এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • বুলবুলভাজা  পড়াবই  প্রথম পাঠ

  • পুস্তক সমালোচনা : সাদা পর্দার আলো (শুভদীপ ঘোষ)

    সোমনাথ ঘোষ
    পড়াবই | প্রথম পাঠ | ০১ এপ্রিল ২০২৪ | ১০৫৭ বার পঠিত | রেটিং ৫ (৪ জন)

  • ছবি: রমিত



    গোদার প্রশ্ন তুলেছিলেন চলচ্চিত্রের বিশ্লেষণ বা সমালোচনার জন্য প্রবন্ধ না লিখে আরেকটা চলচ্চিত্র নির্মাণ কেন করা হবে না। গোদারের সিনেমার মতই তাঁর এই ভাবনাটি নিঃসন্দেহে বৈপ্লবিক, যদিও এই ধরণের কোন সফল প্রচেষ্টা হয়েছে বলে আমার জানা নেই। শুভদীপ অবশ্য সেই পথে হাটেননি, তার লেখা একাধিক চলচ্চিত্র বিষয়ক প্রবন্ধের সঙ্কলন হল “সাদা পর্দার আলো” বইটি। সিনেমা শিল্পমাধ্যমের ব্যাপারে অনভিজ্ঞ লোকজন প্রায়শই কোন বিশেষ সিনেমা সম্পর্কে প্রশ্ন করে থাকেন যে সেটি আর্ট ফিল্ম না কমার্শিয়াল ফিল্ম। এই প্রশ্ন কবিতা, সাহিত্য এমনকি নাটকের ক্ষেত্রেও কিন্তু করা হয়না। সফল কবিতা বা ব্যর্থ কবিতা বলতে আমরা বুঝি কবিতাটি শৈল্পিকভাবে সফল না ব্যর্থ। সিনেমার ক্ষেত্রেও কিন্তু একই বিশ্লেষণ প্রযোজ্য। শুভদীপের প্রবন্ধগুলি কিন্তু সেইসব চলচ্চিত্রকারদের নিয়ে যাদের কাজ শৈল্পিক ভাবে নিপুণ। শুভদীপের প্রবন্ধে যেমন আছেন গোদার, বার্গম্যান, আন্তনিওনি, হিচকক, চ্যাপলিন তেমনই আছেন কিয়ারোস্তামি, ওজু, আমাদের সত্যজিৎ, মৃণাল এবং বর্তমান সময়ের বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার নুরি বিলজ সিলান।

    যে কোন সফল প্রাবন্ধিকের লেখনীর একটা নিজস্ব স্টাইল থাকে। শুভদীপের লেখনীর দুটি বৈশিষ্ট্য আছে। দ্বিতীয়টির কথায় আমরা একটু পরে আসছি। শুভদীপ কোন প্রবন্ধের শুরুতেই সাধারণত মূল বিষয়ে সরাসরি প্রবেশ করেন না। এখানে মূল বিষয় বলতে বলা হয়েছে চলচ্চিত্র বা চলচ্চিত্রকার সম্পর্কিত আলোচনা। লেখকের একাধিক প্রবন্ধই শুরু হয় কোন উদাহরণ/ উপমা বা কোন সংজ্ঞার ব্যাখ্যা- বিশ্লেষণ দিয়ে। যেহেতু প্রবন্ধগুলি সময়কাল অনুযায়ী সাজানো (বইয়ের সর্বপ্রথম প্রবন্ধ তার সাম্প্রতিকতম লেখা), তাই বোঝা যায় সময়ের সাথে লেখক এই স্টাইলটি রপ্ত করেছেন। প্রথম প্রবন্ধে (উত্তরঔপনিবেশিকতার বয়ান – রেনোয়া ও মালের চলচ্চিত্র) তিনি উপনিবেশ, উত্তর ঔপনিবেশিক দুনিয়া, ওরিয়েন্টালিজম নিয়ে বিষদে আলোচনার পর ছবির বিষয়ে আসেন। আরো উদাহরণ হিসেবে কিয়ারোস্তামি ও সিলানের উপর প্রবন্ধগুলির কথা বলা যেতে পারে। বিস্তারিত লিখলাম না কারণ আগ্রহী পাঠক পড়লেই বুঝতে পারবেন। আসলে লেখক পাঠকদের প্রথমে একটা প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসতে চান এবং তারপর সেখান থেকে তিনি তার ডালপালা ছড়ান, লেখার বিস্তার ঘটান। পাঠকের সঙ্গে এমন সংযোগের প্রক্রিয়া নিঃসন্দেহে প্রশংসার যোগ্য।

