আরও পড়ুন
হে রাম! - Ranjan Roy
আরও পড়ুন
চুপির চর  - Abhyu
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • aranya | 154.160.226.53 | ২৪ মে ২০১৩ ২২:২২612062
  • ভাল লাগল। একটা সম্ভাব্য লৌকিক ব্যাখা কি এরকম হতে পারে -
    বাড়িটার মাটির নীচে আরও তলা আছে, তৃতীয় দরজা খুলে সিঁড়ি দিয়ে সেখানে যাওয়া যায়। একজন লোক থাকে বাড়িতে, যার কাছে সব দরজার চাবি আছে (হয়ত ঐ সৌম্যদর্শন দারোয়ানজী) এবং যে লোককে ভয় দেখাতে ভালবাসে। সে বাড়ীর নিচের তলা থেকে ঐ সিঁড়ি বেয়ে উঠে তৃতীয় দরজা খুলে প্যাসেজে এসে রুপঙ্কর-দার দরজায় নক করে ভয় দেখিয়েছে, তারপর কোথাও লুকিয়ে পড়েছে। পরে কখনো তৃতীয় দরজায় আবার তালা লাগিয়ে দিয়েছে।
  • রূপঙ্কর সরকার | 126.203.195.212 | ২৪ মে ২০১৩ ২২:৫৯612063
  • অরণ্য - ব্যাখ্যা তো একটা কোথাও না কোথাও থাকতেই হবে। তবে জাগতিক ব্যাখ্যা ( জাগতিক অর্থে, আমাদের লৌকিক জগত) করার অনেক চেষ্টা করেছি। আগেই বলেছি, আমি এমন লোক, যে ভূতকে ভয় দেখাতে যাই। আমার পক্ষে তো ঘটনাটার থেকেও তার সম্ভাব্য অভিমুখ খোঁজার চেষ্টা করাই ছিল প্রথম কর্তব্য।

    প্রথম কথা তিন নম্বর সিঁড়ি।
    ঐ বাড়িটা আমাদের থাকার জন্য তৈরী হয়নি। গৃহস্থ লোকজন থাকতেন। লুম্পেনদের ভয়ে পালিয়ে গেছেন প্রায় সব বাড়ির লোক। যাঁদের এদিক ওদিক জানাশোনা ছিল, তাঁরা ধরাকরা করে কর্পোরেট সংস্থাকে ভাড়া দিয়েছেন। এবার নিজেদের থাকার বাড়িতে তিনখানা সিঁড়ি কে বানায় এবং কেন?

    আমি তো দুটোরই জাস্টিফিকেশন পাচ্ছিলামনা। এবার দরওয়ানজিকে অনেক জেরা করে জানা গেল, গৃহস্বামীর সঙ্গে তাঁর একমাত্র ছেলের বনিবনা ছিলনা। সম্ভবতঃ বাড়ির অমতে বিয়ে করেছিলেন। তাই পিতা তাঁর মুখদর্শন করবেননা বলে পেছনের সিঁড়ি বানিয়ে তাকে আলাদা করে দেন। ওপর তলাটা তাঁর জন্যেই তৈরী। কিন্তু তিন নম্বরটা কার জন্য?

    আর একটা কথা আগেও বলেছি। তিন নং সিঁড়িটা থাকলে সেই স্পেসটা থাকবে তো। দোতলায় বা একতলায় গেলে সেই স্পেসটা নজরে আসেনি। দেয়াল জুড়ে বড় বড় জানলা তো।

    কিন্তু এটাও ঠিক, সেই দরজার পেছনে কিছু ছিল নিশ্চয়ই, অজিতদা অনেক ভেবে চিন্তে বলল, ছেলেকে আলাদা করে দিলে, তার শোবার ঘর, বৈঠকখানা, বাথরুম সব করে দিয়েছেন, তা সে খাবে কী? ওটা নিশ্চয় রান্নাঘর। আর তাই তালাবন্ধ হয়ে পড়ে আছে। আমাদের কোম্পানীর তো রান্নাঘরের দরকার নেই। অন্য বাড়িতে কিচেন আছে তো। তাই ওটা খোলাও হয়না।

    দরওয়ানজী ভয় দেখাতে গেলে তাঁর ইন্টারেস্ট বা লাভ কী? আর আমার মত উইক এন্ডে আর কেউ তো থাকেনি সেখানে কোনওদিনই। আমি মাঝে মাঝেই খবর নিতাম। মানে যত দিন ওই বাড়িটা আমাদের কাছে ভাড়ায় ছিল।

    আর কোনও পসিবিলিটি মাথায় আসছে তোমার?
  • aranya | 154.160.226.53 | ২৪ মে ২০১৩ ২৩:১২612064
  • নাঃ, আর কিছু ভেবে বের করতে পারছি না, ইন ফ্যাক্ট, যে ব্যাখাটা দিলাম, সেটাও খুবই ফার ফেচড। দেয়ার আর মোর থিংস ইন হেভেন & আর্থ ...
  • রূপঙ্কর সরকার | 126.203.195.212 | ২৪ মে ২০১৩ ২৩:২২612065
  • একটা ব্যাপার বলতে পারি, আমার ডিসটিঙ্কটলি মনে আছে, যখন নামছিলাম, আমার ভেতরে যেন দুটো আমি হয়ে গেল। একটা আমি বলছে যা না যা, আর একটু যা - দেখবি কি দারুন ব্যাপার। আবার অন্য আমিটা বলছে, খবরদার আর একটা স্টেপও নামবিনা, সর্বনাশ হয়ে যাবে। এই দু নম্বর আমিটা যেন আমাকে টেনে হেঁচড়ে তুলে আনল।

    কী জানি, সবই মনের ভুল হতে পারে। তবে আমি নেমেছিলাম, ফিজিক্যালি, হান্ড্রেড পারসেন্ট। কোনও ভুল নেই, হয়তো নয়তো নেই। হ্যালু ফ্যালু কিচ্ছু নেই। আমি ওই সিঁড়ি দিয়ে আলবাত নেমেছি।
  • aranya | 154.160.226.53 | ২৪ মে ২০১৩ ২৩:২৭612066
  • দূর্দান্ত অভিজ্ঞতা। ভাল লাগল, শেয়ার করলেন বলে।
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
    • কি, কেন, ইত্যাদি
    • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
    • আমাদের কথা
    • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
    • বুলবুলভাজা
    • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
    • হরিদাস পালেরা
    • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
    • টইপত্তর
    • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
    • ভাটিয়া৯
    • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
    যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
    মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


    পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা মনে চায় প্রতিক্রিয়া দিন