ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  বাকিসব   শোনা কথা

  • আমার মাতৃদেবী ও অন্যান্যরা

    Abhyu
    বাকিসব | শোনা কথা | ১৪ মে ২০২২ | ৫৭৪ বার পঠিত
  • আমার মাতৃদেবী ও অন্যান্যরা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • পাতা :
  • Abhyu | 116.193.143.209 | ১৭ মে ২০২২ ০৫:৫৫736746
  • এই গল্পটা অমিতাভ বাবুর জন্যে। পান্নালাল বলতে মনে পড়ল। লেকের ধারে একটা গোলঘর ছিল মনে পড়ে? তার উল্টোদিকে একটা আম গাছ ছিল, তার কাছেই আমাদের বাড়ি। সে গাছটা এখন পরিতোষ কাকুদের বাড়ির চৌহদ্দিতে পড়ে, ভালো কাঁচা আম ধরেছে। আমি এসে থেকে ভাইকে বলছি যে আম চুরি করব কিন্তু নানা সামাজিক প্রতিকূলতায় সেটা সম্ভব হচ্ছে না।

    তো, পরশুদিন সন্ধ্যেবেলা ডাক্তারখানা গেছি, প্রচণ্ড ঝড়বৃষ্টি আরম্ভ হল। একঘন্টা ছাতা খুলে তিরুপতি জেরক্সের সামনে দাঁড়িয়ে রইলাম। একটা কেলো কুকুর এলো তাকে বিশেষ জায়গা দেওয়া গেল না, সে এমনিই বেঞ্চের তলায় ঢুকে রইল। বৃষ্টি কমার পরে আমরা দুজন হাঁটতে হাঁটতে ফিরছি, রাত্রি সাড়ে আটটা হবে, লোডশেডিং - পান্নালাল স্কুলের পিছন দিকের অংশে রাস্তার ধারে হঠাৎ মনে হল ঘাসের উপর একটা কাঁচা আম।

    সহসা বাতাস ফেলি গেল শ্বাস শাখা দুলাইয়া গাছে,
    দুটি পাকা ফল লভিল ভূতল আমার কোলের কাছে।

    ভাই ফোনের টর্চ জ্বেলে দেখল সত্যিই কাঁচা আম। নিয়ে এলাম। টক ডাল হল।

    পরের দিন ভাই বাজার করে এসে বলে, ছোড়দা তুমি কিভাবে আমটা পেলে? দিনের বেলায় ভালো করে দেখলাম ওখানে কাছাকাছি কোনো আমগাছ নেই। আমি বললাম - আমি যদিও এক্সপেরিমেন্টাল স্কুলের - তবু জীবন গিয়েছে চলে কুড়ি কুড়ি বছরের পার, পান্নালাল স্কুলের যে ভাঙা পাঁচিল দিয়ে শর্টকাট করতাম সেও আজ নেই - তবু স্কুল বাউণ্ডারি আমাকে পছন্দ করে আম এনে দিয়েছে।
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী | ১৭ মে ২০২২ ০৬:১৭736747
  • অভ‍্যু, গল্প ভালো লেগেছে - ভৌতিক গল্পের মজাটা রয়েছে, তার সাথে আমার জন্যে বিশেষ উপহার - স্মৃতির সরনী ধরে ঘুরিয়ে আনা। আহা! 
  • Abhyu | 116.193.143.209 | ১৭ মে ২০২২ ০৬:২৮736748
  • পান্নালাল স্কুলের মাঠে রাস্তার দিকে একটা পলাশ গাছ ছিল। সরস্বতী পুজোর আগে গাছটায় ফুল ধরত। শেষ বিকেলের আলোয় মনে হত সত্যি যেন আগুন লেগেছে।
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী | ১৭ মে ২০২২ ০৬:৫৫736749
  • অভ‍্যু, আমি থাকতাম কাঁচরাপাড়ায়, পড়তে যেতাম পান্নালালে। স্কুলকে তেমন 'কাল্টিভেট' করা হয়নি। বাসভাড়া বাঁচিয়ে পয়সা জমানোর জন্যে মাঝে মাঝে বুদ্ধপার্কের পাশ দিয়ে হেঁটে ফিরতাম। এইরকমের ঝাপসা কিছু স্মৃতি মনে পড়ে। আমার ছোট ভাই ইউনি জীবন থেকে কল‍্যাণীতে স্থায়ী হয়ে গেছে। মহা সামাজিক লোক। অধ্যাপক, নাটক করে, পুরোপুরি কল‍্যাণীর মানুষ। 
  • aranya | 2601:84:4600:5410:cca4:78e4:f6d:b726 | ১৭ মে ২০২২ ০৬:৫৬736750
  • বেশ গল্প। আমিও স্মৃতির সরনী ধরে একটু হাঁটলাম 
     
    পান্নালাল স্কুলের মাঠটা ছিল দারুণ। ক্লাসরুমের চেয়ে বল পায়ে মাঠেই সময় কাটত বেশি 
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী | ১৭ মে ২০২২ ০৭:০৯736754
  • আমার কল‍্যাণীর দিনগুলোতে একটা বিশেষ অভিজ্ঞতা ছিল, যেটা পরে আর কখনও কোথাও হয়নি - গাছতলায় অঢেল পড়ে থাকা কাঠবাদাম তুলে নিয়ে খোলা ফাটিয়ে বাদাম বার করে খোসা ছাড়িয়ে খাওয়া - যত খুশি।
  • Abhyu | 116.193.143.209 | ১৭ মে ২০২২ ০৭:১৪736756
  • হ্যাঁ আর ঐ গাছ্গুলো এঁকেবেঁকে উঠত। ফলে গাছে চড়া ছিল ভারি সহজ।
  • aranya | 2601:84:4600:5410:cca4:78e4:f6d:b726 | ১৭ মে ২০২২ ০৭:২১736758
  • এটা ভাল মনে করালেন, অমিতাভ। ভুলেই গেছিলাম, কাঠ বাদাম - দের কথা 
  • Abhyu | 116.193.143.209 | ১৭ মে ২০২২ ০৭:২৭736759
  • অনুপ স্যারের বাড়ি যাবার পথে একটা ছিল, শেষ বারেও দেখেছি, এবারে ঐ দিকে যাই নি এখনো। যেটা খুব খারাপ লাগল, সেটা হল টেলিফোন ভবন থেকে দুনম্বর বাজার যাবার পথে রাস্তার ধারে ছ সাতটা বড়ো বড়ো গাছ, গুঁড়ির ব্যাসার্ধ চার মিটার হবে,
    পাঁচ তলা বাড়ির সমান লম্বা, শুকিয়ে গেছে। গাছগুলোকে পরিষ্কার হত্যা করা হয়েছে।

    তবু এখনো কিছু কৃষ্ণচূড়া রাধাচূড়া গাছ আছে রাস্তা আলো করে।
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী | ১৭ মে ২০২২ ০৭:৩৯736762
  • অরণ্য, ঐ বাদাম যে কত দামের হতে পারে সে নিয়ে আমাদের কোন ধারণা ছিলনা। খিদে পেলে খেয়ে নিতাম। একটা অন্য যুগের গল্প।
  • aranya | 2601:84:4600:5410:cca4:78e4:f6d:b726 | ১৭ মে ২০২২ ০৭:৫১736763
  • আমরাও খেতাম, আপনার কথায় মনে পড়ল 
  • পাতা :
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। বুদ্ধি করে প্রতিক্রিয়া দিন