• টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। যে কোনো নতুন আলোচনা শুরু করার আগে পুরোনো লিস্টি ধরে একবার একই বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে কিনা দেখে নিলে ভালো হয়। পড়ুন, আর নতুন আলোচনা শুরু করার জন্য "নতুন আলোচনা" বোতামে ক্লিক করুন। দেখবেন বাংলা লেখার মতো নিজের মতামতকে জগৎসভায় ছড়িয়ে দেওয়াও জলের মতো সোজা।
  • দেবব্রত বিশ্বাসের আকা একটি স্কেচ

    DB
    বিভাগ : গান | ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ | ২২ বার পঠিত
আরও পড়ুন
সিঁদেল - DB
আরও পড়ুন
বিড়াল - Rabaahuta
আরও পড়ুন
মাচার গান - Rana
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • DB | 015612.129.7867.101 | ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ ১৬:৪০380564
  • ১৯৭৫ সালের জানুয়ারি মাস । জর্জ দা অর্থাৎ দেবব্রত বিশ্বাস জামশেদপুরে রবীন্দ্রমেলায় আমন্ত্রিত শিল্পী হিসেবে এসে উঠেছিলেন আমাদের বাসায় । তাঁর অনুষ্ঠান হয়ে যাবার পরের দিন সকালে আমাদের বাড়ির লন এ রোদ্দুরে একটা ইজি চেয়ারে বসে খোস গল্পে মেতেছিলেন আমাদের দুই ভাইয়ের সঙ্গে ।কথায় কথায় উঠল তাঁর গায়নে রবীন্দ্রসঙ্গীতের তথাকথিত বিকৃতি নিয়ে কারো কারো অভিযোগের প্রসঙ্গ ।
    মুচকি হেসে আমাকে বললেন একটা খাতা আর কলম দিতে ।আমি আমার গানের খাতাটি বাড়িয়ে দিলাম ওনার হাতে ।ভাবলাম বুঝি অটোগ্রাফ দেবেন । কিন্তু না ।দেখলাম দ্রুত হাতে কলমের আঁচড়ে খাতার পাতায় একটি স্কেচ এঁকে ফেললেন । নিচে সই ও করলেন নিজের নাম ।তারপর খাতাটা আমার হাতে ফিরিয়ে দিয়ে বললেন এই ছবিটার একটা পূর্ব ইতিহাস আছে । সেটা আমি বলে যাচ্ছি লিখে নাও ।
    আমি শ্রুতিলিখনের জন্যে প্রস্তুত হয়ে বসতেই উনি গল্প শুরু করলেন । শ্রুতিলিখন শেষ হলে আমার কাছ থেকে খাতাটি ফেরৎ নিয়ে লেখার নিচে তারিখ সহ নিজের নাম সই করলেন ।এবার জর্জ দার জবানীতে গল্পটি -
    আমি খুব হাঁপানি রোগে ভুগছি ,এই খবর শুনে বাংলাদেশ ,কুষ্ঠীয়ার একটি কলেজ পড়ুয়া মুসলমান মেয়ে একটি হাঁপানির মাদুলি চিঠির মধ্যে পুরে আমাকে পাঠিয়েছিল ,এবং নির্দেশ দিয়েছিল খাজাবাবার নাম স্মরণ করে আমি যেন মাদুলিটি ধারণ করি ।আমি তার নির্দেশ মত খাজাবাবার নাম স্মরণ করে মাদুলিটি ধারণ করে তাকে চিঠি লিখে জানিয়েছিলাম আর লিখেছিলাম খাজাবাবা টি কে ,এবং কোথায় থাকেন আমি তো জানিনা ! উত্তরে মেয়েটি জানিয়েছিল যে খাজা বাবা ইন্ডিয়ার আজমীরে দেহরক্ষা করেছিলেন,সেখানে তাঁর একটি বিরাট মাজার (কবর) আছে ।
    মানুষের মঙ্গল সাধন করার জন্য খাজা বাবা বহু তপস্যা করে খোদাতালার কাছ থেকে ক্ষমতা আদায় করেছিলেন ।যদি কোন মুসলমানের পক্ষে মক্কায় হজ করতে যাওয়া সম্ভব না হয় তাহলে তিনি আজমীরে হজ করতে পারেন – এতখানি মর্যাদা তিনি খোদাতালার কাছ থেকে আদায় করেছিলেন ।
    এই চিঠির উত্তরে আমিসেই মেয়েটিকে জানিয়েছিলাম যে খাজা বাবার পরিচয় পেয়ে ভালই লাগল । তবে খাজা বাবার মাদুলি ধারণ করার পর ফলাফল কিছুই বোঝা যাচ্ছেনা ।সঙ্গে সঙ্গে আরো জানিয়েছিলাম এই ব্যপারে একটি গোপন খবর আছে। খবরটি যেন কাউকে ফাঁস করে দেওয়া না হয় ।
    গোপন খবরটি হল – কয়েকবৎসর আগে কয়েকজন রবীন্দ্রসঙ্গীত স্পেশালিস্ট প্ল্যাঞ্চেটের মাধ্যমে রবীন্দ্রনাথের আত্মার সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁর কাছে নালিশ জানিয়েছিলেন এই মর্মে যে এই পৃথিবীতে রবীন্দ্রসঙ্গীতের দারুণ বিকৃতি ঘটে যাচ্ছে এবং এই বিকৃত রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশনকারিদের দলে যারা আছেন তাদের মধ্যে আমিই পয়লা ।
    এই খবরটি পেয়ে রবীন্দ্রনাথের আত্মা নিদারুণ দুসচিন্তাগ্রস্থ হয়ে অত্যন্ত অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন । তাঁর এই অবস্থা লক্ষ্য করে সুরলোকের কর্তারা একটি কনফারেন্সের ব্যবস্থা করলেন । মধ্য এশিয়া থেকে যিশু খৃষ্টবাবুর পরম পিতা ,মক্কা থেকে স্বয়ং খোদাতালা , এবং ভারত থেকে নারায়ন বাবু ,ব্রহ্মাবাবু মহেশ্বর বাবু ,গৌতম বুদ্ধবাবু এবং রবীন্দ্রনাথের জীবন দেবতা পরমব্রহ্মবাবু উপরোক্ত কনফারেন্সে যোগদান করেছিলেন । পরে তাঁরা সবাই মিলে একটি চুক্তি সম্পাদন করলেন । সেই চুক্তির সারাংশ নিচে দেওয়া হল ।
    ১। জর্জ বিশ্বাস ওরফে দেবব্রত বিশ্বাসকে না না রোগে ভুগিয়ে ভুগিয়ে শেষ করে দেওয়া হোক ।
    ২। পরজন্মে তাকে একটি বায়স অর্থাৎ কাক হয়ে জন্মগ্রহন করতে হবে
    ৩। সেই কাকটিকে সুরলোকে শুকনো মাটি ও পাথরের মধ্যে গজানো একটি রাবীন্দ্রিক বৃক্ষের কাছে আর একটি শুকন মরা গাছের ডালে বসে অনেক বৎসর রাবীন্দ্রিকতা শিখতে হবে ।
    ৪।তারপর তাকে আবার প্ররথিবীতে ফিরিয়ে আনা হবে বিশুদ্ধ রবীন্দ্রসঙ্গীত গাইবার জন্য ।
    এই রাবীন্দ্রিক বৃক্ষের একটি নমুনাও সেই মেয়েটিকে পাঠান হয়েছিল,এবং শ্রীমান দীপঙ্কর বসুর এই খাতায় সেই নমুনাটি দেওয়া হল ।
    স্বাঃ দেবব্রত বিশ্বাস
    সাতাসে জানুয়ারি উনিশশো পঁচাত্তর
  • pinaki | 0189.254.455612.99 | ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ ১৮:৪২380570
  • স্কেচটার একটা ছবি তুলে https://postimages.org/ এ আপলোড করে ওরা যে লিংকটা দেবে তার দুদিকে <> এরকম ব্র্যাকেট রেখে এখানে পেস্ট করুন। লেখাটা পড়ে ছবিটা দেখতে ইচ্ছে হল। ওটা ছাড়া ঠিক সম্পূর্ণ হচ্ছে না যেন। :-)
  • DB | 015612.129.7867.101 | ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ ১৯:০৭380571
  • <a href='https://postimg.cc/D4mYFLsm' target='_blank'><img src=' border='0' alt='12819390-1306050872743530-8580448531240433851-o'/></a>
  • lcm | 900900.0.0189.158 | ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ ১৯:১৩380572


  • স্কেচ কোথায়?
  • DB | 561212.187.4545.80 | ২০ জানুয়ারি ২০১৯ ০৯:০৩380573
  • <
  • DB | 561212.187.4545.80 | ২০ জানুয়ারি ২০১৯ ০৯:০৫380574
  • কিছুতেই স্কেচটা পোস্ট করতে পারছিনা ।পিনাকী বাবুর দেওয়া পদ্ধতিতেও পারলামনা ।মহা মুস্কিলে পড়লাম /
  • | 670112.220.455623.113 | ২০ জানুয়ারি ২০১৯ ০৯:৪২380565
  • এই পোস্টইমেজে ফেলে জেপেগ ইমেজ পেয়েছ। এই নিন আপনার ছবি।

    file:///C:/Documents%20and%20Settings/Damayanti/Desktop/Debabrata.jpg
  • DB | 561212.187.4545.80 | ২০ জানুয়ারি ২০১৯ ১৫:৫৮380566
  • ধন্যবদ দ । এই পাতায় স্কেচের ছবিটা দিতে গিয়ে পাতাটাকে বিশ্রী রকমের অপরিচ্ছন্ন করে ফেললাম ।যাইহোক শেষ অবধি ছবিটা তোলা গেছে বলে স্বস্তি।
  • DB | 561212.187.4545.80 | ২০ জানুয়ারি ২০১৯ ১৫:৫৮380567
  • ধন্যবদ দ । এই পাতায় স্কেচের ছবিটা দিতে গিয়ে পাতাটাকে বিশ্রী রকমের অপরিচ্ছন্ন করে ফেললাম ।যাইহোক শেষ অবধি ছবিটা তোলা গেছে বলে স্বস্তি।
  • অর্জুন অভিষেক | 561212.96.562312.180 | ২৬ জানুয়ারি ২০১৯ ২৩:০৬380568
  • বাহ, দারুণ গল্পটা তো। স্কেচটা বেশ রবীন্দ্র প্রভাবিত।

    আচ্ছা, দেবব্রত বিশ্বাসের নানা রসিকতা নিয়েও তো অজস্র গল্প আছে।
  • pi | 4512.139.122323.129 | ২৪ মে ২০১৯ ১৪:০৩380569
  • দীপঙ্করদার এই নিয়ে আরো কত লেখার কথা ছিল !
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • গুরুর মোবাইল অ্যাপ চান? খুব সহজ, অ্যাপ ডাউনলোড/ইনস্টল কিস্যু করার দরকার নেই । ফোনের ব্রাউজারে সাইট খুলুন, Add to Home Screen করুন, ইন্সট্রাকশন ফলো করুন, অ্যাপ-এর আইকন তৈরী হবে । খেয়াল রাখবেন, গুরুর মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হলে গুরুতে লগইন করা বাঞ্ছনীয়।
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত