• বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়।
    বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে।
  • মুক্তাঞ্চল কিম্বা

    বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত ফলো করুন
    আলোচনা : বিবিধ | ০৯ মে ২০০৯ | ৮৮ বার পঠিত

  •     মুক্তাঞ্চল কিম্বা সুদূর ভবিষ্যতে কোন একদিন "সত্য ও সংহতি কমিশন' গঠনের প্রস্তাব - একটি ন্যাকা আরামকেদারাপ্রসূত আগাম আবেদন

    একটা (লালগড়) নয়, দুটো (লালগড়, পার্বত্য দার্জিলিং) নয়, তিনটে(লালগড়,পার্বত্য দার্জিলিং,নন্দীগ্রামের কিছু অংশ) নয়, অনেকগুলো মুক্তাঞ্চল মাথায় করে বেঁচে আছি আমরা আপাতত:। একেকটা জগতে আরেকটা জগতের আলো বা বলা ভাল অন্ধকার ঢুকে পড়ার ভয়। কাগজ পড়ুন, টিভি দেখুন, পাড়ায় বাজারে বেরোন, রেশনের দোকানে লাইন দিন, সরকারি বা বেসরকারি ভাবে দিনযাপন করুন, সর্বত্রই এক ভয়ংকর চিত্র, দৃশ্য এবং শ্রাব্য, অনেক সময়েই হাড় হিম করা, কখনো কখনো রক্তাক্ত। আমরা প্রত্যেকে অন্য জগতের থেকে ধেয়ে আসা অন্ধকারের ভয়ে দরজা জানলা বন্ধ করে দিয়ে আসলে আলো বাতাসের রাস্তা বন্ধ করছি। নিজেদের বুদ্ধি বিবেচনার আলোও বিচ্ছিন্ন বর্তিকার ভবিতব্যে নিমজ্জিত, অদ্ভুত হয়তো নয় আর, আরামপ্রদ আঁধার। তালিকাটা সম্পূর্ণ হওয়ার নয়, তবু শুরু তো করি।

    আপনি কি সরকারি চাকরি করেন, তাহলে এই ধরুন একবার সকাল দশটা সাড়ে দশটা নাগাদ,সহকর্মীদের কাউকে বোঝানোর চেষ্টা করবেন একটা ছোট কথা। বাসের কন্ডাকটর কিম্বা রিক্সাওয়ালা অটো ওয়ালা ট্যাক্সি ওয়ালা কিম্বা আপনার বাড়ির পরিচারক বৃন্দ এঁদের আসলে চাহিদা বড্ড কম, বেশ অল্পেই চালিয়ে নিচ্ছেন এঁরা। লাঞ্চের আগেই লিঞ্চ হওয়ার একটা সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে বুঝলেন, পরীক্ষা প্রার্থনীয় নয়। বিকেলের দিকে, যদি আস্ত থাকেন, একটু মানিয়ে নেবেন না হয়।
    আপনি কি বেসরকারি ঔজ্জ্বল্যে সম্প্রতি উদ্ভাসিত? তাহলে সকালের দিকে, এই ধরুন সকাল নটা নাগাদ , আকাশ পরিচ্ছন্ন থাকলে কিম্বা আগের রাতে একটু মাঝারি থেকে ভারী ধরণের বৃষ্টিতে গরম কমে থাকলে, মাভৈ: বলে একটা চেষ্টা করে দেখতে পারেন। কাউকে, এই ধরুন আপনার প্রিয় সহকর্মী কিম্বা পেশার জগতের বন্ধু কে একটু বোঝানোর চেষ্টা করে দেখতে পারেন, কৃষ্ণবর্ণ অথবা লাক্স কিম্বা ডোভ সাবানের বিজ্ঞাপণে উপেক্ষিত, অবিবাহিত, নিম্নবর্ণ পরিবারের মহিলা মানেই রাজনীতি জ্ঞানশূন্য বা রাজনৈতিক গুরুদায়িত্ব পালনে অক্ষম এমনটা নাও হতে পারে। কিম্বা স্রেফ কৃষ্ণবর্ণ কিম্বা ডেমোক্রাট বলেই জনৈক বারাক ওবামার আপৎকালে কর্পোরেট নিয়ন্ত্রনপদ্ধতিতে আর যাই হোক সমাজতন্ত্রের ভয়ানক দিন এসে যাচ্ছে না, বিশ্ববাজারে। পাওয়ার লাঞ্চ কিম্বা চাসিগারেটটিপিনপর্বে নিরালম্ব একাকীত্ব অর্জনের অবর্থ্য পদ্ধতি। আপনি কি সীমান্ত অঞ্চলে বসবাসকারী সুপ্রতিষ্ঠিত উচ্চবর্ণ হিন্দু ধর্মাবলম্বী বাংলাভাষী মানুষকে একটু বোঝানোর চেষ্টা করবেন যে মাদ্রাসা মানেই লাদেনক্লোন নির্মাণের অ্যাসেম্বলি লাইন নাও হতে পারে? আপনার ব্যর্থতা প্রায় নিশ্চিত। আপনি কি নতুন সব পাঁচিল দেওয়া ফ্ল্যাট বাড়ি গুলোতে থাকেন, তার মানে আপনি নিশ্চয় কাশ্মীরী শালওয়ালা আর যাবতীয় ড্রাইভার আর মিস্ত্রি আর কাজের লোকদের ভয়ে শিঁটিয়ে আছেন, ঘন ঘন আদেশ পাঠাচ্ছেন সিকিউরিটি গার্ড দের কাছে, নতুন নতুন বারণ বসাচ্ছেন। রেগে যাচ্ছেন, কারণ রেগে গেলেও এই বাজে সার্ভিস সেক্টরটির ওপরে আপনার নির্ভরতা কিছুতেই কমাতে পারছেন না।

