বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  অন্যান্য

  • খাওয়া-দাওয়া বিষয়ে তপন রায়চৌধুরীর একটি ইন্টারভিউ

    achintyarup
    অন্যান্য | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ | ১১১৫ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • achintyarup | 127.194.66.233 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৩:২৫668890
  • ইন্টারভিউ লিখলাম বটে, কিন্তু তা ঠিক নয়। দুই বাংলার খাওয়াদাওয়া নিয়ে একটি লেখা চেয়েছিলাম ওঁর কাছে, লেখার সময় ছিল না, ফলে উনি মুখে মুখে বলে যান, আমি রেকর্ড করে নিই। আজকে পুরোনো জিনিস ঘাঁটতে গিয়ে সেই ফাইলটি পেলাম। কিন্তু দুঃখের বিষয়, আমার অনুরোধক্রমে উনি ইংরিজিতেই বলেছিলেন, যাতে অনুবাদ করতে গিয়ে কিছু হারিয়ে না যায়। ফলত, লেখাটি ইংরিজিতে। আজকে পুরোটা টুকে উঠতে পারলাম না। বাকি অংশ দু-এক দিনে।
  • achintyarup | 127.194.66.233 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৩:৩৫668901
  • One remarkable thing about the Bengali cuisine is its fantastic variety. It doesn't differ simply from western Bengal to eastern Bengal; but in every district, the cuisine has some special features, and moreover, you find a certain amount of distinction in cuisine in every household. If you take something as basic as the fish curry, maachher jhol, I haven't come across two Bengali homes, where it is cooked the same way. There are distinct ways of cooking.

    Then, there is one general difference. Which, for the wrong reasons, is not sufficiently emphasized-- the cooking in Hindu and Muslim homes are different in certain ways. They've shared things in a negative way, more than in a positive way. They differ. For example, use of onion and garlic for fish is much less common in Hindu families, than in Muslim families. In Muslim homes, garlic would be used-- garlic and onion-- for certain fish, which Hindu cooks would not dream of. Particularly, the very popular fish, hilsa. The Muslim-oath cuisine in pre-colonial days and also in the days of Pakistan, was largely taken from north Indian dishes, what we recognise as Mughal dishes. Of course, this, in a way, is true about Hindu homes as well. Because, we don't have a distinct meat cuisine-- the Bengali Hindus. There's one standard way of cooking meat, and that is more or less the way the meat sacrificed during the pujas is cooked. Again, the garlic is certainly not used.

    The popular meat dishes in Muslim homes were all taken from the Mughal cuisine. Here something interesting happened, especially, in the very recent years. The popular poor man's dishes, I do not remember having eaten in Muslim homes in pre-colonial days, now, very recently, these have come into vogue and have enriched the cuisine in Bangladesh to a great extent. I particularly draw attention to what is called bharta. You see... the chilli bharta is very popular among the poor. Now, you find chilli bharta in bhadralok homes as well. (Me: Chingri bharta?) No. Chilli bharta. Just plain chilli.

    Lonkar bharta. And of course, all vegetables are cooked as bharta. And chingri bharta is a great delicacy. It's a use of prawns in a way unknown to people of West Bengal. And until recently, not common in Muslim homes in middle class and upper class families either.

    The cuisine in the two Bengals has a district orientation. Each district has its special dishes. And as I said, from home to home they vary. In Assamese Bengali homes, they use a particular element for cooking, which makes it very distinctive and tasty. And what they call the tenga. Tenga is sort of giving a particular taste to the dish by using ashes of plantain and plantain leaves. This is called tenga. It's an extremely tasty dish. They add that to the food. While cooking. Tenga is a particular class of dishes, where these ashes are used. (Me: ওটা কি তাহলে নর্থ বংলাদেশেও আছে? গারো পাহাড়ের কাছাকাছি অঞ্চলে?) I have not seen that. It's an Assamese thing. You find it in Gauhati and Sylhet, but not north Bengal.

