• টইপত্তর  অন্যান্য

  • আনন্দবাজার ও ভারতের প্রতিরক্ষাবাহিনী

    Abhyu
    অন্যান্য | ০৮ জানুয়ারি ২০১৬ | ৩৩৪৫ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Ekak | 53.224.129.42 | ৩০ মে ২০১৬ ০৩:০৪689039
  • চীন এর সঙ্গে একটা হালকা করে লাগবে অনেকদিন ধরেই মনে হচ্ছে । একগুচ্ছ ইম্পোর্ট ব্যান করেছে । ইলেক্ট্রনিক -মোবাইল ফোন -ডেয়ারী-স্টিল লম্বা লিস্ট। আর ইন্টারনালি ,মোদী সরকার আসার পর থেকেই গভট সাপ্লাই তে চায়নার মাল বাতিল । খোঁচাখুঁচি করতে করতে যদি এইবছর এর শেষ নাগাদ হুরুদ্দুর করে একটা যুধ্ধু লেগে যায় তাহলে মোদী আবার ইকনমি চাগিয়ে তোলার অক্সিজেন বেয়ে যাবে ।
  • avi | 37.63.181.131 | ৩০ মে ২০১৬ ১৪:০৪689040
  • কিন্তু এই যুদ্ধটা কি কার্গিলের মতো হবে? মানে যুদ্ধটা কি একটা রেজাল্টের দিকে যাবে? তা হলে তো ভারতের চাপও হয়ে যেতে পারে। আর চীনেরই বা কী দায় পড়েছে ভারতের চাহিদা আর প্রয়োজনমতো যুদ্ধে জড়াবার?
  • Ekak | 53.224.129.42 | ৩০ মে ২০১৬ ১৪:৩২689041
  • চিনের এক্সপোর্ট অলরেডি চ্যালেঞ্জ এর মুখে পড়ছে । মোদী চাইছে একটা হেড আই উইন টেল ইউ লস পরিস্থিতি খাড়া করতে । একনাগারে একটার পর একটা চাইনিস প্রডাক্ট লাইন ব্যান করে দেওয়া মানে অবস্থা বুঝতে পারছেন ? আরেকটা বড় ব্যাপার হলো , এইযে চিনিস প্রডাক্ট বলতেই সাধারণ মানুষ রিটেইল সেক্টরের খুচরো জিনিস ভাবে তা কিন্তু নয় , চীন গত কয়েক বছরে হেভি ইঞ্জিনিয়ারিং এও জায়গা করে নিচ্ছিল । এবার সরকারী ভাবে ব্যান করা মানে স্মাগলিং এর রাস্তা খোলা থাকলেও হেভি ইঞ্জিনিয়ারিং এর রাস্তা পুরো বন্ধ । এটা চীনের কাছে একটা বড় ধাক্কা ! কাজেই চীন সীমান্ত এলাকা দিয়ে খোঁচাখুঁচি করবে এত খুবই স্বাভাবিক । সেটা মোদীর কাছেই আবার চীন যুদ্ধ লাগাবার সুযোগ করে দেবে । আর চীন যুদ্ধ মানে দেশ শুধ্দু লোককে একসঙ্গে ন্যাসনালিস্ম আর এন্টি কমিউনিস্ট এই দুটো দিক দিয়ে একত্র করা ....ড্রীম সিচুএশন যাকে বলে :)