    আপনি কি সিপিএম-বিরোধী রাজনীতির সমর্থক? আপনি কি আর কখনো কোনদিন নিজের ঘৃণাকে হারিয়ে দিয়ে কোন পরিচিত অথবা অপরিচিত সিপিআইএম সমর্থকের সঙ্গে রাজনৈতিক বিষয়ে কথা বলতে পারবেন? আপনি কি সিপিএম সমর্থক-রাজনৈতিক কর্মী? আপনি কি কোনদিন বিরোধী নেত্রীর বক্তৃতা শোনার চেষ্টা করবেন, বোঝার চেষ্টা করবেন, ভেবে দেখবেন, কেন নীতিনির্দেশনার ইতিহাস খুব একটা ভরসাজনক না হওয়া সত্ত্বেও কেন অনেক অনেক মানুষ তাঁর ব্যক্তিত্বকে শ্রদ্ধা করছেন, কেন তাঁর রেটোরিকে আস্থা পাচ্ছেন? আপনি যদি ভদ্রলোকশ্রেণী ভুক্ত হন, আপনার "রুচি' তে একটা বাধা আসবে, সেই বাধাকে হারানোর চেষ্টা করবেন কি? নাকি সম্পাদকীয়ই লিখে ফেলবেন রেগেমেগে?আমি জানি, আপনিও জানেন, আপাতত: করবেন না।

