এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • বুলবুলভাজা  আলোচনা  বিবিধ

  • যাদবপুর - আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি

    অভিষেক তুঙ্গা লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | বিবিধ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৩ | ১৩৫১৭ বার পঠিত
  • যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে সাম্প্রতিক কিছু ঘটনাবলীর পরিপ্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট ছাত্র সংসদের থেকে আমরা একটি চিঠি পাই। সেটি খোলা চিঠি হিসেবে প্রকাশ করা হল। বলা বাহুল্য, লেখার বক্তব্য ও দৃষ্টিভঙ্গি লেখকের নিজস্ব।


    ----------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------


    ঠিক কী ঘটেছিল ?


      ঘটনার সূত্রপাত চতুর্থ বর্ষের ছাত্র PRINTING DEPT. এর মানিক হালদার এবং CONSTRUCTION DEPT. এর অনুপম ঘোষ ও IT DEPT. এর দ্বিতীয় বর্ষের একটি ছাত্রকে দিয়ে। সকলেই থাকত JADAVPUR UNIVERSITY-এর SALTLAKE CAMPUS-এর হস্টেলে। দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রটি এসেছিল দার্জিলিং থেকে, স্বাভাবিকভাবেই রয়ে গিয়েছিল ভাষা ও সংস্কৃতিগত ভিন্নতা। যদিও দার্জিলিং থেকে আসা বহু ছাত্র-ছাত্রীই ক্রমশ মিশে যায় যাদবপুরের সংস্কৃতির সাথে, এক্ষেত্রে তা হয়নি। প্রথম বর্ষেই যে কারণে ছাত্রটি কথা কাটাকাটির মধ্যে চতুর্থ বর্ষের এক ছাত্রের নাকে ঘুষি চালায়। তবে তখনকার মতো ঝামেলাটি নিজেদের মধ্যে মিটিয়ে নেওয়া হয়। ঘটনাপ্রবাহে ছাত্রটি নিজেকে আরও গুটিয়ে নিতে থাকে।


                         দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রটি অবৈধভাবে হস্টেলে নিজের রুমে দুজন প্রথম বর্ষের ছাত্রকে রাখতে শুরু করে। গত ২২এ অগাস্ট চতুর্থ বর্ষের প্রিন্টিং টেকনোলজির ছাত্র তথা হস্টেলের anti-ragging squad এর প্রাক্তন সদস্য মানিক হালদার তা হস্টেল সুপারের নজরে আনে, এতে দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রটি প্রচণ্ড ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এরই মধ্যে কেউ বা কারা দ্বিতীয় বর্ষের ছেলেটির ঘরের কাঁচ ভেঙ্গে দিয়ে যায়। কে বা কারা ঘটনাটি কেন ঘটাল নাকি ঘটনাটি নিছকই দুর্ঘটনা, তা এখনও স্পষ্ট নয়। ২৩শে অগাস্ট ঘটনাটি নিজেদের মধ্যেই মিটিয়ে নিতে হস্টেলে একটি মিটিং বসে যেখানে মানিক, অনুপম ও অন্যান্য ছাত্ররাও উপস্থিত ছিল। মিটিং-এ দু-তরফেই উত্তপ্ত কথা কাটাকাটি চলে, ২য় বর্ষের ছাত্রটি সাহস থাকলে one to one লড়াই-এর চ্যালেঞ্জ জানাতে থাকে। এরই মধ্যে অনুপম মেজাজ হারিয়ে ২য় বর্ষের ছাত্রটিকে চড় মেরে বসে। যদিও মিটিংটি শেষ হয় সবাই-সবাই কে ক্ষমা চেয়ে নিয়ে। এমনকি অনুপম ও সেই ছাত্রটি পরস্পরকে কোলাকুলিও করে।


                        পরের দিন কেউ ২য় বর্ষের ছাত্রটির দরজার বাইরে মলত্যাগ করে যায়। এরকম পশুচিত কাজ কোন জানোয়ার করে গেল কে জানে, কিন্তু ২য় বর্ষের ছাত্রটি UGC –এর ওয়েবসাইটে অভিযোগ দায়ের করে। (অভিযোগটি র‍্যাগিং এর অভিযোগ হিসেবে দায়ের করেনি)



    এর পরের ঘটনাপ্রবাহঃ


    ১) VC ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তিন সদস্যের একটি FACT FINDING COMMITTEE তৈরি করে। যদিও কোন ছাত্র কোনোভাবেই এই তদন্ত কমিটির বিন্দুমাত্র অস্তিত্ব টের পায়নি।


    ২)এই কমিটি অনুপম ও মানিককে ডেকে পাঠায় ও সেদিনের চড় মারার ঘটনার স্বীকারোক্তি নানা ছলা-কৌশলে লিখিয়ে নেয়। যদিও এরা জানতই না এই কমিটি আসলে তথাকথিত র্যামগিং-এর তদন্ত কমিটি। এমনকি এই কমিটি ঘটনাস্থলে উপস্থিত সবাইকে জেরা করেনি।


    ৩) গত ১০ই  সেপ্টেম্বর anti-ragging committee-এর মিটিং ডাকা হয়, কোন agenda ছাড়াই। যেখানে on table agenda –য় এই প্রসঙ্গটির উত্থাপন করা হয়। যেহেতু প্রায় সব ছাত্রছাত্রীরাই র‍্যাগিং–এর বিরোধী, তাই ছাত্র-সদস্যরা ঘটনাটি র‍্যাগিং ধরে নিয়ে শাস্তির পক্ষে সম্মতি দিয়ে আসে, একমাত্র সল্টলেক ক্যাম্পাসের সদস্য মিঠুন ও সাধারণ সম্পাদক সৌভিক ছাড়া। এরা অল্পবিস্তর ঘটনাটি সম্পর্কে ওয়াকিবহল ছিল। শাস্তির পূর্বে নিয়ম অনুযায়ী অনুপম ও মানিককে শোকজ করা হয়।


    ৪) show-cause –এর জবাব পাওয়ার আগেই registrar মিডিয়াতে শাস্তির ঘোষণা করে দেয়।



    আমাদের বক্তব্য কী?


    ১) যে কেউ অভিযোগ করতেই পারে তাকে র‍্যাগিং করা হয়েছে,কিন্তু প্রকৃতই র‍্যাগিং হয়েছে কিনা,তার সঠিক অনুসন্ধান হওয়া উচিত।


    ২) গোটা ঘটনায় মানিক এর দোষ অবৈধভাবে রুম-এ ছাত্র রাখার ঘটনা সুপার-এর নজরে আনা! অনুপমের দোষ উত্যক্ত কথাকাটাকাটি মধ্যে চড় মেরে বসা,যেটা আবার নিজে মিটিয়েও ফেলে। বাকি ঘটনাগুলো কারা করেছে প্রমাণিত নয়, তাহলে কি করে এই দুজনকে র‍্যাগিং এর শাস্তি দেওয়া হচ্ছে?


    ৩) Fact Finding Committee এভাবে লুকিয়ে অনুসন্ধান চালানো কেন? এমনকি Anti Ragging Committee-এর মেম্বারও জানতে পারলো না!


    ৪) Anti Ragging Committee Meeting-এর আগেও agenda তে কেন সদস্যদের Ragging-এর অভিযোগ বা মিটিং এর বিষয়ে কিছু জানাল হল না?


    ৫) একটি বচসার ভিত্তিতে যদি Ragging-এর শাস্তি দেওয়া হয়, তাহলে কাল football মাঠে offside নিয়ে বচসা বা প্রেম নিয়ে senior-junior-এর মধ্যে গণ্ডগোলকেও Ragging বলে চালানো হবে।


    ৬) তবে চড় মারার ঘটনা অবশ্যই অনভিপ্রেত ও অপ্রীতিকর,তাই Hostel-এর Code of Conduct-এর নিয়ম অনুযায়ী অভিযুক্তের শাস্তি পাওয়া উচিত।


    ৭) কাচ ভাঙ্গা ও মলত্যাগ এর ঘটনা কঠোরভাবে নিন্দনীয়,অভিযুক্তদের অবিলম্বে খুঁজে বের করে উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া উচিত।



    আমাদের দাবী কী?


    ১) এত অবিচার ও অস্বছত্তার জন্য  Anti Ragging Committee Meeting পুনরায় ডেকে পুরো ঘটনাটির পুনরালোচনা করা হোক।


    ২) যতক্ষণ না পুরো ঘটনাটির পুনারালোচনা করা হচ্ছে, ততক্ষণ শাস্তি লাগু করা যাবে না।



    আরো কিছু প্রশ্ন ও তার উত্তরঃ


    ১) ভিসি (উপাচার্য) কি আইনবিরোধী কিছু করেছেন?


    - র‍্যাগিং-এর শাস্তির আইন তো রয়েছেই, কিন্তু কর্তৃপক্ষ মিথ্যে অভিযোগে ব্যবস্থা নেবেন এরকম কোনও আইন নিশ্চয়ই নেই। কিন্তু এক্ষেত্রে সেটাই তো হয়েছে।


    ২) আমরা কেন আচার্য (রাজ্যপাল)-এর কাছে যাচ্ছি না?


    - ভিসি নিজে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তনী। তিনি যদি এখানকার ছাত্রদের রুচি এবং মূল্যবোধ গুলিকে মাথায় না রেখে শুধুমাত্র মিথ্যে অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিতে চান, তাহলে আমরা বাইরের কাউকে কীভাবে ভরসা করবো? আর, আচার্যের কাছে যাওয়া মানে তো পক্ষান্তরে মেনেই নেওয়া যে ভিসির ক্ষমতার আওতায় বিষয়টা মেটানো যাচ্ছে না।


    ৩) কর্তৃপক্ষ কি র‍্যাগিং-এর অভিযোগকে পুনর্মূল্যায়ণ করতে পারেন?


    - পারেন না এরকম কোনও আইন কিন্তু নেই। তার মানে নতুন করে তদন্ত ও বিচার করাই যায়।


    ৪) আমরা কেন আলোচনার বদলে আন্দোলনের (শান্তিপূর্ণ হলেও) রাস্তা বেছে নিলাম?


    -আমরা ভিসির সঙ্গে দেখা করেছিলাম, তিনি বললেন যে ইউজিসিকে রিপোর্ট পাঠানো হয়ে গেছে, ফলে সিদ্ধান্তগুলো আর পুনর্বিবেচনা করা যাবে না। সেক্ষেত্রে আলোচনার কোনও রাসতা তিনি খুলে রাখতে দিলেন না। ফলে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করতে হল।


    ৫) আমাদের আন্দোলনে কেন ভিসি, প্রোভিসি ও রেজিস্ট্রারকে অমানবিক ভাবে ঘেরাও করে রাখা হয়েছিল?


    - আমরা কাউকেই ঘেরাও করিনি। তাঁরা চাইলেই বেরিয়ে যেতে পারতেন। কিন্তু তাঁরা নিজেরাই থেকে গেছিলেন। তাঁদের কাছে খাবার জল বা ওষুধ ও পৌঁছোচ্ছিল। কিন্তু বাইরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থা মোটেও স্বাভাবিক ছিল না। স্বাভাবিক পড়াশোনার পরিবেশ বেশ কিছুদিন ধরেই ব্যাহত হচ্ছিল। সে নিয়ে তাঁদের খুব হেলদোল দেখা যায় নি।


    ৬) প্রো ভিসি অসুস্থ জানা স্বত্ত্বেও তাঁকে কেন আটকে রাখা হল?


    - আগেই বলা হল কাউকে আটকে রাখা হয় নি। মিডিয়ায় প্রো ভিসি-র অসুস্থতার খবর পাওয়ার সঙ্গেসঙ্গে তাঁর সঙ্গে আমরা দেখা করি। তিনি জানান যে ঠিক আছেন, কিন্তু আমরা তাঁকে আবারও বলি তিনি চাইলেই চলে যেতে পারেন। পুরো কথোপকথনটাই ভিডিও রেকর্ড করা আছে। মিডিয়া অন্যভাবে প্রচার করছে, কিন্তু মিডিয়া যেটা দেখাচ্ছে না যে তিনজন ছাত্র গুরুতর ভাবে অসুস্থ, তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


    ৭) ফেটসুর জিএস অ্যান্টি র‍্যাগিং কমিটির মিটিং-এ গিয়ে কেন ছাত্রদের শাস্তির পক্ষে মত দিয়েছিল?


    - ভুল তথ্য। অ্যান্টির‍্যাগিং কমিটির মিটিং-এর মিনিট দেখলেই সেটা পরিস্কার হয়ে যাবে। রেজিস্ট্রার নিজেও তা স্বীকার করেছেন?


    ৮) আমাদের আন্দোলনের কী কোনও রাজনৈতিক রং আছে?


    আমাদের আন্দোলনের গতিপ্রকৃতি ও পদক্ষেপগুলি জেনারেল বডির মিটিং-এ ঠিক করা হয়। এর মধ্যে কোনও রাজনৈতিক ব্যানারের পার্টি যুক্ত নেই।


     ৯) আমরা কি র‍্যাগিং এর সমর্থক?


    - কখনোই না। আমরা মনে করি র‍্যাগিং একটি সামাজিক ব্যাধি। আর সিনিয়র জুনিয়র হিসেবের বাইরেও সমাজের সর্বত্র র‍্যাগিং হয়ে আসে। কোথাও অফিসার অধস্তন কর্মচারীকে র‍্যাগিং করে, কোথাও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অথরিটি ছাত্রদের র‍্যাগ করে। তাই র‍্যাগিং-এর বিরুদ্ধে সর্বস্তরের সচেতনতা এবং র‍্যাগিং করবো না এই আত্মসচেতনতাও দরকার। শুধুমাত্র শাস্তি দিয়ে র‍্যাগিং নির্মূল করা যাবেনা।



    ছাত্রছাত্রী ও বৃহত্তর সমাজের কাছে আমাদের আবেদন-


    টানা ৫২ ঘণ্টা অবস্থান বিক্ষোভের পর আমাদের রিলে অনশন প্রায় ৯০ ঘণ্টা অতিক্রম হতে চলল। এখন অব্দি পিতৃসম কর্তৃপক্ষ একবার জানারও প্রয়োজন মনে করল না, ছাত্রছাত্রীরা কেমন আছে! এর মধেই আমরা পাচ্ছি বিশাল সমর্থন- দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্ররা তাদের fest- U-Turn স্থগিত রেখেছে, Electronics-এর দুই ছাত্র VC-র হাত থেকে switzerland-এর একটি নামী scholarship নিতে অস্বীকার কারেছে, Production ও Computer Science-এর বিভিন্ন বর্ষের ছাত্রছাত্রীরা অনির্দিষ্ট কালের জন্য নিজেদের ক্লাস বয়কট এর সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এছাড়াও চলছে বিক্ষিপ্ত ক্লাস বয়কট। রয়েছে প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীদেরও বিশাল সমর্থন- Virginia Tech থেকে Sector-V, IIT থেকে IIM চিঠি পাঠাচ্ছেন তারাও। JNU থেকে Presidency, আমরা পাচ্ছি বিভিন্ন কলেজের সমর্থন। আসলে সমর্থন ছাড়া আমাদের এই আন্দোলন কখনই টেনে নিয়ে যাওয়া সম্ভব ছিল না। এই আন্দোলন আর শুধু ইঞ্জিনিয়ারীং ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনে আটকে নেই, Arts থেকে Science, সমস্ত Faculty-র ছাত্রছাত্রীরা এতে যোগদান করেছে। আগামী বুধবার বিকেল ৩টায় (সময় পরিবর্তিত হতে পারে) Union Room-এর সামনে থেকে একটি মিছিলের ডাক দেওয়া হচ্ছে- যেকোনো কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় নির্বিশেষে ,যেকোনো বয়স ও পেশার মানুষ এতে যোগদান করতে পারেন, অবশ্যই কোনোরকম রাজনৈতিক ব্যানার ছাড়া। উন্নততর ক্যাম্পাস গড়ে তুলতে পাশে চাই সবাইকে।


    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক।
  • আলোচনা | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৩ | ১৩৫১৭ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • netai | 131.241.98.225 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:২২75626
  • পিনাকীদা, তুমি যাদের সাসপেন্ড করা হয়েছে শুধু তাদের কথা ভাবছো। যাকে কন্টিনিউয়াসলি হ্যাকল করা হচ্ছে তার কথাও ভাবো। আমাদের কলেজেই র‌্যাগিং এর জন্য তিনজন ছেড়ে গেছিলো। কিছু সিনিয়ার মস্তি করবে বলে কিছু জুনিয়ারের লাইফ স্পয়েল করবে এটাই কি চলা উচিৎ?
  • + | 213.110.243.22 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:২৩75628
  • ১। এই ছেলেটিকে হ্যারাস করা হয়েছে, এ রিপোর্ট করেছে শাস্তি হয়েছে

    ২। এই ছেলেটি যখন সিনিয়রকে ঘুষি মেরেছিল, তখন যদি তারা অথরিটিকে জানাত এবং কোনো স্টেপ না নিত, তাহলে বলার জায়গা থাকত।

    এখন একটা হোস্টেলে বিচারসভা বসিয়ে, সেখানে একটি ৪র্থ ইয়ারের ছেলে যদি ২ন্ড ইয়ারের একজনকে চড় মারে, (পরে আবার রুমের সামনে হেগে আসা) সেটাকে র‌্যাগিং -এর আওতায় ফেলা যায় বোধহয় যতই কোলাকুলি করে নেওয়া হয়

