিমানুষের মত সংক্রান্ত ব্যাপার নয়, তাদের মতের মধ্যে দিয়ে যা ফুটে বা ফেটে বেরোচ্ছে, যা সমস্যার মনে হচ্ছে, সেগুলো ভারতীয় নেশন-স্টেটের চরিত্র কেমন হবে সেই তর্ক পরিণতি পায়নি বলেই, সেরকম ঘটছে।

    ইউরোপীয় নেশন স্টেটের মূলে একটি সোশাল গ্রুপ, তাদের ভাষা, তাদের ধর্ম, তাদের লোকাচার বা তাদের বিশ্বাসকে মূল বা প্রধাণ ধরা হয়েছে, এবং স্টেটটি সেইগুলিকে ভিত্তি করেই তৈরী হয়েছে, ব্যক্তিমানুষের বিবিধ অধিকারকেও মেনে নিয়ে। একটি ভাষা বা সংস্কৃতি (ফরাসী বা জার্মান), খ্রীস্টিয়ানিটি ধর্ম হিসেবে, এই দিক্গুলি প্রধান। এদের ঘিরে আরো অন্য কিছু। এইটি নেশন-স্টেটের একটি মডেল, যা ইউরোপ থেকে পাওয়া গেছে, আজ নয়, অনেক দিনই।

    বঙ্কিমের 'ভারত-কলঙ্ক ' লেখাটি ভাল করে পড়লে দেখা যাবে, এই লেখাটি ঐরকমের নেশন-স্টেট তৈরীর একটি থিওরাইজেশনের চেষ্টা। বঙ্কিম অনুযায়ী, ভারতের কলঙ্ক হল, তার একতা নেই, নেই কারণ সে জাতিভেদে বিভক্ত। এই জাতিভেদ উঁচু জাত - নীচু জাতের ভেদ নয়, এই ভেদ ভাষা, ধর্ম, বংশ সব কিছু নিয়েই ভেদ, ফলে একতার পরিণতি নেই। লেখাটিতে সমাধান পুরোপুরি নেই, কিন্তু ইঙ্গিতটা আছে, ইউরোপের তুলনা দিয়েই আছে, ইতালীর একত্রীকরণ ইত্যাদি দিয়ে , যে কোনভাবে ভারতকেও এক হতে হবে। ইংরেজের প্রসংসা এই জন্যই যে, উনিশ শতকের বাঙালী ইন্টেলেকচুয়ালদের কাছে ইংরেজ-ইউরোপ প্রধান মডেল, তাদের কাছ থেকে শিখে নিয়ে, ভারতের সমাজ-রাজনীতি গঠন করা যেতে পারে, ভারতীয় নেশন স্টেটটিও।

    উনিশ শতকের ইংরেজী শিক্ষিত বাঙালী ইন্টেলেক্চুয়ালদের ক্রাইসিস বলা যেতে পারে, ঐ শতকের প্রায় শেষ ভাগ অবধি - যতদিন না বিশ শতক এসে পড়ল, ইংরেজ শাসনের প্রতি বীরাগ তৈরী হতে থাকল, এবং বিশ্বযুদ্ধও ঘটে উঠতে থাকল - যে ভারত নামক দেশটি কেমন হবে সেই বিষয় ইংরেজদের কাছ থেকেই শিখতে হচ্ছে কিন্তু একই সাথে বিবিধ রকমের দোটানা থাকছে, ফলে সময়মত ইংরেজদের সমালোচনাও করতে হচ্ছে। বঙ্কিম বা ভূদেব, এনারা এই দোটানার মধ্যেই তাদের লেখাপত্তর করেছেন। ভূদেব ইংরেজদের জ্ঞান-বিজ্ঞান-শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়েছেন, আবার বাঙালী-ভারতীয় সমাজ জীবন কেমন হবে, পারিবারিক জীবন কেমন হবে, ইউরোপীয় মত জাতি বা দেশ গঠনে ব্যাবহার করার পরেও নিজস্বতা কেমন হবে, সেই নিয়ে অজস্র লেখা লিখেছেন। তো একটি সোশাল গ্রুপ ভিত্তিক জাতিগঠন বা নেশন গঠন- যা বঙ্কিম বা ভূদেবের ক্ষেত্রে মূলতঃ হিন্দুকেন্দ্রিক, এবং বঙ্কিমের ক্ষেত্রে প্রশ্নটা থাকলেও সমাধানটা পুরোপুরি আসেনি অর ভূদেবের ক্ষেত্রে সমাধানটা দুইদিক রেখেই - রবীন্দ্রনাথের ক্ষেত্রে, নেশন-স্টেটের সমাধানটি অন্যভাবে। সেটিই হল বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্য এবং  হিন্দু-মুসলমান সমঝোতা দিয়ে। অতএব, বঙ্কিম-ভূদেব একটা মডেল, রবিবাবুর ধারণাগুলি আর একটা মডেল, নেশন - স্টেটের চরিত্র কেমন হবে সে নিয়ে । রবিবাবু যে এই ধারণাটি  দিতে পারলেন, তার কারণ মনে হয় না এই জন্য যে তিনি অন্যদের থেকে উদার, এই জন্যই যে তিনি অন্য সময়ে বাঁচছেন, উনিশ শতকের শেষ থেকে ইংরেজদের দাঁত-নখ আরো বেরিয়ে যাওয়ার পরে বাঁচছেন, বিশ্বযুদ্ধর মধ্যে বাঁচছেন, ইউরোপীয় সভ্যতার বিবিধ ক্রাইসিস দেখ্ছেন, রাশিয়ার বিপ্লবও দেখছেন, মুসোলিনির কাজকর্মও। ফলে চেতনা সম্প্রসারিত হয়েছে এবং তার সাথে দেশীয় ভাবের সাথে হয়ত বেশী পরিচিত, ইংরেজ শিক্ষার ওপরে নির্ভরতাও অনেক কমে এসেছে (সেই সময়ের দেশবাসীর মধ্যেও হয়ত )।

    তো সাভারকার-আরএসএসের মডেল বলা যায় বঙ্কিম-ভূদেব ধারণাকৃত নেশন-স্টেট-সমাজকে অনুসরণ করে। সিএএ সেই মডেলের এক্সট্রীম বা বিকৃত পয়েন্ট।

    আর স্বাধীনতার পরে, সংবিধান তৈরীর ডিবেটে রবিবাবুর ধারণাগুলি গুরুত্ব পায়। রবিবাবুর নাম করেই গুরুত্ব পায় সেটা বলছি না কিন্তু স্বাধীনতা আন্দোলনের মধ্যে যেহেতু বিবিধ ভাব মিশে  ছিল, সেই সব ভাবের মধ্যে ভারতীয় বৈচিত্র্যকে মেনে নেওয়া ছিল (গান্ধীর ভারত পরিক্রমা ঐ বৈচিত্র্যকেই বোঝার চেষ্টা বা গান্ধী-রবিবাবুর সখ্যতা ঐ কারণেই, নানারকমের ডিবেট নিয়েও), ফলে যে সংবিধান তৈরী হয় তা একমুখী, হিন্দুবাদী, মিলিটারিস্টিক না হয়ে বিবিধ সোশাল গ্রুপকে গুরুত্ব দিয়ে ভারতীয় নেশন-স্টেটকে তৈরী করতে চেয়েছিল। সকল ধর্মের মানুষের ধর্মাচরণের অধিকার, মাইনরিটি রাইটস, রাজ্যগুলোর অধিকার ইত্যাদি ছিল বৈচিত্র্যকে মেনে নেওয়ার উপায়। কিন্তু সংবিধানের তো নানারকমের ক্রিটিসিজমও হচ্ছে এখন, দোটানা ঐ সংবিধানের মধ্যেও ছিল, অনেক ক্ষেত্রে কিছু দিলেও পুরোপুরি দেওয়া হয়নি, সে না দেওয়ার ফাঁক দিয়ে নেশন-স্টেটটির চরিত্র বদল করে ফেলা যায়। তো, গত দশ বছরের অস্থির অবস্থা, ভারতীয় নেশন-স্টেটের চরিত্র বদলেরই চেষ্টা। যখন বলি, আরএসএস তো দীর্ঘদিন ধরে ভেতরে ছিল, তখন মনে হয় এটাই বলি যে, নেশন-স্টেটের অন্য একটা মডেল বা দিক  - যা সংবিধানের মধ্যে পুরো গুরুত্ব পায়নি বা '৪৭ পরবর্তী সময়ে রাষ্ট্র গঠনে পুরো গুরুত্ব পায়নি, অথবা গান্ধী পরবর্তী স্বাধীনতা আন্দোলন যা গণ-আন্দোলন তার মধ্যে সেই মডেলের অনুসরণকারীরা বেশী গুরুত্ব পায়নি - সেই হিন্দুকেন্দ্রিক, তাদের মত ও বিশ্বাসকেন্দ্রিক রাষ্ট্র ও সমাজ ব্যবস্থা তৈরী করে নেওয়ার ইচ্ছেটা সুপ্ত ছিল, ঐ মডেলটি সংবিধান-আইন ইত্যাদি তৈরীর পরেও রয়ে গেছিল।

