• খেরোর খাতা

  • শিক্ষার ভবিষ্যৎ

    jhuma samadder লেখকের গ্রাহক হোন
    ০১ আগস্ট ২০২১ | ১৩৬ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • আপনি নিশ্চয়ই দেখতে পাচ্ছেন,স্কুল-কলেজ বাদে অফিস কাছারি, সিনেমাহল, প্রেক্ষাগৃহ সবই একে একে খুলে যাচ্ছে। 


    সন্তানকে স্কুল-কলেজে পাঠানো নিয়ে সমাজ দ্বিধা বিভক্ত হয়েছে। যাঁদের সামর্থ্য আছে, যাঁরা কিঞ্চিৎ সুবিধাজনক অবস্থানে বিরাজ করেন, তাঁরা অনলাইন শিক্ষাকেই এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইছেন। 


    যাঁদের সামর্থ্য নেই, নিষ্ফল আক্রোশে মাথা কুটে মরলেও শেষমেষ ধার করে হোক, জমি বিক্রি করে হোক, মোবাইলের বন্দোবস্ত করার পরেও, কেউ পাহাড়ের মাথায়, কেউ গাছের উপর চড়ে 'শিক্ষাব্যবস্থা' জারী রাখবার চেষ্টা করছেন। গত দু'দিন আগে বাঁকুড়ার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবী জানানোর জন্য কয়েকজন ছাত্রছাত্রীকে নন-বেলেবল ধারায় আটক করা হয়েছে।


      মিজোরাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক স্তরের অনলাইন সেমিস্টার পরীক্ষা দিতে লুংলে ও মায়ানমার সীমান্তের সিয়াহায় ছাত্রছাত্রীদের খাতা পেন নিয়ে পাহাড়ের মাথায় উঠে যেতে বাধ্য হতে হয়েছিল, কারণ, অন্যত্র ইন্টারনেট সংযোগ ছিল না। কেবল দুর্গম এলাকাই নয়, এদেশের বেশীরভাগ গ্রামীণ এলাকায় ইন্টারনেট কানেকশনের দুর্বল অবস্থা কারও অজানা নয়।


    অথচ, UGC চেষ্টা করছে, কলেজ ইউনিভার্সিটিতে ব্লেন্ডেড লার্নিং অর্থাৎ মিশ্র শিক্ষা পদ্ধতিকে ধীরে ধীরে শিক্ষার প্রধান মাধ্যম হিসেবে গ্রহণ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 


    প্রথমে উচ্চশিক্ষায় টেকনিক্যাল কোর্সে ২০% অনলাইন পড়াশোনার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। গতবছর ঠিক হয়, যে কোনো কোর্সে ৪০% পর্যন্ত অনলাইন করা হবে। 


    ব্লেন্ডেড লার্নিংয়ে ইন্টারনেট ব্যবহার করে শিক্ষার বিষয়ে আপত্তির কিছু নেই। টেকনোলজিকে গ্রহন করতে অসুবিধে কি? ভিডিও লেকচার,পডকাস্ট, রেকর্ডিং... বেশ ভালোই তো! 


    কিন্তু এর জন্য যে পরিকাঠামো দরকার, তা কি আমাদের দেশের বড়সড় কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসগুলিরও আছে? যেখানে সরকার দেশবাসীর বিনামূল্যে টিকাকরণে হাত বাড়াতে অনিচ্ছুক ছিলেন, সেখানে শিক্ষার মত 'অপ্রয়োজনীয়' বিষয়ে কত খরচ করতে রাজী হবেন মহামান্য সরকার? 


    শিক্ষাখাতে টাকা বরাদ্দ বাড়ানোর বদলে, সরকার চলতি ২০২১-২২ সালে সমগ্র শিক্ষাখাতে ৬০০০ কোটির বেশী টাকা কমিয়েছে।


    দেশে উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রে বর্তমানে ৩০ হাজারেরও বেশী শিক্ষক পদ শূন্য এবং ক্রমাগত এই সংখ্যাটা বাড়ছে, যা আর কখনওই পূরণ করা হবে না। 


    এবার একটা বিষয় লক্ষ্য করা যাক। বিশ্বব্যাপী অনলাইন শিক্ষা বাজারের আয়তন, ২০১৯- এ ছিল ১৮৭.৮৭৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০২৫-এ তা বেড়ে দাঁড়াবে ৩১৯.১৬৭ বিলিয়ন ডলারে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলি এই বাজারের প্রধান ক্রেতা হয়ে উঠবে। বিকাশশীল দেশ হিসাবে ভারতের 'শিক্ষা ক্রেতা'র সংখ্যাটা সহজেই অনুমেয়। ফলে, দৈত্যাকার টেক করপোরেশনগুলো (tech-corporation) এই বাজারে বিপুল টাকা নিয়োগ করছে।


    অর্থাৎ, বিষয়টা খুব স্পষ্ট, ধীরে ধীরে শিক্ষা ব্যবস্থার বেসরকারিকরণ করতে পারলে, তবেই এসব অত্যাধুনিক সুবিধাসম্পন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আপনার সন্তানের শিক্ষা সম্পূর্ণ হবে। প্রচুর খরচ করে, ঘটিবাটি বেচে এসব এলিট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি করবেন আপনার সন্তানকে। 


    ওদিকে সর্বসাধারণের জন্য 'গো-বিজ্ঞান' শিক্ষার চুষিকাঠি হাতে ধরিয়ে দিয়ে তাদের শান্ত করা হবে। 


    আরও পড়ুন
    বাণী - Mousumi Banerjee

  • ০১ আগস্ট ২০২১ | ১৩৬ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • নিউ এডুকেশন পলিসি | 2409:4060:2d85:be2d:ae7e:9ae3:efcd:d4b5 | ০১ আগস্ট ২০২১ ১২:৫৩496271
  • শিক্ষা ব্যবস্থা অনেকদিন আগেই বেসরকারিকরণ হয়ে গেছে। সরকারি স্কুলে পড়াশুনা বহুবছর আগে থেকেই সেরকম হয়না। তার আসল কারণ সেরকম ভালো ছাত্র ওসব স্কুলে পড়তে যায় না, সরকারি স্কুলের  teacher রা অনেক ভালো হওয়া সত্বেও।


    পুঁথিগত শিক্ষা ওভাররেটেড। দেশে graduate দের unemployment highest. 


    https://www.statista.com/statistics/1001039/india-unemployment-rate-by-education-level/


    এই জন্যই নিউ এডুকেশন পলিসি implement করা দরকার, যাতে কার্যকরী শিক্ষা দিয়ে যুবশক্তি কে কাজে লাগানো যায়। মুখস্ত বিদ্যাভিত্তিক নম্বর সর্বস্ব শিক্ষাব্যবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতেই হবে এবার।

  • jhuma samadder | ০১ আগস্ট ২০২১ ১৬:২০496275
  • সে ইনফ্রাস্ট্রাকচার কোথায়? তার জন্য বরাদ্দ অর্থ কোথায়? শহর ছাড়িয়ে গ্রাম এলাকায় গেলেই চোখে পড়ে, সরকারি স্কুল ছাড়া গত্যন্তর নেই, সেই সব বাচ্চাদের কী হবে?

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খেলতে খেলতে মতামত দিন