• টইপত্তর  অন্যান্য

  • শিশু হেনস্থা,বেওসা ও কিছু বক্তব্য

    Ankur Chakraborty লেখকের গ্রাহক হোন
    অন্যান্য | ০২ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৬৯২ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Ankur Chakraborty | ০২ ডিসেম্বর ২০১৭ ২২:০১371429
  • শিশু হেনস্থা,রাজনীতি, বেওসা ও কিছু কথা
    -অঙ্কুর চক্রবর্তী
    ***
    গতকাল জিডি বিড়লা স্কুলে ঘটে যাওয়া ন্যক্কারজনক শিশু যৌন নিগ্রহ বিষয়ে আজ সকালের আজকাল কাগজের শিরোনামে স্কুলের নাম নেই, কেবল "নামী স্কুল" লিখে দায় সারা। স্কুলের নাম কেবল মাত্র ছোট হরফে,তাও ছবির নীচে। এর অর্থ কি? একটা সংস্থার কর্মচারী যখন এই পাশবিক কাজে লিপ্ত,তখন স্কুলের নামটা বড় হরফে দিতে কি হয়েছিল? না কি বিড়লার বাচ্চারা মানহানির মামলা করতে পারে,এই ভয়?

    এইসব ঢোকলা-ভুজিয়াদের ব্যবসা আমার শহরে,আমার এলাকায় এতটাই প্রতাপশালী যে আমরা ওদের ভয় পেয়ে চলেছি। ওদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে ভয় পাচ্ছি। তাই স্কুলের নামটা বড় হরফে খবরের কাগজে সামনে আসে না। পাছে,স্কুলের ব্যবসা,থুড়ি বেওসা মার খায়। এইসব শিশুদের মাধ্যম করেই তো এদের বেওসা জমে।

    অথচ এটাই যদি কোন "নামী স্কুল" না হয়ে "মালতিবালা বালিকা বিদ্যালয় হত,তাহলে ফুটেজ পেত না। স্কুলের নাম সামনে আসত, এবং রোজ এরকম স্কুলের অন্ধকার টিচার্স রুমে ঘটে যাওয়া কাজকর্ম কেবল দুলাইনে খবর হতো। কিন্তু ওই স্কুলে বাবা মায়েরা বাচ্চাদের পাঠাতে ভয় পেত।
    অপর পক্ষে, যেহেতু স্কুলের নামে বিড়লা শব্দটা রয়েছে, তাই এখানে কেবল নামের ভার বহন করতে আর স্টেটাস ফলাতে বাবা মায়েরা বাচ্চাগুলোকে এই স্কুলেই পাঠাবে। এসি ক্লাসঘর, সিসিটিভি করিডোর, টাইলস বসানো বাথরুম থাকলে তো বেওসা করতে আর মুরগি ধরতে সুবিধা হয়। তাই না?

    আর যারা ভাবছেন, সরকার এইসব স্কুলের শিক্ষক (কি শিক্ষা দেন এরাই জানেন!) দের বিরুদ্ধে বা স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়ে "দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা" নেবে,তারা মূর্খের স্বর্গের বাসিন্দা।
    ভুলে যাবেন না, আজকের যুগে এইসব স্কুলে পড়িয়ে ব্রেইনওয়াশ করায় যে কর্তৃপক্ষ, তাদের টিকি বাঁধা সেইসব বিড়লা,গোয়েঙ্কা,ঢোকলা,ভুজিয়াদের হাতে। যাদের টাকায় রাজ্য এবং রাষ্ট্র চলে। দয়া করে কেউ বলতে আসবেন না, যে সরকার চাইলেই কড়া হতে পারে এদের প্রতি। না,পারে না। সরকার কড়া হলে এরা এদের হাত সরকারের মাথা থেকে সরিয়ে নেবে, সরকারের পতন ঘটবে। এবং তার বদলে এরা এদের জাতভাইদের বাংলায় সরকার গড়তে সাহায্য করবে। আর তার ফলশ্রুতি,কলকাতা হবে আরেকটা দিল্লী। সরকার নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতেই হোক বা নিজের দুর্নীতি জনগনের সামনে আসা থেকে আটকাতেই হোক,এই বিষয়ে কোন পদক্ষেপ নেবে না।

    তারপর,যা ঘটার,তাইই ঘটবে। আবার নামের লোভে বাবা মায়ের দল বাচ্চাদের নিয়ে এইসব স্কুলেই ভর্তি করবে। আবার শিশু নিগ্রহ হবে। আবার টাকা উড়বে, সব ধামাচাপা পড়বে। চক্রাকারে আবর্তন হবে সবকিছু।

    আমাদের উচিত এইসব ভয়ানক বিষয় মনে রেখে এইসব বেওসায়ী স্কুলগুলোকে বেওসা করে ফুলে ফেঁপে ওঠা থেকে আটকানো। কিন্তু মনে রাখবে কে? বা কারা? যাদের মনে রাখার কথা,তাদের জন্য এইসব ভুলিয়ে দিতে নতুন কোন পদ্মাবতী আসবে,আসবে গুজরাট নির্বাচন আর এমনিতেও আমাদের স্মৃতিশক্তি দেখে গোল্ডফিশেরও লজ্জা করে। আর তাকে বেশি লজ্জা নাইই বা দিলাম!
  • pi | 24.139.221.129 | ০৩ ডিসেম্বর ২০১৭ ০৭:৫৬371430
  • এই বক্তব্যে একটা জিনিস বুঝলাম না। স্কুলের নাম তো বেরিয়েছে। এই স্কুল বলেই তো বেশি হইচই। যাঁরা এরপর পাঠাবেন, স্কুলের নাম না জেনে পাঠাবেন, এমন তো না। নামের ভার , স্টেটাস তো এগুলোকে সুপারসিডই করবে অনেক ক্ষেত্রে। তবে হ্যাঁ, অন্য স্কুলগুলোতে এসব হয়না , সেটা নিয়ে খুব শিওর কি ? আমি জানিনা, জিগেশ করছি।
  • amit | 149.218.76.122 | ০৩ ডিসেম্বর ২০১৭ ০৮:১৭371431
  • যে ঘটনাটা ঘটেছে , সেটা যথেষ্টই বাজে এবং পুলিশ তদন্ত করছে। এর মধ্যে বাঙালি-অবাঙালি, ব্যবসায়ী- অব্যবসায়ী, হিন্দু- মুসলিম এসব ফালতু কোরিলেশন টেনে এই তদন্তে অথবা কারুর কিছু লাভ হচ্ছে কি ? অবশ্য নিজের বিশেষ এজেন্ডা চালাতে চাইলে অন্য কথা। সেক্ষেত্রে যেকোনো ঘটনা কোথাও ঘটে গেলেই লাভ।

    আর দামি বা নামি স্কুল বলেই সেটা নিয়ে হৈচৈ বেশি হচ্ছে, কি আর করা যাবে। এই কারণেই প্যারিস বা লন্ডনে ব্যোম পড়লে হয় চৈ বেশি হয়, পাকিস্তান বা নাইজেরিয়া তে নয়। পছন্দ না হলে কাগজ না পড়লেই তো হয়।
  • dd | 59.207.56.179 | ০৩ ডিসেম্বর ২০১৭ ০৮:৪৯371432
  • আজকের কালকের মেইন লাইন বাংলা কাগজে - আনন্দবাজার, এই সময় আর ইংরেজীতে টাইম্স অব ইন্ডিয়ায় - সব যায়্গাতেই জি ডি বিরলা স্কুলের নাম পরিষ্কার করে দেওয়া আছে।

    এই ধরনের কাঁচা মিথ্যা ট্রোলিং অরে লাভটা কী ?
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লুকিয়ে না থেকে মতামত দিন