    অতএব, ভারতীয় নেশন-স্টেটের চরিত্রটি এখনও পুরো পরিণতি পায়নি, আপাতভাবে মনে হয় বৈচিত্র্যকে মেনে নেওয়াই হয়ত ঠিক পথ কিন্তু তাকে কাজে পরিণত করতে গিয়ে দেখা গেছে সবকিছু ঠিকভাবে ঘটেনি। ভোটের রাজনীতি বা গণতান্ত্রিক পদ্ধতিই ফাঁকে ভরা ! সন্দেহ আছে, নেশন-স্টেটটি মনোমত পরিণতি পাবে কিনা, ফিরে ফিরে আসবে হয়ত নেশন-স্টেটের ক্রাইসিসগুলি, কখনও চাপা পড়বে, কখনও ফেটে বেরোবে। বৈচিত্র্য আছে বলেই ক্রাইসিসমুক্তি ঘটতে পারে, আবার বৈচিত্র্যগুলিকে আত্মসাৎ করে একমুখী মডেলের দিকে যাওয়াই ক্রাইসিসমুক্তির উপায় (যা আরএসএস-এর মত ), সে মতও রয়ে যাবে।
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • আলোচনা | ১০ মে ২০২৪ | ২০৫৬ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • দীপ | 2402:3a80:a03:2134:0:17:472b:2501 | ১৬ মে ২০২৪ ১৫:৪৯531811
  • আপনার উদ্দেশ্যে আরো কিছু তথ্য নিবেদন করি। শ্রীলঙ্কার জাতীয় সঙ্গীত রচয়িতা আনন্দ সমরাকুন বিশ্বভারতীর ছাত্র ও রবীন্দ্রনাথের স্নেহধন্য ছিলেন। মহাকবির সৃষ্টির দ্বারা প্রভাবিত হয়ে তিনি "শ্রীলঙ্কা মাতা" রচনা করেন, স্বাধীনতার পর এই সঙ্গীত জাতীয় সঙ্গীত রূপে গৃহীত হয়। এখানেও দেশকে মাতৃরূপেই কল্পনা করা হয়েছে।
     
    গানটির ইংরেজি অনুবাদ দিয়েছি।
  • দীপ | 2402:3a80:a03:2134:0:17:472b:2501 | ১৬ মে ২০২৪ ১৫:৫১531812
  • দীপ | 2402:3a80:a03:2134:0:17:472b:2501 | ১৬ মে ২০২৪ ১৫:৫৩531813
  • গানটি এখানে দিলাম। একটু সময় নিয়ে শুনতে পারেন। মহাকবির প্রভাব খুব সহজেই বুঝতে পারবেন।
  • dc | 2402:e280:2141:1e8:91ab:4439:cb13:13e9 | ১৬ মে ২০২৪ ১৬:১২531815
  • কিন্তু এই যে মগজ ভর্তি গোবর নিয়ে দীপ এটাও বুঝতে পারছে না যে তর্কটা কি নিয়ে হচ্ছে, তার কি হবে? :-(
  • r2h | 165.1.172.196 | ১৬ মে ২০২৪ ১৮:৩৫531821
  • এইটা নিয়ে আমি সত্যিই খুব ধন্দে থাকি - ইনি কি সত্যিই বুঝতে পারেন না, যে ঠিক কী নিয়ে তর্ক হচ্ছে, নাকি অপ্রাসঙ্গিক কন্টেন্ট দিয়ে ফ্লাড করার টিপিক্যাল স্ট্র‌্যাটেজি?

    তারপর আবার মনে হয় সে তো সামান্য সাধারন জিনিস তো কত লোকেই বোঝেন না, যেমন একটা ওয়েবসাইটে স্প্যাম করার আর বাকস্বাধীনতা যে এক বস্তু নয় বা নির্দিষ্ট গোষ্ঠীর বিশ্বাস যে সবার, এমনকি সংখ্যাগুরুরও মত নাও হতে পারে, এবং সেটা এমন কিছু অসুবিধাজনক ব্যাপারও না, - এসব বোঝাও তো সহজ বলেই মনে করতাম।
  • dc | 2402:e280:2141:1e8:cd24:beba:cf3f:99a2 | ১৬ মে ২০২৪ ১৯:০০531823
  • সে তো আমিও ভাবতাম এই সামান্য ব্যাপারটা বোঝা / বোঝানো খুব সোজা। ঐজন্যই ভাটে না কোথায় যেন লিখলাম, যতোদিন বাঁচি ততোদিন শিখি laugh
  • kk | 172.58.241.244 | ১৬ মে ২০২৪ ২০:১৬531826
  • দীপবাবু, আমি আমার বক্তব্য আপনাকে বোঝাতে পারিনি বলেই মনে হচ্ছে। ঠিক আছে, আমি কাটান দিলাম। এই সাইটে সারাক্ষণ বসে থাকিনা। তাই কে কখন কী পোস্ট করলেন তার ট্র‌্যাকও রাখা সম্ভব হয়ে ওঠেনা। যদি আপনার কোনো নন-স্প্যাম পোস্ট মোছা হয়ে থাকে তো আমি দুঃখিত। অবশ্যই সেটা গুপু'র সিদ্ধান্ত। তবু আমি আমার মতটা জানালাম।
    দিনের শেষে, সবার মত তার নিজের নিজের থাকুক। কাউকে কারুর কথায় নিজের বিশ্বাস পাল্টাতে হবেনা। শুধুমাত্র অন্যের বিশ্বাসের প্রতিও একটু জায়গা থাকুক, এটুকুই চাওয়া। তাও যদি না পাওয়া যায়, তো সো ভি আচ্ছা! যে যাতে ভালো থাকেন, থাকুন।
  • দীপ | 2402:3a80:a10:1ce1:0:28:4473:701 | ১৭ মে ২০২৪ ১২:২১531854
  • “গোরা সন্ধ্যার পর বাড়ি ফিরিয়া আসিয়া দেখিল, আনন্দময়ী তাঁহার ঘরের সম্মুখে বারান্দায় নীরবে বসিয়া আছেন। গোরা আসিয়াই তাঁহার দুই পা টানিয়া লইয়া পায়ের উপর মাথা রাখিল। আনন্দময়ী দুই হাত দিয়া তাহার মাথা তুলিয়া লইয়া চুম্বন করিলেন।
    গোরা কহিল, “মা, তুমিই আমার মা। যে মাকে খুঁজে বেড়াচ্ছিলুম তিনিই আমার ঘরের মধ্যে এসে বসে ছিলেন। তোমার জাত নেই, বিচার নেই, ঘৃণা নেই—শুধু তুমি কল্যাণের প্রতিমা। তুমিই আমার ভারতবর্ষ!” "
     
    (গোরা)
     
  • s | 100.36.114.105 | ২০ মে ২০২৪ ২০:৪৯532027
  • এখানে বেশ কিছু কমেন্ট দেখে অবাক হচ্ছি না। জেনেরালি, ব্যান কালচার ভারতীয়দের মজ্জায় মজ্জায়। বই ব্যান করা হয়, সিনেমা হলে প্রদর্শন বন্ধ করা হয়। পছন্দ না হলে কোনো কারণ না দেখিয়ে ওয়েবাসাইটে লেখা মুছে দেওয়া হয়। সেই দেশে বিজেপির মতন অপ্রেসিভ সরকার হওয়াই তো স্বাভাবিক। যারা মাইনরিটি রাইট নিয়ে চিৎকার করেন, তারাই আবার নিজের অপছন্দের স্পিচ ব্যন করতে সবার আগে এগিয়ে আসেন। হায় আয়রনি, তোমার দিন একেবারেই গেছে।
  • কে তুমি? কোথা হইতে আসিয়াছ? | 165.1.172.196 | ২০ মে ২০২৪ ২২:৪৮532033
  • r2h | 165.1.172.196 | ২০ মে ২০২৪ ২২:৪৯532034
  • স্যরি স্যরি, এটা ছবির টইয়ে যাবে ঃ(
  • dc | 2402:e280:2141:1e8:1863:a71c:726c:15fd | ২০ মে ২০২৪ ২২:৫০532035
  • এখানেও মানিয়ে গেছে কিন্তু! ক্যাপশান আর ছবি, দুইই laugh
  • ফের যদি বন্যপ্রাণী বলবি তো... | 165.1.172.196 | ২০ মে ২০২৪ ২২:৫০532036
  • r2h | 165.1.172.196 | ২০ মে ২০২৪ ২২:৫১532037
  • উফ্ফ্ফ পঁচত্তরটা ট্যাব খোলা...
  • r2h | 165.1.172.196 | ২০ মে ২০২৪ ২২:৫১532038
  • ডিসি :D
  • aranya | 2601:84:4600:5410:a5cb:d699:ec68:de9d | ২০ মে ২০২৪ ২২:৫২532039
  • সুন্দর ছবি, পাখীদের  :-)
  • &/ | 107.77.234.214 | ২০ মে ২০২৪ ২২:৫৫532040
  • পাখিরাও নেশন স্টেট বোঝে হুঁ হুঁ 
  • দীপ | 42.108.86.154 | ২০ মে ২০২৪ ২৩:১৪532041
  • ট্রোলেদের স্বরূপ ক্রমশ প্রকাশিত হচ্ছে!
  • r2h | 165.1.172.196 | ২১ মে ২০২৪ ০০:১১532042
  • s, বাকস্বাধীনতা ইত্যাদি কন্টেন্টের ব্যাপার, স্প্যামিংটা অপারেশনাল, ওতে কোয়ালিটি না, কোয়ান্টিটির ঝামেলা। ব্যবহারকারি এসে যদি দেখে এক জায়গায় কেবল কপি পেস্টের জঞ্জাল, সে আর সেখানে আসবে না। এসব জিনিস তো ভাবতে হবে! এমন গুলিয়ে ফেললে কী করে হবা।
  • s | 100.36.114.105 | ২১ মে ২০২৪ ০৩:১১532047
  • r2h,
    গুলিয়ে ফেলার কিছু নেই। বাক স্বাধীনতা ব্যাপারটা বাইনরি। হয় আছে, নয় নেই। মাঝামাঝি কিছু হয় না। আমি যেখানে থাকি, সেখানে স্প্যামিং, ট্রোলিং ইত্যাদি তো বটেই, এমনকি অনলাইন থ্রেট দেওয়াও জায়েজ। এর মানে স্টেট এই সব কিছুর জন্যে কাউকে ক্রিমিনালি প্রসিকিউট করতে পারে না। কিন্তু কোনো প্রাইভেট কোম্পানি, যেমন টুইটার কি ফেসবুক ব্যবস্থা নিতেই পারে। কিন্তু টুইটার বা ফেসবুকের কাউকে জেলে পোরার ক্ষমতা নেই। এখন গুরুচ্ন্ডালি কোনো ইউজারের পোস্ট ডিলিট করতে পারে। কিন্তু তার জন্যে গাইডলাইন থাকা উচিৎ। প্রথম পাতায় লেখা আছে এই সাইটে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই ইত্যাদি ইত্যাদি আর তারপর কোনো কারণ না দেখিয়ে পোস্ট ডিলিট করা চুড়ান্ত আনএথিকাল। সুষ্প্ষ্ট গাইডলাইন থাকলেও না হয় একটা কথা ছিল।

