এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • দত্ত জুয়েলার্স - ৮ 

    Anjan Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ২৭২ বার পঠিত | রেটিং ৪ (১ জন)
  •  

    কলতান ভাবল , মিসেস দত্তকে সরাসরি জিজ্ঞাসা করে, তার কলতানের কাছে আসার উদ্দেশ্য কি । যেসব কথা বলছে,  সেসব তো সে আগেই জেনে ফেলেছে ।  
    সে প্রিয়দর্শিনীকে একটা খোঁচা মারল, '  সতীনাথবাবুর ব্যাপারে কি ভাবছেন আপনি ? '
    এবার আর কোন হেঁয়ালি করলেন না ভদ্রমহিলা । প্রাঞ্জল ভাষায় বললেন , ' ওর ব্যাপারে আর ভাবার কি আছে । ইহকাল পরকাল সবই তো গেছে । আর আমার জীবনেরই বা আর কি আছে ? মেয়েটার ভবিষ্যৎ যদি সুখের হয় সেটুকুই কামনা .... ' 
    ------ ' হ্যা ...... সে তো ঠিকই .... কিন্তু নেকলেসের সমস্যাটার তো সমাধান করতে হবে..... আপনার কাছে কো-অপারেশান চাইতেও সংকোচ বোধ হয় ..... আপনার ঘরের লোকই ইনভলভড ..... '
    ----- ' তাতে কি হয়েছে ..... ঘরের লোক তো কি হয়েছে ? পাপ বাপকেও ছাড়ে না ..... ওকে রবিবার রাত্রে নিঃশব্দে ফলো করে তিনতলায় মার্বেল স্ল্যাবের কেরামতিটা বুঝে নিলাম .... '
    ----- ' আচ্ছা ..... মার্বেল স্ল্যাবের ব্যাপারটা কি বলছিলেন ..... আচ্ছা আপনি লাঞ্চ করে আসেননি তো ...... ' কলতান অন্তরঙ্গ হবার চেষ্টা করে ।
    ----- ' না না ..... আমি চোরবাগানে গিয়ে খাব .... বলা আছে .... আপনি ব্যস্ত হবেন না ... অসময়ে এসে পড়েছি .... ' 
    ------ ' আমাদের পেশায় অসময় বলে কিছু নেই ..... হ্যা যেটা বলছিলাম ..... মার্বেল স্ল্যাবের ব্যাপারটা কি বলছিলেন .... ঠিক বুঝলাম না ..... যদি একটু ক্লিয়ার করেন .... '
    ---- ' ওটা তো আমিও জানতাম না  .... সোমবার জানলাম ..... ওপরে ঠাকুর ঘর আছে ।  রাধামাধবের যুগল মূর্তি । তার এক পাশে লম্বালম্বি একটা শ্বেতপাথরের বেঞ্চ মতো । তিনটে লোক পাশাপাশি বসতে পারে । রাত্তিরবেলা তো আর কেউ বসে নেই । লোকজন কেউ নেই তখন । দেখতে পেলাম, সতীনাথবাবু বেঞ্চের ওপরের ধবধবে সাদা পাথরের স্ল্যাবটায় হাত দিয়ে চাপ দিল । পাথরের স্ল্যাবটা একপাশে সরে গেল । ভিতরে, দেখতে পেলাম একটা মাঝারি মাপের পাশবালিশের সমান একটা প্রকোষ্ঠ । কাজ হয়ে গেলে আবার পাথরের ওপর চাপ দিল । পাথর সড়াৎ করে সরে এসে খোঁদল চাপা দিয়ে দিল । 
    আমি লুকিয়ে লুকিয়ে দেখেশুনে ভাবলাম, বাহ্ রে বা ..... অতি চমৎকার জিনিস .... সতীনাথের বাপ ঠাকুর্দা .... না না সতীনাথের দাদাই বানিয়েছে বোধহয় । আমার কর্ত্তা পেছন ফেরার আগেই আমি ভ্যানিস । তারপরের দিন সতীনাথ বাবু বেরিয়ে আমি চুপিচুপি তেতলায় গেলাম । গিয়ে শ্বেতপাথরের বেঞ্চের ওপরে চাপ দিলাম । তারপর দু মিনিটেই  কম্ম কাবার ..... ' 
    ----- ' তা , কোন কম্ম কাবার হল ম্যাডাম ? ' 
    কলতান আশা নিরাশার দোলায় দুলতে থাকে ।
    ----- ' সেটাই তো আসল কথা ..... বলব বলেই তো এখানে আসা । পুলিশকেও বলতে পারতাম , কিন্তু তদন্ত তো আপনি একাই এতদূর এগিয়ে নিয়ে এসেছেন । পুলিশ কেন ক্রেডিট নেবে বলুন ..... ? '
