এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • প্যালেস্তাইন - সোজা কথা 

    সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায় লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৮ অক্টোবর ২০২৩ | ১৫১৬ বার পঠিত | রেটিং ৪.৮ (৪ জন)
  • জিনিসটা কিন্তু সত্যি-সত্যিই হচ্ছে। আপনি-আমি যখন নিজের জীবন কাটাচ্ছি, পূর্ব গোলার্ধে লোকে যখন নাক ডাকিয়ে সুখনিদ্রায়, ইউরোপের লোকে যখন ডিনার সেরে মিষ্টি কী খাওয়া যায় ভাবছে, আমেরিকার লোক যখন মাইনে পাবে বলে আপিসে খাটাখাটনি করছে কিংবা বসকে তেল দিচ্ছে, ঠিক তখনই প্যালেস্তাইনের আস্ত হাসপাতাল কিন্তু বোমাবর্ষণে গুঁড়িয়ে যাচ্ছে। সত্যি-সত্যিই ওখানে জল নেই, বিদ্যুৎ নেই, খাবার নেই, সত্যি সত্যিই রামাল্লা আর গাজায় ঘনঘন চলছে বোমা আর মিসাইল বর্ষণ, পশ্চিমী হিসেবেই হাজার তিনেক লোক ফৌত হয়ে গেছে এই কদিনে, সত্যি সত্যিই প্রতি পনেরো মিনিটে একজন করে প্যালেস্তানীয় শিশু মারা যাচ্ছে হামলায়। 

    জিনিসটা যেহেতু সত্যি সত্যিই হচ্ছে, তাই টিভি থেকে বেরিয়ে নিজেকে একবার ওদের জায়গায় বসিয়ে ভাবা যাক। এর কোনো একটার সামান্য ভগ্নাংশ হলেও আমি-আপনি বিচলিত হয়ে পড়ি। বিদ্যুৎ না থাকলে সরকারকে খিস্তি মারি, খাবারের অভাব হলে খাদ্য আন্দোলন হয়, ঠিক অথবা ভুল কোনো কারণে রোগীমৃত্যু হলে হাসপাতাল ভাঙচুর হয়। আইন-আদালত-থানা-পুলিশ হয়, তাতে সুবিচার না পেলে আমরা হই-হট্টগোল করি। এখানে সেসবের বালাই নেই। যিনিই রক্ষক তিনিই খাবার-জল-বিদ্যুৎ আটকে রাখেন ইচ্ছেমতো। দশকের পর দশক ধরে দিনের অর্ধেক সময় বিদ্যুৎ থাকেনা, শাসকের মর্জি। প্রভু যখন ইচ্ছে হামলা করেন, যাকে খুশি মারেন ও ধরেন। গত দুই দশকে কয়েক হাজার লোক এমনিই মারা গেছে এইভাবে। শুধু সাধারণ লোক না। পিএলওর অফিস গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আরাফতকে আটকে রাখা হয়েছে, ঘটেছে রহস্যময় মৃত্যু। গোটা জনপদ অবরুদ্ধ। আর এই যে ক'হাজার মরল এই কদিনে, এই যে হাসপাতাল উড়ে গেল, কী ভাঙচুর করবেন? কার কাছে নালিশ করবেন? গোটা পৃথিবীর শান্তিরক্ষকরা যাদের পক্ষে, তারা তো বলেই দিয়েছে, আমরা বোম মারিনি, রকেট ছুঁড়তে গিয়ে নিজেরাই নিজেদের হাসপাতাল উড়িয়ে দিয়েছে। এরপর শোনা যাবে, নিজেরাই বোমাবর্ষণ করেছে আর মিসাইল ছুঁড়েছে। নিজেরাই প্যালেস্তাইন দখল করে ইজরায়েলিদের হাতে তুলে দিয়েছে। ইয়াসের আরাফত যেমন নিজে নিজেই মরে গিয়েছিলেন। 

    এই অলীক জিনিসপত্র যখন সত্যিই হচ্ছে, তখন এটাও মনে রাখা যাক, যে, 'সব হিংসারই সমান নিন্দা' কখনও হয়নি। জালিয়ানওয়ালাবাগে হয়নি, হত্যাকারী সসম্মানে স্যালুট পেয়েছে, আর চট্টগ্রাম যুববিদ্রোহের নেতার হয়েছে ফাঁসি, মৃতদেহেরও সন্ধান পাওয়া যায়নি। পৃথিবীর সব আইনে 'আত্মরক্ষা' আর 'আক্রমণ'কে এক নজরে দেখা হয়না, কেবল দুনিয়ার বড়দাদের আইনে আক্রমণ জায়েজ, আত্মরক্ষা অপরাধ। গত কুড়ি বছর ধরে চলে আসা নিয়মতান্ত্রিক রাষ্ট্রীয় হিংসার প্রতিবাদ বিশেষ কেউ করেনি। তাঁদের একটু সুযোগ দেওয়া যেতে পারে, নিজেদের বদলে নেবার। কিন্তু তা যখন হচ্ছেনা, এই একুশে আইনে পৃথিবী যখন চলছে, তখন 'সব হিংসারই সমান নিন্দা' কথাটাই অবান্তর, অবাস্তব এবং আক্রমনকারীকে মদৎ দেওয়ার সামিল। বড়দা বুশ, এখনও এই গত পরশুও ইজরায়েলের কী করা উচিত, সে নিয়ে বক্তব্য রেখেছেন। এসব তো বন্ধ হবেনা, ইরাকের যুদ্ধাপরাধে আমেরিকার শাসকদের বিচার-টিচারও হবেনা। কিন্তু স্বনিয়ন্ত্রিত, সার্বভৌম প্যালেস্তাইনের কমে কোনো কিছু দাবী করা অর্থহীন। নতুন কিছু দাবী না, কিন্তু এই বক্তব্যটা স্পষ্ট করে না বলা মানেই, জিনিসটা ঘুলিয়ে দেওয়ার কাজে সাহায্য করা।

    এবং আরও একটা জিনিস সত্যিই হচ্ছে। পৃথিবীর ইতিহাসে প্রথমবার, প্যালেস্তাইনের স্বপক্ষে রাস্তায় ঢল নেমেছে। আমেরিকার প্রতিটি শহরে মিছিল। ইউরোপে বিক্ষোভ। আরব দেশের কথা বাদই থাক। শাসকরা যতই বড়দাদের ল্যাজ ধরে ঝুলুন, জনমতের একটা চাপ থাকেই। বহুপ্রতীক্ষিত সৌদি-ইজরায়েল বোঝাপড়া হওয়া আর বোধহয় সম্ভব না। আমেরিকার টিভিও সোচ্চারে ইজরায়েল যা করেছে ঠিক করেছে, বলতে পারছেননা। বাইডেন দৌড়চ্ছেন ইজরায়েলে। পরিস্থিতি আর ২০০৩ এর বুশের আমলের নেই, যে, 'ওয়েপনস অফ মাস ডেসট্রাকশন' এর গুল দিয়ে একটা যুদ্ধ বাধিয়ে দেওয়া যাবে। সময় কীকরে যেন একটা বদলাচ্ছে। আরাফত, পিএলও, সব্বাইকে গুম করে দেওয়া গেছে, কিন্তু প্যালেস্তাইনকে যায়নি।
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • পাতা :
  • সামঞ্জস্য | 74.82.60.52 | ২০ অক্টোবর ২০২৩ ২১:০৯524880
  • On 19 June 1967, shortly after the Six-Day War, the Israeli government voted to return the Sinai to Egypt and the Golan Heights to Syria in exchange for a permanent peace settlement and a demilitarization of the returned territories.
    The Arab position, as it emerged in September 1967 at the Khartoum Arab Summit, was to reject any peaceful settlement with the State of Israel. The eight participating states—Egypt, Syria, Jordan, Lebanon, Iraq, Algeria, Kuwait, and Sudan—passed a resolution that would later become known as the "three no's": there would be no peace, no recognition and no negotiation with Israel. 
  • সিএস | 2405:201:802c:7838:dcbb:fc91:a64e:adce | ২০ অক্টোবর ২০২৩ ২১:১৭524883
  • আর, ইস্রায়েলে গত ১ বছর ধরে প্রচুর ঝামেলা চলেছে, নেতানইহু ক্ষমতায় আসার পরে বিচারব্যবস্থাকে ঠুঁটো করার চেষ্টা করেছে, পার্লামেন্টের আইন তারা রিভিউ করতে পারবে না সেই আইন এনে পাশও হয়েছে মনে হয়, সে নিয়ে দেশে প্রচুর বিক্ষোভ হয়েছে, মিলিটারিও মনে হয় জড়িয়ে গেছিল। ডেমোক্রেসি থেকে একনায়কের দিকে যাচ্ছিল, তদুপরি আল্ট্রা রাইট উইং এর সাহায্য নিয়ে কোয়ালিশন। এবং এই কোয়ালিশন মোটামুটি এক বছরের, তার আগের কোয়ালিশনও ঐরকম স্থায়িত্বের, ইস্রায়েলে মনে হয় গত কয়েক বছরে গোটা পাঁচেক সরকার হয়েছে, নেতানইহু বিভিন্নভাবে ক্ষমতায় ফিরে এসেছে। আল - আকসা মসজিদ চত্বরে দীর্ঘদিন গোলমাল চলেছে। হামাস মনে হয় এই পরিস্থিতির সুযোগ নিয়েছে, আর সেটা ঘটে যাওয়ার পরে নেতানইহু আবার নিজের অবস্থ শুধরোবার জন্য হামাসের সুযোগ নিচ্ছে। বিবিধরকমের খেলা চলছে !
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b102:14fa:206a:834a:26f3:30 | ২০ অক্টোবর ২০২৩ ২১:৩০524885
  • এর মধ্যে এক এমপিকে সাসপেন্ড করেছে প্যালেস্টাইনের ওপর আক্রমণের সমালোচনা করার জন্য। একেবারেই ছাপ্পান্ন।
  • নেতানইহু | 173.49.254.96 | ৩১ অক্টোবর ২০২৩ ২২:৫২525391
  • ভদ্রলোক মনে হচ্ছে দেশের মধ্যে একটু বেকায়দায় এবারে। ইস্রায়েলে যার মারা গেছে অনেক পরিবারের লোকই সরাসরি তাকে আর তার সরকার্কে দায়ী করছে। তার নিজের মন্ত্রীরাই পাবলিকলি সমালোচনা করেছে। 
    উনার লক্ষ্য ছিল হামাস যাতে অস্ত্র ও পূর্ণ শাসনের অধিকার পায়। ওয়েস্ট ব্যান্কের মেহমুদ আব্বাস, ইয়ানি পি এ, ইজরায়েলকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকার করলেও ইহুদিদের 'হোম' বলে মানে না!  নেতানইহুর প্রকৃত উদ্দেশ্য ছিল হামাস্কে শক্তিশালী করে প্যালেস্তাইনের দুইদিকের মধ্যে বিভেদ বাড়ান। যদিও উনার সঙ্গীসাথি অনেকেই মনে করেন আদতে পি এ কে শক্তিশালী করাটাই বেশি কাজে দেবে। 
     
    দেখাই গেল ভদ্রলোকের লক্ষ্য বিশেষ কাজে দিল না। এবার চাক্রী নিয়ে টানাটানি! 
  • PRABIRJIT SARKAR | ০১ নভেম্বর ২০২৩ ১৯:২৫525413
  • সাম্রাজ্যবাদীদের মনে হয়েছে ইহুদিদের হোম ল্যনড থাকা দরকার তাই ইসরাইল সৃষ্টি হয়েছে। আসে পাশের দেশ গুলো কয়েকবার আক্রমন করে ইসরাইল কে গুঁড়িয়ে দিতে চেষ্টা করে সফল হয় নি। বরং ইসরাইল আরো শক্তিশালী হয়ে উঠেছে। হামাস তো মোসাদের সৃষ্টি। তাদের এত চুলকানি কিসের? ইস্রাইলকে শেষ করব বলে হুঙ্কার দেয়। কাতারে ফাইভ স্টার হোটেলে মাল গুলো বসে আছে। আর হুঙ্কার ছাড়ছে। গাজার সাধারণ জনগণ কুকুর বিড়ালের মত মরছে। শ্যাম চাচা নৌবহর পাঠিয়ে ইসরাইলকে পাহারা দিচ্ছে। এরকম চুলকানি দিয়ে লাভ কার? ইংল্যান্ড আমেরিকায় হাজার হাজার লোক রাস্তায় আগেও নামত এখনো নামছে। তাতে ইসরাইলের কিছু ছেড়া যাবে না।
     
  • m | 2605:6400:30:f5db:25a1:b884:ef2d:8818 | ০২ নভেম্বর ২০২৩ ২৩:০৩525460
  • ওদিকে প্রোটেস্টার পিছু কিরকম পড়ে?
  • Nabhajit | ০২ নভেম্বর ২০২৩ ২৩:৩০525461
  • ঘটনা গুলো ঠিক যেরকম আপনি বলছেন,ঠিক তা নয়। আপনার আমার দোষ নেই। আপনি আর আমি একই রেশনের চাল খাই  মানে এক মিডিয়ার গল্পই শুনি। আরাফতের ওপর হামলা ইত্যাদি যতটা সত্যি তার চেয়েও করুন সত্যি প্যালেসটাইনের পতি আরাফতের বেইমানি। পি এল ও টাকা আত্মসাৎ করে রামালায় একটা কোক কোম্পানীর বটলিং ফ্যাক্টরি করেছে,পারিসে প্রাসাদপ্রমান বাড়ী হাঁকিয়ে নিজের বউ কে ওখানে রেখেছে। ফিলিস্টিনিদের জন্য আরাফত কিছুই করেনি। যা করেছে ইসরাইলই করেছে। ওদের খাওয়াচ্ছে পড়াচ্ছে আর শাসন করছে। টু স্টেট কনসেপ্ট চলবে না ওখানে। 
  • lcm | ০২ নভেম্বর ২০২৩ ২৩:৫৫525463
  •  
    Israel continues to respond to Hamas' unprecedented attack on its people, bombarding Gaza and preparing for a ground offensive. Humanitarian groups and some foreign leaders are calling for a cease-fire. But what are the prospects for long-term peace?

    President Biden said Wednesday that there is no going back to the status quo before Oct. 7 — meaning in part that when the crisis is over, there must be a view of what comes next.

    "In our view, it has to be a two-state solution," he said, reiterating a comment he made during his visit to Israel. "And that means a concentrated effort for all the parties — Israelis, Palestinians, regional partners, global leaders — to put us on a path toward peace."

    The two-state solution calls for establishing an independent state for Palestinians alongside that of Israel. And U.S. support for it is nothing new: For decades, it has been the primary proposed framework for resolving the Israeli-Palestinian conflict.
     
  • পাতা :
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। সুচিন্তিত মতামত দিন