• টইপত্তর আলোচনা
  • MJAL (মনে যা আসে লেখো )

    একক
    বিভাগ : অন্যান্য | শুরু: ০৮ মে ২০১৫ | শেষ মন্তব্য: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৮১৩* বার পঠিত

  • comment? | 75.216.222.3 | ২৮ মে ২০১৫ ০০:০৭
  • সেকি লোকটাকে নাকচ-ই করে দিল? বাস্তব কি আর সিনেমার মত হয়?
  • comment | 213.132.214.155 | ২৮ মে ২০১৫ ১৪:২৯
  • ঘুম পেলেই ঘুমোবে।

    কারন হচ্ছে কবি বলে গেছেন "sleeping is the beauty of life"
  • comment | 213.132.214.155 | ২৮ মে ২০১৫ ১৪:৪১
  • এই গরমের সময় ছোটবেলার গরমের ছুটি টা বড় মিস করি।

    তখন ছুটি শুরু হলেই আমরা মামার বড়ি যেতাম। আমার মামার বাড়ি ছিল হুগলী জেলার এক প্রত্যন্ত গ্রামে। ট্রেনে তারকেশ্বর অবধি গিয়ে তারপরে বাসে করে যেতে হত।

    মামার বাড়ির অনেক আকর্ষন। প্রথম কথা পড়াশুনার কোন বালাই নেই। মা চেষ্টা করলেও মামা দের ধরে উদ্ধার পাওয়া যায়।দ্বিতীয়্তঃ বাড়ির পুকুরে ঘন্টার পর ঘন্টা কাটনো আর সাঁতার শেখার ব্যর্থ চেষ্টা। তারপরে মাঝে মাঝে বড়মামা বা ছোটমামার সঙ্গে মাছ ধরতে যাওয়া। নিঝুম দুপুরে ফাতনায় চোখ রেখে অনন্ত প্রতীক্ষা। আর মামাদের ছিল বেশ কয়েকটা আমগাছ। পেয়ারফুলি ,ল্যাংড়া ইত্যাদি ছিল। তবে স্মৃতিতে এখন ও তাজা বাড়ির ঠিক পাশে হিমসাগর আমের গাছ টা। তাতে যে কত আম হতো তার ইয়ত্তা নেই। ঝড়ে র সময় কখনো আম কুড়িয়েছেন? আহা কীসব দিন ছিল....
  • commentAbhyu | 118.85.88.75 | ২৯ মে ২০১৫ ১২:৪৯
  • অনেক কিছুর পরেও মনে হয় রবীন্দ্রসঙ্গীতই আমার সবচেয়ে ভালো লাগার জিনিস।
  • commentd | 144.159.168.72 | ২৯ মে ২০১৫ ১৪:৫২
  • ঘ্র্যাঁও ঘ্র্যাঁঅ্যাঁঅ্যাঁও ঘ্র্যাঁঅ্যাঁঅ্যাঁওওও`
  • commentsosen | 212.142.95.221 | ২৯ মে ২০১৫ ১৮:৪৩
  • ভাবি সুতো ছিঁড়ব। ভাবি জীবনে একবারের জন্য ভাবব না কারোর অসুস্থতা, কারোর অসভ্যতা,কারোর অসফলতার জন্য আমি-ই দায়ী। একদিন নিজের খুশির রাস্তায় হেঁটে যাবো পিছুটানহীন।
    পারি না। দায় নিতে নিতে একদিন নিজেই অসফল হই, নিজেই অসুস্থ হই, শেষ অব্দি পালানোর পথ খুঁজে পাই না। অথচ বেঁচে থাকা যে কি ভীষণ দরকার!
  • commentT | 24.139.128.15 | ২৯ মে ২০১৫ ১৯:৩৮
  • পাতা ঢেকে যায় প্রজাপতি
    ছায়া ঢাকে আবছায়া আলো
    শেষ ট্রেনে কেউ হাঁটে একা
    কেউ শেষ ট্রেনটা ফেরালো।
  • commentAtoz | 161.141.84.175 | ৩০ মে ২০১৫ ০৬:৩৮
  • কিছুই লিখতে পারি না। চারিদিকে সাদা দেওয়াল, উঁচু উঁচু দেওয়াল। দেওয়ালের উপরে সান্ত্রীরা ঘোরে, তাদের হাতে বন্দুক, চোখে লোহিতবর্ণ নিষেধাজ্ঞা।
  • commentkumu | 132.161.244.224 | ৩০ মে ২০১৫ ২০:১৫
  • "গাব্বুই গাব্বুর জন্য লিখে যায় গাব্বু-গাব্বু অসংখ্য কবিতা।
    গাব্বুই গাব্বুর সব ভাই-বন্ধু বড় বাবু মাতা কিংবা পিতা।
    গাব্বুর কিছুই নেই শুধু আছে গাব্বু গাব্বু অসংখ্য কবিতা।
    গাব্বুই গাব্বুর জন্যে রেখে যায় গাব্বু-গাব্বু অসংখ্য কবিতা।"

