• খেরোর খাতা

  • মোবাইল ব্যাংকিং

    Alam Rahman লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১০২ বার পঠিত
  • জামিল খুব মনোযোগ দিয়ে অফিসের কাজ করছে, বৃহস্পতিবার যত তাড়াতাড়ি কাজ শেষ করা যায়, উইকেন্ড বলে কথা। আজ বাসায় গিয়ে ফ্রেশ হয়ে তনুজাকে নিয়ে এলাকার জনপ্রিয় কফিশপে গিয়ে একটা ভালো সময় কাটাবে।এর মধ্যে জামিলের মোবাইলে কল আসে, পরিচিত ছোটভাই বুলু ফোন করেছে, জামিল ফোন রিসিভ করে ।

    জামিল: হেলো বুলু কি খবর তোমার।
    বুলু: ভাই ভালো আছি তোমার কি খবর, অনেকদিন দেখা নাই।
    জামিল: এইতো ভালো আছি, তোমার বন্ধুরা সবাই কেমন আছে। সবাই একসাথে আড্ডা দাও কোথায়?
    বুলু: হ্যাঁ ভাই, আমরা সবাই ভালো আছি, আমরা সবাই এখন মন্দিরের পেছনে বসি, মফিজের দোকানে চা খাই, আপনি তো আজকাল আসেন না।
    জামিল: হ্যাঁ, আজকাল বেশ ভালোই ব্যস্ত থাকি, তারপর তোমার ভাবি যেহেতু বাসায় একা থাকে তাই অফিস শেষ করে বাসায় চলে যাই।
    বুলু: ভাই কি খুব ব্যস্ত? একটা কথা বলা যাবে?
    জামিল: নাহ খুব ব্যস্ত না, বলো কিছু বলবে?
    বুলু: না ভাই মানে হঠাৎ একটু ঝামেলায় পরে গেছি, মানে হাজার পাঁচেক টাকা খুব দরকার হয়ে পড়েছে।
    জামিল: ওহ, তো হঠাৎ এত টাকাতো আমার কাছে নাই ভাই, আমি তো তেমন কোন উপকার করতে পারছিনা ভাই।
    বুলু: ভাই খুবই বিপদে পড়েছি, আপনি প্লিজ একটু হেল্প করেন, আপনার অফিস থেকে যোগাড় করে হলেও আমাকে এই হেল্পটা করেন।
    জামিল: অফিসের লোকেরাও তো আমার মতই এত টাকা কেউ সাথে রাখেনা, আচ্ছা দাঁড়াও আমি দেখি কি করা যায়।
    বুলু: ভাই প্লিজ একটু দেখেন।

    একটু পর জামিল নিজের কাছে এক হাজার ছিলো আর এক কলিগের কাছ থেকে এক হাজার টাকা হাওলাত করে বুলুকে কল দেয়,

    বুলু: হ্যালো ভাই
    জামিল: বুলু আমি অনেক কষ্টে দুই হাজার টাকা যোগাড় করেছি, এটা আমি তোমার জন্য করতে পারবো, এখন বলো কিভাবে নিবে?
    বুলু: ওহ, ইটস ওকে ভাই আমি দেখি বাকিটা অন্য ভাবে ম্যানেজ করা যায় কিনা, আমি আপনাকে একটা বিকাশ নাম্বার পাঠাচ্ছি ওই নাম্বারে একটু পাঠিয়ে দিয়েন ভাই।
    জামিল: ওকে নাম্বার পাঠাও আমি আমার অফিসের লোক দিয়ে টাকা বিকাশ করে দিচ্ছি।
    বুলু: ওকে ভাই, থ্যাংকস

    একটু পর জামিলের নাম্বারে একটা অচেনা নাম্বার থেকে ফোন আসে,

    জামিল: হেলো।
    ওপাশ থেকে : হেলো, আপনি কি জামিল ভাই।
    জামিল: হ্যাঁ, জামিল বলছি, আপনি কে?
    ওপাশ থেকে: আমারে আপনি চিনবেন না, বুলু ভাই আপনার নাম্বার দিছে আপনি নাকি দুই হাজার টাকা বিকাশ করবেন?
    জামিল: হ্যাঁ, কিন্তু আপনার নাম কি আর কোন নাম্বারে দিবো?

    জামিল নিজের কাজ ফেলে আবার বুলুকে ফোন করে,

    বুলু: হ্যালো ভাই
    জামিল: বুলু তুমি নাম্বার তো পাঠালে না, একজন ফোন করে তোমার কথা বললো।
    বুলু: ওহ সরি ভাই, আমি বলতে ভুলে গেছিলাম, হ্যাঁ ও আমার লোক ও যে নাম্বার দেয় ওটাতে পাঠিয়ে দিতে বলেন, ঠিক আছে ভাই।
    জামিল: ওকে ঠিক আছে।

    এরপর ওই অচেনা নাম্বার থেকে আবার ফোন আসে।

    জামিল: হেলো, কে?
    ওপাশ থেকে: ভাই আমি বুলু ভাইয়ের লোক, আপনি একটা নাম্বার লেখেন।

    তারপর একটা নাম্বার দিলো এবং জামিল সেই নাম্বার আর দুই হাজার টাকা দিয়ে তার অফিসের একজন লোককে পাঠালো এরপর কাজে মনোযোগ দিলো।
    একটু পর জামিলের মোবাইলে তার অফিসের লোকের ফোন,

    জামিল: হেলো মুন্না বলো।
    মুন্না: স্যার আমি ঐ নাম্বারে দুই হাজার টাকা পাঠিয়ে দিয়েছি একটু চেক করতে বলেন, লাস্ট নাম্বার 986।

    জামিল তারপর বুলুকে ফোন করে

    বুলু: হেলো ভাই।
    জামিল: বুলু তোমার ঐ নাম্বারে দুই হাজার টাকা পাঠিয়ে দিয়েছি, তুমি একটু চেক করে জানাও।
    বুলু: ওকে ভাই আমি এখনই জানাচ্ছি বলে ফোন রাখে।

    জামিল আবার কাজে মনোযোগ দেয়, এবং পনেরো বিশ মিনিট পর অফিসের লোকের ফোন

    জামিল: হেলো মুন্না বলো।
    মুন্না: স্যার আমিতো এখনো বিকাশের দোকানে দাঁড়িয়ে আছি, টাকাটা পেলো কিনা চেক করে জানান।

    জামিলের মনে পড়ে যে বুলু জানাচ্ছি বলে আর কল দেয় নি, তাই বুলুকে ফোন দেয়, এবং মনে মনে খুবই অস্বস্তি হয় যে নিজের অফিসের একটা লোক ওখানে অপেক্ষা করছে, এবং এটা জামিলের ব্যক্তিগত কাজে, অনেক্ষণ পর বুলু ফোন ধরে।

    বুলু: হেলো ভাই, আমি জানার চেষ্টা করতেসি যে টাকাটা ঢুকলো কিনা, কিন্তু আমার লোকটাকে ফোনে পাচ্ছি না, ও ফোন ধরতেছে না ভাই, আমি আপনাকে এখনই জানাচ্ছি।
    জামিল: আরে ভাই আমার অফিসের লোক প্রায় এক ঘণ্টা ধরে এই কাজে আটকে আছে জলদি জানাও।

    জামিলের মেজাজ খারাপ হয়ে যায় এর মধ্যে আবার মুন্নার ফোন

    জামিল: হেলো মুন্না, আর পাঁচ মিনিট অপেক্ষা করো।
    মুন্না: স্যার আমার অফিসে অনেক কাজ বাকি, আজকে বৃহস্পতিবার, এমডি স্যারের ও একটা কাজ শেষ করতে হবে।

    জামিল আবার বুলুকে কল দেয়, বুলু ধরে না, জামিলের মেজাজ আরো খারাপ হয়ে যায়, কেন যে এই উপকার করতে গেছিলাম, নিজের টাকা দিয়ে যন্ত্রণা কেনা হয়ে যাচ্ছে।

    এই মধ্যে আবার মুন্নার ফোন,

    জামিল: মুন্না তুমি না হয় চলে আসো, ওই দোকানদারের নাম্বারটা নিয়ে এসো দেখি কি করা যায়।
    মুন্না: স্যার এই দোকানদার একটু পর দোকান বন্ধ করে চাঁদপুর চলে যাবে, আমি ওনার নাম্বার এনে আপনাকে দিতেছি, টাকা গেল কিনা আমি আর জানি না স্যার, আমি আর এখানে থাকতে পারবো না।
    জামিল: ওকে, তুমি চলে আসো।

    তারপর আবার বুলুর নাম্বারে ফোন দেয়, বুলু রিসিভ করে না, তারপর জামিল ওর নাম্বারে একটা মেসেজ দিয়ে রাখে এবং অফিসের আর কোন কাজ না করেই বের হবার সময় হয়, বৃহস্পতিবার বিকালে খালি পকেটে বাসায় যায়।

    রাত আটটার দিকে বুলু মেসেজের রিপ্লাই দেয়,
    - ভাই সো সরি ফর মাই লেট রিপ্লাই, আই গট ১৯৬০ টাকা, থ্যাঙ্ক ইউ ভেরি মাচ।
  • বিভাগ : অন্যান্য | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১০২ বার পঠিত
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ঝপাঝপ মতামত দিন