এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  ছবি

  • আর্ট ভাট যত কথা 

    ei nin
    ছবি | ০৩ মে ২০২৪ | ২৬০ বার পঠিত
    • এককের জন্যে প্রশ্ন  | 173.62.207.237 | ০৩ মে ২০২৪ ০৭:২৭523312
    • টই বেপথে নিয়ে যেতে চাই না, অথচ একক ফান্ডামেন্টাল প্রশ্ন তুলে দিচ্ছে। অন্য লোক হলে বলেই দিতাম বেকার বাজার গরম করছে। নেহাৎই 
      যাউক্গা! মূল প্রশ্ন হল, একক অনুসারে - মমতা ব্যানার্জী যখন আপন অবসরে ছবি আঁকছিলেন বা কবিতা লিখছিলেন, তখন সেগুলি ক্রাফট ছিল। কেবল, কেহ বা কাহারা "আরে আপনি তো দারুণ আঁকেন" বলে বা না বলেই পয়সা দিয়ে উহা খরিদ করলেন - তখন থেকে সেগুলি আর্ট পর্যায়ভুক্ত হল! 
       
      এইটে খেতে বেজায় অসুবিধে হচ্ছে! 
       
      মমতা ব্যানার্যীর নাম নেওয়া হয়েছে বলে প্রোডাক্ট নিয়ে খিল্লি করে আলোচনা বিপথে নেবেন না, বদলে আমার নামও নেওয়া যেতে পারত। কেবল আমার কোন প্রডাক্ট এখনও বিক্কিরি হয় নি, তাই ঐ উদাহরণটি যুতসই ঠাহর হয়েছে! 
     
    • একক  | 103.157.36.112 | ০৩ মে ২০২৪ ১৬:১২523319
    • হে হে এইটা নিয়ে একবার ম্যালা মজা হৈছিল। মমতার আঁকাআঁকিকে নাইভ আর্ট বলা যায় কিনা এই মর্মে এট্টা টই খুলেছিলুম। তাতে খনুবাবু বেজায় চটেছিলেন :)))) 
       
      আহা তখন বেশ জমিয়ে তক্কো হতো। খনুবাবু আর আসেন্না ( অন্ততঃ খনুরূপে ), লীলাও সেইরূপ পোস্টাই হয়না :( 
     
     
    • সিএস  | 103.99.156.98 | ০৩ মে ২০২৪ ১৬:২৩523321
    • ক্রাফট, আর্ট ইত্যাদির মধ্যে মমতার ছবি দিয়ে যূক্তি তৈরী না করাই ভাল, সেসবের অন্য কারণ ছিল। মমতার বক্তব্য ছিল ছবি এঁকে, বই লিখে ভোটের খরচ তুলছে, সেসবের মধ্যে বিবিধ খেলা ছিল। ইহা ক্রাফটও নয়, শিল্পও নয়, ছবি নিয়ে ফাটকাবাজীও নয়। তবে হ্যাঁ, একক যেমন বললেন নাইভ আর্ট, আরো নানারকম অ্যানালিসিস হয়েছিল, ইনফ্যান্টাইল মন খুঁজে পাওয়া গেছিল ছবিগুলোর লাইন আর বিষয়ের মধ্যে। 
     
    • b | 14.139.196.230 | ০৩ মে ২০২৪ ১৬:৩১523322
    • মমতা ব্যনার্জী  অ্যাবস্ট্রাক্ট অক্টোপাসের মত একটা দুর্গাঠাকুর ডিজাইন করেছিলেন না ? 
     
    • সিএস  | 103.99.156.98 | ০৩ মে ২০২৪ ১৬:৪৪523323
    • নাইভ আর্ট বলতে অঁরি রুশোর কথা মনে পড়ল। উনিশ শতকের শেষ থেকে বিশ শতকের প্রথম দশক অবধি ছবি এঁকেছিলেন, রাস্তা থেকে ওনার ছবি পেয়ে পিকাসো মনে হয় দেখা করতে গেছিলেন রুশোর সাথে। ট্যাক্স কালেকটর ছিলেন, চল্লিশ বছরে ছবি আঁকা শুরু করেন, ক'বছর পরে কাজ থেকে রিটায়ার করেন, জীবৎকালে ছবিগুলোকে নাইভ, শিশুসুলভ ইত্যাদি বলা হত। যা শেখার নিজেই শিখেছিলেন, অরণ্য দৃশ্য, পশু-প্রাণী ইত্যাদির ছবি অনেক, বিশ শতক পড়ে যাওয়ার পরে, পিকাসো - সুররিয়ালিস্টরা আসার পরে ছবিগুলো নিয়ে কথাবার্তা হয়, আভা - গার্দ হয়ে ওঠেন।
     
    • সিএস  | 103.99.156.98 | ০৩ মে ২০২৪ ১৬:৪৯523324
    •  


     
    • সিএস  | 103.99.156.98 | ০৩ মে ২০২৪ ১৭:১৬523325
    • দুটো ছবিরই নাম Landscape with Cow, দুটোই একই সময়ে আঁকা ১৮৮৫ - ৮৬।

      এইটা গঁগ্যারঃ



      এইটা রুশোরঃ



      গঁগ্যার ছবিটায় ইউনিকনেস কিছু নেই, ইমপ্রেশনিস্ট, যে সময়ে আঁকা তখন ঐ ধাঁচের মধ্যেই গঁগ্যার ছবি ঘুরছে। কিন্তু পরেরটা মনে হয়, সেই সময়ে প্রচলিত ছবির ধরণ, ইম্প্রেশনিস্ট ইত্যাদি থেকে আলাদা, প্রকৃতির ছবি থেকে প্রকৃতির অনুপূঙ্খ উঠিয়ে দেওয়া হয়েছে, মূলতঃ আউটলাইন আর রঙ দিয়ে ভর্তি করা, যারা বোদ্ধা - ক্রিটিক তাদের কাছে এ ছবি তাদের ধারণা আর প্রচল অনুযায়ী ছবি-না মনে হত মনে হয়।

      (কিছু পরে শাগাল এসে, এইসব গরু ইত্যাদিকে আরো রং টং করে আকাশে উঠিয়ে দেবেন !)
     
     
    • সিএস  | 103.99.156.98 | ০৩ মে ২০২৪ ১৭:১৭523326
    • গঁগ্যার ছবিটার বিশেষত্ব হল, গরুর গায়ে গোলাপী রঙ, ঐ রঙটা ওনার ট্রেডমার্ক হয়ে যাবে।
     
    • সিএস | 2405:201:802c:7815:391e:f9a9:29a0:8b1c | ০৩ মে ২০২৪ ২০:১১523337
    • তবে, মমতার আগে নাইভ আর্টিস্ট বলতে, বাংলা বা ভারতে, রবিবাবু। এবং আভা- গার্দও। আচার্য আর অবন ঠাকুর যা সব আঁকছেন, বেঙ্গল স্কুল, ভারতীয় চিত্রকলা ইত্যাদি, অবন ঠাকুরকে কিউবিজম নিয়ে জিজ্ঞেস করলে, উনি বলছেন ওসব তো কুব্জাইজম, তারপরও ওনাদের পাত্তা না দিয়ে খারাপ কাগজ আর বাজে কালিতে ছবি এঁকে যাওয়া, ডুডলগুলো নয়, পেন্টিংগুলো, প্রকৃতই আভাগার্দে সেসব।
     
    • r2h | 192.139.20.199 | ০৩ মে ২০২৪ ২০:২৭523339
    • নাইভ আর্টের সংজ্ঞা ও ধারনায় আমার মনে হয় প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের চিন্তাধারায় একটু তফাত হতে পারে।
      ট্রেনিং - ট্রেনিং কাকে বলে? রুশোর পেন্টিং দেখে প্রশিক্ষণ আর শিক্ষা ব্যাপারটা নিয়ে ভাবছি। এই রুশো সায়েবের ছবি- ইনি ট্রেনড নন সেটা মেনে নিতে অসুবিধে হচ্ছে। রঠ - এঁরা তো বোধহয় ছোটবেলায় অল্পবিস্তর সবই শিখতেন, রং তুলি হাতে তুলেছেন কিনা জানি না কিন্তু শিল্পতত্ত্ব গুলে খেয়েছেন। দক্ষতার খামতি জ্ঞানে পুষিয়ে নিয়েছেন।
      আর বড় শিল্পী মানেই তো আনইনহিবিটেড, অভিনব হবেন।

      শ্রীমতী বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি জঘন্য, এই নিয়ে সন্দেহ নেই, তবে নাইভ আর্টের সংজ্ঞায় মিলে যায়, ইনহিবিশন থাকলে কেউ ওরকম এঁকে প্রদর্শনী করতে পারেন না।

      ওদিকে রাজ্যপাল বোসের নাকি উপন্যাস গল্প কবিতা মিলিয়ে ৩৫০+ পাবলিকেশন।
     
    • সিএস | 2405:201:802c:7815:391e:f9a9:29a0:8b1c | ০৩ মে ২০২৪ ২০:৪৯523340
    • ট্রেনিং মানে ফর্মাল ট্রেনিং, স্কুলে গিয়ে শেখাটেখা, রুশো মনে হয় স্কুল পাশটাও করেননি। কিন্তু তা বলে ছবি কী, বস্তুজগতটা কীরকম সে সম্বন্ধে নিশ্চয় দেখার চোখে ছিল, ফর্মাল ট্রেনিং না থাকার ফলে ছবিগুলো অন্যরকম হয়েছে। রুশের নাকি বিবিধ পোস্টার দেখার অভ্যাস ছিল, ঐ দুটো ছবিতেও পোস্টারের বৈশিষ্ট্য যা, রংএর ব্যবহার সেটা আছে। কিন্তু পার্স্পেক্টিভটা ঘাঁটা, বাঘ্টার পেছনের পা দেখবে, গাছের পাতার ওপরে যেন রাখা যা হতে পারে না। এও আবার সম্ভব যে সে লাফাচ্ছে কিন্তু তাতেও অসুবিধে, যেন মনে হয় কই, বাঘটাতো পাতার ওপরে বসে আছে। লাফাচ্ছেই বা কেন, শিকার ধরার জন্য, চোখে বড় আর দাঁত বার করা সেই জন্য নাকি বজ্র- বিদ্যুত- ঝড়ে ভয় পেয়েছে ? এইসব বিষয়গুলো আনসার্টেনিটি তৈরী করে ছবিটিতে, এই আনসার্টেনিটি ফর্মাল ট্রেনিং থেকে আসেনা বা সেসব থাকলে ছবি ছবি হয় না। কিন্তু বিশ শতকে এসে আনসার্টেনিটি আর ডিশ্টর্শন ছবির প্রধাণ বিষয় হয়ে গেল যখন, তখন এঁরা গুরুত্ব পেলেন। এই আনসার্টিনিটি তৈরী করা সচেতন না অচেতন, সেটাই তর্ক, বিশ শতকে এসে ব্যাপারটা সচেতন হয়ে উঠেছিল।
     
    • সিএস | 2405:201:802c:7815:391e:f9a9:29a0:8b1c | ০৩ মে ২০২৪ ২০:৫৫523341
    • ভ্যান গঘের ট্রেনিং ছিল কিন্তু সে খুবই অল্প দিনের, স্যারদের সাথে মনে হয় ঝামেলা হত। যা ট্রেনিং ছিল সে তো পাদ্রী হওয়ার কিন্তু সে পথে যাওয়া হল না। কিন্তু চিঠিগুলো পড়লে বোঝা যায় আঁকার কী সাংঘাতিক আর্জ, ছবি নিয়ে আর্জও শুধু নয়, মারাত্মক রকমের জীবনস্পৃহা সেসব দপদপ করছে। কিন্তু ট্রেনিং পুরো না থাকলেও আর্টিসটদের সাথে মেলামেশা ছিল, সেই সময়ের বিখ্যাত, ওর থেকে সিনিয়র যারা তাদের সাথে, বিশেহ্হ করে ল্যাণ্ডস্কেপ আর্টিস্ট যারা, তো তাদের ছবি থেকে শিখেছিলেন, প্রথমদিকের ছবিতে সেসবের ছাপ আছে।
     
    • এককের জন্যে  প্রশ্ন | 173.62.207.237 | ০৩ মে ২০২৪ ২১:০৭523342
    • তাহলে কি খাড়াইল? অঁরি রুশোর আঁকা ক্রাফট, নাকি আর্ট? কিংবা রবীন্দ্রনাথ? 
      আচ্ছা, সে সব গূঢ় প্রশ্ন বাদ্দিন! ধরুনগে অবনীন্দ্রনাথের বা নন্দলাল বসুর কোন অপ্রকাশিত আঁকা পাওয়া গেল। তো, যে মূহূর্ত পর্যন্ত উহা মার্কেটে নাই, ততক্ষণ কি উহা ক্রাফট? আমার ছোট্টাকুদ্দার বড়মামাকে হুসেন একটি স্কেচ উপহার দেন, বড়মামাজী কাগ তাড়াচ্ছিলেন হুসেনের নেচারের ছবি আঁকা প্রাকটিসের সময়, তো সেই ছবি ফ্রেমে বাঁধান হয়ে পরিবারের দেওয়ালের শোভা বর্ধন করছে। তো, সেটিও নিশ্চয় ক্রাফট? 
       
      যাউগ্গা! একক ছোকরা নির্ঘাত বাজারই গরম করছিল! ভাবছিল যদি খ হ কেউ যদি ফাঁদে পা দ্যায় এই ভোটের বাজারে 
     
     
     
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • r2h | 192.139.20.199 | ০৩ মে ২০২৪ ২৩:৫২742930
    • সিএস | ০৩ মে ২০২৪ ২০:৪৯
    • ট্রেনিং মানে ফর্মাল ট্রেনিং, স্কুলে গিয়ে শেখাটেখা, রুশো মনে হয় স্কুল পাশটাও করেননি। 
     
    আমরা যেমন বাড়িতে গুরুর কাছে শিখলেও শেখা বলেই ধরি...
    ধারা যাক, রবিবাবুকে কী সঙ্গীতে ট্রেনড ধরবো, নাকি নয়?
     
    • সিএস | ০৩ মে ২০২৪ ২০:৪৯
    • ...এই আনসার্টেনিটি ... সেসব থাকলে ছবি ছবি হয় না। 
     
    এইটা, তৎকালীন ফর্ম্যাল ট্রেনিঙের ট্র‌্যাডিশনাল গন্ডীতে - এমন ধরছি। (অবশ্যই, পরের দুটো বাক্যে বলেই দেওয়া আছে)
     
    রুশোর ড্রিম দেখে উইলিয়াম ব্লেকের টাইগার টাইগার বার্নিং ব্রাইট মনে পড়লো একটু।
  • &/ | 151.141.85.8 | ০৩ মে ২০২৪ ২৩:৫৫742931
  • গোলাপী গরুগুলো কি আসলে কপিলা গাই করতে চেয়েছিলেন ?  
  • সিএস | 2405:201:802c:7815:391e:f9a9:29a0:8b1c | ০৪ মে ২০২৪ ০১:০০742934
  • ছবির প্রধাণ দুটি বৈশিষ্ট্য যদি হয় পার্স্পেক্টিভ আর অ্যানাটমি, ফর্মাল ট্রেনিং এই দুটি বস্তু শেখার কনটেক্সটে ব্যবহার করেছিলাম। আঁকার স্কুলে এই দুটি শেখানো হয়ই অথবা বাড়িতে এসে কেউ শেখালেও এই দুটি শিখতে হবে। রবিবাবু ছোটবেলায় বাড়িতেও আঁকা শিখেছিলেন কিনা জানা নেই, যদিও অবন ঠাকুর তো আর্ট স্কুলে গেছিলেন, গগন ঠাকুরও কারোর একটা কাছে শিখেছিলেন। তো, রবিবাবু যদু ভট্টের কাছে গান শিখলেও আঁকার ব্যাপারে কিছু করেননি মনে হয়, ফলে গানের ব্যাপারে উনি ট্রেনড কিন্তু আঁকার ব্যাপারে কি ? রুশোর ক্ষেত্রেও, ছবি আঁকতে হলে স্কুলে যেতে হবে কিন্তু আর্ট স্কুলে উনি জাননি। ফলে, দুজনের ক্ষেত্রেই এই আঁকা না শিখে আঁকাআঁকিকেই আনট্রেণড বলতে চাইছি।

    কিন্তু আরো দুটো কথা আছে। সেজান কিন্তু ভালমত স্কুলে গিয়ে আঁকা শিখেছিল কিন্তু প্রথমদিকের ছবির পরে স্টীল লাইফ অথবা ল্যাণ্ডস্কেপ, দু ক্ষেত্রেই পার্স্পেক্টিভ নিয়ে খেলা খেললেন, এমন কিছু করলেন যা বিশ শতকের ছবির precursor হয়ে গেল। কিন্তু এই পার্স্পেক্টিভের খেলা বা বস্তুজগতকে জিওওমেট্রিক শেপ দিয়ে রিপ্রেজেন্ট করা কিন্তু সচেতন ভাবে, তত্ত্ব তৈরী করে এবং ক্লাসিকাল ছবির ধরণকে অস্বীকার করে।

    দ্বিতীয় পয়েন্টটা একটু দূরের। পুরোন ভারতীয় ছবিতে, আজন্ত চিত্রকলায় কিন্তু শরীরের ছবি বা দেহাংশের ছবি অবাস্তব করে আঁকা হয়েছে, যেমন অবলোকিতেশের দীর্ঘ বাহু। তো সাহেবদের আমলে বলা হত, অ্যানাটনির ধারণা না থাকার জন্যই এগুলো করা হয়েছে কিন্তু সে মত দাঁড়ায়নি, মানুষের ইন্টারনাল রিয়েলিটি বা দর্শন রিপ্রেজেন্ট করাই ছিল উদ্দেশ্য।
  • &/ | 151.141.85.8 | ০৪ মে ২০২৪ ০১:২৪742935
  • রবীন্দ্রনাথের আঁকা কিছু ছবি এলে চমৎকার হত 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খেলতে খেলতে মতামত দিন