    তারাপদ রায়।
  • commentAbhyu | 118.85.88.75 | ০১ জুন ২০১৫ ১২:২৭
  • ডাঁশা লোকের এই কচি মনে দাগা পড়া আর নেওয়া যাচ্ছে না বাপু।
  • commentEkak | 24.99.134.194 | ০১ জুন ২০১৫ ২২:৪১
  • খানদুই ল্যাম্পপোস্ট উপ্রে জুড়ে নিলে ভালো ওয়াকিং স্টিক হতে পারে । ট্রান্সফরমার দেখলেই খুঁচিয়ে দাও ।
  • commentDiv0 | 132.172.250.217 | ০২ জুন ২০১৫ ০০:২৪
  • "I had to close down everything / I had to close down my mind
    Too many things could cut me / Too much can make me blind
    I've seen so much in so many places
    So many heartaches / So many faces
    So many dirty things / You couldn't even believe
    ...
    I would stand in line for this
    There's always room in life for this"

  • commentIshan | 214.54.36.245 | ০২ জুন ২০১৫ ২২:৩৬
  • আমাদের পাড়ায় নাকি খুন হয়েছে। কাল সকালেই খবরটা শুনেছিলাম। টিভিতে। ফিরে জানলাম কোনের দিকে একটেরে যে বাড়িটার পাশে একটা লাল বার্ন আছে, সেখানে। বড়ো ভাইকে খুন করেছে ছোটোভাই। ছুরি দিয়েই বলল মনে হয়। হাইস্কুলের ছেলে। শান্ত, পড়াশুনোয় ভালো, বদকম্মের কোনো রেকর্ড নেই। কী হয়েছে কিছুই জানিনা। কিন্তু দিনের শেষে আমি ওদের বাপ-মার কথা ভাবলাম একটু।
  • commenta x | 138.249.1.198 | ০৮ জুন ২০১৫ ২০:৫৯
  • গত দুদিন ধরে কেবলই মাথার ভেতর চলছে "নেই তাই খাচ্ছ, থাকলে কোথায় পেতে?"
  • commentaranya | 154.160.226.93 | ০৮ জুন ২০১৫ ২১:০২
  • জীবনে ভালবাসা ছাড়া কিছু নেই। মানুষের প্রতি ভালবাসা, এই জীবজগৎ, প্রাণী, উদ্ভিদ, প্রকৃতি
  • commentdc | 116.208.213.66 | ০৮ জুন ২০১৫ ২১:৫৬
  • কতো কিছু যে ভুল জানি! যতো দিন যাচ্ছে ততো ভুল আবিষ্কারের সংখ্যা বাড়ছে।
  • commentBratin | 122.79.38.149 | ০৮ জুন ২০১৫ ২২:৩৫
  • আজ মন চেয়েছে আমি হারিয়ে যাবো,
    হারিয়ে যাবো আমি তোমার সাথে।
  • commentdc | 132.164.220.125 | ০৯ জুন ২০১৫ ১৯:২৬
  • আজ একটা মি পাওয়ার ব্যাংক কিনলাম Xiaomiর ফ্ল্যাশ সেল থেকে। এই সেলগুলো দশ থেকে কুড়ি সেকেন্ডে শেষ হয়ে যায়, তাই আগে থেকে কিছু প্রস্তুতি নিতে হয়।

    দিন পনেরো আগে এন্ডিটিভি তে সেলটার খবর দিয়েছিল। তখন সাইটে গিয়ে অ্যাকাউন্ট বানিয়ে বাড়ির অ্যাড্রেস দিয়ে রেখেছিলাম।

    আজ দুপুর দুটো থেকে সেল। পৌনে দুটো থেকে মোবাইল অফ করে দিলাম, টিমের ছেলেদেরও বলে দিলাম কেউ কোন কারনেই যেন ডিস্টার্ব না করে। ল্যাপটপে ফায়ারফক্সে সাইটের একটা উইন্ডো খুললাম, ক্রোমে আরেকটা। দুটোতেই লগইন করে অ্যাড্রেস চেক করে নিলাম। স্প্লিট উইন্ডো করে নিলাম।

