• টইপত্তর  বইপত্তর

  • ২০১৯ এ গুরুর বইপত্তর

    গুরুচণ্ডা৯
    বইপত্তর | ০৯ জানুয়ারি ২০১৯ | ৯২১ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • পাতা :
  • pi | 2345.110.674512.240 | ০৫ এপ্রিল ২০১৯ ১০:৫০380727
  • আসিতেছে!
    ছবিঃ ঋতুপর্ণ বসু, সায়ন কর ভৌমিক।

  • pi | 7845.15.230123.247 | ১৯ এপ্রিল ২০১৯ ১৩:৪৪380728
  • অবশেষে সুখবর! রং নাম্বারে ডায়াল করা যাবে। আজ বিকেল থেকে। কলেজ স্কোয়ার বইমেলায় গুরুর স্টলে এলেই!

    শিল্পী হিরণ মিত্রের দীর্ঘ প্রশ্নোত্তর পর্ব, প্রয়াত লেখক অদ্রীশ বিশ্বাসের সংগে, বইটি আমরা আবার প্রকাশ করব বলে ঠিক করেছিলাম। তো, নতুন করে করার প্রক্রিয়ায় সং্যোজন হিসেবে একটি দীর্ঘ মূল্যবান সাক্ষাতকার ও এসে গেছে, বিষাণ বসু নিয়েছেন। হিরণদা ছবি দিয়ে নতুন করে সাজিয়েছেন বইটা।

    কী থাকছে বইয়ে? অনেক না বলা কথা।

    বিষাণ বসুর কথায়, ছবি কী? কেমনভাবে ছবির ভিতরে ঢুকবো? দৃষ্টিনন্দন ছবি যদি বা চোখ টানে, কিন্তু অ্যাবস্ট্রাক্ট আর্ট? ছবি, নাকি লক্ষ লক্ষ টাকা দামে বিক্রি হওয়া ছবি, দর্শকের চোখ আটকাবে ঠিক কোথায়? দর্শক আর শিল্পী দুইয়েরই ভাবনার অচেতনে বাজারের ভূমিকা কী? দেশের ছবি, বিদেশের ছবি থেকে হালফিল ডিজিটাল আর্ট। ছবির জগৎ-এর একটা সার্বিক চিত্র উঠে এলো শিল্পী হিরণ মিত্রের সাথে এই অকপট সাক্ষাৎকারে। সাক্ষাৎকার ঠিক নয়, এ এক শিল্প-আড্ডা। সাথে অনিবার্যভাবেই থাকলো হিরণ মিত্রের মঞ্চ-প্রচ্ছদ-সিনেমা-শিল্পজীবন।

    বাংলা ভাষায় শিল্পী এবং শিল্পানুরাগীর কথোপকথনভিত্তিক বই রয়েছে বেশ কয়েকটি। কিন্তু, ঠিক এই ধরণের শিল্প-আড্ডার নজির, বোধ হয়, আর নেই। সেইদিক থেকে দেখলে, শিল্পচর্চার ক্ষেত্রে এই ছোটো বইটি, প্রকৃত অর্থেই, ল্যান্ডমার্ক। আর, সাথে রয়েছে হিরণ মিত্রের অসামান্য কিছু ছবিও।

  • pi | 237812.69.563412.93 | ০৩ আগস্ট ২০১৯ ২২:০৫380729
  • এই তো, ক'দিন আগেই লিখেছিলাম। কাল আর কিছু লিখতে ইচ্ছে করেনি।

    লিখব লিখব করে লেখাই হয়নি আর। আসলে যাকিছু বেশি প্রিয়, মনে হয় তার জন্য বেশি যত্ন চাই, বেশি সময়। আরে এই ক'রে ক'রে সে সময় পালিয়েই যায়। যত্ন করে, সময় নিয়ে লেখার দুরাশা আমার জন্য পরিত্যজ্য এ আমি যত তাড়াতাড়ি মেনে নি, মংগল। যাহোক, শিবের গীত শেষ করি। কিছুদিন আগে এই ছবি দেখিয়ে ক্যুইজ করেছিলাম, কীভাবে আঁকা? প্রায় কারুর উত্তরই কিন্তু সঠিক হয়নি! কারণ এতো আঁকাই নয়!!

    না, আঁকা নয়। এ হল কাগজ-কাঁচির জাদু, আর এরকম জাদুগরী আর কেই বা আছেন? Trina Lahiri ছাড়া! কাগজ কেটে এই সূক্ষ্ণ কাজ, কি, বিশ্বাস হচ্ছেনা তো? বিশ্বাস করতে বলেছে কে। অবিশ্বাস্যই বটে। ওই যে বললাম, জাদু!
    জাদু বাস্তবে দেখলে যেমন লাগে!
    তৃণাদির কাজগুলো দেখতে দেখতে, একটা আশ্চর্য রূপকথার জগতে আর সবার মত অতি মুগ্ধ বিস্ময়ে হারিয়ে যেতে যেতেই, হঠাত আটকে গেছিলাম প্রথম ছবিটায়, আর লতিকা অশোকের সেই জাদুপাড়াটার জাদুবাড়ি জাদু ঘরটার কথা মনে পড়ে গেছিল, মনে পড়ে গেছিল, " ক্যামেরা যেন জুম করল তখনই , সব রং ফিরে এল চরাচরে দেখে মনে হয়েছিল, এরই অপেক্ষা ছিল!

    এই তো ক'মাস আগে লিখেছিলাম এসব। আরো কত কী। কীভাবে তৃণাদির ছবি প্রচ্ছদ হয়ে উঠল, সেইসব গল্প।

    তারপর দেখা হল, আর আরো কত কথা!

    সূর্য ডোবার পর তৃণাদি এখন ওই চাঁদের দেশে। পাড়াতুতো চাঁদ হয়ে ওই মেয়েটির মতই হয়তো ঘুরে বেড়াবে এম্নি করে, সারারাত জুড়ে, শহর যখন রাত্রির রূপকথা।


  • গুরুচণ্ডা৯ | ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:৩৯380730
  • এবছরে প্রকাশিত দুটি বই নিয়ে, এই সময় ও সাপ্তাহিক বর্তমানে,





আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • পাতা :
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ঠিক অথবা ভুল মতামত দিন