    ৪র্থ ইয়ারের ছেলে যে কিনা অ্যান্টি-র‌্যাগিং কমিটির মেম্বার, সে কিকরে কোথাও সাইন করে এসেছে দোষ স্বীকার করে!! (কোথায় একটা পড়লাম মনে হচ্ছে, এত ভার্সন পড়ছি গুলিয়ে যাচ্ছে)
  • mila | 71.8.33.132 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:২৩75627
  • একজন শিক্ষক যদি ছাত্রকে চড় মারেন তাহলে কি সেটা র‍্যাগিং?
    =============================================
    শিক্ষক আর সিনিয়র কে একরকম শ্রদ্ধা করা উচিত ইটা বলার চেষ্টা হচ্ছে কি?
  • pinaki | 148.227.189.9 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:২৬75629
  • কমরেড বিগব্রাদার, যাদবপুরে আন্দোলন হলে সবাই প্রথমেই এলিটিস্টদের হিপোক্রিসি খুঁজতে বসেন। এ তো ছোটোবেলা থেকে দেখে আসছি। সেইজন্যেই লিখলাম। এখানেও দেখুন, র‌্যাগিং যে হয়েছে - সে ব্যাপারে কিন্তু জনতা ওপিনিয়ন তৈরী করে ফেলেছে অলরেডি। আলোচনাটা হচ্ছে যাদবপুরের জনতা র‌্যাগিং করেও স্পেশাল ট্রীটমেন্ট কেন পাবে? এতবার করে বলা হয়েছে কিন্তু যে স্পেশাল ট্রিটমেন্ট বা শাস্তি লঘু করার জন্য আন্দোলন এটা নয়। কিন্তু জাজমেন্টাল জনতা সেটা শোনার ধৈর্যও দেখাচ্ছে না। 'নাকউঁচু'দের খুঁত খুঁজে বের করাতেই বেশী মনোযোগ। ঃ-) একদম একই রকম এক্জাম্পল হল পরীক্ষা ব্যাবস্থা বদলের আন্দোলনকে ফেল করাদের পাশ করানোর দাবী বলে দেওয়া। এগুলো একেবারেই নতুন নয়।
  • Felix Felicis | 131.241.218.132 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:২৭75631
  • (২)-এর সাথে যোগ করি - এই কোলাকুলি করে মিটে গেছে বলেই অনেক অনেক বছর ধরে র‌্যাগিং করে লোকজন পার পেয়ে গেছে। ওই তো - প্রথম প্রথম অমন একটু আধটু হয়, তারপর কোলাকুলি করে সব মিটিয়ে নেওয়া হয়। ডিজগাস্টিং। এই একটা ব্যাপারে সমস্ত কলেজ ইউনি এখন জিরো টলারেন্স পলিসি যদি নিয়ে থাকে, বেশ করেছে।
  • jhiki | 233.255.225.36 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:২৭75630
  • হাগু সে নিজেই করেনি এমন কোন প্রমাণ ও কি আছে? হপগু কি সংরক্ষিত আছে? ডি এন এ টেস্ট সম্ভব?
  • netai | 131.241.98.225 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৩০75632
  • জনতার মতামত চাইতে আসলে জনতা তার মতামতই জানাবে।
    জনতার মতামত চাইতে আসাই কেন বাপু।
    জনতা তো আর কাউকে শাস্তি দেয়নি। জনতার মতামতে কি যায় আসে।
  • Felix Felicis | 131.241.218.132 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৩৩75633
  • আর মতামত পেয়ে বুদ্ধিজীবী জনতাকে যাদপ্পুরে পড়েননি ক্যানো বলে ভ্যাঁ জুড়লে যা হবার তাই হবে।
  • Arunabha De | 125.241.97.151 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৩৪75697
  • অনেক কিছু ই লেখা হযে গেছে তাই আর সেসব লিখছি না ......... তবে ইটা বুঝলাম যে যাদবপুর এর সব 4th ইআর এর ছাত্র রা একদম বাচ্চা, সরল , সুবোধ বালক সকল, গোপাল আর অপু র ককটেল বলা যেতে পারে
  • + | 213.110.243.22 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৩৮75634
  • কদিন আগে আমাদের হোস্টেলে একটি ছেলে দাবী জানায় অন্য একটি ছেলে তার রুমে জল ছুঁড়েছে, তার ল্যাপটপে জল পড়েছে। অন্য ছেলেটি বলে যে "ও যে নিজেই নিজের ল্যাপটপে জল ঢালেনি তার কি প্রমাণ আছে?"

    হঠাৎ মনে পড়ে গেল।
  • pinaki | 148.227.189.9 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৪৮75635
  • এই ধরণের কেসে, মানে হাগু ইত্যাদি, প্রমাণ করাতো সত্যি মুশকিল। তাহলে অ্যাপ্রোচটা কী হবে? সম্ভাব্য কাউকে একটা শাস্তি দিয়ে দাও, আসল অপরাধী শুধরে যাবে? কোনো আইন এভাবে চলতে পারে? যারা শাস্তির সমর্থনে গলা ফাটাচ্ছে, তারা তো আসলে এই পদ্ধতিটাকেও সাপোর্ট করছে। আর পদ্ধতিটাকে সাপোর্ট না করলে চাই বা না চাই প্রসেসটাকে তো আনডু করতেই হবে।
  • + | 213.110.243.22 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৫০75636
  • শাস্তির পদ্ধতি ভুল, মানলাম। কিন্তু ফেটসু যেভাবে দোষীদের আড়াল করছে সেটাও ভুল। একটা হোস্টেলে এরকম কাজ কে করেছে সেটা সহজেই জেনে নেওয়া যায়, আশা করি এখনকার ফেটসু জানে, তারা কেন সেই দোষীদের আড়াল করছে?
  • Reshmi | 129.226.173.2 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৫১75638
  • অন্য থ্রেড এ এটা ছিলঃ
    ‘M’ &’A’ submitted a written about what happened with complete honesty .

    However no such confession that , ‘M’ broke the window pane of ‘ P’ or left excreta in front of his room was made , as they asserted that they have done nothing of that sort. ‘A’ – asserted that he Slapped ‘P’ at the heat of the moment , but it was never out of seeking pleasure . He was provoked and irritated by the terrible abuses hurled by ‘P’. But he immediately apologised ‘P’ ofhis action .

    অর্থাৎ এই লেখাটা অনুযায়ী "M" স্বীকার করেনি যে সে কাজটা করেছে। "A" থাপ্পড় মেরেছে এবং তার জন্য শাস্তি পেয়েছে, ঠিক আছে। কিন্তু "M" যদি সত্যিই কাজটা না করে থাকে, তাহলে "M" -এর শাস্তি দুর্ভাগ্যজনক। কিন্তু অথরিটি এ ব্যাপারে নিশ্চিত না হলে এরকম স্টেপ নেবেই বা কেন? "M" -এর সঙ্গে তাদের কি শত্রুতা?
  • pinaki | 148.227.189.9 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৫১75637
  • আর যে ছেলেটা চড় মারে নি তার এগ্জ্যাক্ট অপরাধটা কী? অন্য আরো অনেকের সাথে ভিক্টিমের ঘরে গিয়ে গলা উঁচিয়ে ঝগড়া করা - কেন তুই হস্টেলের রুল না মেনে ফ্রেশার রেখেছিস?
  • pinaki | 148.227.189.9 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০৯:৫৩75639
  • র‌্যাগিং হয়েছে - এটাও 'ধরে নেওয়া' হয়েছে। ফেটসু সব জেনে দোষীদের আড়াল করছে - এটাও 'ধরে নেওয়া' হয়েছে। দেখাই যাচ্ছে আমরা 'ধরে নিয়ে' নিদান দিতে সিদ্ধহস্ত।
  • T | 24.139.128.15 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১০:০৩75640
  • কে হেগে গেছে, এটা মাইরি হোস্টেলের জনতা জানে না! এরা দোষী না হ'লে ঠিক কি মহানুভবতার বশবর্তী হয়ে এরা আসল দোষীদের নাম প্রকাশ করছে না।
  • pinaki | 148.227.189.9 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১০:০৫75642
  • ধরা যাক জানে, বলছে না। সেক্ষেত্রে কী হবে? যেকোনো একটা কাউকে শাস্তি দিয়ে দেওয়া?
  • + | 213.110.243.22 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১০:০৫75641
  • তাহলে যেটা ধরা হয়নি সেগুলোর বিষয়ে?

    ১। কেউ কাঁচ ভেঙেছে (ছেলেটির বক্তব্য অনুযায়ী অনেকের চিল্লামিল্লির আওয়াজ পেয়েছিল, যদি ধরি সে মিথ্যা বলছে তাহলে থাক এটা, শুধুই কেউ কাঁচ ভেঙেছে)
    ২। কেউ রুমের সামনে হাগু করে গেছে
    ৩। চড় মেরেছে বিচারসভায়

    এবার কথা হচ্ছে, মহামান্য ৪র্থ ইয়ারের স্টুডেন্টরা এত খবর রাখে যে কোন ২ন্ড ইয়ার রুমের ভিতরে ১স্ট ইয়ার রেখেছে খবর পায়, অথচ কাঁচ ভাঙলে বা ওপেন বারান্দায় হাগু করলে করলে খবর পায়না?
  • Felix Felicis | 131.241.218.132 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১০:০৭75643
  • ধরে নিতে তো সবাই অভ্যস্ত, তাই একটু AICTE রেগুলেশনটা দেখে নেওয়াই ভালো।

    AICTE Regulations as per the Directives of Supreme Court

    Ragging constitutes one or more of any of the following acts:

    a. any conduct by any student or students whether by words spoken or written or by an act which has the effect of teasing, treating or handling with rudeness a fresher or any other student;
    b. indulging in rowdy or undisciplined activities by any student or students which causes or is likely to cause annoyance, hardship, physical or psychological harm or to raise fear or apprehension thereof in any fresher or any other student;
    c. asking any student to do any act which such student will not in the ordinary course do and which has the effect of causing or generating a sense of shame, or torment or embarrassment so as to adversely affect the physique or psyche of such fresher or any other student;
    d. any act by a senior student that prevents, disrupts or disturbs the regular academic activity of any other student or a fresher;
    e. exploiting the services of a fresher or any other student for completing the academic tasks assigned to an individual or a group of students.
    f. any act of financial extortion or forceful expenditure burden put on a fresher or any other student by students;
    g. any act of physical abuse including all variants of it: sexual abuse, homosexual assaults, stripping, forcing obscene and lewd acts, gestures, causing bodily harm or any other danger to health or person;
    h. any act or abuse by spoken words, emails, posts, public insults which would also include deriving perverted pleasure, vicarious or sadistic thrill from actively or passively participating in the discomfiture to fresher or any other student;
    i. any act that affects the mental health and self-confidence of a fresher or any other student with or without an intent to derive a sadistic pleasure or showing off power, authority or superiority by a student over any fresher or any other student.

    Every single incident of ragging a First Information Report (FIR) must be filed without exception by the institutional authorities with the local police authorities. Depending upon the nature and gravity of the offence as established the possible punishments for those found guilty of ragging at the institution level shall be any one or any combination of the following:-

    1. Suspension from attending classes
    2. Withholding/withdrawing scholarship/fellowship and other benefits
    3. Debarring from appearing in any test/examination or other evaluation process and/or withholding results
    4. Fine with public apology
    5. Suspension/expulsion from the hostel
    6. Rustication from the institution for period ranging from 1 to 4 semesters
    7. Expulsion from the institution and consequent debarring from admission to any other institution.

    Collective punishment: when the persons committing or abetting the crime of ragging are not identified, the institution shall resort to collective punishment as adeterrent to ensure community pressure on the potential raggers.

    http://www.bvimit.co.in/attachments/antiraggingpolicy.pdf

    খুব ক্লিয়ার-কাট কথাবার্তা।
  • Felix Felicis | 131.241.218.132 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১০:১৩75644
  • কমরেড মিত্তিরের শেষ প্রশ্নের জন্যে AICTE-র রেগুলেশনের শেষ পয়েন্টটা হল উত্তর।
  • T | 24.139.128.15 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১০:১৫75645
  • @পিনাকীদা, আরে তদন্ত করে দেখেছে তো, তারপর দুজন কে শাস্তি দিয়েছে। তদন্তের সময় কিছু এভিডেন্সের উপর ভিত্তি করেই নিশ্চয়ই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তদন্ত পছন্দ না হ'লে ছাত্র দুজন কোর্টে যাক।
  • mila | 71.8.33.132 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১০:২৩75646
  • শাস্তি টা ঠিক কি? কলেজ থেকে বার করে দেওয়া হচ্ছে?
  • Felix Felicis | 131.241.218.132 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১০:২৮75647
  • একটা (নাকি দুটো) সেম সাসপেনশন। কোর্টে যদি প্রমাণ হয় তাইলে বরং অনেক বেশি চাপ - সিধে হাজত। আগে দেওয়া লিঙ্কের তলার দিকে দ্যাখেন।
  • Subhadip | 125.253.74.75 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১১:৩৩75648
  • Asish Syangbo Tamang'er version ::

    Hello friends,
    I would like to clarify few things about the ragging incident. I want to share what had actually happened and I would also like to request you to not to believe in whatever the protestors are saying. They are spreading false news just to save their mates.

    As we all know, these so-called "senior" students try to rag the fresher’s. We have 6 students from the hills this year, in the 1st year and the seniors had tried to rag them too by imposing dress code on them. I, along with my friend, Ashish Tamang, protested against this. Since then, we have been their targets. They accused us of being communal because we tried to protect our juniors from being ragged. Of the 6 1st yr students, 2 of them were not allocated hostel rooms so we had kept them with us, which we later found out was not allowed as per hostel rule. Taking this opportunity, on the night of 22nd August, few seniors, including Manik Halder, one of those who have been suspended gathered outside my room. They told me to take away the 1st years. They were shouting, using filthy language, and threatened me that they would beat me up if I didn’t take the 1st yr student away by the next day. I disccused this matter with my friends and decided to take them away as we didn’t want any trouble. The next day i.e on the night of 23rd August, a group of senior students gathered outside my room while I was in the bathroom just beside my room. I knew from their voices that they were the same people who had come the previous day. They were shouting my name and said something about 1st year student. Then I heard a sound of breaking glass. When I came out of the bathroom I found that my windowpane had been broken. Seeing this I went to the AGC of our campus to talk about this. He assured that he would talk with those people and called for a meeting with those guys later. Accompanied by my friend Ashish, I went to meet them. Many fourth year students had gathered. As I was very angry at that moment I talked very rudely with them. Manik Halder, the leader of group was there. I told him that if he had any problem with me than come to me directly, there was no need to break my glass in my absence. But those seniors asked me to prove that he, Manik Halder had broken the glass. As I was in the bathroom and could only hear his voice I had no evidence to prove him guilty. However, later on during the investigation they admitted to the dean of the students that they were present there.
    Following this they started saying I had put false allegation on the seniors and being a junior I disrespected them, so I have to apologize. This was totally insane. I thought why should I apologize when I have no fault. Anyone would get angry if someone breaks his or her glass for no reason. They were threatening me to beat me up and even said that they were above the authority and even the authority can take no action against them. When I refused to apologize since I had no fault, one of the seniors, Anupam, the other student who has been suspended, slapped me on my face. This could have worsened the situation but thanks to Ashish, he controlled the situation and advised me to say sorry and go away from there.

    Later on other seniors assured me that such things wont happen again and no one would bother me. But that was not to be and again on the morning of 25th august, I found a lump of feces/human stool on my door, which was disgusting. I was very much sure that people who did this were the same people who broke my glass and slapped me… No one else would have done that.

    Following this I lodged a complaint with the hostel superintendent and to the UGC.

    The authority set up an enquiry committee and those two students were found guilty and suspended from the college.

    This situation arose because of the fact that they tried to rag the 1st year students. I want to know from you guys, is this not ragging? Or a framed ragging case as projected by the protestors?
  • aka | 34.214.145.19 (*) | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ১১:৫৪75649
  • কম্রেড পিনাকিও জাজমেন্ট দিয়ে চলেছেন। ছেলেটির অভিযোগ কি কমরেড পড়ে দেখেছেন?
  • a x | 86.31.217.192 (*) | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০১:১৮75705
  • অনেক ধন্যবাদ মতি। আইসার এই লিফলেটের ভিত্তিতে সমর্থন রইল।
  • Santu | 125.253.202.164 (*) | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০১:১৮75704
  • খুব easy উপায় আছে। ঐ হাগুর sample এর সাথে সব্বার DNA test করলে ধরা পডে যাবে কে এই কাজ করেছে !
  • Arunabha De | 125.242.205.82 (*) | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০১:৩৭75706
  • আমরণ অনশন চলছে বুঝি? .......। বাহ !! মাঝে মাঝে উপোস দিলে শরীর স্বাস্থ্য ভালো থাকে, আয়ুর্বেদ এ বলেছে
  • Arunabha De | 125.242.205.82 (*) | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০১:৫৩75707
  • আইসা র এই লিফলেট এ প্রথম দেখলাম কোনো ছাত্র সংগঠন প্রীতম সুব্বা র কথা বলল। FETSU শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে ব্যস্ত, একটা খোলা চিঠি লিখেছে যেটা খালি মিথ্যে কথা আর চরম দ্বিচারিতা আর ধান্ধাবাজি তে ভর্তি না, রীতিমত racist। আকারে ইঙ্গিতে সমস্ত দোষ ওই প্রীতম সুব্বা র ওপরে চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা, অথচ ওই ছেলেটি এই চরম চাপের মুখে দাড়িয়ে ও একা লড়ে যাচ্ছে, অভিনন্দন এবং শ্রদ্ধা জানানোর ভাষা নেই।

    আইসা র এই লিফলেট এর দাবি র সঙ্গে অনেক তা এ একমত কিন্তু কিছু rider যোগ করে। সেগুলি হলো -

    ১। সেদিন রাতে কে হাগু করে গেছিল সেটা আগে ওই সিনিয়র দের জানাতে হবে, তারা যদি সেটা না জানায় তাহলে বর্তমান সস্তি বহাল থাকবে। যাদের তাতে আপত্তি থাকবে তারা ও শাস্তি র ভাগীদার হওয়ার সুযোগ পেতে পারে। যে সিনিয়র রা ইটা খবর রাখে যে জুনিয়র এর ঘরে কে থাকছে, তারা ইটা জানে না যে রাতে কে এসে দরজা এ হেগে যাচ্ছে - ইটা একটা শিশু ও বিশ্বাস করবে না।

    ২। যে ছাত্র প্রতিনিধি রা রাগ্গিং কমিটি র মিটিং এ গিয়ে শাস্তি তে সম্মতি জানিয়ে এসে পরে ধওয়া তুলসীপাতা সাজা র চেষ্টা করছে, তাদের আগে সব রকম পদ থেকে ইস্তফা দিতে হবে ইটা স্বীকার করে যে, আমরা ভুল করেছিলাম

    ৩। ওই হোস্টেল এর প্রত্যেক টি ঘটনা যেগুলো "কোলাকুলি করে মিটিয়ে নেওয়া" হয়েছে তার জন্যে আলাদা আলাদা করে তদন্ত করে শাস্তি বিধান করতে হবে, প্রয়োজনে ক্রিমিনাল কেস করে।

    এগুলো করা হলে তারপরে পুনর্তদন্ত হলে অবশ্য এ সমর্থন জনাব, না হলে যা শাস্তি হয়েছে, সেটা একদম ঠিক, বরং কম হয়েছে। আর পুনর্তদন্ত কে কি করে নিজেদের দিকে ঘোরাতে হই সেটা সিনিয়র রা খুব ভালো জানে, তাই সেই রাস্তা গুলো আগে বন্ধ করা দরকার।
  • cb | 127.194.66.155 (*) | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩ ০২:৪৮75708
  • ঘরে বাইরের লোক থাকলে যে কেউ সেটা লক্ষ্য করবে ওভার এ সার্টেন পিরিয়ড অফ টাইম। রাত তিন টের সময় উঠে যদি কেউ মাল নামিয়ে আসে, হাই চান্স ব্যাপারটা মিস হয়ে যেতে পারে।

    বাট যদি বলেন যে লোকে জানে কিনা কে নামিয়েছে, তাহলে বলব, জানার সম্ভাবনা প্রবল। তবে উপরে যে দুটো ব্যাপারে কোরিলেট করেছেন, ফাঁস হওয়ার রেসপেক্টে সেগুলির মধ্যে ডিফারেন্স আছে
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। পড়তে পড়তে প্রতিক্রিয়া দিন