    ১ঃ৫৫ থেকে লম্বা করে শ্বাস নিয়ে ছাড়তে লাগলাম। মন শান্ত, আঙ্গুল মাউসে। স্নাইপাররা গুলি ছোঁড়ার ঠিক আগে এরকম টেকনিক ইউস করে।

    ১ঃ৫৮ থেকে দুটো উইন্ডো বারবার রিফ্রেশ করতে লাগলাম। মন শান্ত। ঠিক দুটোয় "অর্ডার" বাটন লাইভ হলো, ক্রোমে প্রথম অর্ডার বাটন টিপলাম, তারপরেই ফায়ারফক্সে। ক্রোমে চলে এলাম, পরের স্ক্রিনে গিয়ে অ্যাড্রেসে ক্লিক করে "অর্ডার নাউ"তে চলে গেলাম। একটা ছোট্ট উইন্ডো খুলে গেল, লেখা "ইউ আর ইন কিউ"। ফায়ারফক্সে চলে গেলাম, একইভাবে অ্যাড্রেস সিলেক্ট করে "অর্ডার নাউ"। সঙ্গে সঙ্গে পেমেন্ট অপশানে চলে গেল, COD তে ক্লিক করে "অর্ডার" এ ক্লিক করে দিলাম। দেখলাম কোন রেসপন্স নেই। ক্রোমে ফিরে এলাম, দেখি পেমেন্ট অপশনে চলে গেছে। COD এ ক্লিক করে "অর্ডার" এ ক্লিক করে দিলাম, কারন ফায়ারফক্সে তখনো রেসপন্স আসেনি। ক্রোমে কিন্তু দু সেকেন্ডের মধ্যে পেজ রিফ্রেশ হয়ে গেল, দেখালো অর্ডার কনফার্মড। সাথে সাথে ইমেলও চলে এলো। নিঃশ্বাস ছাড়লাম, ফোন অন করলাম।

    ফায়ারফক্সে এসে উইন্ডোটা ক্যান্সেল করে দিলাম। তারপর আবার ওদের সাইটে গিয়ে লগইন করলাম। দেখি পাওয়ার ব্যাংকের স্টক শেষ। যদ্দুর মনে হলো, অর্ডার করার জন্য তিরিশ সেকেন্ড মতো সময় পাওয়া গেছে।