    আমি ব্যাক্তিগত ভাবে যে কোনো স্পিচের পক্ষে, ইনক্লুডিং হেট স্পিচ, যতক্ষণ তা নন-ভায়োলেন্ট। একটা উদাহরণ দিচ্ছি - সত্তর বা আশির দশকে কোনো সময় ইলিনয়ের কোনো একটা ছোটো শহরে এক নিও-নাৎজি গ্রুপ মার্চ করবে ঠিক করে। গোটা টাউন সেই মার্চের বিরুদ্ধে ছিল আর টাউন কাউন্সিল অর্ডিনান্স জারি করেছিল মার্চ না করার জন্যে। কিন্তু ACLU এর ইলিনয় চ্যাপ্টার সেই নিও-নাৎজি গ্রুপের শান্তিপূর্ণ মার্চের অধিকার রক্ষা করতে কোর্টে গিয়েছিল। ACLU কারা আর সিভিল রাইটস আন্দোলনে তাদের রোল কি ছিল জানা না থাকলে খুঁজে দেখে নিতে পারেন। এই একই মুদ্রার এর উল্টোদিক হচ্ছে জন স্টুয়ার্ট বা স্টিভেন কোলবেয়ারের পলিটিকাল স্যাটায়ার। একটা ছাড়া অন্যটা হয় না। সেই রকম ভারতে লিবেরালরা যদি সাউথ ব্লকের সামনে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্র্রীকে গাল দিতে চায় প্রসিকিউশনের ভয় না করে, তাহলে তাদের আগে সব রকমের স্পিচ সহ্য করতে হবে, এমনকি হেট স্পিচ। এটাই বক্তব্য ছিল।
  • r2h | 165.1.172.196 | ২১ মে ২০২৪ ০৩:৩৫532048
  • হ্যাঁ সে তো বটেই।

    এমনিতে, স্প্যাম করবেন না, এরকম একটা নোটিস টাঙানো থাকতেই পারে, সেটা মন্দ হয় না। তবে মোটামুটি গুরুর ইউজারবেসের সেই ম্যাচ্যুরিটি আছে মনে হয়, তবে টাঙালেও অধিকন্তু ন দোষায়।

    আমি ব্যক্তিগতভাবে ফ্রি স্পিচের পক্ষে নই - একটা জায়মান হিটলার দেখতে পেলে সাধ্য থাকলে তার আমি গলা টিপে দিতে পারলে খুশি হবো। সেটা পারবো না, সে অন্য কথা, ভবিষতের সম্ভাবনা বিপুল, তাও অন্য কথা, কে জানে হিটলার পাল্টে অন্য কেউ হলে গেল।
    তবে সে আমার ব্যক্তিগত মত। গুরুতে কোন মতকে আটকাতে দেখিনি।

    কিন্তু স্প্যামিংটা অপারেশনাল হ্যাজার্ড। তার সঙ্গে ফ্রি স্পিচের সম্পর্ক আমি অন্তত দেখি না। নিজের বক্তব্য বলতে গিয়ে যদি কাউকে তিনশো খানা কপি পেস্ট করতে হয়, তাহলে সেটা ঠিক ফ্রি স্পিচ না, নিতান্তই কপি পেস্ট আর স্প্যামিং।

    এবার দীপের কিছু কিছু নন-কপি পেস্টও ডিলিট হয় দেখেছি।
    তার কারন অনুমান করি দীপের নাম দেখলেই গুপুদের স্প্যাম অ্যালার্ট জ্বলে ওঠে। এই জিনিস ধৈর্য ধরে কে আর ধরে ধরে পড়বে। ব্যাপারটা আদর্শ না, কিন্তু প্র‌্যাকটিকেল।

    তো, দীপের ক্ষেত্রে, এগুলো স্প্যাম, কপি পেস্ট, নিজের বক্তব্য না। এর সঙ্গে ফ্রি স্পিচের সম্পর্ক নেই।
  • গু খোর | 109.70.100.69 | ২১ মে ২০২৪ ০৪:০২532049
  • ফ্রি স্পিচ মারাচ্ছে
  • dc | 2402:e280:2141:1e8:1900:fe23:2ecb:2e2 | ২১ মে ২০২৪ ০৭:৩৫532056
  • হ্যাঁ, স্প্যাম করা আর ফ্রি স্পিচ এক না। আজকাল বেশীর ভাগ ইমেল বা অন্যান্য টুল এও স্প্যাম ফিল্টার থাকে। 
     
    তবে এইটা ইন্টারেস্টিং মনে হলোঃ "আমি ব্যাক্তিগত ভাবে যে কোনো স্পিচের পক্ষে, ইনক্লুডিং হেট স্পিচ, যতক্ষণ তা নন-ভায়োলেন্ট"
     
    ধরুন, আমি গুরুতে একটা টই খুলে লিখলামঃ "জানিস তো, আমাদের পাড়ায় মহম্মদ আখলাক নামে একটা শুবা থাকে, সে ব্যাটা ফ্রিজে গরুর মাংস রাখে। জানিসই তো আমরা হিন্দু, গোরু আমাদের মা। চল, সবাই মিলে গিয়ে ওকে পিটিয়ে মেরে ফেলি"। বা ধরুন এটা হোয়াতে আমার কিছু বন্ধুর সাথে শেয়ার করলাম। 
    এটা কি হেট স্পিচ? 
    এটা কি নন ভায়োলেন্ট? 
    এর বিরুদ্ধে কি গুরু বা হোয়া কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নিতে পারে? পোস্টটা ডিলিট করতে পারে? 
  • r2h | 208.127.71.8 | ২১ মে ২০২৪ ০৭:৪০532057
  • হ্যাঁ। এমনকি ভায়োলেন্সের পার্টটা বাইপাস করার জন্য যদি শেষ লাইনটা বাদও দেওয়া হয়, তবুও ভারতের বর্তমান পরিস্থিতি বিচার করে আমি এটাকে ডিলিট করার পক্ষে ভোট দেবো।
  • দীপ | 2402:3a80:196c:48f2:778:5634:1232:5476 | ০৩ জুন ২০২৪ ২১:০০532673
  •           বঙ্গভাষা

    হে বঙ্গ, ভাণ্ডারে তব বিবিধ রতন;
    তা সবে, (অবোধ আমি!) অবহেলা করি,
    পর-ধন-লোভে মত্ত, করিনু ভ্রমণ
    পরদেশে, ভিক্ষাবৃত্তি কুক্ষণে আচরি।
    কাটাইনু বহু দিন সুখ পরিহরি।
    অনিদ্রায়, অনাহারে সঁপি কায়, মনঃ
    মজিনু বিফল তপে অবরেণ্যে বরি; -
    কেলিনু শৈবালে; ভুলি কমল-কানন!
    স্বপ্নে তব কুললক্ষ্মী কয়ে দিলা পরে -
    "ওরে বাছা, মাতৃকোষে রতনের রাজি,
    এ ভিখারী-দশা তবে কেন তোর আজি?
    যা ফিরি, অজ্ঞান তুই, যা রে ফিরি ঘরে!"
    পালিলাম আজ্ঞা সুখে; পাইলাম কালে
    মাতৃভাষা-রূপ খনি, পূর্ণ মণিজালে।
     
    (মধুসূদন)
     
    মহাকবির দৃষ্টিতে মাতৃকল্পনা।
  • ধোরবা | 2001:67c:6ec:203:192:42:116:178 | ০৩ জুন ২০২৪ ২১:৪৩532674
  • মাথা নেই মুন্ডু নেই স্লা ছাগলচোদা কপিপেস্ট মারছে।
  • s | 100.36.114.105 | ০৪ জুন ২০২৪ ০১:১০532681
  • বেশ কিছুদিন পরে এসে দেখলাম নতুন নোটিস লেগেছে। ভাল কথা।
    ডিসি আর r2h এর প্রশনের উত্তরে - গুরু যেহেতু প্রাইভেট ওয়েবসাইট, তারা তাদের ইচ্ছে মতন টার্মস আর কন্ডিশন অ্যাপ্লাই করতে পারে। তবে যে দেশে রেজিস্টার্ড, সেই দেশের আইন মানতে হবে মনে হয়। আরো ভাল করে খোঁজ নিয়ে বলতে হবে।
    আর একবার বলতে চাই, ফ্রি স্পিচ নিয়ে আমার বক্তব্য স্টেটকে নিয়ে, কোনো প্রাইভেট এনটিটিকে নিয়ে নয়। একমাত্র স্টেটই পারে কাউকে ক্রিমিনালি প্রসিকিউট করতে। বর্তমান ভারতের দিকে তাকালে বোঝা যায় এই রকম একটা অ্যাবসলিউট ফ্রি স্পিচ আইন কেন দরকার। এখন ভারতে কোনো নিউজপেপার, জার্নালিস্ট সরকারের সমালোচনা করতে ভয় পায়। কিন্তু বাকস্বাধীনতা থাকলে অনেকেই সরকারের তুলোধনা করতে পারত কোনো রকম অ্যারেস্ট বা ওয়ারেন্টের ভয় না করে। আর দিনের পর দিন সেটা চালালে তার এফেক্ট ব্যালট বক্সেও পড়ত। তবে অ্যাবসলিউট বাকস্বাধীনতা থাকলে লেফট রাইট দু পক্ষের বাকস্বাধীনতাই মেনে নিতে হবে।
    দরজা জানালা খোলা থাকলে আলো হাওয়ার সাথে সাথে ধুলো ময়লাও আসবে। আমি অন্তত খোলা হাওয়ায় থাকা প্রেফার করব।
  • dc | 2402:e280:2141:1e8:8c01:8547:18fa:4e00 | ০৪ জুন ২০২৪ ০৭:৪৫532683
  • "এখন ভারতে কোনো নিউজপেপার, জার্নালিস্ট সরকারের সমালোচনা করতে ভয় পায়। কিন্তু বাকস্বাধীনতা থাকলে অনেকেই সরকারের তুলোধনা করতে পারত কোনো রকম অ্যারেস্ট বা ওয়ারেন্টের ভয় না করে। আর দিনের পর দিন সেটা চালালে তার এফেক্ট ব্যালট বক্সেও পড়ত"
     
    সে তো অবশ্যই। 
     
    "আর দিনের পর দিন সেটা চালালে তার এফেক্ট ব্যালট বক্সেও পড়ত। তবে অ্যাবসলিউট বাকস্বাধীনতা থাকলে লেফট রাইট দু পক্ষের বাকস্বাধীনতাই মেনে নিতে হবে।"
     
    এতেও অনেকটা একমত। তবে অনেক সময়েই একেকটা গ্রুপ, যেমন আরেসেস, রীতিমত স্ট্র‌্যাটেজি বানিয়ে, সার্ভে করে হেট স্পিচ ছড়ায়, দাঙ্গার পরিবেশ তৈরি করে, একটা ধর্মের লোকদের অন্য ধর্মের বিরুদ্ধে উস্কায়। আমি এর বিরুদ্ধে, কারন এটা ঠিক বাকস্বাধীনতা নয়। এটা কোন লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বা "লেফট কে মানলে রাইট কেও মানতে হবে" টাইপের ব্যাপরও নয়। এটা হলো ডেলিবারেট, সিস্টেম্যাটিক অ্যাবিউস। আমি এর বিরুদ্ধে।  
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভ্যাবাচ্যাকা না খেয়ে মতামত দিন