এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • জয় হনুমান 

    সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায় লেখকের গ্রাহক হোন
    ০৭ আগস্ট ২০২৩ | ২৬৭৬ বার পঠিত | রেটিং ৫ (২ জন)
  • হনুমান খুব বড় বীর। পুরোনো বাংলা পুঁথিতে লেখা আছে, পবনের ছেলে বজরংবলি হেলায় লঙ্কা করিল জয়। উপনিষদে লেখা আছে, ন হন্যতে হনুমান, অর্থাৎ, হনুমানকে মারা কঠিন না, অসম্ভব। পুরোনো সংস্কৃত শ্লোকে আছে, স্বদেশে পূজ্যতে রাজা / হনুমান সর্বত্র পূজ্যতে। অর্থাৎ, দেশের বাইরে প্রধানমন্ত্রীকে কেউ পাত্তা না দিলেও, হনুমানমন্দির আমেরিকাতেও আছে।
    হনুমান খুব বড় বিজ্ঞানী। হনুমানই প্রথম ইন্টারনেট আবিষ্কার করেন। ইলেকট্রনের গতিতে লঙ্কায় তিনি আগুনকে ভাইরাল করে দিয়েছিলেন। ইন্টারনেটের চোটেই স্বর্ণলঙ্কা পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এরপর প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণার জন্য পৃথিবীতে চালু করেন হনুমানমন্দির। সেগুলিকে ছোটো করে, মানমন্দির বলা হয়। সেখানে আগে গ্রহ, তারা, এসব নিয়ে গবেষণা হত, পরে হোয়াটসঅ্যাপ ইউনিভার্সিটি আবিষ্কৃত হয়।
    শিল্পসংস্কৃতিতেও হনুমানের অবদান সরস্বতীর চেয়ে বেশি। বাংলা প্রবাদ আছে, "অ্যাই হনুমান কলা খাবি" - এখানে কলা মানে সিঙ্গাপুরী কলা নয়, শিল্পকলা। বীণা না থাকলেও তাঁর ল্যাজ ছিল। বিভিন্ন কম্পাঙ্কে ল্যাজ নাড়িয়ে বড়বড় সুর তুলতে পারতেন। তাঁর সবচেয়ে বিখ্যাত গান হল হনুমান-চালিসা, যা এখন টিভি, রেডিও, ইন্টারনেট, ডিজে বক্স ইত্যাদি নানা মাধ্যমে শুনতে পাওয়া যায়।
    হনুমানকে নানা জায়গায় নানা নামে ডাকা হয়। উত্তরপ্রদেশের হিন্দুরা ডাকেন হনুমাঞ্জি । মুসলমানরা বলেন হনুমান আলি, হিমাচলের সব চেয়ে বিখ্যাত তীর্থস্থানের নাম ছিল হনুমানালি, পরে বদলে হয়েছে কুলুমানালি। সেখানে বছর বছর প্রচুর বাঙালি যান। চিনেরা আগে কথা বলতে পারতনা, হনুমানই তাদের ভাষা শেখান, হনুমানদার-ঋণ থেকেই তাদের ভাষার নাম হয়েছে মান্দারিন। চিন থেকে তিনি লাফ মেরে যেখানে ল্যান্ড করেন, সেই জায়গার নাম ছিল হনুমানদার মনি। এখনও সেই মন্দারমনি, বহু মানুষ দর্শন করতে যান।
    হনুমানের কীর্তির কথা নতুন করে বলার কিছু নেই। রবীন্দ্রনাথ বলেছেন, হনু মানে না মানা। আধুনিক গানে আছে, হনু মান কোরো না। এখন সিনেমাহলে হনুমান, ইন্টারনেটে হনুমান, মানুষের দলের নাম হয় বজরং দল। খালি ডারউইন নামের এক বাজে প্রকৃতির সায়েব হনুমানকে মানুষের চেয়ে নিচু স্তরের বলেছিলেন। সেই অপরাধে তাঁকে সিলেবাস থেকে কেটে ফেলা হয়েছে। মানদামঙ্গলকাব্যের কবি ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন,
    জল হবে কোকাকোলা
    পাখি হবে আরশোলা
    যখন আসিবে কলি।
    ভূলোক, দ্যূলোক, ভবে
    জাতির নায়ক হবে
    বজরংবলী।।
    এখন কলিকাল এসে গেছে। এখন হনুমানযুগ। জ্জয়বজ্রংবলী।
    ----------
    তা, এই কারণেই আমরা গুরুচণ্ডা৯তে, সামনের ১৫ ই আগস্ট, একটি বিশেষ সংখ্যা করতে চলেছি, যার নাম হনুমান সংখ্যা। পাড়ায় গজিয়ে ওঠা হনুমানমন্দির, ছাদে দাপাদাপি করা হনুমান, হনুমানের দাঁত খিঁচোনো, বা অন্য কিছু বিষয়ে যদি কারো কিছু লেখার থাকে, অবশ্যই লিখে পাঠান। [email protected] এই ঠিকানায়। রাজনীতি-ফাজনীতি নিয়ে ভাববেননা। পার্সোনাল ইজ পলিটিকাল, অর্থাৎ কিনা যাহাই হনুমান সংক্রান্ত, তাহাই রাজনৈতিক।
    পুঃ কেউ কপি করলে অনুগ্রহ করে শেষাংশটা সমেত করবেন। জ্জয়গ্গুরু।
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • সিএস | 2405:201:802c:7838:9813:2cbe:ba01:6b8e | ২২ আগস্ট ২০২৩ ২১:৪২522842
  • আবার সে এসেছে ফিরিয়া।

    আরো কিছু লেখা যাক।

    ধর্মভীরুতা বা ধর্মপ্রাণতা, এর মধ্যে একটা সাদাসিধে ভাব আছে। এ আমি দেখেছি, বয়স্ক মহিলা, মিশনে দীক্ষা নেওয়া , বাগবাজারে 'মায়ের' বাড়ি যাওয়া, বাড়িতে ঠাকুরদেবতার সামনে বসে থাকা, পুজো করা, বাঙালী বাড়ির সত্যনারায়ণ ইত্যাদি, সবমিলিয়ে মধ্যবিত্ত বা উচ্চবিত্ত বাঙালী বাড়ির ধর্মপ্রাণতা, কিন্তু সেই মহিলাই মুসলমান ড্রাইভারকে একটু সন্দেহ করেন, বাড়িসংক্রান্ত মুসলমান দালালকেও, এসবই কাছের লোকেদের মধ্যে, অন্যদিকে মনে হয় না ভাজপাকে ভোট দেন, মমতাই হয়ত পায়। তো, প্রশ্ন জাগে এনার ধর্মপ্রাণতাকে কী সন্দেহ করবে? দুই দিকে মনোভাব নিয়ে প্রশ্ন করলে বা ওনার ধর্মভাবকে প্রশ্ন করতে, সে নিয়ে রসিকতা করে লেখা লিখলে কী উনি ভাজপার দিকে চলে যাবেন ?

    চতুর্মুখ যেমন এখানে লিখেছিলেন, খিল্লি করে ক্লোজেট চাড্ডি তৈরী হওয়ার সম্ভাবনা, মনে কি হয় না, ইনি ক্লোজেট চাড্ডিই, কিন্তু এই রাজ্যের রাজনীতির ফলে, হয়ত বা মমতার গুণেই পুরো ভাজপা হয়ে যাননি বা ভাজপা এনার মত অনেককেই পুরো ব্যবহার করে উঠতে পারেনি ?
  • সিএস | 2405:201:802c:7838:9813:2cbe:ba01:6b8e | ২২ আগস্ট ২০২৩ ২২:০৮522843
  • আগের পোস্টটাকে অন্যদিক দিয়ে দেখতে বলা যায় যে হ্যাঁ, মিশনের কাজকর্ম বা সেই সংক্রান্ত নিশ্চয়ই হনুমানকেন্দ্রিক রাজনীতির মত দাপটের রাজনীতি হয়ে ওঠেনি, ফলে মিশনকে নিয়ে সংখ্যা না বার করলে হয়ত চলে কিন্তু ঐ একইরকম ধর্মপ্রাণতা কিন্তু অনেক হনুমানপূজক বা রামভক্তদের মধ্যে আছে। আমার মূল বক্তব্যটা ছিল, আজকে দেশের পরিস্থিতি অনুযায়ী এই ধর্মভীরুভাবের মূল্য কোথায় যখন কিনা বলতে গেলে তাদের কোন বক্তব্যই নেই তাদের বিশ্বাস নিয়ে বিজেপির রাজনীতি করা নিয়ে। এমন নয় যে তারা ঐ রাজনীতিকে সমর্থন করে কিন্তু তাদের কি প্রশ্নও আছে ? বা হয়ত, সমর্থন করে না কিন্তু মুসলমান ধর্মের তুলনায় হিন্দুর ধর্ম যে ভাল সেসব মনে করে, উচ্চ মনে করে।

    হুতো যেটা বলতে চাইছে সেটা প্রধাণত তৃণ বা কং- এর রাজনীতি যে এসব নিয়ে না খোঁচানোই ভাল, বরং অল্প তোল্লাই দেওয়া ভাল ( কলকাতায় যেমন বসু জায়গায় ছোট মন্দির তৈরী হয়েছে, অটো স্ট্যাণ্ডে, বাজারে অথবা বড় হনুমান মন্দিরও) যাতে ভাজপার ধর্মকেন্দ্রিক স্পেসটা আগে দখল করে নেওয়া যায়। নিঃসন্দেহে এটা কাজ করেছে, এখনও কাজ করছে, সেটা শুধু তিনোদের বুদ্ধির জন্যই নয়, হয়ত হিন্দু বাঙালীর বিভিন্ন রকমের ধর্মবিশ্বাস বা ঠাকুরদেবতার জন্যও। আমি যা বুঝেছিলাম, হনুমান সংখ্যার উদ্দেশ্য ছিল দাপটের আর মারকুটে রাজনীতির বিপরীতে খিল্লি করা (সেই প্রসঙ্গেই হনুমানের ল্যাজ আসবে), হনুমানকে নিয়ে খিল্লি করা নয়।
  • r2h | 134.238.165.73 | ২২ আগস্ট ২০২৩ ২২:২৬522844
  • হুঁ... খুবই জটিল ব্যাপার, অনেক কিছুই হতে পারে, আমারও, আপত্তি নেই, নিতান্তই দ্বিধা।

    সহিষ্ণুতা আর তোষনের ভেদরেখাটা ঝাপসা হয়ে যায়, ঐ মুশকিল।
    ওদিকে চাড্ডি যে কত রঙের। "এ আমি দেখেছি, বয়স্ক মহিলা, মিশনে দীক্ষা নেওয়া , বাগবাজারে 'মায়ের' বাড়ি যাওয়া, বাড়িতে ঠাকুরদেবতার সামনে বসে থাকা, পুজো করা, বাঙালী বাড়ির সত্যনারায়ণ ইত্যাদি, সবমিলিয়ে মধ্যবিত্ত বা উচ্চবিত্ত বাঙালী বাড়ির ধর্মপ্রাণতা, কিন্তু সেই মহিলাই মুসলমান ড্রাইভারকে একটু সন্দেহ করেন, বাড়িসংক্রান্ত মুসলমান দালালকেও, এসবই কাছের লোকেদের মধ্যে, অন্যদিকে মনে হয় না ভাজপাকে ভোট দেন, মমতাই হয়ত পায়।" খুবই। এরকম তো ... এবং শুধু তাই না, আমাদের ফ্ল্যাট যে বানিয়েছে সেই প্রোমোটার এই দুর্দিনেও সিপিআইএম সমর্থক, মুসলমান ক্রেতাকে ফ্ল্যাট বেচেনি।
    আমি ঠিক না খোঁচানো ভালো এমনও বলছি না, মনুবাদী ব্রাহ্মণ্যবাদী বর্ণবৈষম্য, অস্পৃশ্যতা, নারীবিদ্বেষী নিয়মকানুন - প্রাতিষ্ঠানিক ধর্মের পরিসরে এসব হাজার একটা জিনিস আছে যেগুলি এখনো জ্বলজ্বল করছে এবং কারোর পক্ষে কোন কিছু দিয়েই ডিফেন্ড করা সম্ভব না, সেগুলি নিয়ে নির্দ্বিধায় সরব হওয়া যায়।
     
    • সিএস | ২২ আগস্ট ২০২৩ ২২:০৮
    • ...হনুমান সংখ্যার উদ্দেশ্য ছিল দাপটের আর মারকুটে রাজনীতির বিপরীতে খিল্লি করা (সেই প্রসঙ্গেই হনুমানের ল্যাজ আসবে), হনুমানকে নিয়ে খিল্লি করা নয়।
    এটা একেবারে অ্যাবসোলিউটলি মেকস সেন্স। এতে দ্বিধার কোন জায়গা নেই।
  • dc | 2401:4900:232f:10e:8909:b8fa:8a55:acac | ২২ আগস্ট ২০২৩ ২২:৪২522846
  • আমার অবশ্য খিল্লি সংখ্যার কথা শুনেই  ভালো লেগেছে। মানে আমার সব কিছু নিয়েই খিল্লি করতে ভালো লাগে, কারন থাকলেও, না থাকলেও। সে বিবুদাকে নিয়েই হোক বা হনুমানকে, গান্ধীকে নিয়ে হোক কি ব্যাটম্যানকে, রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে হোক কি ওপেনহাইমারকে। স্যাটায়ার হলেও চলবে, আর ডার্ক হিউমার হলে তো কথাই নেই। 
  • r2h | 134.238.165.73 | ২২ আগস্ট ২০২৩ ২৩:১৩522848
  • ইনফ্যাক্ট শহর গঞ্জের অটোস্ট্যান্ড ইত্যাদির মন্দির এসব একটা জিনিস, তবে আমি ঠিক ওটা ভাবছিলাম না। প্রত্যন্ত গ্রামে বা পাহাড়ে ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে হওয়া জমায়েতে পার্টি কর্মসূচী হত একসময়, তাতে কোন পক্ষেরই কোনরকম শহুরে মধ্যবিত্তসুলভ অসততা বা সুযোগসন্ধান থাকেনি। বা গ্রাম দিয়ে শহর ঘিরতে যাওয়া জনতা ধর্ম বিষয়ে কী উচ্চকিত অবস্থান নিতেন জানি না, তবে স্বীকার করি, এই তুলনা এখানে অনেকটা অবান্তর, যেখানে বিরোধীপক্ষের এজেন্ডাই ধর্ম।

    আমার বড় অস্বস্তি, যেন বিজেপি আরএসএসই সব বিরোধীদের এজেন্ডা ঠিক করে দিচ্ছে।
  • aranya | 2601:84:4600:5410:d13e:a5bd:a34:7da0 | ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ০৭:৪২523195
  • হুতো লিখেছ - 'আমি নিশ্চিত যারা সম্পাদকীয় সিধান্ত নির্ধারনের প্রক্রিয়াটার সঙ্গে যুক্ত, তাদের সবার জন্যই ঐ মন্তব্যটা অত্যন্ত বিরক্তিকর'
     
    আমি কিন্তু কোন মন্তব্য করি নি। কোনরকম ভোট নেওয়ার কথা বলি নি। শুধু  যে দুজনকে প্রকৃত কর্তৃপক্ষ বলে জানি, তাদের জিগিয়েছিলাম, যে কোন চটি বা  সংখ্যা প্রকাশের আগে বেশ কিছু লোকের মতামত নেওয়া হয় কিনা। সে প্রশ্নের উত্তর পাই নি। তাতে বিরক্ত হই নি। তুমি গুরুর ইমেল আইডি-র কথা লিখেছ। তো সেই আই ডিতে  এ বছর দুটো মেল পাঠিয়েছিলাম, উত্তর পাই নি। তাতেও বিরক্ত হই নি :-)
     
    এখন জানলাম, সম্পাদকীয় কমিটি আমার ঐ প্রশ্নটির জন্য বিরক্ত। বেশ কথা। কেন বিরক্ত, সেটা একটু জানাবে। তাহলে ভবিষ্যতে সাবধান থাকব, যাতে বিরক্তির কারণ না হই। 
     
    এ তো আর হীরক রাজ্য নয়, যে কোন প্রশ্ন করা যাবে না। এ আমাদের সাধের গুরুচন্ডালী :-)  
     
    ধরা যাক, সম্পাদকীয় কমিটি-তে x জন লোক আছে। তুমি কি ভাবে নিশ্চিত হলে যে x  জনই বিরক্ত, সেটাও জানতে চাই। এমনও তো হতে পারে, যে কয়েক জন বিরক্ত, বাকিরা পাঠকের প্রশ্ন করাকে এনকারেজ করে, প্রশ্ন উঠলে খুশী হয় 
  • aranya | 2601:84:4600:5410:d13e:a5bd:a34:7da0 | ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ০৭:৪৫523196
  • 'আর "নো ভোট টু বিজেপি এন্ড তৃণমূল", - এ অতি হাস্যকর ধরি মাছ না ছুঁই পানি অবস্থান। 
     
    -একমত, কারও হাসি পেতেই পারে। তৃণমূলের দুর্নীতি হয়ত সবই হাওয়া  - এ কমেন্ট গুরুর পাতায় পড়ে আমি যেমন হাসব কি কাঁদব ভেবে পাই নি, হয়ত কাঁদাই উচিত ছিল 
  • কিন্তু সেই মহিলাই মুসলমান ড্রাইভারকে একটু সন্দেহ করেন, বাড়িসংক্রান্ত মুসলমান দালালকেও | 2600:1002:b053:6e61:8195:76ef:2a77:f45a | ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ০১:০৩523226
  • এবং তার একটা ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট তথা কারণও আছে যা  বিজেপি নয়! (তবে বিজেপিও সেটা ব্যবহার করে।)
    হিন্দু গুরুরা মোটের ওপর মুসলমান শিষ্য নিতে চাইতেন না, আর মুসলমান গুরুরা তো অবশ্যই হিন্দু ছাত্রদের কাটিয়ে দিতে চাইতেন - গানের জগতের কথা হচ্ছে - এ তো বিজেপির জন্যে নয়! 
    চাড্ডিপনার পরিসর বাড়াতে থাকলে ভারতবর্ষের খুব সামান্যটুকুই শেষ পর্যন্ত পড়ে থাকে! ভারতবর্ষে রাজনীতি করতে গেলে সেটুকু তো মান্য করতেই হয়! 
  • aranya | 2601:84:4600:5410:dc7:e037:1061:3c70 | ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ০৪:১৬523229
  • নো ভোট টু বিজেপি নিয়ে, আরও দু পয়সা - 
     
    আমি লিখেছিলাম - 'রাজনীতি, ধর্ম ইঃ সেনসিটিভ ইস্যু তে কোন সংখ্যা বা চটি প্রকাশ বা কোন আন্দোলন শুরুর আগে, সাইটে আলোচনা হলে ভাল হয়'
     
    - জাস্ট এই আলোচনাটুকুই দাবি। কে ঠিক, কে ভুল সে তর্ক তো থাকবেই। কিন্তু পঃ বঙ্গ বিধানসভার নির্বাচনে গুরুচন্ডালি সরাসরি প্রচারে অংশ নিচ্ছে, এটা তো একটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। সদ্যনির্বাচিত সরকারকে খসড়া পাঠানোর চেয়েও কন্ট্রোভার্সিয়াল সিদ্ধান্ত, আমার মতে। সাইটে যদি স্প্যামার, ট্রোলার-দের জন্য আলোচনা করা না যায়, তাহলে ট্রাস্টিদের মধ্যে আলোচনা হতে পারে। 
    আলোচনাটা দরকার 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা খুশি মতামত দিন