• টইপত্তর  অন্যান্য

  • সর্ষেবাটা মোচাকাটা চিতলের মুইঠ্যা ইত্যাদি ইত্যাদি (২)

    Ishan
    অন্যান্য | ০৬ নভেম্বর ২০০৬ | ৮৯৯৯ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • a x | 143.111.22.23 | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ২৩:০৮695029
  • মাঝখানটা নরম হয়েছিল? অনেকে নাকি প্রেশার কুকারে রসোগোল্লা বানায়। আর কমলাভোগ কমলার খোসা দিয়ে হবেনা? মানে অল্প একটু মিশিয়ে?
  • tkn | 122.163.77.32 | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ২৩:২৪695030
  • প্রেশারকুকারের রসগোল্লা খেয়েছিলাম এক বন্ধুর বাড়িতে। কেমন ছানা রসে ফেলা মত খেতে।
    কমলাভোগে বোধহয় একটু কমলার রস দিতে হয় গন্ধটা আনার জন্য।
  • pi | 128.128.250.98 | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ২৩:২৮695032
  • আরে না না। কমলার খোসা, রস অত কিছু লাগে না তো। ছাঁকার কাপড় টা একটা নতুন আকাচা পুরীর গেরুয়া গামছা হলেই চলবে।
  • d | 117.195.33.21 | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ২৩:২৮695031
  • আমার এক দিদি একবার বলেছিল "কিরে ভাই সব বাঙালী মেয়েগুলো আমেরিকায় গেলেই এমন ময়রা হয়ে যায় কী করে এবং কেন? সবাই শুনি খালি রসগোল্লা, পান্তুয়া এইসব বানায়। অথচ দেশে থাকতে অনেকে তো খেয়েও দেখত না।'
    :))
    আজ হ্‌ঠাৎ মনে পড়ল।
  • tkn | 122.163.77.32 | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ২৩:৩৪695033
  • দ,
    আমি ওদেশে যাওয়ার ঠিক পরে পরেই একজন মহিলা আমায় জিগিয়েছিলেন "আপ রস্‌গুল্লেকা রেসিপি দেঙ্গে মুঝে?" শুনে আমি পুরো :-(((( । রসগোল্লা যে কেউ বাড়িতে বানাতে পারে এমন ধারণাই ছিল না আমার। তবে কালে কালে কত কিই শিখেছিলাম। চোদ্দোগুষ্টির বন্ধুদের নেমন্তন্ন করে খাওয়াতাম আর রাতে ডিশওয়াশার লোড করতে করতে ভাবতাম বাড়িতে মা বাবাকে কিচ্ছু রেঁধে খাওয়াই নি কখোনো। একবার ওয়ান্টন র‌্যাপ ভেজে তাতে আইসিং সুগার ছড়িয়ে জিবেগজা বানিয়ে এনেছিলাম এককৌটো কিন্তু টেম্পারেচারের উতার চড়াওতেই বোধহয় মুচমুচে ভাবটা ছিলনা তেমন।

    এখন কেমন সব কিছুই কিনি আর খাই, আহ্‌হ্‌হ্‌হ্‌হ্‌হ্‌হ্‌হ :-))))
  • tkn | 122.163.77.32 | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ২৩:৩৫695034
  • পুরীর গামছা অক্ষর কাছে থাকবে এটা ভাবিনি :-)
  • arjo | 168.26.215.13 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:০৫695035
  • সত্যি কথাটা বলেই দিই। এটা ঠিক পাড়ার ময়রার রসগোল্লার মতন হয় না। খানিকটা কলকাতার সফিস্টিকেটেড রসগোল্লার(কলকাতার রসগোল্লা বাজে) মতন হয়। অক্ষ ঠিকই বলেছে ঐ ভেতরটা ঠিক নরম হয় না। কিন্তু কলম্বাসের বাড়িতে তৈরি রসগোল্লায় অত কিছু ধরলে হবে না। ইন্ডিয়ান গ্রসারি স্টোর্সের টিনড রসগোল্লাকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মতন। যেকোন দিন, নইলে পয়সা ফেরত।
  • a x | 143.111.22.23 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:১৯695036
  • সেরেছে পুরীর আকাচা গামছায় কমলার গন্ধ থাকে নাকি?!

