ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • আনন্দের সুভাষ

    সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায় লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৩ জানুয়ারি ২০২২ | ৪১৭ বার পঠিত | রেটিং ৪ (১ জন)
  • সুভাষ বসুর জন্মদিবসের প্রাক্কালে, দেখলাম, প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার আনন্দ পটবর্ধন দাবী করেছেন, সুভাষ বসুর সঙ্গে আরএসএস এবং হিন্দু মহাসভার আদর্শগত জোট ছিল। হয় সোজাসুজি, নয়তো মাঝে হিটলারকে রেখে। কোনটা, ইংরিজি ভাষার কারণে ঠিক স্পষ্ট নয়। তা, এতদিন আমরা জানতাম, কোনো কেন্দ্রীয় সরকারই সুভাষকে না পারে গিলতে, না পারে ওগরাতে। তারা একদিকে হইচই করে, ঢাকঢোল পিটিয়ে সুভাষের জন্মদিবস পালন করে, অন্যদিকে পুরোনো সোভিয়েতের রাশিয়ার কেজিবি আর্কাইভ খুলে গেলেও সুভাষের অন্তর্ধান নিয়ে অনুসন্ধান করতে সেদিকে উঁকি মেরে দেখারও প্রয়োজন মনে করেনা। আনন্দ পটবর্ধনের ফেসবুক পোস্টে সে ভুল ভেঙে গেল। উনি স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিয়েছেন, সুভাষচন্দ্র বসুকে মোদি এবং আরএসএস আসলে খুব ভালবাসে। কারণ, ওই জোট।
    উত্তর এবং পশ্চিম ভারতীয় এই 'প্রগতিশীল' হিন্দিভাষীদের নিয়ে সমস্যাটা হচ্ছে, তাঁরা বলেন প্রচুর, ইংরিজি আর হিন্দিতে গুছিয়ে লেখেন বা সিনেমা বানান, আর সারা ভারতের অ্যাকটিভিস্টরা এঁদের মাথায় তুলে নাচে বলে, ভূষিমাল বানিয়েও টের পাননা বস্তুটি কী হয়েছে। রবিশ কুমার কলকাতায় এসে জ্ঞানবাণী দিয়ে যান, বাঙালিদের ভুলটা কী, তাদের আরেসেসের বিরুদ্ধে কীকরে লড়তে হবে, কেউ প্রশ্নই করেনা, গোবলয়ে আপনারা তো হেরে ভূত হয়েছেন, এখন জ্ঞান দেন কোন আক্কেলে? তিস্তা শেতলবাদ এন-আর-সি নিয়ে লিখতে গিয়ে বাঙালি শব্দটা উচ্চারণ করতে ভুলে যান। এরপর এই আনন্দ পটবর্ধনের এই  মহাবাণী। এই আনন্দবাবুরই একটি গগন-ফাটানো সিনেমা আছে, যার নাম 'রাম কে নাম'। সে খুবই উন্নতমানের সিনেমা বলে শোনা যায়, কিন্তু আজ পর্যন্ত এমন একটিও লোক পাওয়া যাবেনা, যে, সিনেমাটা হাই না তুলে পুরোটা দেখতে পেরেছে। বিজেপির বিরুদ্ধে প্রচারে পাড়ার লোকজন জড়ো করে দেখাতে বসলে, গ্যারান্টি দিয়ে বলা যায়, আধ ঘন্টায় হল ফাঁকা হয়ে যাবে। সে অবশ্য খারাপ সিনেমা লোকে বানায়, সেটা কোনো অপরাধ না, কিন্তু সমস্যা হল, এগুলোকে ক্রমাগত 'কী করেছেন গুরু' বলে হাওয়া দিয়ে চললে এঁরা পরের ধাপে গিয়ে সীমানার বহুদূরে গিয়ে যা খুশি বলবেন, এবং তাতেও হাততালি পাবেন। 
    যা বলব, তাতেই তালিয়া, এই মোডে পৌঁছে না গিয়ে, আনন্দবাবু যদি বাণী দেবার আগে, অন্তত শ্যামাপ্রসাদের ডায়রিটা একটু পড়তেন, বিলক্ষণ টের পেতেন, যে জোট তো দূরস্থান, পদে-পদে সুভাষ এবং তাঁর গুরু চিত্তরঞ্জন মহাসভাকে বাঁশ দিয়ে গেছেন। সুভাষ তো লোক পাঠিয়ে  সভা ভন্ডুল করেছেন। হুমকি দিয়েছেন। শ্যামাপ্রসাদ তো বস্তুত এঁদের বিরুদ্ধে যা বলেছেন, তা আজকের 'সেকু-মাকু' বলে গাল দেবার সঙ্গে তুলনীয়। আনন্দবাবু কষ্ট করে যদি পড়তে না পারেন, একটু কষ্ট করে বাংলাটা শিখে নিন, কদিন বাদে আমিই একটা সারসংক্ষেপ করে দেব। পড়লে টের পাবেন, সুভাষ অত সোজা বিষয় নয়। প্রচুর পরস্পরবিরোধিতা সত্ত্বেও, বিশেষ করে বাঙালি মননে সুভাষ যে জায়গায় ঢুকে আছেন, সেটা আপনার কল্পনারও অতীত। ভারতবর্ষের ইতিহাস মানে স্রেফ উত্তর এবং পশ্চিম ভারতের ইতিহাস নয়। বঙ্গভঙ্গের ইতিহাস। সুভাষের কেন্দ্রবিরোধী লড়াইয়ের ইতিহাস। এবং অন্তর্ধানের ইতিহাস। এগুলো বাদ দিলে ভারতবর্ষের ইতিহাসে গোল্লা পেতে হয়। আরেসেসের বিরুদ্ধে লড়াই তো দূর অস্ত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • dc | 122.174.117.218 | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ১১:১৪503017
  • এখানে হিম মানে হিটলার না সুভাষ? আমার তো হিটলার মনে হচ্ছে। (অবশ্য আমি ভুল হতে পারি)। 
  • হিটলার | 103.76.82.232 | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ১১:২৮503019
  • অবশ্যই হিটলার। নতুবা বাক্যের প্রথম অংশটা লেখার দরকার পড়ে না। ছবিটা দেওয়ারও দরকার পড়ে না। 
  • সিএস | 49.37.32.64 | ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ১১:৩৭503020
  • https://www.firstpost.com/india/right-word-netaji-savarkar-and-the-making-of-ina-a-glorious-chapter-of-indias-independence-movement-10310041.html