    If one can make a broad division, one may say, that there is a wider variety of cuisine with regard to vegetables in West Bengal and among the Hindus. Muslim cooking of vegetables all tend to emulate the cooking of meat dishes. Using a lot of onion, a lot of garlic and other spices. Sort of trying to make the vegetable dish... sort of imitate to a certain extent, the meat dishes. Whereas, the typically Bengali Hindu home-cooked vegetable dishes has a wider variety of tastes. They are more subtle. They are not so pronounced in their use of the stronger spices. Say, dishes like shukto, dishes like panch tarkari, are very very distinctive. And then there is something else to be noted. The poor, especially in east Bengal, use a lot of vegetable products not known to the better-off. You find these listed, for West Bengal, in Bibhutibhushan's stories. You see, Durga is always an expert in collecting this sort of wild food. (Me: mete alu) Yeah. Not only mete alu, there's a wide range. What I did not know, though I come from east Bengal's Barisal district, that Barisal has a similar range, quite a fantastic range of vegetable products which are cooked and eaten. I came to know about this after reading Mihir Sengupta. He came from an impoverished landed family. And they had to fall back on these dishes. Which are apparently very very tasty.

    In recent years, when I have been to Bangladesh, I have been entertained in great style, with six seven varieties of fish dishes, ilish etc, but not these vegetables. I have a feeling that Bangladeshi cuisine would be very much enriched if these vegetable dishes were introduced.

    As I was saying, in Bengal, each family almost has a distinct cuisine. This has been sort of tabulated in the case of one family. That is, the Tagore family. The Tagore family had a rich tradition of cooking. And all these have been listed in a book, which, sort of serviced the cuisine of the Tagore family. In fact, it is known that the poet used to occasionally experiment with food. Not always very successfully. But he kept trying. He was interested in food. As a bon viveur, he liked to live well, to eat well, so he tried these things. Sometimes successfully, sometimes not. I wish one did a bit of research and unearthed the dishes which the poet invented. I am sure, they would be very very interesting.

    In West Bengal, and in east Bengal, certain districts are famous for their sweets. Say for example, Nadia-Krisnanagar in West Bengal, Dhaka in east Bengal very famous for their sweets. Some books have been published in recent years by ladies who are great gourmet cooks, like Renuka Debi Chaudharani, she is actually Lahiri Chaudhuri. Three volumes have been published from her notes, by her daughter-in-law. She observed almost as a sacred institution poush sankranti at her home, cooking items of pitha which have become extinct. (Me: Was she Dhritikanta's mother?) Dhritikanta's mother.

    Some of the snacks, the traditional snacks, which were labour intensive, have become extinct now. For example, the coconut dishes. Chira jeera, padma chini... these are not made in any home any longer. They are extremely labour-intensive. (Me: There is something called gangajali sandesh...) Gangajali, yeah. That is same as padma chini. In our childhood, every year around the time of Puja, from some two moths before, the ladies started preparing these things. And when one visited the homes of fellow-villagers, everywhere you were offered these dishes. And there was also this great tradition of snacks, different types of snacks. Some salty, some sweet. This too have virtually gone out. Because, they were all prepared by the ladies at home. The ladies at home don't do these any more. It would be interesting if ladies' magazines published these recipes and not only the Western dishes or modern restaurant dishes.

    One new development however is interesting. There is a new restaurant culture in both Bengals and some of the products of these restaurants are good. They are not to be sniffed at. And they are experimenting. Two types of experiments. One, what is called multi-cuisine. The other also is multi-cuisine. But multi-cuisine within the Bengali context, or the Indian context. And some of these stuff are excellent. I don't want to publicise any particular restaurant. But recently I have been to one or two restaurants in Calcutta, which really produced highly imaginative and excellent food. It's quite remarkable. That is all I have to say.

