• খেরোর খাতা

  • আক্ষেপ, পুনর্জন্ম... এবং একটি রিভার্সিবেল প্রসেস

    sidhartha chakroborty লেখকের গ্রাহক হোন
    ০৩ নভেম্বর ২০২১ | ১০১ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • নভেম্বরের শুষ্ক দুপুরের শেষে, যখন অস্তগামী সূর্য্য তার শেষটুকু কমলা রঙের আলো গলিত লাভার মত ঢেলে দেয়, সেই সময় ট্রেন ছুঁয়ে যায় কয়েকটি মাঠ। দুইধারে গোলপোস্ট নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা অনন্ত স্থবির স্কুলের মাঠ; দোকান, ফ্ল্যাট, শপিং মল, সিনেমা হলের মাঝে এখনও অস্তিত্ব বজায় রাখতে পাড়া একটা-দুটো ছোটো ছোটো মাঠ। নভেম্বরের শেষ বিকেলে সেখানে ফুটবল খেলে রংবেরঙের জামা পরে থাকা ছেলেরা, আবর্জনার স্তূপের গা ঘেঁষে থাকা মাঠে ক্রিকেট খেলে। আর এই সময় যখন ট্রেন পাশ কাটিয়ে যায়, কোনো কোনো ছেলে, যাদের মুখ দেখা যায় না, ব্যাট তুলে তাকিয়ে থাকে মাঠের দিকে। ক্ষণস্থায়ী দর্শকদের কাছে নিজের কৃতিত্বের সাক্ষ্য রাখে।
     
    হাপরের মত ওঠানামা করা বুক নিয়ে দৌড়ে বেড়ানো ছেলেটা, পঞ্চাশ কিংবা একশো করে শচীনের মত ব্যাট তুলে তাকিয়ে থাকা ছেলেগুলো কেমন অবাক করে দেয় আমাকে। কিছুক্ষণ পরেই কেউ বাড়ি গিয়ে পড়তে বসবে, কোনো বেকার ছেলে যাবে দুটো টিউশন পড়াতে, কিংবা অন্ধকার গলিতে দাঁড়িয়ে সিগারেট টানবে, অথচ এই বিকেলের সময়টা, যখন কমলা আলো আর অন্ধকার মিলেমিশে যায়, কি স্বচ্ছ স্বপ্ন দেখে ওরা! কেউ ভেসে যায় স্টেডিয়ামে দর্শকের গর্জনে, কেউ স্বপ্ন দেখে একদিন দেশের জার্সি গায়ে চাপিয়ে সেঞ্চুরি করার। অবাস্তব স্বপ্ন, যার ভবিষ্যৎ হতাশার পুনরাবৃত্তি।
     
    অবাস্তব স্বপ্নগুলোই বাঁচিয়ে রাখে আমাদের। বিকলাঙ্গ হয়ে হেঁটে বেড়ানোর এইসব একঘেয়ে দিনে মাথা তুলে বাঁচার, একটু নিষ্পাপ আনন্দ খুঁজে নেওয়ার জায়গা এইসব স্বপ্ন গুলো। একটু নিশ্চয়তা, আশ্রয় আর জয়ের আভাস।
     
    ছুটতে থাকা ট্রেনের গর্জন ছাপিয়ে কে যেন ফিসিফিসিয়ে মনে করিয়ে দিয়ে যায়, শেষ স্বপ্নে আমি আমার শীতল মৃত্যুকে দেখেছিলাম।
    নভেম্বরের শুষ্ক দুপুরের শেষে, অস্তগামী সূর্য্য তার শেষটুকু কমলা রঙের আলো গলিত লাভার মত ঢেলে দেয়। সারাদিন হকারী করে তখন বাড়ি ফিরি।
     
    শীত পড়ার শুরুতেই একদিন হঠাৎ আবিষ্কার করি, মরে যাওয়া গাছের ডগায় পাতা গজিয়েছে, শুষ্ক ডালে জন্মেছে ছোট ছোট সাদা ফুল। এক অপূর্ব বিস্ফোরণের সম্ভবনা নিয়ে আবার সবুজ ফিরে আসছে বৃক্ষে। শহরে প্রতিদিন যেমন নিঃশব্দে মরে যায় কত কত মানুষ, তেমনই চুপিসারে কতজন উঠে দাঁড়াচ্ছে বৃক্ষের মত। তাদের বুকের ভিতর থেকে উঁকি মারছে সাদা ফুল। পিঠের কাছে কচি পাতার মত জন্মেছে পালক। সদ্যজাতের চিৎকারের শব্দ অ্যামপ্লিফায়েড হয়ে ধাক্কা খায় প্রতিটা মোড়ে, প্রতিটা দেওয়ালে।
     
    বিস্ফোরণের শব্দ সর্বনিম্ন কত দূরত্বে শোনা যায়?

     

  • বিভাগ : অন্যান্য | ০৩ নভেম্বর ২০২১ | ১০১ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লুকিয়ে না থেকে মতামত দিন