    সাভারকারই তো সুভাষকে বলেছিলেন জার্মানি যেতে। বৈঠকও হয়েছিল, দু'জনায়, এখানে সেরকমই লিখছে।

    পরে আই এন এ , সাভারকারকে সাধুবাদ দিয়েছিল, সেও লিখেছে।

    তো ভাজপাপক্ষ এইসব তথ্য হাজির করছে বলে আনন্দজী ফেবুতে পোস্ট দিচ্ছেন ?

    যা দাঁড়াচ্ছে, সাভারকারই স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন মূল ইয়ে যাকে বলে। সেই জন্যই গান্ধী ওনাকে জেল থেকে বেরোতে বলেন আর সাভারকারই সুভাষের পথ ঠিক করে দেন।
     
     
  • aranya | 2601:84:4600:5410:24e5:6a06:d25f:6b29 | ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ০২:১৯503049
  • 'very many of them died in the war fighting for the Nazis'
     
    - আনন্দ বাবু জানেন না যে কোন ভারতীয় সৈনিক-ই  নাজী-দের জন্য যুদ্ধ করে নি, আজাদ হিন্দ ফৌজের প্রতিটি সৈনিক একটি দেশের জন্য, একটি আদর্শের জন্যই যুদ্ধ করেছে, যার নাম  ভারতবর্ষ 
  • Prabhas Sen | ৩১ জানুয়ারি ২০২২ ০৯:৩৮503329
  • শত্রুর শত্রু আমার বন্ধু। এ হল রাজনীতির গোড়ার কথা। ইংরেজদের দাঁত ভাঙ্গতে জার্মানি ও জাপানের সাহায্য নিয়ে সুভাষ চন্দ্র  অন্যায় কিছু করেন নি। "পণ্ডিত "রা  ভুরু কুঁচকান কিন্তু ভুলে যান,যে দেশ সেবার নামে দু'মুঠো কচুরিপানা তোলা কি দু'হাত সুতো কাটা নয়। সম্পূর্ণ অজানা পথে ছিল সুভাষের দুঃসাহসিক ,ঐতিহাসিক অভিযান। ভারত বাসী তা জানেন ও বোঝেন।সুভাষের উপর বক্রোক্তি করে এই উপলব্ধি মুছে দেওয়া এসব আনন্দ টানন্দের কম্মো নয়। পট্টবর্ধনের কথায় ইতিহাসের পট পরিবর্তন হবে না।
  • S | 2a0b:f4c1:2::243 | ৩১ জানুয়ারি ২০২২ ১০:৩০503331
  • রাম কে নাম খুবই দারুন ডকুমেন্টারি। নিসন্দেহে। তবে আনন্দবাবুর এই টুইটের থেকে বেশি চিন্তাভাবনা কেলাস নাইনের ছাত্রদের থেকে এক্সপেক্ট করি। তিনটি কারণে এই বক্তব্যটি খুব নাইভ মনে হয়েছে। প্রথমত তিনি ভারতের এক খুবই জনপ্রিয় "মহাপুরুষকে" যত্ন সহকারে বিজেপির দিকে ঠেলে দিলেন। দুই, এই সুভাষ-ইংরেজ-হিটলার ব্যাপারটা এতটা সহজ একমাত্রিক ব্যাপার নয়, বিশেষ করে সেই সময়ের প্রেক্ষিতে। তিন, হিটলার একজন জঘণ্য নরখাদক ছিলেন বটেই। বাকীরা কেউই খুবেকটা পিছনে ছিল বলে তো মনে হয়না।

    এনিওয়ে, এখন সত্যিই উত্তর আর পশ্চীম ভারত লিবারল চিন্তাভাবনার দায়িত্ব নিয়েছে। কারণ বলিউডে ওটি খুব চলছে। নো ওয়ান্ডার যে বিজেপি-আরেসেস এত শক্তিশালী হয়ে উঠেছে।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খেলতে খেলতে মতামত দিন