    (Me: What about the drinking habits?)
    Drinking habit, you see, there are two things about drinking. Drinking at one level is not an Indian habit. Surely not a middle class Indian habit. But it became one since the 19th century. It was earlier a part of religious practice. The Tantrik families used to drink. Shakta families, my family for example. At the time of sacred thread ceremony, the liquid used to mark our bodies was not sandal paste. But alcohol. And drinking alcohol on religious occasions was considered absolutely essential. Now, there are varieties of drinks, fruit juices for example, different fruit juices. Here again, in Muslim homes, there is a different tradition. Which I find very enjoyable. Their drinks included, when there was spicy food, especially at weddings, something called burhani. Burhani is a spicy yogurt drink. Very very tasty. And it makes the spicy food very very edible. (Me: But it's not a Bengali drink.) It's not a Bengali drink. It's a north Indian drink. But is quite common in Bengali Muslims' homes at the time of wedding. So, fruit juices, yogurt-based drinks, various sarbats, say, beler sarbat, am porar sarbat were of course the standard Bengali drinks. There was a wide range there. We used to have these. Drink based on a flower, called kurchi, very fragrant, and this was common. Then there was falsa, a fruit, which was used to produce sarbat.
  • achintyarup | 127.194.66.233 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৩:৩৬668907
  • টাইপো থাকবে, ক্ষমা করে দেবেন।
  • a x | 60.171.26.111 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৪:১৯668908
  • খুব ইন্টেরেস্টিং। একটা প্রশ্ন - বাঙ্গালী মুসলমানেদের কী অনেকেই কনভার্টেড মুসলিম নন? তাহলে তাদের রান্না যে ডিসটিন্ক্ট সেটাও কি "মুঘল" ঘরানার প্রভাব?
  • achintyarup | 24.96.24.69 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৪:২৪668909
  • যিনি এগুলি বলেছিলেন, তাঁকে তো আর জিগ্যেস করতে পারছি না, তবে কনভার্টেড হলেও, খাদ্যাভ্যাসের কিছু পরিবর্তন ঘটতে পারে বৈকি। সে এক দু দিনে বা এক প্রজন্মে যদি না-ও হয়
  • lcm | 118.91.116.131 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৪:২৫668910
  • আহা, ভারি পুষ্টিকর ইন্টারভিউ !

    লংকার ভর্তা শুনেছি। বাংলাদেশের রসুন দিয়ে ইলিশ মাছ রান্নার কথা শুনেছি - সুযোগ পেলে খেতে হবে।
    কাঁচাকলা এবং কলাপাতার গুঁড়ো রান্নাতে ছড়িয়ে দেওয়ার প্রথাটিও অভিনব।
    গঙ্গাজলি মিষ্টি-র নাম - নাম শুনেই খেতে মন চায়।
    ফলসা খেতে ভালো, তব এফলসার সরবত কখনও খাই নি।
  • achintyarup | 24.96.24.69 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৪:৩৫668911
  • গঙ্গাজলি সন্দেশ একবারই খাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছিল। সে তৈরি করা বড়ই শ্রমসাধ্য ব্যাপার। ধোয়া শিলে বার বার করে নারকেল বেটে তার রস ছেঁকে ছাঁচে চাপ দিয়ে দিয়ে বানাতে হয়, যদ্দুর মনে পড়ছে। হাতে নিয়ে একটু চাপ দিলে পাউডারের মতো গুঁড়ো হয়ে যায়, মুখে দিলে গলে মিলিয়ে যায়
  • একক | 24.99.100.142 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৪:৩৬668912
  • দারুন লাগলো পড়ে । তপনবাবুর লেখা ভাল্লাগে । উনি একটু হিন্দু-মুসলমান কন্তেক্সতে দেখতেন মনে হয় । ডাচ প্রভাব ,নাড়িয়া বুদ্ধিস্ট দের সময়ের প্রভাব,গ্রিক সেনাবাহিনীর প্রভাব এগুলো টানেন না । সে হোক । পরের কিস্তির অপেক্ষায় রইলুম । অচিন্ত্য কে ধন্যবাদ কষ্ট করে টাইপানোর জন্যে ।
  • achintyarup | 24.96.24.69 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৪:৪৫668913
  • এই লেখায় হিন্দু মুসলিম কনটেক্সটে দেখার কারণ আছে। আমি বলেছিলাম দুই বাংলার খাওয়াদাওয়ার তুলনামূলক আলোচনা করতে। সেই প্রসঙ্গেই হিন্দু মুসলমান কথা টেনেছেন। অন্যান্য ঔপনিবেশিক প্রভাব সম্পর্কে বেশি কথা সেদিন হয়নি, কিন্তু ভারতীয় সংস্কৃতিতে বিশেষত ডাচ প্রভাব নিয়ে ভদ্রলোক দীর্ঘদিন কাজ করেছেন জানি।
  • Ekak | 24.99.100.142 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৪:৫৩668891
  • দেন আই হ্যাভ মিসড দ্যাট । ওনার বাঙালনামাও ভীষণ ভালো লেগেছিলো ওই একই হিন্দু-মুসলিম কন্টেক্স্ট ধরে দেখা মনে হয়েছে । ডাচ বা গ্রিক দের প্রভাব নিয়ে লেখা বই এর নাম এট্টু প্লিস , কখনো সময় করে দেবেন । এতো নলেজেবল+জীবনরসিক বাঙালি খুব কম ।
  • achintyarup | 24.96.24.69 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৪:৫৫668892
  • বইয়ের নাম জানলে তো দেব! তবে কোনো লেখায় কিছু উল্লেখ পেলে নিশ্চয়ই জানাব
  • achintyarup | 24.96.24.69 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৫:১২668893
  • দ্য ডাচ ইন করমণ্ডল নামে ওনার একটা বই দেখছি বটে, কিন্তু সেটার ফোকাস মনে হয় ইকোনমিক হিস্ট্রি
  • a x | 60.171.26.111 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৫:৪০668894
  • আমি জিরা চিঁড়া খেয়েছি।দুই প্রজন্ম আগে অবধি বছরে একবার বানানো হত। নারকেল এই টুকু টুকু চিঁড়ার সাইজে পাতলা করে কেটে, তাকে ঐ বঁটির মাথা দিয়ে অল্প টেক্সচার বানিয়ে তারপরে রসে ফেলা, এইভাবে এক একটা করে চিঁড়ার সাইজে জিনিস তৈরি। কি খাটনির কাজ!
  • a x | 60.171.26.111 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৫:৪২668895
  • অচিন্ত্য আমি বলতে চেয়েছি - যাঁরা কনভার্টেড, তাঁদের খাওয়াতে প্রভাব কেন পড়বে? মানে কয় প্রজন্ম বাদেও তাদের খাবারের অভ্যেস ডাইভার্জ করবে কেন, যদি না তাদের ভৌগলিক স্থানচ্যুতি হয়।
  • Ekak | 24.99.236.157 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৫:৫৩668896
  • প্রভাব পরতেই পারে । যে ধর্মীয় সম্প্রদায় কনভার্ট করে সে নিজের খাদ্যাভ্যাস কখনো সরাসরি চাপায় ,কখনো মার্কেট এমনভাবে কন্ট্রোল করে যাতে সেই খাবার গুলোই সুলভ হয় । অনেক ট্যাবু আসে ,অনেক ট্যাবু উঠে যায় । খাওয়াদাওয়ার গাইডলাইন চেঞ্জ হয় । কনভার্সন মানে একসঙ্গে অনেক চেঞ্জ ,ভৌগলিক স্থানচ্যুতি না হলেও ।
  • achintyarup | 24.96.24.69 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৬:১৭668897
  • কনভার্শনের সঙ্গে সঙ্গে শুধু ধর্মীয় রিচুয়াল নয়, অনেকগুলি অভ্যাস আস্তে আস্তে পাল্টে যেতে পারে। একই জায়গায় থেকেও পাল্টে যেতে পারে ভাষার ব্যবহার, খাদ্যাভ্যাস। কনভার্শনের মধ্যেও ক্ষমতার প্রকাশ আছে তো এক রকমের। তা সে নিরীহ ভাবে হলেও। এবং ক্ষমতাশালীর ভাষা, পোষাক, খাদ্য কনভর্টেডদের অভ্যাসে প্রভাব ফেলে
  • kumu | 11.39.35.37 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৭:৩৯668898
  • অসাধারণ।অসংখ্য ধন্যবাদ অচিন্ত্যরূপকে।তপন রায়চৌধুরী শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব।প্রগাঢ় জ্ঞান ও রসবোধের সমন্বয়।
    অচিন্ত্যরূপ ,এই ইন্টারভিউ তো একটি সম্পদ।এটি তুমি বাংলায় অনুবাদ করে রাখো ,এই অনুরোধ।
  • robu | 122.79.37.76 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ১৬:৩০668899
  • একই সাথে এই সাবজেক্টে বু ব আর শ ঘো পড়ে নিতে হবে।
    আর সামরানদি।
  • | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ২৩:০৬668900
  • শ ঘো কোন বই?
  • robu | 122.79.37.76 | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ২৩:২১668902
  • জার্নাল। সেখানে এইসব মিস্টির বর্ণনা আছে।
  • সিকি | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ২৩:২৭668903
  • আমি কি অনুবাদের দায়িত্বটা পেতে পারি?
  • achintyarup | 127.194.72.45 | ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০১:২০668904
  • In the 19th century, alcohol was very cheap. I just read yesterday somewhere that whisky, malt whisky, sold at 1 anna a bottle. 16 bottles per rupee. In Calcutta. And naturally, people drank. (Me: earlier brandy was in fashion...) Brandy was in fashion. The Mughals used to drink brandy a great deal. The cup, in which Emperor Jehangir used to drink brandy is preserved in Victoria and Albert Museum. It's a very beautiful thing. A jade cup. (Me: ইস্ট বেঙ্গলের লোকেরা কি ওয়েস্ট বেঙ্গলের লোকেদের তুলনায় কম ড্রিঙ্ক করত?) You see, it's all related to the middle class regular people. Our peasantry used to drink a little. You see, that hard labour... you need something. You see, drinking is social taboo among the Hindus, it's religious taboo among the Muslims. Not that any Muslim has been keen to observe that in India. The Muslim courtly classes were great drinkers. The popular description of Muslims in northern India, the upper-class Muslims, is kababi and sharabi. So, it was quite common. In our childhood, we had lot of coming and going with Muslim families. I have not seen much drinking among them. You see, the 19th century excess of drinking had disappeared by the early 20th century, through the প্রভাব of the swadeshi and Brahmoism and other things. But now it has come back. I think, it has come back -- if it is investigated -- in a dangerous form. People drink much more than they should. (Me: Poor man's drink, like toddy, was it common in east Bengal also?) Yes, toddy was common. You see, we used to drink the juice of the date palm. It's great. Amd if it is left a little while, it becomes toddy. Of course, the date palm secretion is a great drink. Very very delicious.

    (Me: আপনাকে কোনো বকৃতায় বলতে শুনেছিলাম, when you were a student in Calcutta, you used to go to Chandannagar for French wine...) Yeah. But that was not usual. It would not be correct to sugest that the Calcutta students used to go to Chandannagar to drink. You see, we had these Burma refugees in our hostel. They were very Westernised in their habits. And they had discovered cheap wines in Chandannagar. Proper French wines. And we went along with them. And thereby I discovered this great drink. এই স্টুডেন্টরা বার্মীজ নয়, বার্মা রিফিউজিস। এদের মধ্যে বার্মীজ প্রায় ছিল না। বেশির ভাগ-ই বাঙালি, ইংলিশ-স্পিকিং বেঙ্গলিজ। তাদের মধ্যে অনেকে মুসলমান। এরা সবাই ভীষণ বড়লোক। এরা কলেজে কখনো খেত না। ডিনারটা রাত্রে সব সময়েই হোটেলে।

    (Me: অন্য প্রসঙ্গে, পূর্ব বাংলায় কি স্ন্যাক্স-এর মধ্যে চিড়ে খাওয়ার প্রচলন বেশি, পশ্চিম বাংলায় মুড়ি...) তা বলতে পরি না। চিড়ে-মুড়ি দুটোই আমরা ছোটোবেলায় খেতাম। এই রাইস-বেসড প্রোডাক্টগুলি, যেমোন পান্তা ভাত...

    (Me: আরেকটা জিনিস নিয়ে কথা হল না, শুঁটকি মাছ।) শুঁটকি মাছ কোনো কোনো জেলায়, সব জেলায় না। পশ্চিম বঙ্গেও দু একটি জেলায় খাওয়া হয়। (Me: coastal districts...) হ্যাঁ। শুঁটকি মাছ অতি সুস্বাদু জিনিস। রান্নার সময় ভয়ানক দুর্গন্ধ বেরোয়। জিনিসটায় কিন্তু কোনো দুর্গন্ধ নেই। once it is cooked, it is great. বরিশালেও খাওয়া হয়, ঢাকা, চট্টগ্রামে খুব বেশি, নোয়াখালিতে খুব বেশি খাওয়া হয় শুঁটকি মাছ।
  • sosen | 212.142.113.28 | ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ২২:০০668905
  • পড়ছি
  • achintyarup | 127.194.66.9 | ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ২৩:৫২668906
  • এই পর্যন্তই আছে। সরি, লিখে দেওয়া উচিত ছিল।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। চটপট মতামত দিন