• খেরোর খাতা

  • লীলা মজুমদারের সুকুমার 

    Dibyendu Singha Roy লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৫ অক্টোবর ২০২০ | ৭৫ বার পঠিত
  • জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
  • লেখকদের যেমন রাইটার্স ব্লক হয় পাঠকদের তেমন হয় কি? কখনো এমন সময় আসে যখন পড়তে ইচ্ছা করে তবে পড়ে কিছুতেই সেই আমেজটা পাওয়া যায়না। বোধয় বেশ কিছু দিন ধরে গম্ভীর, সিরিয়াস লেখা পড়ে পড়ে মগজে একটা আস্তরণ পড়ে যায়। তাতে মৃদু তরঙ্গ ওঠে ঠিকই কিন্তু কিছুতেই ঢেউ খেলেনা । বহুদিন ধরে মৃদু অনুরণন রেখে যাওয়ার পাশাপাশি এমন লেখাও পড়া দরকার যা হঠাৎ বেশ কাঁপিয়ে দিতে পারে আবার তার রেশও রেখে যেতে পারে বেশ কিছুদিন। সেই কারণেই সুকুমার সমগ্র কিনলাম দিন কতক আগে। এ এমন এক সম্পদ যা সার্বজনীন, সর্বকালীন। পুরনো হয়না কিছুতেই। বারবার পড়েও তাই আবার পড়ার ইচ্ছা হয়। যেটুকু পড়েছি তা পুনরায় শুরুর আগে এবারে ভাবলাম সুকুমারের জীবন নিয়ে কিছু পড়ার পরে যদি শুরু করাযায় তবে হইত লেখাগুলোই নতুনকরে কিছু উপলব্ধি হবে। এই ভাবনা থেকেই লীলা মজুমদারের লেখা পশ্চিমবঙ্গ বাংলা আকাদেমির থেকে প্রকাশিত সুকুমার রায়ের জীবনী শুরু করেছিলাম। জীবনী এর আগে অনেক পড়েছি। কিছু ভূমিকার পর জন্ম দিয়ে যার শুরু । মাঝে নানা ঘটনা, জীবনের সম্ভাবনা, সাফল্য, কাজ নিয়ে অল্পবিস্তর আলোচনার পর মৃত্যুতে সে বইয়ের শেষ। জীবনী গ্রন্থ যদি বেশ মোটা হয় তবে তাতে আলোচনার পরিমাণ বেশি থাকে, ঘটনার ঘনঘটা থাকে পাতার পর পাতা। লেখকের লেখার গুনে তা পড়তেও যে খারাপ লাগে এমন নয় কিন্তু অনেক সময়েই তথ্য ভারে ভারাক্রান্ত মনে হয়। চার্লি চ্যাপলিনের প্রামাণ্য জীবনীর বাংলা অনুবাদ পড়ে তাই এতটাই গুমোট লেগেছিল যে লেখকের নামটাও মনে পড়েনা। ঠিক এই জায়গাতেই এই জীবনী ব্যতিক্রম। বহু ভাল ভাল, চিন্তা ভাবনায় ছাপ রেখে যাওয়া জীবনী পড়লেও এই ঘরানায় এমন রসোত্তীর্ণ লেখা জীবনে পড়িনি। সুকুমারের বংশের ইতিহাস দিয়ে এই লেখার শুরু। উপেন্দ্রকিশোর নিয়ে বেশ কিছু কথা বলে যখন বইয়ের পাতায় সুকুমারের জন্ম থেকে মধ্য যৌবনে অকস্মাৎ ছেদের সময়ে পৌছালাম ও অসীম সম্ভাবনাময় এক দুবছরের শিশুর কথা বলে যখন এই বই শেষ হল তখন পুরুষানুক্রমে একটি পরিবারের মধ্যদিয়ে শক্তি, সংস্কৃতি, উৎকর্ষ, সম্ভাবনা, প্রতিভার প্রকাশ, বিকাশ ও প্রবাহ পরিলক্ষিত হল।তার সাথে উঠে এলো তৎকালীন কলকাতার একটি পারিবারিক ছবি । যে সচ্ছল পরিবার সেকালের বেশ প্রগতিশীল মানুষদের প্রতিনিধি যারা অন্নের জন্য হাপিত্যেশ করেনি, সরাসরি জাতীয়তাবাদী সহিংস বা অহিংস আন্দোলনেও জড়ায়নি, বাবুয়ানায় গা ভাসিয়ে দেয়নি অথচ অলক্ষ্যে বাংলা ও বাঙ্গালির কৃষ্টি'কে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে। বইটা পড়ে কোনো কোনো পাঠক অভিযোগ করতে পারেন এ ভক্তের দৃষ্টিভঙ্গিতে লেখা বই। কিন্তু সর্বকালের প্রায় সকল জীবনীকারই নৈর্ব্যক্তিক লেখার বদলে জীবনীতে কিছুটা হলেও ভালো ভালো কথাই লিখেছেন । তুল্যমূল্য বিচার করার কাজটি বোধয় সমালোচক প্রাবন্ধিকদের। সে কথা যে আমারও একবারেই মনে হয়নি তাও নয় আবার রসরচনার বাইরে সুকুমারের অন্যান্য লেখাগুলোর সমালোচনা যে খুব কোমল হয়নি সেও দেখেছি। মাত্র ৩৫ বছর ১০ মাস ১০দিন বয়সে সুকুমার রায় ইহজগৎ পরিত্যাগ করেন । বইটা পড়ে আফসোস হয়েছে আহা যদি আরও কিছুদিন বাংলা সাহিত্যে তাঁকে পাওয়া যেত ।
    সুকুমার
    লীলা মজুমদার
    প্রচ্ছদ : পূর্ণেন্দু পত্রী
    পশ্চিমবঙ্গ বাংলা আকাদেমি
    প্যাপেরব্যাক
    মুদ্রিত মূল্য ১০০ টাকা
  • ১৫ অক্টোবর ২০২০ | ৭৫ বার পঠিত
আরও পড়ুন
কবিতা - Mahua Dasgupta
আরও পড়ুন
Confused - Saurav Misra
আরও পড়ুন
চন্ডাল - Gourab Gupta
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যুদ্ধ চেয়ে প্রতিক্রিয়া দিন