    বইয়ের প্রথম তিনটি (উত্তর-ঔপনিবেশিকতার বয়ান ও মৃণাল সেনের উপর দুটি প্রবন্ধ) প্রবন্ধ পড়লে পাঠকের মনে হতে পারে লেখকের রাজনৈতিক প্রবন্ধ লেখার উপর ঝোঁক বেশি। পুরো বইটি পড়লে সে ভুলটা পাঠকের কেটে যাবে। তার বেশিরভাগ প্রবন্ধগুলিই আদতে বিশুদ্ধ চলচ্চিত্র সংক্রান্ত। এখানে তার লেখনীর দ্বিতীয় বৈশিষ্ট্যটি লক্ষণীয়। বিষয়ের সাথে তার লেখার ধরণ বা ম্যুড পালটাতে থাকে। “চলচ্চিত্রে আধুনিকতা- আন্তর নব্য বাস্তববাদী আন্তনিওনি ও ব্লো-আপ” প্রবন্ধে লেখক ব্লো-আপ ছবিটিকে কেন্দ্র করে আন্তনিওনির নব্যবাস্তববাদী চিন্তার পরিসর এই ঘরানার অনান্য পরিচালকদের থেকে কিভাবে ভিন্ন সে বিষয়ে এবং বস্তুবিপ্লবের জমানায় বস্তুর সাথে মানুষের সম্পর্ক এবং বস্তু কর্তৃক মানবমন নিয়ন্ত্রিত হবার বিষয়ে দীর্ঘ ও গূঢ় আলোচনা করেছেন। চলচ্চিত্রকে কেন্দ্রস্থলে রেখে দর্শন ও মনস্তত্ত্ব নিয়ে একটি অসাধারণ আলোচনা এই লেখাটি। আমার মতে এটিই এই বইয়ের অন্যতম সেরা লেখা। শুধু তাই নয়, লেখাটি পড়লে মনে হয় এই ধরণের জটিল আলোচনার লেখনী যেন এমনই হওয়া উচিত। অন্যদিকে আমরা যখন “সাহিত্য থেকে চলচ্চিত্র – পরশুরাম, তুলসী ও সত্যজিৎ” প্রবন্ধটি কিংবা “আলফ্রেড হিচককের ছবি, অপরাধের অন্তরাল” পড়ি, তখন মনে হয় পরশ পাথরের ম্যাজিক রিয়ালিটির সাথে বা হিচককের “অপরাধের অন্তরালের” সাথে এই লেখাগুলির ম্যুডও যেন বদলেছে। বিষয়ের সাথে লেখনীর বদল ঘটানো খুব সহজ কাজ নয়, শুভদীপ কিন্তু এই কাজটি সফল ভাবে করেছেন।

    বইয়ের বিভিন্ন প্রবন্ধ নিয়েই অনেক কথা বলা যায়, তবে বিশেষ করে উল্লেখ করব গোদারের উপর প্রবন্ধটি (গোদারের চলচ্চিত্র – নবতর চিত্রভাষার প্রস্তাবনা)। অনেক সিরিয়াস সিনেমাপ্রেমীর কাছেই গোদার মানেই দুর্বোধ্যতা, তাঁর সিনেমা অনেকেই ডিকোড করতে অক্ষম। এই লেখাটি গোদারকে বোঝার জন্য একটা ভালো স্টার্টিং পয়েন্ট। লেখাটি পড়লে গোদারের ছবি বোঝার ক্ষেত্রে দর্শক একটা আন্দাজ তৈরি করতে পারবেন, গোদার চর্চা কোথা থেকে শুরু করতে হবে সেই বিষয়ে একটা স্পষ্ট ধারণা হবে। অবশ্য লেখাটি আরেকটু দীর্ঘ হলে ভালো হত। মৃণাল সেনের উপর দুটি প্রবন্ধ মোটামুটি একই ধরণের। দুটিকে মিলিয়ে একটি প্রবন্ধ হলে ভালো হত।

    পরিশেষে একটি ডিসক্লেমার দিয়ে এই লেখা শেষ করছি। আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে যেখানে মানুষ ৩০০ শব্দের বেশি পড়তে চায় না, সেখানে শুভদীপের লেখাগুলি পাঠকের সিরিয়াসনেস ও মনঃসংযোগের দাবি রাখে। এই বইটি শুধুমাত্র সিরিয়াস পাঠকদের জন্যই। বইটির পাঠ চলচ্চিত্র অনুরাগীদের সিনেমার টেকনিক্যাল দিকের থেকেও মাধ্যমটির শিল্পকলার রস আস্বাদন করতে সক্ষম করবে। একজন শিল্পীর উপর নানা দিক থেকে আলো ফেলে কিভাবে তাঁকে বিশ্লেষণ করা যায় তার অনন্য নিদর্শন এই বইয়ের বিবিধ প্রবন্ধগুলিতে লেখক রেখেছেন। চলচ্চিত্র নিয়ে এমন বিবিধ প্রবন্ধের বই ইদানীং কালে খুব কমই লেখা হয়েছে। গুরুচণ্ডা৯কে এমন একটা বইয়ের পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য অশেষ ধন্যবাদ জানাই।


    সাদা পর্দার আলো
    শুভদীপ ঘোষ।

    প্রকাশক: গুরুচণ্ডা৯
    মূল্য—২০০ টাকা।
    বাড়িতে বসে বইটি পেতে হোয়াটসঅ্যাপে বা ফোনে অর্ডার করুন +919330308043 নম্বরে।
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক।
  • পড়াবই | ০১ এপ্রিল ২০২৪ | ১০৫৭ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • ইন্দ্রাণী | ০১ এপ্রিল ২০২৪ ১৪:২৪530109
  • ব‌ইটির যোগ্য আলোচনা।
  • রচয়িতা দত্ত | 2409:4060:ece:278a:fda8:8786:178e:df37 | ০১ এপ্রিল ২০২৪ ২১:৩৬530121
  • বইটি কিভাবে সংগ্রহ করতে পারি জানালে ভালো হয়? 
  • রমিত চট্টোপাধ্যায় | ০১ এপ্রিল ২০২৪ ২৩:৩৭530127
  • সাদা পর্দার আলো
    শুভদীপ ঘোষ।
    প্রকাশক: গুরুচণ্ডা৯
    মূল্য—২০০ টাকা।
    বাড়িতে বসে বইটি পেতে হোয়াটসঅ্যাপে বা ফোনে অর্ডার করুন +919330308043 নম্বরে।
  • Amitava Mukherjee | ০১ মে ২০২৪ ২২:৪৩531297
  • এই বইটি অনলাইনে কোনো ভাবে কেনা যাবে? 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভ্যাবাচ্যাকা না খেয়ে প্রতিক্রিয়া দিন