এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • শাহাজাদা দারা শুকোহর স্বপ্ন : ইন্ডিক টেক্সটের সঙ্গে মোঘলদের সম্পর্ক

    upal mukhopadhyay লেখকের গ্রাহক হোন
    ০৭ এপ্রিল ২০২৪ | ২৮৪ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • শাহাজাদা দারা শুকোহর রাজনৈতিক প্রকল্প ছিল নিজেকে রামায়ণ – মহাভারতের মতো ইন্ডিক টেক্সটের প্রেক্ষিতে ভাবী আদর্শ বাদশাহ হিসেবে ভাবা। এর জন্য একটা স্বপ্নের গল্প বানালেন তিনি। দারা বলছেন :

    একদিন বশিষ্ঠ মুনি ও শ্রীরাম স্বপ্নে তাঁকে দেখা দেন। মুনিবরকে দেখেই শাহাজাদা দারা শুকোহ আভূমি প্রণত হলেন। খুশি হয়ে মুনিবর বলেন, ''বৎস রামচন্দ্র, এ হল তোমার একনিষ্ঠ ভক্ত, আলিঙ্গনে ধন্য কর একে।'' এর পর দারা বলছেন - শ্রীরাম আমাকে সস্নেহে আলিঙ্গন করেন। তারপর মুনিবর আমাকে দেওয়ার জন্য মিঠাই দিলেন রামচন্দ্রকে। আমি সেই মিঠাই ভক্তিভরে গ্রহণ করলাম।

    এই স্বপ্নের গল্প দারার আরেক অনুবাদের প্রকল্প অভিনন্দর লঘু যোগ বশিষ্ঠর ফার্সি অনুবাদের সঙ্গে আছে। এই গল্পে রামচন্দ্র আর বশিষ্ঠ মুনির সঙ্গে নিজেকে একাসনে বসিয়ে দারা অমুসলিম জন গোষ্ঠীর কাছে ভাবী শাসক হিসেবে নিজের গ্রহণযোগ্যতা বাড়াতে চাইছেন । একই টেক্সট লঘু যোগ বশিষ্ঠর ফার্সি অনুবাদের প্রকল্প আকবর আর জাহাঙ্গীরও নিয়েছিলেন । মোঘলদের কাছে ইন্ডিক টেক্সটের অনুবাদ ছিল এক রাষ্ট্রীয় প্রকল্প যা হিন্দুস্থানের মাটিতে সালতানাতকে গভীরে প্রোথিত করতে সাহায্য করেছিল। একই সঙ্গে সংস্কৃত-ফার্সি এক মিশ্র ভাবনা বিশ্বেরও জন্ম দেয়। এই মিশ্রণ ভাবনায় স্থানীয় ভাষায় সৃষ্টির বাঁধও খুলে গেল। উত্তর ভারতীয় কবি সুরদাস অবধিতে নল দময়ন্তীর প্রেমগাথা রচনা করলেন সুফি রোমান্সের ভঙ্গিতে। সেই বই উৎসর্গ করা হচ্ছে শাজাহানকে।

    ঔরঙ্গজেব তাঁর দরবার থেকে দারা শুকোহর কাছের লোক কবিন্দাচার্যকে সরিয়ে দিয়ে, সংস্কৃত ভাষায় অনুবাদের শাহী প্রকল্প বন্ধ করলেও তাঁর মেয়ে জেব উন্নিসাকে ইন্ডিক টেক্সট চর্চায় বাধা দেননি, দরবারের হোমরা চোমরারাও আগের মতো এসবে উৎসাহ দিতেন। ঔরঙ্গজেবের মহলের কর্মী কবি মির আকসারি রাজি অবধিতে লেখা শেখ মানজনের বিখ্যাত সুফি প্রেমকাব্য মধুমালতী ফার্সিতে অনুবাদ করেছিলেন। ঔরঙ্গজেবের দরবারে ঠাঁই না পেলেও কবিন্দাচার্য মোঘল অভিজাত দানিশমন্দ খানের দরবারে ছিলেন। তারপর ওনাকে ফরাসি পর্যটক বার্নিয়েরের সঙ্গে কাজ করতে দেখা যাচ্ছে। ঔরঙ্গজেবের মামা শায়েস্তা খান নিজে সংস্কৃতে কবিতা লিখতেন। সে সব রসকল্পদ্রুম নামের সংকলনে আছে। তাছাড়া উনি সংস্কৃত পণ্ডিতদের পৃষ্টপোষক ছিলেন ও অনুবাদের কাজ করিয়েছিলেন। আকবরের সময় করা মহাভারতের সূচি তৈরি করান বসন্ত রায়কে দিয়ে।সংস্কৃত কবিরাও ঔরঙ্গজেবকে সম্মান জানিয়ে এসেছেন। দেবদত্ত তাঁর গুজরাটি মহিলাদের প্রেমকাব্য গুজারিশতাকাম বইটাতে ঔরঙ্গজেব ও তাঁর ছেলে আজম শাহের উল্লেখ করেছেন। ষোলোশো নব্বইতে চন্দ্রমান রামায়ণ অবলম্বনে লেখা ফার্সি কাব্য নার্গিজিস্তান উৎসর্গ করছেন ঔরঙ্গজেবকে। আরো পরে সতেরোশো পাঁচে, অমর সিংহ ফার্সি গদ্যে রামায়ণ অবলম্বনে লেখেন অমর প্রকাশ আর তাও উৎসর্গ করা হল ঔরঙ্গজেবকে। তাঁর আমলে দরবারে সংস্কৃত ভাষার সঙ্গে আন্তঃক্রিয়া ঘটানোয় ছেদ টানা হলেও, শাহী মহলে ইন্ডিক টেক্সটের চর্চা অব্যাহত ছিল। মানেটা পরিষ্কার ,আনুষ্ঠানিক কিছু বিরুদ্ধ পদক্ষেপ নিলেও ঔরঙ্গজেব এই ধারাবাহিকতায় হস্তক্ষেপ করেন না।
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • upal mukhopadhyay | ০৮ এপ্রিল ২০২৪ ২০:২৪530384
  • মনে হচ্ছে আলমগীর বই হবে। তখন পুরোটা পাবেন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। হাত মক্সো করতে মতামত দিন