এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • কবি তার কাঙ্খিত নারীকে কখনই  চায়না

    সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায় লেখকের গ্রাহক হোন
    ০৮ নভেম্বর ২০২২ | ১৯৩ বার পঠিত | রেটিং ৪.৫ (২ জন)
  • কোথায় একটা পড়লাম, 'কবি তার কাঙ্খিত নারীকে কখনই পায়না। পেলে বাজারের ফর্দ লিখত'। এইরকম একটা মিম-জাতীয় কিছু চলছে খুব। 
    ফলে আমাকে একটা প্রতিবাদপত্র লিখতে হচ্ছে। কারণ, এরকম অপপ্রচার বাজারে ঘুরতে দেওয়া ঠিক না। আমি বাজি রেখে বলতে পারি, কবি তার 'কাঙ্খিত' নারীকে আদৌ চায়-টায় না। হিট কবিদের হিট কবিতাগুলোই নিন। ধরুন জীবনানন্দ দাশ। তিনি বনলতা সেনকে নিয়ে কী লিখেছেন? লিখেছেন, পাখির নীড়ের মতো চোখ। আপনি যদি কখনও কোনো পাখির বাসা দেখে থাকেন, তো জানবেন, সে অতি বিশ্রী ব্যাপার। যদি নাও দেখে থাকেন, তো 'মাথা পাখির বাসা হয়ে আছে' মানে কী তো অবশ্যই জানবেন। সেরকম চোখ কারো কামনার বিষয় হতেই পারেনা। তার উপর শ্রাবস্তীর কারুকার্যের মতো স্কিন, যা ঢাকার জন্যই এত ফিল্টার-টিল্টার, মেক-আপ টেক-আপ।
    সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়কে ধরুন। বুকের মধ্যে সুগন্ধি রুমাল রেখে তাঁকে নাকি বরুণা বলেছিল, 'যেদিন আমায় সত্যিকারের ভালবাসবে, সেদিন আমার বুকেও এ-রকম আতরের গন্ধ হবে' (কবিতার লাইনটা ঠিক এটাই না হলে গাল দেবননা, মোটামুটি এইরকমই হবে) । তা, আপনারা যারা আতর শুঁকেছেন টুকেছেন, তারা বিলক্ষণ জানেন, যে, সে অতি তীব্র ব্যাপার। জামার হাতায় একফোঁটা, কানের পাশে একটু দিলেই গন্ধে ম-ম করে। কোনো ভদ্রলোক বা মহিলা চপে করে আতর মাখেন না। এবার গোটা চামড়ায় আতরের গন্ধ হয়ে গেলে, কী কেস হবে বুঝতেই পারছেন। সাড়ে তিন মিনিটে অলফ্যাক্টরি জ্যাম হয়ে যাবে। সুনীলবাবুও বিলক্ষণ জানতেন। তাঁর কাদম্বরী বগলে চাঁপাফুলে গুঁজে রাখতেন, আতর না। কাজেই উনি ঝুঁকি নিয়ে বরুণাকে ভালো-টালো বাসেননি। জেনেবুঝেই। বাসলে কেলো হত।
    এবার শঙ্খ ঘোষ। তাঁর প্রেমিকার যা চাই, সব এক্ষুনি চাই। নইলে জীবন ব্যর্থ। তো তাকে তিনি কী বললেন? তোমাকে না পেলে বাজারের ফর্দ লিখব? নাঃ। 'তোমাকে বকব, ভীষণ বকব, আড়ালে'। বুঝুন ব্যাপারটা। এবার, উনি নম্র, বিনয়ী মানুষ, এর চেয়ে বেশি কড়া করে বলতে পারেননা। তাই সেটাই কবিতা হয়ে গেল। আমি হলে লিখতাম, ঝামেলা পাকিয়ে দিবানিদ্রাটি তাড়ালে / ঠ্যাঙ ভেঙে দেব আড়ালে। ওই জন্যই আমার কবি হওয়া হলনা। 
    এবং শক্তি চট্টোপাধ্যায়। তাঁর গপ্পোটা সিম্পল। তাঁর কাঙ্খিত নারীর একটি তোরঙ্গ ছিল। চাবিটি কবি ঝেঁপে দিয়েছিলেন। কেন কে জানে। গয়নাগাটি ছিল, হতে পারে। সে যাইহোক, সে বেশ করেছিলেন। নিজেদের ব্যাপার নিজেরা বুঝে নিয়েছেন, প্রথম-পুরুষ-একবচনের নাক গলানোর দরকার নেই। কিন্তু পয়েন্ট হল, তারপর  সে নিয়ে তিনি একটি কবিতাও লেখেন। তাতে কী লিখেছেন? পথ আঁকাবাঁকা / ফিরে এসো চাকা? কদাপি না। কবিতার নাম, চাবি। সেখানে লক্ষ্য করে দেখুন, দাবী একটাই। লিখিও, উহা ফিরৎ চাহো কিনা। তোরঙ্গটাও না, স্রেফ চাবিখানি। এমনকি 'আসিয়া লইয়া যাও'ও না। স্রেফ 'লিখিও'। কোনো ভদ্দরলোক এরকম লেখেনা। আমি হলে 'আসিয়া উহা ফিরৎ নিয়ে যাও / বদলে দুই বা তিনটি দিও চুমাও' জাতীয় কিছু লিখতাম। কিন্তু, আবারও, ওই জন্যই আমার কবি হওয়া হলনা। কিন্তু সেটা কথা না। এখানে কথা হল, এর নাম আকাঙ্খা হলে, ভারতীয় ফুটবলের নামও বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। এবং বাংলা ব্যাপারটা হল, কবিরা অতি পাষণ্ড। কবিতা লেখে ঠিকই, কিন্তু নারীকে চায়-টায় না।  
    আশা করি, এতে ব্যাপারটা পরিষ্কার হয়েছে। আর হ্যাঁ, কবি মাত্রেই পুরুষ কেন ধরে নেওয়া হয়েছে, সে নিয়ে আমাকে কিছু বলবেন না। আমি মিম বানাইনি।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • &/ | 151.141.85.8 | ০৯ নভেম্বর ২০২২ ০৩:১১513631
  • এটা থেকে মিম হয়ে গেছে? ফেবুতে দেখছিলাম ঐ বাজারের ফর্দ কমেন্টটা যিনি করেছিলেন, তিনি পোস্টাচ্ছিলেন তাঁর কমেন্ট চুরি হয়ে গেছে বলে। তারপরে মিমও হয়ে গেল?
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। মন শক্ত করে মতামত দিন