    খুব খারাপ কি হতে পারে ? কিছু সেনা মরবে , কিছু জাহাজ -মিসাইল এর টেস্টিং হয়ে যাবে সে সুযোগে । ব্যাস । কিন্তু ফায়দা যেটা হবে সেটা অনেক অনেক বেশি । দেশ এর লোককে খেপিয়ে একটা ছাতার তলায় আনা যাবে , মার্কেট অকুপেশন আর ন্যাসনালিস্ম মকটেল করতে পারলে শেয়ার বাজার চাঙ্গা হবে । মোদী নেক্সট ভোট হাসতে হাসতে পেরিয়ে যাবে । হারা -যেটা এখানে বড় ফ্যাক্টর হবেনা ।
  • অভি | 37.63.181.131 | ৩০ মে ২০১৬ ১৪:৪২689042
  • মানে এসব যদি ৬২র মতই হয়। ওই সময়েও সম্ভবত এই সুবিধেগুলোই পাওয়া গিয়েছিল। কিন্তু যুদ্ধটা যদি দু তিন সপ্তাহে শেষ না হয়ে লম্বা সফর করে? ভারতের তখনো কি উইন উইন সিচুয়েশন থাকছে? কাশ্মীর বা অরুণাচল হাত থেকে বেরিয়ে গেলেও? এবার মাথার ওপর সোভিয়েত ব্লক, কিউবান ক্রাইসিস কেউই নেই, ভারত চীন নিজেরাই এক এক পরাশক্তি। আমেরিকা আদৌ সামলানোর চেষ্টা করবে? ট্রাম্প বা পুতিন?
  • Ekak | 53.224.129.42 | ৩০ মে ২০১৬ ১৪:৫৯689043
  • এই যুধ্ধু টা ঠিক কবে নাগাদ শুরু হবে এবং কদ্দিন ধরে চলবে সেটা ইকনমিক্স এর লোকেরা প্রেডিক্ট করতে পারবেন কারণ ওনাদের কাছে ডেটা আছে । কিরকম কন্ডিশনে শুরু হবে সেটুকু আমরা বুঝতে পারি বড়জোর । এই যে ইকনমির বেলুনটা মোদী ফুলিয়েছে এটা যদ্দিন ফোলা অবস্থায় থাকবে তদ্দিন গরম গরম খবর হবে কিন্তু কোনো এটাক হবেনা এটলিস্ট ইন্ডিয়ার দিক থেকে । যেই ঝাড় খেতে শুরু করবে অমনি যুধ্ধু । কদিন ধরে চলবে সেটাও শেয়ার বাজার বলবে । আধুনিক যুদ্ধের অস্ত্র তো শুধু বম্ব -মিসাইল না । ডেটা- এনালিতিক্স -মার্কেট সব মাথায় রেখে যুধ্ধু । অরুনাচল বলুন বা কাশ্মীর এগুলো জাস্ট প্লে গ্রাউন্ড । একচুয়াল জমি দখলের লড়াই টা রাজনীতি তে । ভারত -চীন যুদ্ধ সামনে রেখে অতি বাম উত্থানকে জাস্ট ধুলোয় মিশিয়ে দেওয়া যাবে , একাদেমিয়ার দখল নেওয়া যাবে , এগুলো অনেক বড় লাভ । সে করতে গিয়ে যদি কোনো ন্যাড়া পাহাড়ের মাথায় কয়েক বর্গ মাইল জমি খোয়াতে হয় , নট আ ব্যাড ডীল :)
  • অভি | 37.63.183.155 | ৩০ মে ২০১৬ ১৫:৩৭689045
  • বেশ, বুঝলাম। :)
    শুধু গুটিকয় খটকা।
    এক, যুদ্ধে যদি জড়িয়েই পড়ে, চীনও নিশ্চয় চাইবে তার জন্য উইন উইন ফলাফল বের করতে। এখন, চীনের ভেতরের গল্প তেমন জানি না, কিন্তু ওখানে সম্ভবত প্র-ভারত কোনো আইডিওলজিকে ওভারপাওয়ার করার অ্যাজেন্ডা নেই। তাহলে চীনের ট্যাঞ্জিবল লাভ কোন কোন অবস্থায় হতে পারে? এখানে যদি ধরে নিই, সামরিক বিচারে চীন জেতার জায়গায় যেতে পারে, তাহলে শুধু কিছুটা ন্যাড়া পাহাড় নিয়ে দাঁড়িয়ে যেতে পারে একমাত্র ভারত যা কিছু ব্যান বসিয়েছে, সব তুলে আরো কিছু দরজা খুলে দিলেই, নইলে আসামের কিছুটা নিয়ে একটা বাংলাদেশ করিডর বানাতে পারলে বা আন্দামানের কন্ট্রোল পেলে চীনের হাতে খারাপ অপশন আসবে না। কিন্তু মোদী এট অলের কি তাতেও উইন উইন?
    দুই, নেহরুর রাজনৈতিক অ্যাম্বিশন থাকতেই পারে সম্ভাব্য বাম উত্থান আটকানো। ১৬তে মোদী কি সেটা ফলো করলেই বিপন্মুক্ত হবে? এক তো এখন ওরকম বিশ্বজোড়া বাম ভাবধারার কোনো গল্প নেই, খুব জোরালো ভক্ত ছাড়া বাকিরা বাম আক্রমণ নিয়ে অত বদারড না। দুই, এতে করে জাতীয় কংগ্রেসের প্রাসঙ্গিকতা অবশ্যম্ভাবী, তা সে মোদী প্রচারকেরা যতই বাম ও কংগ্রেসকে এক ব্র‍্যাকেটে ফেলার চেষ্টা করুক। বিশেষত যদি যুদ্ধের সামরিক ফলাফল ভারতের উল্টোদিকে যেতে থাকে।
