আপনার মতামত         


সব্যসাচী সান্যাল




জেÆ¡রো লেখা

আলো-কে ঋদ্ধ করে হেঁটে
যাওয়া পাঠ্য টেবিল আমি
তার দেশে ছুতোরের অনাহুত ছেনি

অনাস্বাদের ভেতরে গড়ালো যে
তার রাত চোলাই দ্বিধার গায়ে
বর্ণহীন এমন-কী অন্ধকারহীন

ছোট ছোট চলে
যাওয়া নিয়ে আলো-পল্টন
নেভা নেভা ফুলের গঠনে
আমিও তো নিদ্রাহীনতা আঁকি
হে ধূমজÆর
হে আমার ফারেনহাইট

তাহলে তাপও একটা মাত্রা, ছায়া যার যোজ্যতায় কাঁপে । কশে, জিভে মন্থরা, ঠোঁট ঝনঝন... আলোময়, এইখানে বস একই সাথে কশের দু'পাশে । গৃহস্থের যোগ্যতা চাপা দিয়ে রাখা এই ভাঙা খাঁচা, এই তার অভিকর্ষ বল । দেখ, সাদা ধুনুরির ছায়া কীভাবে দেয়াল শুষে নেয় ।

পরাজাগতিক ব্লুমে ডুবে যাচ্ছে যে ডাকবাক্স তার চৌষϖ প্রহরের দিকে ছুঁড়ে দিচ্ছি শুদ্রতার স্ট্যাম্প, ভ্রাম্যমান ছ'জন আমার মানুষ । আলোময়, এস মহালিঙ্গের গা'য়ে প্রার্থনা সারাই করতে করতে স্তব গেয়ে উঠি --

নমো শুদ্র           নমো শুদ্র           নমো শুদ্র

আর গাটারবাহিত অকুন্ঠ নেমে যাই সাঁতার না জেনে । ভ্রূণাধারে মাতমের স্ম«তি ... যত তাপ ততটা নিজস্ব ব্রাউনীয় গতি তবু চঞ্চল আমি স্তিম হ'য়ে আসা ভাষার যৌনতা ছুঁয়ে অন্ধ ভিখারি হ'য়ে উঠি ।

এই তবে গ্রহণের গান, এই তবে কুন্ডলি থেকে উঠে আসা পরম শীর্ণতা । আলোময়, শীর্ণতা'ই আমাদের একমাত্র আহার্য mc2 । বর্ণাশ্রম মেখে সরোদ-সঞ্চারী চ'ল যাই বর্ণালীর দিকে, ছুঁই তার যোজনাভা সবুজ হ্যাজাক ।

শিলীভ¨ত হোক, পা নয় আমাদের হাঁটার স্টাইল ...





কন্ডোম বা আত্মহত্যা বিষয়ক

{কন্ডোম ও আত্মহত্যার কৌশল একমাত্র মানুষের করায়ত্ত, প্রসঙ্গত লেমিং-রা দ্বিতীয়-টি সÇবন্ধে ওয়াকিবহাল হ'লেও প্রথম বিষয়ে জ্ঞান রাখে কি-না জানা নেই । ইঁদুর বিষয়ে এতটুকু জানা আছে, কন্ডোম বা আত্মহত্যার বাজার অর্থনীতি সম্পর্কে কোন আস্থা না থাকায় ও সমাজে দু'এরই প্রচলন নেই (কদাচিৎ লুকিয়ে চুরিয়ে দাঁতের ব্যায়াম ছাড়া) গিনিপিগ সমাজে যদিও একই কথা প্রযোজ্য নয় । আমরা মাছ, ডলফিন অথবা কুমিরের কথায় যাচ্ছিনা, সু¤প্রীম কোর্টের নিষেদ্ধাজ্ঞা এ বিষয়ে এখনও জারি ।}

মেয়েটার নাভিতে নথ ছিলো, জিভেও
সঙ্গিনির পার্স, বুকে দগদগে "L",
"হাওথর্ণ' , তুমি কি ভাবলে জানিনা
বাসে, বোবা ময়ুরেরা আচমকা
চিকি বম চিকি বম চিকি বম বম

পৃথিবীর বৃদ্ধ বৃদ্ধারা এক একটা ব্যর্থ
কন্ডোমের শোকে গান গেয়ে উঠছে
ফলত রাবার জিনোমের খুঁটিনাটি
জেনে নিঁখুত ডিউরেক্স ফোটালো নিরোধগাছ

চিকি বম চিকি বম চিকি বম বম-
ভাষায় পরান, কবিতায় পরান, কলমে পরান-
সু¤রক্ষার অমোঘ হাতিয়ার'
(অভাগা লখিন্দর, চাঁদ জানিতনা নিশ্ছিদ্র
রাবার প্রতিভা )

চিকি বম চিকি বম চিকি বম বম
আত্মহত্যার চল বেড়ে গেছে পৃথিবীতে
বিষাদের চল
"প্রোজাক' বাঁচিয়ে রাখে শামুকের
ভঙ্গুর ঘর
পৃথিবীর সব সঅব মুহ্যমান দেশে
অর্ধনমিত পতাকার দরুণ
"ভায়াগ্রা'-র চল বেড়ে গেল ।





চারুলতা ও সারস

"মানুষ নিকটে গেলে প্রক«ত সারস উড়ে যায়'
আরে সেতো বিনয়ী সারস
প্রক«ত মানুষ দেখে অবিনয়ী সারসের কি হয় উপায় ?

কার্টুন চারুলতা অপেরা চশমা ধ'রে
গুলি খুব ছুঁড়ে দিল মাঝরাতে
বঁটির গন্ধ মেখে সারসের গলা
বমি ক'রে
জিরে ধনে আদা ও লঙ্কাবাটা
গরম মশলা

চারুলতা আমিওতো বিনয়ী সারস নই
আমার কি হলো ?

রন্ধন জানো এতো জানো ছ'রকম ছুরি
আরো জানো নাভিমূল চৌষϖ কলা
অনন্তর বজÊ¡সন মাখনের সু¤চারু প্রয়োগ
আঁকা ভুরু ঘটিহাতা জামা
চতুর পানের পিক অগুরু-গন্ধী বুক
জানো সর্বাধিক যা কিছু জরুরী

ঘটা ক'রে সকাল সাজাও এঁটো মুছে
কাঁটা ও পালক মুছে
নিকাও উঠান
কচি দূর্ব্বাঘাস গোবরের ছড়া
দাঁত মাজো সূবর্ণগুলে
কোমর নাচায়ে আনো জল কয় ঘড়া
গোয়ালের গাভীটিরে চন্দন সিঁদুর
দাও তাজা খড়
গতরাতে সেও তো সারসই ছিলো
তারও টুঁটিপটে
কার্টুন আঁচড় ।




শুধু কবিতার জন্য

সাততলা নীচ থেকে একটা ট্যাক্সির মুখ
চানঘরে আমার সামনে থেকে খেয়ে ফেলে
কুচিব্লেড আয়নায় নম্র চোখ গৃহপালিতের

আমি সেই লিমুজিনে যাবো

হেই পাপা লেগবা দাড়ি ছেঁটে ফুলবাবু হয়ে এসো
তোমায় পূজিব হে
চাক ভাঙা সোনা মধু নারিকেল মালা জামাইকা-রাম
চৌ-পথে মিছরি-কুচি দিব-হে ধোঁয়ানো-মাছ
পাপা লেগবা ছাড়ানো বিড়াল
ধূপ আর ব্রেজিল চুরোট পুং-লিঙ্গ জেÆলে দিব
বেদী-তে তোমার নাচ দিব কালো ছাগলের দুধ

হাট খুলে দিও মরা ঘুঘুর দরজা

আমাদের বারোমেসে গান খুলে চলে যাবো
দোতারার তারে মুখ মেলে চলে যাবো
বিকেল ফাটিয়ে যাবো "ওলমেক' গেলাসে
ম্যাদামারা জুগুলার রেখে
হেই পাপা লেগবা
ঘরবার ছুঁড়ে যাবো আদমীর
ঘুম ফুঁড়ে চলে যাবো
নিজস্ব লাল রেখে মুন্ডু রেখে
চ লে যা বো

পাপা লেগবা তোমার তো "কেপ' নেই
আঁটো জামা চাই ? ফ্লুরোসেন্ট উল্কি ?
জিরো জিরো বেল্ট ?
হাবা দৈনিকে চড়ে মানুষের যে রাজার নাম "ক্লার্ক কেন্ট' ?

মরা ঘুঘুর দরজা হে সন্ত লাজারুস, হেই পাপা লেগবা

সাততলা নীচ থেকে ট্যাক্সির মুখ ঘুম চেটে
চানঘরে বাড়ানো ব্লেডের থেকে শিরা চেটে
গিটারিলো গান চেটে আনত চোখের জিরাফ
কুমারীর পিস্তল চেটে সাইকোর লালা চেটে
পকেটের গুমখুন চেটে
হেই পাপা লেগবা
আমি অই লিমুজিনে যাবো ।





ছুটি-২

ফেরীঘাটে শুধুই পারানি ।
পেরিফেরীঘাটে কত লোক !

মোড়ানো রাংতায় ফেরে নাম্বার টেন
পোড়া ঠোঁট গায়েব ঠিকানা
আধশোয়া কুকুরের জিভ থেকে
গরমের ছুটি ঝুলে নামে

বেতের টুকরি স্যালাড লেটুস হাতে
শিস দিয়ে একটা বাছুরের পাঁজর
যায় গায়ে জলপাই অরিগানো পাতা
ছুটি লাগে নীল-পাড় প্লেটে
ছুটি ধরে জুনিপার ঝোপ
বুড়োমানুষের লাঠি বোলার টুপিতে

মানুষের পা থেকে তÆরণ খসলে
তবেই না বিকেলপ্রবণ !
কি দারুণ বেভুলা !
সাময়িক ভেলা অফ্‌ ক'রে
ছোলা মুড়ি হাতে বাংলার
মুখ দেখিছে বেহুলা

ফেরীঘাটে কেনরে পারানি !
পেরিফেরীঘাটে এত লোক ।






এবং মেরিলিন

হাওয়া সেলাই করা স্কার্টের হেম-এ
যৌনাঙ্গে হাত চাপা ঠিক্‌রে উঠছে মুখ
দু'ঠোঁটের কশে স্প্রিং গেঁথে স্টেÊচ গেঁথে
বোমা-পেরেক মারা শল্য টেবিলে

সাবওয়ের জিভে
ক্যামেরা খুবলে নিলে চোখ
স্থাবর পোস্টার ঘটে খুলির দেয়ালে
প্রতিসরণের ভুডু--

অয়ি ভুবনমোহিনী ওয়ে ওয়ে
পৃথিবীর স্ফুরিত ঠোঁটের সিটী
শুভ্র ধোপানী তুমি ম্যাটিনি বিড়াল

খাম
আঁঠালো লালার চিঠিবোধ
নখের ধারাল্‌ ঘাপ্‌টি-প্রধান
আয়ু জ'মে স্টকারের তলপেটে গুঙ্গা গ্রিমেস

রূপকথা জমে

অ্যানিমিক রুগীদের শ্বেতকণিকায়
বোনা হয় পরি-পরিধান চেরীফুল-লেস
রূপকথা জ'মে-
জ'মে আর বাড়ায় জনন


হাওয়া সেলাই করা স্কার্টের হেম-এ
যৌনাঙ্গে হাত চাপা ঠিক্‌রে উঠছে মুখ
দু'ঠোঁটের কশে স্প্রিং গেঁথে স্টেÊচ গেঁথে


হেসে ওঠে আরো একজন