    দ, এবার তো আর্যকে দেখিয়ে বলতে পারবে, মেয়েরা না ছেলেরাও বানায়। আর ফুচকাও বানায়, আবার প্যানকেকও বানায়। বাড়ি থেকে বেরোলেই যখন পাওয়া যাচ্ছেনা বা বাড়িতে সর্বক্ষণ বেগার খাটা মা জিনিসটি যখন নেই, যস্মিন দেশে ইত্যাদি।
  • pi | 128.128.250.98 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:২১695037
  • খাইচে। গন্ধ কেন হতে যাবে ! :o
    কমলাভোগ কি কমলালেবুগন্ধী হয় নাকি ?

    রং ,রং ।
  • a x | 143.111.22.23 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:২২695039
  • ইনফ্যাক্ট পান্তুয়া যেমন পাওয়া যায় (মানে গুলাবজামুন, নট পান্তুয়া) সেরম রসোগোল্লা পাওয়া যায়না? মিক্স? দ্রি একটু যদি ব্যবসাটা মন দিয়ে করতেন, কত কি করার ছিল!
  • a x | 143.111.22.23 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:২৩695040
  • ওমা! কমলাভোগে তো কমলার গন্ধ হয়!
  • tkn | 122.163.77.32 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:২৫695041
  • অক্ষ,
    পুরীর গামছা আপনার ভোগে কমলা রং দেবে :-)
    আর, ঐ ভেতরটা নরম করার একটা টিপস দিই? প্রতিটি বল তৈরী করে মাঝে একটা ছোটো টোল ফেলুন, ওতে পারলে ছোট্টো একটুকরো ভাঙা সুগারকিউব দিন। একটা কিউবকে ৪ টুকরো করতেই পারেন, সেম সাইজ না হলেও চলবে। মোট কথা ছোটো একটুকরো চিনি দিন। এবার আর একবার বলটা বানিয়ে নিন। নরম হবে ভেতরটা। আর, ঐ ফোটানোর সময় অর্ধেক ফোটানোর পরে আধকাপ ঠান্ডা জল দিয়ে দিতে পারেন কড়াইতে। ফুটে উঠলে নামিয়ে নিন। আলাদা পাত্রে একটু মোটা রস বানাতে পারেন। রসগোল্লা হালকা রসে ফুটিয়ে তুলে মোটা রসে ফেললে বেটার স্বাদের হয়।
  • tkn | 122.163.77.32 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:২৭695042
  • আর, কমলার গন্ধের জন্য রেইনবো বা কাবফুডস বা বায়ার্লিজ (বা যে কোনো আপনার পাড়ার গ্রসারী)এর বেকিং সেকশন থেকে অরেঞ্জ আইসিং ফ্লেভার তুলুন, মিশিয়ে নিন।
  • a x | 143.111.22.23 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:৩১695043
  • থ্যান্‌কু তেকোনা, সব মনে মনে টুকে রাখলাম, তবে মনে হয়না এসব হবে। আমি হপ্তায় একবার রাঁধি সারা সপ্তা খাই :-) তবে বলা যায়না, কবে বাই উঠবে!
  • tkn | 122.163.77.32 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০১:৩৪695044
  • আর এই টিপসটা দিয়েই ঘুমোতে যাই -
    গ্রামের দিকে একধরণের ভারী নিরেট রসগোল্লা হয়। কলকাত্তাই স্পঞ্জী টাইপ না। সেটা চাইলে নিকটস্থ গ্রসারী থেকে কার্নেশন মিল্ক তুলুন। অল্প একটু কার্ণেশন মেশান ছানায়।

    আর যদি ছানার জিলিপি বা পান্তুয়া করেন তো বেশি কার্ণেশন দিয়ে ঘি দিয়ে বড় এলাচ দিয়ে মাখুন। নিজেই নিজের প্রেমে পড়বেন, পড়বেনই :-))
    ছানার জিলিপি বা পান্তুয়াতে যতটা ছানা, তার প্রায় অর্ধেক কার্ণেশন আর এক চামচ ময়দা দিয়ে মাখতে পারেন। মাখার সময় ঘি দেবেন, বড় এলাচের দানা বল বানানোর সময়ও দিতেই পারেন। দেশে বসে করতে হলে কার্ণেশনের জায়গায় আমূল স্প্রে (যেটা ছোটোরা খায়) সেটা দিয়ে রিপ্লেস করুন
  • Sudipta | 122.169.145.167 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১০:২৭695045
  • কেউ মুড়িঘন্ট র রেসিপি দিতে পারো? কাল পরশু-র মধ্যে দরকার।
  • tkn | 122.162.17.161 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৭:৩১695046
  • সুদীপ্ত

    চটজলদী মুড়িঘন্ট জানি একটা। লিখে দিচ্ছি

    ১।বড় মাছের মাথা ভালো করে ভেজে নাও।
    ২। ভাজা হতে হতে আলু (যতটা লাগবে তোমার) ছোটো ছোটো ডুমো করে কেটে নাও
    ৩। গোবিন্দভোগ চাল ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখো
    ৪। ভাজা হয়ে যাওয়া মাথা তুলে নাও কড়াই থেকে। যেটুকু তেল থাকবে ওটা আর ব্যবহার কোরো না। কড়াইতে দুচামচ তেল আর দু চামচ ঘি দাও। তেজপাতা, একটা গোটা শুকনো লঙ্কা আর অল্প দারচিনি ফোড়ন দাও।
    ৫। আলুগুলো ওর মধ্যে দিয়ে ভাজতে থাকো
    ৬। আলু একটু ভাজা হলে ওতে চালটা দিয়ে ভাজো। হলুদ দাও অল্প
    ৭। ভালো মত নেড়েচেড়ে এক চামচ আদাবাটা আর আধ চামচ ধনে গুঁড়ো দাও
    ৮। আরো দু চারবার খুন্তি চালিয়ে ওতে অল্প জল দিয়ে দাও
    ৯। মিনিট পাঁচ/সাত পরে ঢাকা খুলে দেখ প্রায় সেদ্ধ হয়ে এসেছে কিনা
    ১০। হলে ওতে মাছের মাথাটা ভেঙে ভেঙে দিয়ে দাও। গরম মশলা দাও।
    ১১। খুব অল্প জল দিয়ে ঢাকা দিয়ে দাও
    ১২। আরো মিনিট পাঁচ পরে ঢাকা খুলে দেখ সব কিছুই এ ওর সঙ্গে বেশ বন্ধুবান্ধি হয়ে মিশেছে কিনা।
    জল শুকিয়ে আসার কথা এখন। এবার ওতে অল্প একটু চিনি আর দু চামচ ঘি ছড়িয়ে নামিয়ে নাও
  • Arijit | 61.95.144.123 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৭:৪৭695047
  • রসগোল্লা বানাতে হলে সুগার কিউব দিতি পারো, নকুলদানাও দিতি পারো। কিন্তু জল ঝরানোর সময় ৯০% হল কিনা কি করে বুঝবে? আমি কিন্তু কোথাও পড়েছিলুম পুরো জল ঝরিয়ে নিতে হবে, আর রসগোল্লার সাথে অল্প একটু সুজি মেশাতে হবে - কতটা সুজি সেই মাপটা কোথাও পাইনি। মিষ্টির দোকানে একবার জিগ্গেস করবো।
  • arjo | 168.26.215.13 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৮:২৬695048
  • পুরো জল ঝরালে সে রসগোল্লা প্রায় গুলির মতন হয়েছিল। এক দুই পার্সেন্ট এদিক ওদিক হলে অসুবিধা হবে না।:) মোদ্দা কথা ১০০% জল ঝরিয়ে নিলে গুলি তৈরি হবে।
  • tkn | 122.162.17.161 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৮:৪৩695050
  • সুজি খুব খুব অল্প দিতে পারো, অথবা অল্প মিল্ক পাউডার। কলকাতায় মিষ্টির দোকানে বেশিরভাগই নাকি রসগোল্লায় চালগুঁড়ি দেয়, সুজি দেয় না। আমি আমাদের পাড়ার মিষ্টির দোকানে সুজির কথা জিগাতে এমন এক্‌খান দৃষ্টি কালেক্ট করেছিলাম যা ভুলি নাই :-)। সুজি এমনিতেও একটু শক্ত করে দেয় রসগোল্লা। হ্যাঁ পুরো জল ঝরে গেলে একটুও ফোলে না
  • M | 59.93.217.192 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৯:১১695051
  • আর ফুল্লেও একটা কথা মনে রাখতে হবে যে সেটা বেহায়ার মতো চুপসে যাবে নামানোর কিছু পড়েই, আর কিছু মেশাতে লাগেনা, কেবল টোনড দুধের ছানা থেকে করাটা চাপের, এবার পার্সেন্টেজ মনে রাখার চাপ না নিয়ে ঝাঁঝড়ি যারে কয় তাতে এট্টু চিপে চিপে খানিক জল বার করে নিয়ে যখন দেখবে বেশ খাশা নরম তুলতুলে লেচী বানাতে পাচ্ছো, তখন গরম রসে ছেড়ে দিলেই হয়, আর মিষ্টি ছাড়া রসো খেতে চাইলে শুধু গরম জলে ছেড়ে দিতে পারো, আর কল্লে কেমন হলো আমায় এট্টু বলে যাবে।
  • arjo | 168.26.215.13 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ২০:৫২695052
  • মিষ্টি ছাড়া রসোগোল্লা? মানে জলগোল্লা? চিকেন ছাড়া চিকেন স্যুপের মতন? (ডি: এট্টু এয়ার্কি মারলাম)
  • Sudipta | 122.169.145.167 | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ০৯:৩২695053
  • আচ্ছা টিকেন্দি কে একটা বড় করে থ্যাঙ্কু! আজ রাত্তিরে আমাদের বিশ্বকর্মা স্পেশাল, মুড়িঘন্ট :)
  • b | 203.199.255.110 | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৩:৩৫695054
  • এবারে আবিষ্কার করলাম যে আমার মসলার বাক্সে একটা রাঁধুনি-র প্যাকেট পড়ে আছে। আগে চোখে দেখিনি কখনো, তাই জোয়ান ভাবছিলাম।

