এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • বইমেলার বই ১

    সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায় লেখকের গ্রাহক হোন
    ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ | ৬৪৪ বার পঠিত | রেটিং ৪.৮ (৪ জন)
  • বইমেলা ঘাড়ের উপর চলে এলে তবে আমাদের চৈতন্য হয়, যে, এবার বইটই ছাপতে হবে। তার আগে ঘোষণা করতে হবে। সম্পাদনা শেষ করতে হবে। প্রচ্ছদ বানাতে হবে। অনেক কাজ, কিন্তু সময় আর সাড়ে তিন মিনিট ।  সিনেমায় টাইম বোমার ঘড়িগুলো সবসময়েই কোনো অজ্ঞাত কারণে টিকটিক করে শব্দ করে। কিন্তু  ওগুলো পুরোটাই গুলবাজি। বইমেলা নামক সময় বোমা কোনো শব্দ না করেই ঘনিয়ে আসে। নায়কদের মতো প্রতিবারই আমরা কানঘেঁষে বেরিয়ে যাই। মরিনা। এবারও মরবনা, তাই রোজ এক এক করে বইপত্তরের ঘোষণাগুলো করে ফেলতে হবে। যা প্রকাশিতব্য, বইমেলায় গেলেই কিনে ফেলতে পারবেন।

    প্রথম বইয়ের নাম "পেন্সিলে লেখা জীবন"। লিখছেন অমর মিত্র। অমরদাকে যতদিন চিনি কখনও পেন্সিলে লিখতে দেখিনি। এমনকি সইও পেন দিয়ে করেন। এক্ষেত্রে অবশ্য নিজের লেখার কথা হচ্ছেনা, হচ্ছে জীবনের কথা, যা আদতে পেন্সিলে লেখা। আঁকা বললেও অত্যুক্তি হতনা। কারণ অমরদার দীর্ঘ জীবন সারি-সারি পেন্সিল স্কেচের মতোই। নানা রকম ছবি, তার নানা শেড, আলোছায়া। আর ছবির মতো করে এঁকেছেনও সেই সময়ের ধারাবিবরণী। সম্পূর্ণ অন্য ধরণের এক যাত্রা। আস্ত এক অজানা জীবনচরিত। 

    দ্বিতীয় বইটি 'হরিণের কাছাকাছি'। লিখেছেন ইন্দ্রাণী। তিনি পদবী লেখেননা। গল্পও লেখেননা। যা আঁকেন, যাঁরা ইন্দ্রানীদির লেখা পড়েছেন জানেন, সে মূলত চলমান জলছবি। তাতে খোঁচা, তীক্ষ্ণতা যেমন থাকে, তেমনি থাকে চকিত ভাঁজ আর মায়া। ইন্দ্রাণীদির পাঠক প্রচুর, নতুন করে বলার কিছু নেই। এইটুকুই, যে, আরেকটি বই প্রকাশ করতে চলছি আমরা, যা যথার্থভাবেই ইন্দ্রাণীসুলভ। একটুও বেশি বা কম না। 

    আপাতত এই দুই। বাকি বইয়ের খবরাখবর ক্রমে আসবে। গুরুচণ্ডা৯র বইপ্রকাশের ব্যাপারটা যাঁরা জানেন, তাঁরা সবাই জানেন, যে এটা একটা সমবায় পদ্ধতি, আমরা যাকে বলি দত্তক নেওয়া। প্রিয় ও পরিচিত লেখকদের, অথবা পছন্দের লেখার ছাপার খরচের পুরোটা বা কিয়দংশ বহন করেন পাঠকরাই, যাতে আমরা সস্তায় আরও বেশি পাঠকের কাছে বইটি পৌঁছে দিতে পারি। এক্ষেত্রে সেরকম কেউ আগ্রহী হলে জানাবেন। [email protected] এই ঠিকানায়। আর বইদুটি তো বইমেলায় পাবেনই। স্টল নম্বর এলেই জানিয়ে দেব। এখানেই। 

    বাকি বইয়ের খবর পরের দিন।
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • upal mukhopadhyay | ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ১২:৪১526806
  • অমরদা আমাদের গোটা জীবনেরই প্রেরণা আর ইন্দ্রানী যুক্তিকে ইমেজ দিয়ে আর ইমেজকে যুক্তি দিয়ে যে গল্পের খেলা খেলছেন তা সাহিত্যের উঠোনকে প্রায়শই উঁচু আরেক তলে দিয়ে যাচ্ছে ।দুটো বইই যাকে বোলে মাস্ট বাই বৈ আরকি !1broken heart
  • জিজ্ঞাসা | 2a0b:f4c2:: | ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৯:০১526812
  • ইন্দ্রাণীদেবীর বইটা গল্প না উপন্যাস? অমরবাবুরটা আত্মজীবনী তো? 
  • π | ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ২২:১৮526815
  • গল্প সংকলন।
  • হুম্মম | 163.116.205.116 | ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ২২:৫০526816
  • মাইরি প্রত্যেক বছর ঠিক করা হয় দাবী দাওয়া জানানো হয় কর্তৃপক্ষ আশ্বাস দেন পরের বার থেকে আরো সময় নিয়ে কাজ শুরু হবে কিন্তু ঠিক ঘাড়ের ওপর নিশ্বাস নিয়েই কাজ করতে হয় প্রতি বার
    এবার এখানে লিখে রাখলাম যদি একটু কাজ হয় কিছু অন্তত চক্ষুলজ্জায় 
    cheeky
     
  • GR17 | 208.127.71.79 | ১০ ডিসেম্বর ২০২৩ ০৮:৩০526822
  • দাবী দাওয়া কে জানায় আর কর্তৃপক্ষ কাকে আশ্বাস দেয়? দেখিনি তো কখনো।
    দাবী দাওয়া তো যারা বইয়ের কাজকর্ম করে তারা জানাতে পারে। তো, রোবটগনের কোন কর্তৃপক্ষ আছে নাকি তেমন?

    শেষ মুহূর্তে চৈতন্য হওয়ার ব্যাপারটা মজা-ই, কাজকর্মে জড়িত থাকলে অন্তত বুঝতে অসুবিধে হওয়ার কথা না, মানে আর যাই হোক, কোন লেখককে নিতান্ত ব্যতিক্রমী কেস না হলে পনেরো দিন আগে আপনার বই ছাপবো বলা যায় না, তার আগেও পরিকল্পনা লাগে।
    যেহেতু ব্যাপারটা স্বেচ্ছাশ্রমে চলে, তাই লোকেদের ছাচা, ঘর গেরস্থি সামলে সময় বের করা চাপ হয় আর শেষ সময়ে আতংক হয়। না হলে ভালো হতো, কিন্তু কী আর করা।
  • &/ | 107.77.237.70 | ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ ২০:৩৭526847
  • আহা কত নতুন বই আসবে !!!
  • aranya | 2601:84:4600:5410:55da:4278:a01d:238b | ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ ২১:১৭526848
  • ছাপা বই এখনো একটা দারুণ ব্যাপার, এই ডিজিটাল যুগেও 
  • &/ | 107.77.237.70 | ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ ২২:৫৮526854
  • হ্যাঁ, ছাপা বইয়ের তুলনা নেই । যদিও গুছিয়ে রাখা চাপের । তবু বই হাতে নিয়ে পড়ার আনন্দ একটা অন্যরকম ব্যাপার 
  • গুগুস | ২৬ জানুয়ারি ২০২৪ ০০:৫৬527949
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লাজুক না হয়ে প্রতিক্রিয়া দিন