    এখন আমার অ্যাকাউন্টে দেখাচ্ছে অর্ডার শিপ করার জন্য রেডি। মন শান্ত।
  • comment | 77.98.72.126 | ০৯ জুন ২০১৫ ১৯:৪২
  • জ্জিও dc ঃ))
  • commentsan | 11.39.34.248 | ১০ জুন ২০১৫ ১৮:৫০
  • সমস্ত কিছু উড়ে-পুড়ে যায় , খালি ছোটোবেলাটাকে কেউ কেড়ে নিতে পারে না।
  • commenth | 213.99.211.133 | ১০ জুন ২০১৫ ২১:৩০
  • উইদাউট ডিসরেসপেক্ট, আমার আবার হয়েছে কি, ছোটোবেলাটা এত ঘটনাবিহীন বোরিং ছিল, যে আমি বেশিটাই ভুলে গেছি। আমি দেখেছি, আমার কলেজ রাজনীতি করার আগে পর্যন্ত কোনো ডিটেল স্মৃতি নেই। অনেক বন্ধুর, মাশ্টারমশাই দিদিমনি পাড়ার লোকের নাম ই মনে নেই। চিনতেও পারি না অনেক সময়। অনেকে রাগ করেন, মা বলেন, কি রে এটাও মনে নেই, বাবা বলেন, সে কি এতো কথা হল এত উত্তেজনা হল বেমালুম মনে ভুলে গেছো, আমার সিরিয়াসলি কিস্যু মনে নেই, আমি স্মৃতি বলে যে চালাই অনেকটাই ধার করা বা বানানো বা অন্যের কাছ থেকে শুনে গড়ে নেওয়া।
    এক ডাক্তার কে বলেছিলাম , উনি বলেছিলেন, এটা কিছুই না, তুমি ছোটো বেলায় বোর ছিলে, কিসুই পোসাতো না, জীবন সম্পর্কে আগ্রহ তোমার বার্ধক্যে বেড়েচে। তো আমি বললাম, কিন্তু আমার তো ধরুন ভীমরতি তে যা হয়, নতুন মেয়েদের সংগে শুতে ইচ্ছে করে, ক্ষমতার একটা চাহিদা হয়, টাকার একটা লোভ হয়, যশের লোভ হয়, সেগুলো হছে না কেন, মানে ইছাও তো করে না। ল্যাদ। জীবনে কিসু তো ঘটুক রে বাবা, এতো একেবারে ঠান্ডা মাড়ের মত জেবন, বিপ্লব তো হলই না, অন্তত একটু আধটু ইসে হবে তাও হল না। তো উনি বল্লেন, এটা অমাদের পড়ায় নি, ছোটো বেলার বোরডমের সংগে বড়বেলার বৌ এর ভয় যোগ করে পড়ায় নি ;-)
  • commenth | 213.99.211.133 | ১০ জুন ২০১৫ ২১:৩৫
  • অ্যাকচুয়ালি রাজনীতির বন্ধুরাও বলে তোর ভুল ভাল মনে আছে, অনেকক্ষেত্রেই এসব কিস্যু হয় নি, হত ও না ঃ-) এটাতে আমি খুব ই কনফিউজ্ড, পরে দেখেছি, আমি গল্পে পড়া বিভিন্ন প্রোটাগোনিস্ট দের জীবন টুকে টুকে নিজের কথা বলি, কোন বিশ্বাস্যোগ্যতা নাই অথবা আই ক্যানট টেল আ ব্যাড স্টোরি, ইট হ্যাজ টু বি আ ফানি স্টোরি, এই নেশা থেকে জীবন টা সইত্য থেকে সম্পূর্ণ গুল হয়ে মনে আছে, যেটা সংগে ব্যক্তি আমি র কোনো সম্পর্ক নাই, ব্যক্তি অন্যান্য রা তো অনেক দূরে। শুধু এক বাবর বাদশা এর কাছাকাছি, যে কিনা তরমুজ ভালোবাসতো।
  • commentdd | 116.51.131.48 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:১৬
  • আমার ছোটোব্যালাও একেবারে আলুনী গোছের। আর সেটাও অ্যাতো আগের ঘটনা যে মনে রাখার মতোন কিছুই হয় নি। নাথিং।

    সেই একবার বাড়ীতে সোফার হাতলে দুটো কাঠের মধ্যে ব্যাড়ালের মতোন গলা ঢুকিয়ে দিয়ে আর বার কত্তে পার্ছিলাম না। খুব আতোংকে অস্থির হয়েছিলাম। বাকীরা খুবি বিরক্তো বোধ করেছিলো। "বেশ হয়েছে" এটাও যেনো কেউ বলেছিলো।

    আর একদিন এক বন বাংলায় ভর দুপুরে একটা কুকুর ছানার সাথে হুটোপুটি করতে গিয়ে ভুত বা বন দেবতার মতোন কিছু একটা , মানে ঠিক দেখি নি, কিন্তু ফীল করেছিলাম।

    ব্যাস। এই হোলো আমার চত্ব ব্যালার পুর্ণাংগ ইতিহাস।
  • commenth | 213.99.211.132 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:১৭
  • অনেকে বলেন আমি কোনো সত্যিকারে বেদনার সম্মুখীন কখনো হই নি বলে, জীবনে কখনৈ বুদ্ধি আর জ্ঞান ছাড়া বিশেষ কিসুই হারাই নি বলে, এরকম একটা শূন্যতা এসেছে। বা সবসময়েই ছিল। সাংঘাতিক বেদনা সত্যি কিছু পাইনি, সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন আর পার্টি মেম্বারশিপ ছাড়ার সময়টুকু ছাড়া, তাই , কোন যাকে বলে সৎ কনভিনসিং জীবন অভিজ্ঞতা তেমন কিছুই হয় নি, কোনো দিন গাড়ি চাপা পড়ি নি, এক দু বার ছাড়া হারিয়ে যাই নি, বাবা মা বেঁচে আছেন বালাই ষাট, বৌ মেয়ে ভালো বাসে শুধু তাই না, অন্য কাউকে ভালো বাসে না এ বাজারে এটা কি কম কথা, ইত্যাদি। একবার একটা ছেলে খুব অনুনয় করে কাতর হয়ে আমার সংগে শুতে চেয়েছিল, ও হয় তো ভালো-ই বেসেছিল আমাকে, ক্লাসমেট, তো আগ্রহ পাইনি শুই নি, আমার প্রেম হয়েছিল কয়েকটা, তো তারা কেউ ই বিশেষ পাত্ত দেয় নি, বা যখন দিয়েছে, তখন আমি কোথায় হাওয়া, অতএব আত্মবৃত্তান্তে যা লেখা যায় এমম কিসুই হয় নি। তার পরে ধরুন, চাকরি যাওয়া দু একবার গেছে, কিন্তু বেকারিত্ত্বের যন্ত্রনা প্রথম কয়েক বছর ছাড়া বুঝি নি, বস্তিতে থাকি নি, ফাইব স্টার জীবন ও কিছু নেই। ডুবুরী ছিলাম না, পাহাড়ে হাঁটিনি, রিকসায় চড়া নিয়ে তো এক চ্যাপটার ও হয় না। ফুটবলে ট্রায়াল দিলাম, ফাইভের পরে কোনো স্কুল টিমে চান্স পাইনি, বাউল গান শিখলাম, একটার বেশি শেখা হল না।

    মার খেলাম কয়েকবার, হাসপাতালে ভর্তি হলাম, মরলাম না, ভয়ানক অসুখ হলো, একটা আশা ছিল কিছু ঘটবে, তো স্লা দশ দিনে সেরে গেলাম, বাইক চালালাম তিনশো মাইল, রাত্রে, তো একটা ছিনতাই ও হল না, এক দু বার রেসিস্ট মার খেলাম, তো লাগলো না।

    কি করি, এখন অভিজ্ঞতা টোকা ছাড়া কোনো গতি নেই, স্থিতিও নেই।

    ইত্যাদি ঃ-)) তো আমার কোনো লেখার মত কিসুই নেই, তাও দশ বৎঅসর কি ভাট ভাট, এইখেনে।
  • commenth | 213.99.211.132 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:১৯
  • এটার নাম দেওয়া যেতে পারে, সিপিএম সমর্থকের চৌত্রিশ বৎসর। (অনুলেখন)
  • commentdd | 116.51.131.48 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:২৪
  • অম্মা। এতো আমার নেই এর লিস্টি।

    কিন্তু আমাকে একবার সাপে কামড়ছিলো। লোকে তাতেও মজা পায় , বলে "সাপটা বাঁচলো তো?"। এইসব। তার থেকেও খারাপ,কুমু আবার সেটাও বিশ্বাস করে না। বলে "সাপের আর খে' দে' কাজ নেই, ডিডিদাকে কামড়াতে যাবে। সব মিছে কথা।"

    আর প্রায় বছর দশেক যখোন বয়স তখোন বুঝলাম আমি কলার ব্লাইন্ড। দার্জিলিংএ রডোডেনড্রন ফুল দেখতে পাচ্ছিলাম। বাবাকে মারলো এক থাপ্পোর।"ইয়ার্কি হচ্ছে?'

    অনেক লোকে এটাও বিশ্বাস করে না। আমি যে দেখি সবুজ রংএর কৃষ্ণচুড়ায় গাছ ভরে আছে। ক্ষি হিংসুটে হয় লোকেরা।
  • commentdd | 116.51.131.48 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:২৭
  • না, এটা এইভাবে পড়ুন।

    দার্জিলিংএ রডোডেনড্রন ফুল দেখতে পাচ্ছিলাম না। তাতে বাবা আমায় মারলো এক থাপ্পোর।"ইয়ার্কি হচ্ছে?'

    আর এখন মনে পরলো ঐ অল্পো বয়সে বুরো আঙুলটা বাঁকিয়ে নিজের তালুতে ঠেকাতে পারতাম। দেখালে লোকে অবিশ্বাস করতো না কিন্তু ভেঙিয়ে বলোতো "ভেরী উইক পার্সোনালিটি"।
  • commenth | 213.99.211.132 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:২৯
  • জ্জিও ডিডি দা। আপনার সংগে দু পাত্তর খাবার ইচ্ছা বেড়ে গেল। ঠাকুর সে সুযোগ টাও অর্পণ কে দিলেন, এদিকে চাইলেন না।
  • commentdd | 116.51.131.48 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:৩৬
  • ফর দ্যাট ম্যাটার ,একেবারে চুড়ান্তো বয়সে, এই যাস্ট বছোর দুয়েক আগেই যখোন চেন্নাইতে একা থাকতাম তখোন তাড়াতাড়ি, এই দশটা সাড়ে দশটা বাজলেই ঘুমিয়ে পত্তেম।

    তারই মধ্যে কে বা কারা পায়ের পাতায় ঠাঁই করে চাঁটি মেরে দিতো। আমি ধড়মড়িয়ে উঠে আলো জ্বালিয়ে দিয়ে দেখতাম। কিস্যু নেই। কেউ নেই।

    পাশের বাড়ীতে ক্যাঁও ম্যাও করে ঘোর তামিলে টিভি চলছে। "ইল্লে পো,ইল্লে পো" এরকম কিছু বলছে কোনো নায়িকা। রাস্তায় একটা কুকুর ভুক ভুক করে গলা খাঁকারী দিচ্ছে। কিছু গাড়ী উদাসীন ভাবে চলে যাচ্ছে। এইসব। আমি আবার শুয়ে পত্তাম।

    কিন্তু ভাবতে ভালো লাগে যে কোনো রুপুসী পেত্নী আমায় ভালোবেসে টেসে অমন চাঁটাতো। নিয়মিতো। মনে হয় কোনো মেম সাহেব ছিলেন।
  • commenth | 213.132.214.156 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:৪০
  • হ্যাঁ মেম সায়েব ই হবে, নইলে অমন ভিক্টোরিয়ান হয়, একাকী অন্ধকারটি থাকতেও কিনা শুধু ই পায়ের পাতায় আহ্লাদী, তাও যে মোজা পরিয়ে চাঁটি মারে নি এই অনেক ;-)
  • commentdd | 116.51.131.48 | ১০ জুন ২০১৫ ২২:৪৫
  • আর আরেক দিন, ঐ সেন্নাইতেই, বাথরুম থেকে একটা দীর্ঘস্থায়ী ফ্যাঁ স স স স স করে আওয়াজ। গা ছম ছম করে উঠলো।

    ভয়ার্ত্তো ভাবে বাথরুমে ঢুকে দেখি শেভিং ক্রীমের ক্যানটা কি ভাবে কে জানে ফুটো হয়ে গিয়ে সামনের দেওয়ালটা ফ্যানায় ভত্তি করে দিয়েছে। এক অলৌকিক দৃশ্য।

    কে জানে, হয়তো এটাও পেত্নীটির কীর্ত্তি। সোজা সুজি ক্যানো যে কিছু বলতে পারতো না।

    নাঃ। আর অনেক ভেবেও ত্যামোন লেখার মতোন আর কিছু খুঁজে পাচ্ছি না। অথচো কতোটা বয়স পারে করে এলাম।