    কলতান কোন কথা না বলে প্রিয়দর্শিনীর মুখের দিকে তাকিয়ে রইল পরের কথাগুলোর  অপেক্ষায় ।
    --- 'মহুয়ার মন রাখার জন্যই তো সতীনাথ নেকলেসটা সরিয়েছে । আগাগোড়া ডায়মন্ড নেকলেস । দামটা দশ লাখের  কম হবে না। মহুয়া দিনভর বসে আছে চকচকে চোখ নিয়ে কখন তার পাওনাটা হাতে এসে পৌঁছবে । না পেলে কি করবে আপনারা আন্দাজ করতে  পারবেন না । আপনারা তো মহুয়াকে চেনেন না ..... '
    ----- ' না তা চিনি না । কি করতে পারে ও ? '
    ----- ' মুহুর্তের মধ্যে ওর রূপ বদলে যাবে ..... ও সতীনাথ কে ফাঁসিয়ে দেবার হুমকি দিতে থাকবে । সতীনাথের আরও অনেক কুকীর্তির  প্রমাণ ওর কাছে আছে ..... কিন্তু  আমার পরম পূজনীয় স্বামীও তো নিপাট ভাল মানুষ নন.... '
    ------ ' হ্যা ... সে তো বুঝতে পেরেছি ..... কিন্তু সতীনাথবাবুর মহুয়া মিত্রকে নেকলেসটা না দিতে পারার তো কোন কারণ নেই ...... উনি দোকানে যাননি ..... আপনি নিজেই বললেন.... নিউ হরাইজনে গেছেন ..... নেকলেসটা তো তা'লে এতক্ষণে নিশ্চয়ই মহুয়া দেবীর আয়ত্বে...... ' 
    কলতান প্রিয়দর্শিনীর আপাত অবান্তর কথায় তাল দিয়ে যেতে থাকে ধৈর্য ধরে । অপেক্ষা করতে থাকে,  কখন এ বাক্যশৃঙ্খলের শেষপ্রান্ত নাগালে আসবে । 
    ----- ' আরে ...... মহুয়ার আয়ত্বে আসবে কি করে ..... নেকলেসটা তো সতীনাথেরই আয়ত্বে নেই  ...... '
    ----- ' সেকি ! তা'লে কার কাছে ? ' 
    প্রিয়দর্শিনী যতক্ষণ এসেছে  তার সাইড ব্যাগটা আঁকড়ে ধরে বসে আছে । একবারও কাছ ছাড়া করেনি । সে এবার সড়াৎ করে ব্যাগের চেন খুলে ব্যাগের ভিতর হাত ঢুকিয়ে দিল । সাপুড়েরা যেভাবে সাপ ধরার জন্য দুচোখ বুজে সাপের গর্তে হাত ঢুকিয়ে দেয় , তারপর এক ঝটকায় টেনে তোলে একটা হিলহিল করে  নড়তে থাকা  কালান্তক বিষধারী সাপ , ঠিক তেমনি করে সাইড ব্যাগের গহ্বর থেকে বার করে আনল একটা লিকলিকে লোভের লালা বিচ্ছুরণকারী একটা হীরের নেকলেস ...... 
    ------ ' এই নিন ..... এটা আপনার কাছেই দিলাম। এবার যা ব্যবস্থা করার করুন .....'
    কলতান একটুও না চমকে মৃদুস্বরে বলল , ' টেবিলের ওপর রাখুন ' ।  
    সে এতক্ষণ ধরে প্রিয়দর্শিনীর বলা এলোমেলো কথার টুকরোগুলো জোড়া লাগিয়ে লাগিয়ে একটা সম্পূর্ণ অর্থবহ একটা অবয়ব সৃষ্টি করতে থাকল মনে মনে ।  
    প্রিয়দর্শিনী বলল, ' আমি এবার উঠব   কলতানবাবু  ..... চোরবাগান থেকে লাঞ্চ সেরে 
    আমাকে বালীগঞ্জে ফিরে যেতে হবে কারণ আমার পতিদেবতা বাড়ি ফিরে এল বলে ..... ,
    তারপর হেসে বলল, ' ..... হয়ত কোন কুকীর্তি ঘটিয়ে ..... আমার মন বলছে ..... '
    কলতান কোন কথা না বলে , চুপ করে বসে প্রিয়দর্শিনীর কথা শুনতে লাগল । এমন একটা অভিজ্ঞতা তার গোয়েন্দা জীবনে সম্পূর্ণ অভিনব ।  
    হাসতে হাসতে ...অবশেষে প্রিয়দর্শিনীর মুখ কেমন যেন কাঁদো কাঁদো হয়ে গেল । সে বলতে লাগল, ' .... তখন আপনি এসে সামাল দেবেন তো কলতানবাবু .....' কলতানের মুখের দিকে তাকিয়ে রইল । 
    কলতান কোন কথা না বলে ভাবতে লাগল ----- অতি আশ্চর্যজনক চরিত্র এই প্রিয়দর্শিনী দত্ত ......

       আজ চারদিনে পড়ল । সকালবেলা নটা নাগাদ বিদ্যুৎ ঘোষের ফোন এল কলতানের মোবাইলে ।
    ----- ' কলতানদা খবর পেয়েছেন নাকি ? '
    ---- ' নাতো ..... কি ব্যাপারে ? ' কলতান বিচিত্র কোন খবরের প্রতীক্ষা করতে থাকে .....
    ----- ' লেক থানা থেকে খবর এসেছে  একটু আগে ...... সাদার্ন এভিনিউয়ের নিউ হরাইজন বিল্ডিং - এর ফ্ল্যাট নাম্বার ফাইভ সি থেকে বহুক্ষণ ডাকাডাকির পরও সাড়া না পেয়ে সকাল আটটা দশে পুলিশ দরজা ভেঙে সিলিং ফ্যান থেকে গলায় ফাঁস লেগে ঝুলে থাকা মহুয়া মিত্রের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে  ..... 
    বডি পি এম হওয়ার পর জানা যাবে  এটা হোমিসাইড না সুইসাইড ...... আপনার মনে হয় কাজ বাড়ল ..... '
    কলতান প্রিয়দর্শিনীর অসংলগ্ন কথাগুলো ফের জোড়াতাড়া দিতে বসল । 
    আর এক দড়ি টানাটানির কিস্যা  শুরু হল বলে  ...... কিন্তু এসব গন্ডগোলের ঝকমারিতে এখন ঢুকতে চাই না । কলতান যদি ঢোকে  তখন চিন্তা করা যাবে ..... 
    তবে এদিকে একটা খবর হল কি .... শ্যামবাজারে দীনবন্ধু জানার মেসে কাল রাত্রে পাঁঠার মাংস , ভাতের ফিস্টি হয়েছিল । পুরো খরচ নাকি দীনবন্ধু দিয়েছিল ।

      ( সমাপ্ত )
    *** এ কাহিনীর পরের অংশটুকু লেখা চলছে । কিছুদিন পরে দিচ্ছি । 

    ***********************************************************************************
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • স্বাতী রায় | 117.194.38.223 | ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৯:২০512433
  • যাহ! গোয়েন্দার কাজই কমিয়ে দিলেন তো ভদ্রমহিলা ! শেষটা একটু ঝপ করে হল,মনে হয় পরের পার্ট জুড়লে বেশ একটা পুর্নাঙ্গ চেহারা নেবে। পরের পার্টের অপেক্ষায়। আরও ঘনিয়ে উঠুক রহস্য। 
  • Mousumi Banerjee | ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২১:৫০512447
  • শেষ কিন্তু হয় নি মোটেও। আর একটু সাসপেন্স হলে ভালো হয়।
  • Anjan Banerjee | ০১ অক্টোবর ২০২২ ১২:৩৬512456
  • ঠিক কথা 
  • tutul shree | ০১ অক্টোবর ২০২২ ২০:১০512464
  • তাড়াতাড়ি দিন পরের কিস্তি 
  • Nirmalya Nag | ০২ অক্টোবর ২০২২ ০৯:২৯512475
  • কাহানীমে টুইস্ট এল, আর তার সাথে পর্দাও পড়ে গেল! পরের পর্ব আসুক। আর পর্বগুলোর লিংক প্রতি লেখায় থাকলে ভাল হয়।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ক্যাবাত বা দুচ্ছাই প্রতিক্রিয়া দিন