    তিন, যদি যুদ্ধের ফলাফল ভারতের দিকে আসে। সামরিক দিক থেকে সম্ভাবনা শূণ্য। কূটনৈতিকভাবে হতে পারে যদি জাপান, রুশ, ইরান এবং আমেরিকা সক্রিয় সাহায্য করে। প্রায় সোনার পাথরবাটি ধরনের উচ্চাশা। বিশ্বযুদ্ধ করতে কেউ আসবে না, বরং যা শত্রু পরে পরে বলে পাঁচিলে বসে দেখতে পারে, সমরখন্দে (নাকি তাশখন্দে) ডাকতেও হয়তো যাবে না। দুপক্ষেরই কিছুটা করে শক্তিহ্রাস হলে সবার সুবিধে।
    চার, একমাত্র সুবিধা হবে, যদি ১৯ নির্বাচনের ঠিক আগে শুরু করা যায়। বেদম হয়ে পড়ার আগেই যদি নির্বাচন মিটে যায়। তাহলেই একমাত্র দেশাত্মবোধক হাওয়ায় নৌকো পাল তুলতে পারে। কিন্তু তার টাইমিং, জল কোন সময় কতটা ঘোলা হলে অপ্টিমাম হবে - এসব অনুমান করতে হবে। হিসেবের এদিক ওদিক হলেই নৌকো উল্টে একগলা। ডিফেন্স নিউজের হিসেব অনুযায়ী ভারতের একটানা ৪ সপ্তাহের বেশি ইন্টেন্স যুদ্ধের অ্যামুনিশন নেই। তেমন বুঝলে এমারজেন্সি নামাতে পারে, কিন্তু তার রিস্কও কম নয়। ভেতরে দাঙ্গা, বাইরে যুদ্ধ - এত ঝক্কি পোয়াবে?
  • DP | 117.167.106.87 | ০৮ জুন ২০১৬ ১৭:৫৬689048
  • ভারত চীন যুদ্ধ মানে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বেধে যাওয়া। ভারতকে আমেরিকা সাহায্য করতে বাধ্য কারন তা না হলে চীন অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠবে। ওদিকে জাপান ও দঃ কোরিয়াও মরীয়া হয়ে চীনকে আটকাতে চাইবে। সেক্ষেত্রে আমেরিকা আরও বেশী বাধ্য। ওদিকে ভারত গেল মানে ইরান পুরোপুটি চীনের দিকে ঝুকবে। আর সেক্ষেত্রে মধ্যপ্রাচ্যে তেল বাঁচানো দায় হয়ে পড়বে। অন্যদিকে রাশিয়া সরাসরী যুদ্ধে জড়াবেনা। কারন সেক্ষেত্রে চীনের কাছে তার প্রয়োজন কমবে। বরং গ্যালারীতে বসে ফায়দা তুলবে। এবং ইরান, আসাদ, এদের মদত দেবে। ফলে মেডিটেরিয়ান ট্রেড রুট ও সুয়োজ ক্যানেল বাঁচাতে হয় ইওরোপকে যুদ্ধ করতে হবে, নয়ত রাশিয়াকে ওয়াকওভার দিতে হবে। বলা যায় লাতিন আমেরিকা ও আফ্রিকার দক্ষিনের কিছু দেশ ছাড়া সবাই যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে। এবার এতবড় ঝুঁকি কি চট করে কেউ নেবে? ওই বড়জোর দু একটা বর্ডার স্কারমিস হবে। যেমন পাকিস্তানের সাথে হয়। আর গরম গরম বক্তিমে ঝাড়া হবে একটু
  • S | 108.127.180.11 | ০৮ জুন ২০১৬ ২২:২১689049
  • ভারত চীন যুদ্ধ না হওয়ার অন্য কারণ আছে। আজকে এই দুটি দেশ ব্যান্কিঙ্গ পার্টনার। ফলে কনফ্লিক্ট আস্তে আস্তে কমবে বলেই মনে হয়।
  • Abhyu | 138.192.7.51 | ১০ জুন ২০১৬ ০২:৩৯689051
  • ভারতের অ্যান্টি-মিসাইল নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করল পাকিস্তান
  • অভি | 113.24.86.24 | ১৭ জুন ২০১৬ ২১:৩৫689054
  • আহা এ তো মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিবেদন। কংগ্রেসের কথা একদম বিশ্বাস করবেন না। মার্কিন বিজেপি কী বলে দেখুন।
  • Abhyu | 59.248.228.38 | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬ ০০:৩৫689057
  • রাফালের সঙ্গে মিটিওর কিনছে ভারত, অনেকটা পিছিয়ে পড়তে পারে চিন

    http://www.anandabazar.com/national/india-to-buy-a-missile-along-with-rafale-which-could-be-a-game-changer-in-asian-sky-dgtl-1.478404

    "ফ্রান্সের সঙ্গে এমন এক চুক্তিতে যাচ্ছে ভারত, যাতে অনেকটা বদলে যেতে পারে এশিয়ার সামরিক ভারসাম্যের ছবিটা। রাফাল যুদ্ধবিমান কেনার বিষয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে যে ভারতের দীর্ঘ আলোচনা আর দর কষাকষি চলছে, তা কারও অজানা নয়। কিন্তু শুধু রাফাল যে নয়, সঙ্গে যে আরও এক মোড় ঘুরিয়ে দেওয়া অস্ত্রও কিনতে চলেছে ভারত, তা এত দিন প্রকাশ্যে আসেনি। রাফাল থেকে নিক্ষেপযোগ্য ‘মিটিওর’ ক্ষেপণাস্ত্র কেনার চুক্তিও একই সঙ্গে সেরে ফেলতে চলেছে ভারত। রাফাল-মিটিওর-এর যুগলবন্দি নাকি ভারতীয় বায়ুসেনাকে চিনা বিমানবাহিনীর থেকেও অনেকটা এগিয়ে দেবে, বলছেন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা।
    ...
    পাক বিমান বাহিনী এমনিতেই ভারতীয় বায়ুসেনার সক্ষমতার চেয়ে অনেকটা পিছিয়ে পড়েছে। এশিয়া মহাদেশে একমাত্র চিনা বিমানবাহিনীই ভারতীয় বায়ুসেনাকে কঠিন পরিস্থিতির মুখে ঠেলতে পারে। কিন্তু ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান এবং তার সঙ্গে মিটিওর ক্ষেপণাস্ত্র ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে এলে, চিনকেও যথেষ্ট চাপে পড়তে হবে। এয়ার সুপ্রিম্যাসি বা আকাশে প্রতিপক্ষকে টেক্কা দিয়ে আধিপত্য কায়েম করতে রাফাল এমনিতেই অত্যন্ত পারদর্শী। সঙ্গে মিটিওর ক্ষেপণাস্ত্র থাকলে ভারতের রাফাল স্কোয়াড্রনের মুখোমুখি হওয়া চিনা বিমানবাহিনীর পক্ষেও খুব কঠিন হয়ে যাবে।"
  • Abhyu | 208.137.20.25 | ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৬ ০৩:৩৩689058
  • আকাশসীমার সুরক্ষায় বড় সাফল্য, নির্ভুল আঘাত হানল বারাক-৮
    http://www.anandabazar.com/national/big-success-in-air-defence-long-range-barak-8-hits-target-perfectly-dgtl-1.481453#

    "প্রতিপক্ষের চিন্তা আরও বাড়িয়ে দূরপাল্লার ভূমি-থেকে-আকাশ ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপন করল ভারত। ইজরায়েলের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে তৈরি এই বারাক-৮ ক্ষেপণাস্ত্র আকাশপথে আসা যে কোনও আক্রমণ রুখে দিতে সক্ষম। এমএফ-স্টার রাডারে বলীয়ান এই ক্ষেপণাস্ত্র কিছুটা স্বয়ংক্রিয় ভাবেই আঁচ পেয়ে যায় আকাশসীমার দিকে ধেয়ে আসা যে কোনও বিপদের। তার পর নির্ভুল আঘাত হেনে মাঝ আকাশেই ধ্বংস করে দেয় প্রতিপক্ষের ক্ষেপণাস্ত্র, যুদ্ধবিমান বা ড্রোনকে।
    ...
    বারাক-৮ শুধুমাত্র একটি ক্ষেপণাস্ত্র নয়। এটি একটি পুরোদস্তুর আকাশসীমা প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। এই ব্যবস্থায় রয়েছে মাল্টি ফাংশনাল সার্ভিল্যান্স অ্যান্ড থ্রেট অ্যালার্ট রাডার বা এমএফ-স্টার। "
  • | ২০ জুন ২০২০ ২১:২৮732254
  • অভি
  • avi | 2409:4061:2086:cd8:cf9a:1bf1:b84c:28db | ২১ জুন ২০২০ ০০:৫৯732256
  • আহ্হঃ, এটা কতদিন পরে দেখে নিশ্চিন্ত হলাম। এত অস্ত্রশস্ত্র, বন্ধুবান্ধব, ব্যবস্থাপনা চার বছর আগে থেকেই হয়ে আছে, আর আমরা বেকার গালওয়ান নিয়ে টেনশন করছিলাম! দেব মনে হয় এখন আর আসেন না, ওঁর বক্তব্য জানলে খুব ভালো লাগত।

  • π | ০৫ আগস্ট ২০২০ ০৯:৪৮732475
  • অভি, তুলে দিলাম।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা মনে চায় মতামত দিন