    ঠাকুর বলেছিলেন, এইচিস যখন তখোন একটা দাগ রেখে যাস। ধুর। আমার জীবনটা পাপোষেই ভর্তি।
  • commentAtoz | 161.141.84.175 | ১১ জুন ২০১৫ ০০:২২
  • ডিডি, ছোটোবেলার ঐ বনদেবতা কেমন ছিলেন? হাল্কা ফুল্কা ফর্সা দুধে আলতা বেথুন ফলের মতন চোখ? নাকি ভীষণ টাঁড়বাড়োর মতন ইয়া কালো, কোঁকড়ানো চুলে মাথা ভরা আর লালরঙের গোল গোল চোখ?
  • commentsinfaut | 127.195.50.251 | ২৪ জুন ২০১৫ ২৩:৩০
  • সাবান, আতর সব লাগানোর পরও বোকা পাঁঠার গায়ের গন্ধ বোকা পাঁঠার মতই থাকে।
  • commentaranya | 154.160.226.95 | ২৫ জুন ২০১৫ ২১:৫৯
  • মানুষের মুক্তি আসুক।
    আমার শিকল খুলে দাও
  • commenta x | 60.171.26.111 | ০৪ জুলাই ২০১৫ ১১:৫৬
  • একটা এতবড় হাতি ঘরের মইধ্যে। মানুষগুলান সেডারে দেখে না, মশা খুঁজতে ব্যস্ত।
  • commentkumu | 11.39.40.22 | ০৪ জুলাই ২০১৫ ১৪:৪২
  • সোফার হাতলের কাঠের মধ্যে গলা ঢুকিয়ে দেয়া শুনে মনে এল আমার মামাতো ভাই ঐভাবে বারান্দার গ্রীলে গলা ঢুকিয়ে আর টেনে আনতে পারে না।মামীমা আর্ত্তস্বরে মামাকে আপিসে ফোন করাতে মামা শান্ত ভাবে বলেছিলেন কানদুটো কেটে দাও,মাথা গলে আসবে।
  • commentkumu | 132.161.254.25 | ০৪ জুলাই ২০১৫ ১৮:৩৬
  • একটু বাড়তি সুখশান্তি পাবার সবচেয়ে সহজ উপায় হল পাঁচটা রসের গল্প বলা-লীলা মজুমদার।
  • commentapps | 122.79.36.101 | ০৫ জুলাই ২০১৫ ০০:০২
  • খুব দমবন্ধ লাগে- সাফোকেটিং- একটা কুড়ি বাই কুড়ি ঘর- তাতে চার দেওয়ালে চারটে জানলা- তাই দিয়ে রোদ্দুর ঢোকে- সন্ধে পেরোলে চাঁদ- আর নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর এক একটা জানলা দিয়ে এক একরকম হাওয়া নামতে থাকে- ছড়িয়ে পড়তে থাকে চতুর্দিক- তাদের স্পষ্ট শরীর- চোখমুখনাককানগলাবুকযৌনাঙ্গ- আমার এখন আর খিদে পায় না- পেত, যখন পার্থকাকু ড্রয়িং করতে বসিয়ে বলত যা খুশি আঁক- আমি সাদা পাতায় প্রথমে একটা এরোপ্লেন আঁকতাম, তার সামনে দুটো বাচ্চা, আর দূরে একটা নারকেল গাছ- পার্থকাকু বলত এটা কী- আমি গুড়ের নাড়ুর মিষ্টি মিষ্টি ছিবড়ে গালের একপাশে নিয়ে বলতাম এয়ারপোর্ট- আমি বলতাম নৌকো বানিয়ে ভাসিয়ে দিলেই হয়না, তাতে দুটো রঙ্গনফুল বসানো চাই, অন্তত দুটো দেবদারুপাতা- ব্যাঙের পৌষ্টিকতন্ত্রের গোটা ছবিটা এঁকে আবার আলাদা আলাদা করে অর্গ্যান- আমি জানলা আঁকছি- ফের মুছছি- ফের আঁকছি- ফের মুছছি- আর পার্থকাকু ঝুঁটি নেড়ে দিয়ে বলছে ধুর বোকা এয়ারপোর্টে কখনও নারকেল গাছ থাকে!- খুব দমবন্ধ লাগছে- সাফোকেটিং- এসময় দুটো পাফ ইনহেলারে চমত্কার কাজ দেয়
  • comment!! | 134.123.218.23 | ০৫ জুলাই ২০১৫ ১২:০৬
  • এভাবে আর চলে না, আয়নায় নিজেকে দেখতে পাই না, জীবন চলেছে নিজের মত, অথচ আমি আর আমাতে নেই। জানি এর কোন প্রতিকার নেই, কিন্তু পথও তো দেখতে পাই না, তবে কি এরকম ঘ্যান ঘ্যান করেই চলবে জীবন?
  • commentapps | 122.79.38.144 | ০৬ জুলাই ২০১৫ ০০:৫৯
  • ইয়েতি ছাং খায়. কিন্তু ইয়েতি বাঁশি বাজায় না. ভাং এর চেয়ে ছাং ভালো. কেষ্টার চেয়ে চৌরাসিয়া. আজ দ্বিতীয়া. একটুও বিষ্টি হয়নি. জায়গাটার নাম ভাষা, নাকি ভাসা? যাই হোক না কেন, ওদের লিটিল ম্যাগাজিনের নাম- আভাতি
  • commentAtoz | 161.141.84.176 | ০৬ জুলাই ২০১৫ ০১:০৯
  • দুরাদয়শ্চক্রনিভস্যতমালতালীবনরাজিনীলা
    আভাতিবেলালবণাম্বুরাশের্ধারানিবদ্ধেব্কলঙ্করেখা।
  • commentrabaahuta | 215.174.22.27 | ০৬ জুলাই ২০১৫ ২০:৪১
  • commentapps | 122.79.35.47 | ০৭ জুলাই ২০১৫ ২২:৫২
  • ঝগড়া হত চড়ত গলা/ উঁকি দিতেন বাড়িওলা/ কেমন আছো/... জমা খরচ হিসেব নিকেষ/ কোথায় শুরু কোথায় বা শেষ/ কেমন আছো
  • commentsan | 113.245.14.161 | ১৬ জুলাই ২০১৫ ১৭:৫৫
  • দিন চলে যায় দিন চলে যায় দিন চলে যায় -
  • comment!! | 213.191.35.25 | ১৬ জুলাই ২০১৫ ১৯:৫৮
  • নতুন করে শুরু করতে হবে জীবনটা ......
  • commentBrstin | 122.79.38.155 | ১৬ জুলাই ২০১৫ ২০:২৩
  • আমার টানা ১০ দিন ছ্টি দেওয়া হোক। আমি ল্যাদ খাবো আর গল্পের বই পড়বো
  • commentTailor | 216.201.224.118 | ১৬ জুলাই ২০১৫ ২৩:২৬
  • কেমন ছিট? সুতি না সিন্থেটিক দাদা?
  • commentrabaahuta | 215.174.22.27 | ১৬ জুলাই ২০১৫ ২৩:৩৫
  • "ইউনিভার্সিটির ক্লাসে না পড়লে যে কিছু জানা যায় না একথা আমি বিশ্বাস করি নে - আমি একথা বলতে পারি কোনও ফোর্থ ইয়ারের ছাত্র যে-কোনও কলেজের হিস্ট্রিতে কি ইংলিশ পৈট্রিতে - কিংবা জেনারেল নলেজে পারবে না আমার সঙ্গে।
    নিতান্ত অপটু ধরনের কথা - সকলে আরও একদফা হাসিয়া উঠিল।"
  • commentapps | 122.79.35.113 | ২১ জুলাই ২০১৫ ০২:৩৪
  • This weariness forgive me oh my Lord
    If ever on my way I do fall back