    রামসেনা পরবর্তী ভারতে মহিলাদের বীয়ারে চুমুক দিতে দেখলে আপনার রুচি নিরপেক্ষ দেশপ্রেমে একটা তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়তো হবে। সেই প্রতিক্রিয়া নিয়ন্ত্রনের পদ্ধতি আস্তে আস্তে ভুলে যাচ্ছেন আপনি। আপনার স্বচ্ছ চিন্তার ক্ষতি হচ্ছে, কারণ আপনি আপনারই মুক্তাঞ্চলে প্রবেশ করেছেন। আপনার সাউথব্লকে তেলেঙ্গানা ছিল না, বিদর্ভ নেই, নন্দীগ্রাম ও আছে (বা থাকবে) কিনা সন্দেহ হয়। অন্তত মৃত সংখ্যারা আর নেই। আপনার গুজরাটে চওড়া রাস্তাঘাট, ব্যাপক বিদ্যুত উৎপাদন, অসংখ্য কারখানা, ন্যানো আছে বা আছেন, কিন্তু জাফর নেই এবং জাহিরা শেখ না থাকলেই ভালো হত। আপনার প্রসেনিয়ামে বিভাস চক্রবর্তী আত্মবিস্মৃত বা সেনাইল। আপনার কালীঘাটে সিপিএম সমর্থক মানেই কীট, আপনার পাহাড় ঘেরা গ্রামে, সমতল সন্দেহজনক। আপনার লালবাজারে রিজবানুর আসলে মৃত যুবক নয় কতগুলো সস্তার মোমবাতির নাম, নির্বাপিত, কিম্বা বিদ্রোহের পার্ক সার্কাসে ইন্সাফের ডাক আসলে শুধুই রেটোরিক, সাচারকৃত ব্যবহারযোগ্য রিপোর্টকাব্যে কিম্বা এক লেখিকার প্রতি বিচিত্র ঘৃণার গভীর উচ্চারণে, ফুটনোট মাত্র। সে রেটোরিকের সংবেদনশীল মুক্তাঞ্চলে "কৃষক শ্রমিক এক হও' শ্লোগান নিষিদ্ধ, রাষ্ট্রায়ত্ব শিল্পোদ্যোগ কিম্বা জাতীয় পেন্সন ব্যবস্থা মানেই আসলে পেছন দিকে তাকানো।
    আপনার বান্দোয়ানে, বামফ্রন্ট বা নির্বাচন প্রক্রিয়ার সমর্থকেরা ঠিক মানুষ নন, প্রতিযোগিতা মূলক সংখ্যাতত্ত্বের জগতে ভবিষ্যতের নির্জীব অ্যাডমিসিবল এভিডেন্স হওয়ার অপেক্ষায় সারিবদ্ধ চাঁদমারি মাত্র। ক্লান্তির অবকাশ টুকু অর্জন করার জন্য অচিরেই তাঁদের মরিয়া প্রমাণ করিতে হইবে, তাঁরা শ্রেণী ও জাতি বৈষম্যের পৃথিবীতে বিশেষ বাঁচেন নাই। অন্যত্র বহুদিনের প্রতিবেশীরা আশ্চর্য্য ভাবে অবিশ্বাসের অসুখে ভুগছেন। ন্যায় বিচার বলতে বুঝছেন আক্রমণ, ভাষা নির্মাণ হচ্ছে বলতে নেই, আক্রমণ বলে আর কিছু নেই , প্রতিটি রাজনৈতিক অত্যাচার-ই এখন আত্মরক্ষা বা প্রতিআক্রমণ। আপনি কি পুলিশ, তার মানে অনেক সময়েই হয়তো মানুষ মানেই আপনার কাছে সম্ভাব্য অপরাধী। আপনি কি সমব্যথী বা অন্তত: সমবেদনার অভ্যাসে ভারাক্রান্ত, তাহলে আপনার ভূগোল জ্ঞান প্রখর হওয়া প্রয়োজন। মাধ্যমিকে ন্যূনতম সতেরো থাকা জরুরী। ধরুন আপনি যদি বান্দোয়ান আর মুর্শিদাবাদের অপমৃত্যু সম্পর্কে দুশ্চিন্তা বোধ করেন, তাহলে একটু সাবধানে থাকাই ভাল, ভুল করেও নন্দীগ্রাম আর দিনহাটার মৃত্যু নিয়ে চিন্তা করাটা আপনার সাজে না। আপনি কি সিঙ্গুরের ক্ষেতমজুরদের কষ্টের কথা ভেবে ঘুমোতে পারছেন না, তাহলে একটু সাবধানে থাকবেন, মহারাষ্ট্র আর অন্ধ্রপ্রদেশের কৃষকদের নিয়ে ভাবলে আপনার জাগরণ অসম্ভব হবে। আপনি কি মুম্বাই বা ব্যাঙ্গালোরের সন্ত্রাসবাদী আক্রমণে চিন্তিত:, তার মানে সম্ভবত: আপনি আস্তে আস্তে যুদ্ধের সমর্থক হয়ে উঠছেন, বলা যায় না আরেকটা পোখরান ও চাইছেন হয়তো, পোখরানেই থেমে থাকতে চাইছেন না, কারণ বিশুদ্ধ বিজ্ঞানচর্চা নিয়েও আপনার একটু আধটু দুশ্চিন্তা হচ্ছে। আপনার মুক্তাঞ্চলে বিজ্ঞান বিশুদ্ধি-সিদ্ধ।

    আপনি কি কবি, তার মানে গদ্য আপনার কাছে প্রতিষ্ঠানের বিস্তৃত শঠতামাত্র। আপনি কী বামফ্রন্ট সমর্থক বুদ্ধিজীবি, তার মানে সম্ভবত: আপনার সঙ্গে যাঁদের মতবিরোধ চলছে, আপনার মতে, তাঁরা সকলেই আসলে সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা অর্জনে ব্যর্থতার কারণে রুষ্ট অথবা অতীত সখ্যতা বিস্মৃত অর্থাৎ বিশ্বাসঘাতক। অথবা ব্যক্তিগত জীবনে ভ্রষ্টাচারী। আপনারি উকিল-বন্ধুরা নিশ্চয় আপনাকে প্রবল সন্দেহের চোখে দেখেন, তাঁদের মতে ইতিহাস গড়ার তাগিদে আপনি বিংশশতকীয় ফিলিম থিয়েটারে, ঊনবিংশ শতকীয় মীনাবাজার স্থাপনে উদ্যোগী। আপনি কী সাংবাদিক কিম্বা বিচারব্যবস্থার সঙ্গে জড়িত সচেতন নাগরিক, তাহলে আপনি নিশ্চয়ই মনে করেন, রাজনীতি আসলে কেবল অশিক্ষিত লোকের চারণক্ষেত্র। আপনি কি সংবাদ জগতে এগিয়ে চলার পথে, তার মানে হয়তো আপনার জগতে বাকিরা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী মাত্র, তাঁদের পরাজয় নিশ্‌চিত, বাঙালির গ্লোবাল পদধ্বনির মূল তালরক্ষার দায় আপনার, হোয়াইট হাউজ বা তিয়েনানমেনে একদিন দুগ্গোপূজো হবে এই আশাতেই আপনি আজকাল দিন কাটাচ্ছেন।

    সুকেতু মেহতার ম্যাক্সিমাম সিটি মনে পড়ে? দেয়ার আর টু বম্বেজ, এসি অ্যানড নন এসি। এরকমই আঁট বন্ধ দরজা জানলা আমাদের। উষ্ণতার আদান প্রদান নিষিদ্ধ, শুধু স্তব্ধ শৈত্য আমাদের একটা আরাম দিচ্ছে।

    যে দেশ কবীরের, লালনের, গান্ধীর, রবীন্দ্রনাথের, সে দেশে আমরা আপাতত: কেবল মুক্তাঞ্চলের প্রাচীর নির্মাণে ব্যস্ত। অথচ অন্যরকম হতেই পারতো। হয়তো ভবিষ্যতে পারবেও। হয়তো সত্যি ই কোনোদিন পাঁচিল একেবারে ভেঙ্গে না পড়লেও ফুটোফাটা দেখতে পাবো। এ জীবনেই। বুড়ো তো হই নি । আশা ছাড়তে পারি না। ভিখারি সেজে সর্বনাশের আশায় বসে থাকতে পারি না। জর্জ বিশ্বাসের গলায় সাবমিসন শুনতে ভালো লাগে, তবু শুধু পথ চেয়ে বসে থাকতে ভালো লাগে না। ভাষা কেড়ে নিয়েছেন ঐ প্রায় দেড়শো বছর বয়স্ক বৃদ্ধ, তবু যে দিন প্রাতে কোন না কোন ঘরের দরজা খোলা হবে, সেদিন পর্যন্ত বাঁচতে চাই, না বাঁচার কোন কারণও নেই।

    প্রাচীর , তোমার উপরে বসে আড্ডা দেবো। কিছু মনে কোরো না, লালু ভুলু দের সঙ্গে একটু আধটু হিসুও করে দিতে পারি। তুমি আসলে বোর করছ বড্ড। মধ্যযুগীয় চর্যাপদ নিয়ে খিল্লি করার সময় এসেছে। আমার আপনার কেষ্টা বেটার এবং হরিপদ কেরাণীর, যাবতীয় ধরণের যবনের পোর সকলের সন্তান থাক দুধে ভাতে অথবা অবস্থা বিশেষে ক্যান্টিন মিলে। গোলাগুলি আর শাণিত কিম্বা কর্দমাক্ত লড়াই একটু থামুক। চিৎকার করে বিতর্ক হোক, অস্ত্র, হানাহানি হেরে যাক।

    মে ১০, ২০০৯
  • বিভাগ : আলোচনা | ০৯ মে ২০০৯ | ৮৮ বার পঠিত
আরও পড়ুন
খোপ - রৌহিন
আরও পড়ুন
খোপ - রৌহিন
আরও পড়ুন
'The market...' - Jhuma Samadder
আরও পড়ুন
ইয়ে আজাদি... -  
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা

  • করোনা

  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত