• খেরোর খাতা

  • সমাজতন্ত্রই ভবিষ্যৎ

    Anamitra Roy লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ৭৬ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • এটা রাজনীতি। পৈতৃক সম্পত্তির ভাগ-বাঁটোয়ারা নিয়ে ক্যাচাল না। অথচ সেভাবে ভাবতে একটুও অভ্যস্ত নই আমরা। আমাদের সোজা কথা; কংগ্রেস আমার পরিবারের অমুককে মেরেছিলো, সুতরাং আমার ভোট সবসময় লালেই পড়বে। অথবা সিপিএম বোমা মেরে উড়িয়ে দিয়েছিলো আমার তমুক আত্মীয়কে, অতএব তৃণমূল ছাড়া আমি আর কাউকে ভোট দেবো না। দরজায় আমেরিকা দাঁড়িয়ে থাকলেও এর অন্যথা হবে না। চাষির ছেলে চাষি হোক না হোক, সিপিএমের ছেলে তো সিপিএমই হবে। এই প্রসঙ্গে মনে পড়ে গেলো কমরেড অনিল বিশ্বাস একখানি বই লিখেছিলেন; "সমাজতন্ত্রই ভবিষ্যৎ" --- বলাবাহুল্য, নামটি বেশ সুন্দর। কিন্তু তারপর পরলোকগমনের প্রাকমুহূর্তে ফোঁস শব্দে দীর্ঘশ্বাস ফেলে লেখক "সব পেলে নষ্ট জীবন" বলে মারা গিয়েছিলেন কিনা জানা যায় না। উনি যখন বলেই গিয়েছেন তাহলে সমাজতন্ত্রই ভবিষ্যৎ নিশ্চয়ই। সেই ভবিষ্যতের পানে আমরা অধীর আগ্রহে চেয়ে রয়েছি। তবে আপাতত দু'হাজার একুশ সাল, হু হু করে বিজেপি ঢুকছে বাংলায়। আর 'টুম্পা'-র লোভ দেখিয়ে সমাজতন্ত্রকে হাতছানি দেওয়া হচ্ছে ব্রিগেডের মাঠে আসার জন্য। সমাজতন্ত্র আসবে কিনা জানা নেই, ওদিকে কোতুলপুরের মঈদুল মরে গেছে চাকরি চাওয়ার মিছিলে গিয়ে। পুলিশের লাঠির ঘায়ে পেশী ফেটে সেখান থেকে প্রোটিন বেরিয়ে সেই প্রোটিন রক্তে মিশে কোনওভাবে কিডনি অকেজো করে দিয়েছিলো তার। মঈদুলের বয়স একত্রিশ বছর, আমার চেয়ে ছোট বয়সে। কমরেডরা বলেছে মঈদুলের পরিবারের দায়িত্ব নেবে। মঈদুলের পরিবার মানে, তিনটি বাচ্চা মেয়ে, একটি বাচ্চা বৌ, আর একজন বৃদ্ধা মা। কমরেডরা সবার দায়িত্ব নিতো, আর নিশ্চয়ই বলতো, খুব ঠিক কথাই বলতো যে, মঈদুলকে মেরেছে তৃণমূলের পুলিশ কারণ মঈদুল চাকরি চাইতে গিয়েছিলো; সুতরাং ভোটটা যেন কাস্তে-হাতুড়ি-তারায় পড়ে। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে এভাবেই খুব স্বাধীন মানুষের জীবন পেতো মঈদুলের পরিবারের পাঁচজন, কমরেডদের ছায়ায় থেকে। তারপর দেখতে দেখতে সমাজতন্ত্র এসে যেত একদিন। কারণ কমরেড অনিল বিশ্বাস বই লিখেছিলেন, "সমাজতন্ত্রই ভবিষ্যৎ;" উনি যে ঢপ দেননি একথা তো বলতেই পারি আমরা। তাছাড়া মঈদুলও তো সমাজতন্ত্র চাইতেই মিছিলে গিয়েছিল আসলে। মাঝখান থেকে মুখ্যমন্ত্রী-র দেওয়া চাকরির অফারটা নিয়ে ফেলে মঈদুলের বৌ ঠিক করলো না। বরং তার উচিত ছিল ব্রিগেডের জনসভায় এসে বক্তব্য রাখা যে কীভাবে সমাজতন্ত্র এলেই সিঙ্গুরে রাষ্ট্রায়ত্ত গাড়ির কারখানা আর নয়াচরে রাষ্ট্রায়ত্ত কেমিক্যাল হাব গড়ে উঠে সবাই টপাটপ চাকরি পেয়ে যাবে। তার বলা উচিত ছিল, সমাজতন্ত্রে কীভাবে লাঠি আর জলকামানের বদলে ফুল ছুঁড়ে আর কবিতা পড়ে জনতাকে শান্ত রাখে রাষ্ট্রের পুলিশ। তার আরও বলা উচিত ছিল, কেন আমাদের চৌত্রিশ বছরের সমাজতন্ত্রে কোনওদিন ত্রাণের জন্য আসা চালের বস্তা তো দূর, একটা ত্রিপলও সরায়নি কেউ বৃহত্তর জনস্বার্থের কথা মাথায় রেখে। সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে স্বজনপোষণ? --- প্রশ্নই ওঠে না। সমাজতন্ত্রে স্বজন কে নয়?
     
    মার্ক্সবাদ সত্য কারণ ইহা বিজ্ঞান। অতএব বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতেই সমাজতন্ত্র আসবে একদিন। সোভিয়েত গড়ে উঠবে আবার, চীন হাত মেলাবে তার সাথে। কিউবা, লাওস, ভিয়েতনাম, উত্তর কোরিয়া; সকলের সেনাবাহিনী হাতে হাত মিলিয়ে গড়ে তুলবে এক বৃহত্তর লাল ফৌজ। সেই লাল ফৌজের সাত পার্সেন্ট হয়ে সেদিন জ্বলজ্বল করবে নিশ্চয়ই সিপিএমের ক্যাডারবাহিনী। শিলিগুড়ি করিডোর দিয়ে ভারতবর্ষে ঢুকে পড়ে দিল্লিতে বিজেপি আর বাংলায় তৃণমূল, অর্থাৎ বিজেমূলকে সামগ্রিকভাবে উচ্ছেদ করবে তারা। নন্দীগ্রাম আর লালগড়কে সরকারিভাবে রাজনৈতিক তীর্থস্থান ঘোষণা করা হবে, আর ব্যবস্থা নেওয়া হবে প্রত্যেকের বিরুদ্ধে যারা জ্যোতি বসু-র নামে খারাপ কথা বলেছিলো। 'টুম্পা' গানটির স্রষ্টা আরব দে চৌধুরি আর অভিষেক সাহাকে জীবিত অবস্থায় লাল পতাকায় মুড়ে গান স্যালুট দেওয়া হবে। আমি এবং আমার মতো প্রবলেমেটিক মালেরা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে 'একবার বিদায় দে মা' গাইতে গাইতে গুলাগে যাবো হাসিমুখে। এর সবই হবে, কারণ শহীদের রক্ত হবে না তো ব্যর্থ। কারণ সমাজতন্ত্র আসবেই, কেউ ঠেকাতে পারবে না, বাইডেনের বাবাও না। কারণ কমরেড অনিল বিশ্বাস একখানি বই লিখেছিলেন। বইটির নাম "সমাজতন্ত্রই ভবিষ্যৎ!" সুতরাং বিজেপিকে সিপিএম আটকে দেবে। দেবেই! 
  • ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ৭৬ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
আরও পড়ুন
একা - Shah Alam Ranzu
আরও পড়ুন
গল্প - moulik majumder
আরও পড়ুন
গল্প - moulik majumder
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আলোচনা করতে মতামত দিন