    প্রশ্ন হল, ওটার অপ্টিমাল ব্যবহার কি?
  • tkn | 122.173.181.242 | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৩:৪০695055
  • ফোড়ন। তাছাড়া মাছের প্রিপারেশনে খুব অল্প গুঁড়ো দিলেও সুন্দর একটা গন্ধ আসবে। বাকি ধনে জিরে ইত্যাদির সঙ্গে দিতে হয়।
    ফোড়ন হিসেবে ডালে বেশ ভালো। বেশি থাকলে পাঁচফোড়নে মিশিয়ে নিতে পারেন
  • M | 59.93.204.170 | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৬:৩৩695056
  • হুম, ঐ ডায়াবেটিস ওয়ালাদের জন্য!!!!
  • A | 99.183.185.250 | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৭:৩৪695057
  • tkn এর রেইনবো, কাব ফুডস, বায়ার্লিজ দেখে মনে পড়লো-- হাম লোগ ভি কভি পড়োসি থে...যানে কঁহা গয়া য়োহ দিন :(
  • A | 99.183.185.250 | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৭:৩৯695058
  • রাঁধুনি, শুকনো লংকা ফোড়ন দিয়ে মুসুর ডাইল রাঁধুন, সঙ্গে এক থাবা আলু সেদ্ধ মাখা আর ঘি। তোফা তোফা করে খাবেন।
    শুক্তো তেও রাঁধুনি ফোড়ন চলে।
  • P | 163.244.62.138 | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৭:৪৬695059
  • আরে রাঁধুনি তো ক্লাসিক শুক্তোর উপকরণ। ঝিরিঝিরি করে কাটা সব্জীতে সর্ষে দেওয়া বাঙ্গাল শুক্তো নয় , পাঁচমেশালী সব্জী ডুমো ডুমো কাটে হাল্কা ঝোলের থকথকে সাদাটেবরণ অকৃত্রিম শুক্তোর গন্ধ আনতে চাইলে শুকনো-কড়াতে-ভাজা-রাঁধুনি গুঁড়ো ছাড়া গতি নাই।
  • tkn | 122.173.181.242 | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯ ১৭:৫৪695061
  • ও হ্যাঁ, এটা ভুলে গেসলুম। আমাদের বাড়িতে ঐ শুক্তোতে দুধও দেওয়া হয়..

    যা বলেছিস A
    ও ভি ক্যা দিন থে :-(((((((
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভ্যাবাচ্যাকা না খেয়ে মতামত দিন