    This tremulous heart quivers today thus
    This sorrow forgive oh forgive me Lord

    This wretchedness, forgive me oh my Lord
    If ever on my way look I do look back

    In blistering heat of the fiery day
    If withers my garland of prayer flowers
    That listlessness, forgive me oh my Lord
  • commentKaju | 131.242.160.210 | ২১ জুলাই ২০১৫ ১২:২৩
  • ইঞ্জিরিতে 'ক্লান্তি আমার ক্ষমা করো প্রভু'।

  • গুরুর মোবাইল অ্যাপ চান? খুব সহজ, অ্যাপ ডাউনলোড/ইনস্টল কিস্যু করার দরকার নেই । ফোনের ব্রাউজারে সাইট খুলুন, Add to Home Screen করুন, ইন্সট্রাকশন ফলো করুন, অ্যাপ-এর আইকন তৈরী হবে । খেয়াল রাখবেন, গুরুর মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হলে গুরুতে লগইন করা বাঞ্ছনীয়।
  • হরিদাসের বুলবুলভাজা : সর্বশেষ লেখাগুলি
  • জাগ্রত শাহিন বাগ
    (লিখছেন... বিপ্লব রহমান, আজ সুপ্রিম কোর্টে, Anjan Banerjee)
    জনসন্ত্রাসের রাজধানী
    (লিখছেন... র, pi, রঞ্জন)
    কোকিল
    (লিখছেন... দেবাশিস ঘোষ)
    বিনায়করুকুর ডায়েরি
    (লিখছেন... ^&*, একলহমা , pi)
    মিষ্টিমহলের আনাচে কানাচে - দ্বিতীয় পর্ব
    (লিখছেন... দীপক দাস , দীপক, দীপক)
  • টইপত্তর : সর্বশেষ লেখাগুলি
  • আগামীর অবয়ব
    (লিখছেন... দ্রি, দ্রি, দ্রি)
    নিমো গ্রামের গল্প
    (লিখছেন... সুকি , সুকি , সুকি)
    যুক্তরাস্ট্র নির্বাচন ২০২০
    (লিখছেন... )
    প্রেমিকাকে কোলকাতাতে ফুল পাঠাবো কিভাবে?
    (লিখছেন... pi, pi, সুকি)
    পুরোনো লেখা খুঁজছেন, পাচ্ছেন না - এখানে জিজ্ঞেস করুন
    (লিখছেন... lcm, r2h, দু:শাসন)
  • হরিদাস পালেরা : যাঁরা সম্প্রতি লিখেছেন
  • শ্রী রামকৃষ্ণ : কিছু দ্বন্দ্ব : Sumana Sanyal
    (লিখছেন... রঞ্জন, এলেবেলে, Anjan Banerjee)
    যুদ্ধ : Swapan Majhi
    (লিখছেন... )
    গাধা সময়ের পদাবলী : রোমেল রহমান
    (লিখছেন... Du)
    জোড়াসাঁকো জংশন ও জেনএক্স রকেটপ্যাড-৮ : শিবাংশু
    (লিখছেন... dd, i, শিবাংশু)
    তিরাশির শীত : কুশান গুপ্ত
    (লিখছেন... anandaB, ন্যাড়া, Apu)
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তত্ক্ষণাত্ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ যে কেউ যেকোনো বিষয়ে লিখতে পারেন, মতামত দিতে পারেন৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
  • যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত