ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  অন্যান্য

  • সন্ত্রাসবাদীর কোন ধর্ম হয় কী ?

    রুদ্র
    অন্যান্য | ১৭ ডিসেম্বর ২০১৪ | ২৩২৭ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কোশ্ন | 59.207.249.211 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ১৬:৪৪655673
  • ভুলের কি আছে -'৭১ এর মুক্তি যুদ্ধে ইন্দিরা গান্ধী এবং ভারতের সাহায্য ছাড়া জেতা কি সম্ভব ছিল নাকি?
    আগে ঐটা আমাগো দ্যাশ ছিল বইল্যা ইতিহাস ও বদলে যাব নাকি!!!
  • Du | 230.225.0.38 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ১৬:৫৫655674
  • জেতাটা বড় কথা নয়। কিন্তু ঐ মরনপণ যুদ্ধ করে বাংলাদেশ আমাদের সই করা দ্বিখন্ডিত স্বাধীনতার গ্লানিটাই মুছে দিয়েছে। গর্ব হয় এটার জন্য।
  • কোশ্ন | 59.207.249.211 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ১৮:১৫655675
  • দ্বিখ্ন্ডিত স্বাধীনতা আমাদের দুর্ভাগ্য - এক সইয়ের জোরে কত লোক গৃহ্চ্যুত হল!!!
  • pi | 24.139.221.129 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ১৯:০১655676
  • রাণার একটা লেখা এখানে দিতে ইচ্ছে হল।

    'প্যারিসে ইসলামিক জঙ্গীগোষ্ঠী দ্বারা কার্টুনিস্টদের হত্যাকান্ডের পর একটা অদ্ভূত প্রতিক্রিয়া দেখলাম।অনেকেরই মতে আল কায়দা খুন করে অন্যায় করেছে বটে কিন্তু এই খুন হওয়ার পরোক্ষ দায় ওই নিহত কার্টুনিস্টদেরও আছে।কারণ তারা জেনেশুনে একটি বিশেষ ধর্মীয় সম্প্রদায়ের ভাবাবেগে (???) আঘাত করছিলেন। এর আগে নাকি ওদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।ফরাসী সরকারও নাকি ওদের অনুরোধ করেছিল এরকম উস্কানিমূলক কার্টুন প্রকাশ এড়াতে।ইত্যাদি ইত্যাদি...

    আমি ফ্রেঞ্চ জানিনা।ওই পত্রিকাটিতে কি ধরণের লেখাপত্তর বা ছবি বেরোতো তাও সংবাদ মাধ্যমের সোর্সেই জেনেছি।যদি তর্কের খাতিরে ধরে নিই যে প্যারিসের পত্রিকাটি একটি ধর্মকে অকারণ আক্রমণ করেই কার্টুন পোস্ট করতো তাহলেও এই হত্যাকান্ড কিভাবে সমর্থন করা যায়?

    যদি পত্রিকাটি 'ইসলাম' ধর্মকে টেররিস্টদের সাথে সমার্থক করে অপপ্রচার করেই থাকে,তাহলে এই জঙ্গী হানার পর কি সেই 'অপপ্রচার'ই কি মান্যতা পেলো না?

    অনেক আগে কারুর একটা লেখায় পড়েছিলাম কোনো এক কলকাতা বইমেলাতে বাল থ্যাকারের লেখা বই কে পাপোষ করা হয়েছিল।যার তীব্র প্রতিবাদ করেছিলেন এক পরিচিত কবি( নামটা মনে পড়ছেনা)।তিনি বলেছিলেন যে বাল থ্যাকারের লেখা বই এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গেলে সেরা পন্থা হচ্ছে আরেকটা বই লেখা। বাল থ্যাকারের বই পাপোষ করে প্রতিবাদ দেখিয়ে আদতে নিজেকে বাল থ্যাকারের সাথে আলাদা করা যায় না।

    যারা কোথাও না কোথাও এই হত্যাকান্ডের খানিকটা জাস্টিফিকেশন খুঁজে পাচ্ছেন তারা কথাটা ভেবে দেখবেন।

    পরিশেষে,ব্যক্তিগত অবস্থান থেকে একটা কথা বলছি। এখন খুব অসহায় বোধ করছি।বিপন্ন বোধ করছি।প্রত্যেকবার ইসলামিক জঙ্গীরা এরকম নির্মম হত্যাকান্ড ঘটায় আর তার দায় বহন করে সাধারণ মুসলিমরা যাদের একটা বিশাল অংশ এই ঘটনার সমর্থক নয়। আমার নিজস্ব বিশ্বাস না থাকলেও আমার পরিজন এবং অনেক পরিচিত মুসলিম।তারা কেউ আইসিসের দলে নাম লেখান নি, পেশোয়ারে গুলি চালান নি,বোকো হারামের সাথে যোগ দেন নি। এরা নিতান্তই সাধারণ।এরা ডাল ভাত খান।বিরিয়ানি খেলে হজমের ওষুধ খেতে ভোলেন না।

    ইসলামিক জঙ্গীবাদের অন্যতম শিকার এরা।ধর্মবিশ্বাসের মিলের কারণে ইসলামিক জঙ্গীগোষ্ঠীর পাপের দায়ভার এদের উপর বর্তে যায়। অন্য মানুষেরা সন্দেহের চোখে দেখতে শুরু করে।কিছু না করেও হাতে অদৃশ্য রক্ত লেগে থাকে।

    ইসলামিক জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে আরো তীব্র প্রতিবাদ উঠুক মুসলিমদের মধ্যে থেকেই।হাতের রঙ পেন্সিলটাই বন্দুকের বিরুদ্ধে গর্জে উঠুক।'
  • dd | 132.171.86.185 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ২০:২৮655677
  • রানার লেখা পড়ে ভাল্লাগলো। বাট দ্যাটস নট অল।

    আনফর্চুনেট, যে ১% (বা সামান্য অংশ) এর জন্য সমস্তো মুসলিম সমাজকে মাথা হেঁট করতে হয়।

    রানার সাথে পার্সোনাল চেনা থাকলে ডাইরেক্টলি বলতাম গুজরাতের জন্য বা সাক্ষী মহারাজের জন্য আমার কিন্তু নিজেকে কখনো দায়ী বা অপরাধী মনে হয় না, জন্মসুত্রে হিন্দু হওয়া স্বত্তেও। কেনোনা চিরকালই খুব চেঁচিয়েই এসবের প্রতিবাদ করে এসেছি।কোনোদিনই নিজেকে পুরুত বা কোনো স্ক্রিপচারের বাধ্য ক্রীতদাস করে তুলি নি।

    যতোদিন না মেজোরিটি মুসলিম সমাজ এই ধর্মভীরুতাকে (ধর্মান্ধ্তা বা জাস্ট টেরোরিজমই নয়) রুশদি,তসলিমার মতো লাথি মেরে আক্রোমন করতে না পারবে ততোদিন আপনাদের এই মর্মপীড়া চলবেই।

    কোরাণের প্রতি চিন্তাহীন আনুগত্য সক্রিয়ভাবে অস্বীকার করতে না পারলে শুধু "ইসলামিক জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে আরো তীব্র প্রতিবাদ উঠুক মুসলিমদের মধ্যে থেকেই" এ সব বলে কোনো লাভ নেই। এই চর্বিত চর্বন অনেক হয়েছে।
  • a x | 138.249.1.198 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ২০:৩০655678
  • দু কে অনেকদিন বাদে বড়্সড় ক একটা।
  • সিকি | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ২১:৩৯655680
  • জানি রানা, কথাগুলো তো অজানা নয়।

    "কোরাণের প্রতি চিন্তাহীন আনুগত্য সক্রিয়ভাবে অস্বীকার করতে না পারলে শুধু "ইসলামিক জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে আরো তীব্র প্রতিবাদ উঠুক মুসলিমদের মধ্যে থেকেই" এ সব বলে কোনো লাভ নেই।" - ডিডিদার এই কথাটাই আমার এখন খালি মনে হয়। অপ্রয়োজনীয় শুধু নয়, ক্ষতিকর একটা আইডিয়াকে জীবনের অংশ বানিয়ে রাখার ফল ভুগছে সারা পৃথিবীর শান্তিকামী মুসলমানেরা - প্র্যাকটিসিং বা নন-প্র্যাকটিসিং। এই ১% জঙ্গী সবচেয়ে বড় ক্ষতি করছে নিজেদের কমিউনিটির, বিশ্বজোড়া মুসলমানদের বিপদে ফেলছে এরাই।

    গত ২৪ ঘন্টায় বেশ কয়েকটা মসজিদ আগুনে পুড়ে গেছে ফ্রান্সের বিভিন্ন জায়গায়, সাধারণ মুসলিম জনতা আতঙ্কে রয়েছে।
  • aranya | 154.160.226.92 | ০৯ জানুয়ারি ২০১৫ ২২:৫৫655681
  • দ-এর দেওয়া উদাসের লেখাটার জবাব নেই। আরও একটা লেখা পড়্লাম এই লেখকের, এখানে থাক, ৭১-এর মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কথা হচ্ছিল যখন, খুব অনুপযুক্ত হবে না
    http://www.sachalayatan.com/udash/51858
  • SC | 34.3.17.255 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ০৫:৫৮655683
  • r2h কে অনেকগুলো ক। এই কথাগুলোই বলতে চাইছিলাম।
  • SC | 34.3.17.255 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ০৬:০০655684
  • আর এইটা একটা পক্ষের লেখা। আমি মনে করি ইসলামের মধ্যে এই পয়েন্ট অফ ভিউ আছে, সেটা স্বীকার করে নেওয়া ভালো।
    স্বীকার করুন, তার পরে এই নিয়ে আলোচনা করুন। নেই, এই কথাটা বলে কার্পেটের নিচে ঠেলে দেওয়া আর যাচ্ছে না।
    http://www.usatoday.com/story/opinion/2015/01/07/islam-allah-muslims-shariah-anjem-choudary-editorials-debates/21417461/
  • SC | 34.3.17.255 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ০৬:০৬655685
  • Contrary to popular misconception, Islam does not mean peace but rather means submission to the commands of Allah alone. Therefore, Muslims do not believe in the concept of freedom of expression, as their speech and actions are determined by divine revelation and not based on people's desires.

    Although Muslims may not agree about the idea of freedom of expression, even non-Muslims who espouse it say it comes with responsibilities. In an increasingly unstable and insecure world, the potential consequences of insulting the Messenger Muhammad are known to Muslims and non-Muslims alike.

    ইত্যাদি ইত্যাদি
  • frustrated | 131.247.233.106 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ০৮:৪৮655687
  • শুধু তৃতীয় বিশ্বের দেশ এর স্বীকার তা তো নয় টুইন টাওয়ার , মুনিখ অলিম্পিক , লন্ডন মেট্রো ,প্যারিস চার্লি হেবদ , কানাডা পার্লামেন্ট ,সিডনি কাফে,মাদ্রিদ ট্রেন, কুনমিং রেল স্টেশন ,মস্কো থিয়েটার , বেসলান স্কুল এগুলো সবকটাই ফার্স্ট ওয়ার্ল্ড কান্ট্রি তে হয়েছে যেগুলো মিলিটারী শক্তি তে অপরিসীম বলীয়ান। মনিশংকর আয়ার প্রণীত তত্ত্ব অনুসারে যদি এরাও "অভিয়াস ব্যাকলাস" এ নামে তাহলে নিরীহ সাধারণ মানুষ যে কে কোন ওপরওলা বাঁচাবে কে জানে । ভয় হয়
  • Arpan | 125.118.155.207 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১২:৫৮655689
  • ফুকুয়ামার এন্ড অফ হিস্টরি তত্ত্বের বাস্তবতা এইবার ফাইনাল কনভোলিউশনের দিকে যাচ্ছে।
  • dc | 213.187.246.14 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৩:৫৫655690
  • যে হারে সন্ত্রাসবাদী অ্যাটাক বাড়ছে, তাতে যেকোন বড়ো শহরে অ্যাটাক হওয়া তো দেখছি শুধু সময়ের অপেক্ষা! ঃ-(
  • dc | 213.187.246.14 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৪:০৪655691
  • আমার একটা প্রশ্ন আছে - মুসলমান ধর্ম আর সব ধর্মের মতোই তো যুগ যুগ ধরে আছে। কিন্তু এই ধর্মের নাম নিয়ে রিসেন্টলি কিছু লোক যেরকম টেররিসম শুরু করেছে আগে তো সেরকম কিছু শুনিনি! রিসেন্টলি মানে ধরুন শেষ দশ বছর। লাস্ট দশ বছরে পরিস্থিতি এতোটা পাল্টে গেল কেন? মানে এই যে আল কায়দা, আইসিস, বোকা হারামি, এসব নাম তো হঠাত করে লাস্ট দশ বছরে গজিয়ে উঠেছে! আগে তো ইসলামের নামে এতো রক্তক্ষয় হতোনা! এটা কেন হচ্ছে? নাকি এটা আমার ভুল পার্সেপশন?
  • রোবু | 233.223.131.253 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৪:৪৩655692
  • ডিসি,
    সত্রাপি বলে গ্যাছেন : "as long as there is oil in the middle east we will never have peace "

    এই অয়েলের টাকাই সৌদি দের হাত ধরে ফান্ড হচ্ছে উগ্রপন্থী মাদ্রাসাতে দেশে বিদেশে।
    এই অয়েলের লোভেই মিডল ইস্ট এর সেকুলার বা টলারেনট শাসনগুলোকে সরাতে মদত দিয়ে বৃটেন ফ্রান্স বা ইউ এস তৈরী করছে একের পর এক ক্যু, অস্ত্র দিয়ে ক্ষমতায় বসাচ্ছে পছন্দের শাসককে। আর এই বসানোর সময়, তার আগের সেকুলার বা তলারেন্ট আর জনপ্রিয় সরকারকে সরানোর সময়, এদের খুঁচিয়ে তুলতেই হচ্ছে উগ্রপন্থাকে, সরকারকে অজনপ্রিয় করে তুলবার জন্য। সেই খোঁচানো উগ্রপন্থা আর সেই জোগানো অস্ত্র ফিরে আসছে ফ্র্যান্কেনস্টাইন হয়ে।
    পরহে ফেলুন, পার্সিপলিস, উইকি করুন ইরানের রেভলুশিওন। দেখে নিন তার আগে ইরান কেমন ছিল।
    জেনে নিন ১৯৭০ এ কেমন ছিল কাবুলের অবস্থা। পাশাপাশি দেখে ফেলুন চার্লি উইলসন'স ওয়ার।
    "উই ফাকড আপ দা এন্ডগেম।"
    জেনে নিন সিরিয়া বা ইজিপ্টে বিপ্লবের পিছনে ডায়নামিক্সটা কি ছিল? ঠিক কুড়ি বছর আগেও মিডল ইস্টের ক্রিশ্চানরা সিরিয়াকে সবচেয়ে সেফ মনে করত। ওদিকে আবার দেখে নিন লেবাননের ইতিহাস, ম্যারনাইট দের সেল্ফ রায়চিয়াস্নেস আসেপাশের ক্রিশ্চানদের কি ভাবে ঠেলে দিল বিপদের মুখে?
    আবার ইদিকে সিরিয়াতে আসাদ যে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মুসলিম, তাদেরকে বাকি মুসলিমরা বলে লিটল ক্রিস্চানস।
    পূর্ব টার্কিতে রয়ে গেছে গাদা গাদা ইয়েজ্দি। তারা মুসলিম? না ক্রিশ্চান? তারা নিজেদের ক্রিশ্চান বলে, ক্রিশ্চানরা তাদের বলে ডেভিলস ওয়ারশিপার।
    এশিয়া মাইনর হচ্ছে ক্রেডল অব সিভিলায়জেশন। সমস্ত অবারাহামিক ধর্মের শুরু এখানেই। এই প্রচন্ড কন্ফ্যুসিং জায়গায় যখন এসে পরে তেলের মত রিসোর্স, অপগন্ড শাসক আর বিদেশী ধ্নাদাবাজ, তখন হয় এই রকম অবস্থা। পড়ে ফেলুন দা হোলি মাউন্টেন।

    তাহলে যে মুসলিম দেশে রিসোর্স নেই? তাদের কেন এ অবস্থা? ওই যে সৌদি ফান্ড।
  • dc | 213.187.246.14 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৫:০৫655694
  • রোবু একদম ঠিক বলেছেন, আপনার পোস্টের সাথে পুরো একমত। ইরানে কিভাবে সেকুলার সরকারকে হঠিয়ে ধর্মীয় ক্যু করা হয়েছিল আর সেই আয়াটোল্লা এসে কিভাবে আমেরিকানদেরই বাঁশ দিয়েছিল, সেকথা আমিও একবার এখানে পোস্ট করেছিলাম। কিন্তু মুশকিল হলো, এই ভায়োলেন্স চক্রাকারে বেড়েই চলেছে। আগামী দিনে আরো কতো এরকম ইন্সিডেন্ট হবে কে জানে।
  • dc | 213.187.246.14 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৫:১২655695
  • আবার এখন তো তেলের দাম কমছে আর তার কারন নাকি অ্যামেরিকায় তেল আর গ্যাসের প্রোডাকশন বাড়ছে। শেল গ্যাস, ফ্র্যাকিং, এসব করে নাকি অ্যামেরিকা মিডল ইস্টের তেলের থেকে আস্তে আস্তে সরে আসছে। এই ট্রেন্ডটা যদি লং টার্মে হোল্ড করে তাহলে বোধায় একটু আশার কথা। মিডল ইস্টে তেল ছাড়া অ্যামেরিকার স্ট্র্যাটেজিক ইন্টারেস্ট বোধায় সেরকম নেই (ইজরায়েল বাদ দিলে), তাই সেল্ফ রিলায়েন্ট হয়ে উঠলে মিডল ইস্ট থেকেও বোধায় আস্তে আস্তে সরে যাবে।
  • dd | 132.171.66.93 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৬:০২655696
  • এইটা dc জিগালেন।

    এই নোম্নোক্তো কোটটি।
    "আমার একটা প্রশ্ন আছে - মুসলমান ধর্ম আর সব ধর্মের মতোই তো যুগ যুগ ধরে আছে। কিন্তু এই ধর্মের নাম নিয়ে রিসেন্টলি কিছু লোক যেরকম টেররিসম শুরু করেছে আগে তো সেরকম কিছু শুনিনি! রিসেন্টলি মানে ধরুন শেষ দশ বছর। লাস্ট দশ বছরে পরিস্থিতি এতোটা পাল্টে গেল কেন? মানে এই যে আল কায়দা, আইসিস, বোকা হারামি, এসব নাম তো হঠাত করে লাস্ট দশ বছরে গজিয়ে উঠেছে! আগে তো ইসলামের নামে এতো রক্তক্ষয় হতোনা! এটা কেন হচ্ছে? নাকি এটা আমার ভুল পার্সেপশন?"

    ইটি, জানেন, আমারো প্রস্নো।এই যে দুনিয়া জুড়ে টেরোরিজমের ভাঁটা আর জোয়ার। কখোনো আইআরে, কখোনো নকুটে, আবার ষিলংকার্ভ তামিল, এবং এদানী ইসলামী। বলি ব্যাপারটা ক্ষি?

    তবে ইসলামী সন্ত্রাসবাদ (খ্যাল করুন আন্ডারলাইন দিয়ে আমি ক্যামোন পোলিটিকেলি ইনকরেক্ট হলেম, সন্ত্রাসবাদকে ধর্মের সাথে অ্যাড করে দিলেম। ছিঃ) জাস' এক দশকের পুরোনো নয়। সেই সত্তোর দশক থেকেই মিডল ইস্টে মসলমান ইহুদী ধর্মযুদ্ধে (আবার। আবার। পোলিটিকালি ইন্করেক্টনেসের চুড়ান্তো। আরব ইসরাইলের রাষ্ট্র যুদ্ধ না বলে মুসলমান ইহুদীর ধর্মযুদ্ধো লিখলেম) লাগাতর চলছে।

    তবে সেটা শুরু হয়েছিলো বেসিকেলি আরব গেরিলাদের মধ্যে।জিউদের বিরুদ্ধে। ক্রমে সেটা ছড়িয়ে গ্যালো সব খানে সব খানে সব খানে।
  • dd | 132.171.66.93 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৬:০৩655697
  • "ষিলংকার্ভ তামিল" - মানে কি না শ্রীলংকার তামিল।
  • kiki | 125.124.41.34 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৬:১১655698
  • মি না ম ডিডিদাদা, উফ!!!
  • dc | 213.187.246.14 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৮:৩৮655699
  • ডিডিদা, একমত। ইসলামিক টেরোরিজম অবশ্য বেশ কিছুদিন হলো শুরু হয়েছে, তবে লাস্ট দশ বছরে যেরকম শুরু হয়েছে সেরকম আগে হয়নি - এটাই বলতে চাইছিলাম। আর আগে নানান ধর্মের নাম করে অনেক লোককে মারা হয়েছে, তাছাড়া অ্যামেরিকায় রেড ইন্ডিয়ান নিধন, হলোকাস্ট, লং মার্চ, স্ট্যালিন, এসব তো ছিলই। কিন্তু লাস্ট দশ বছরে সব কিছু ছাপিয়ে ইসলামিক টেরোরিজম যেভাবে সামনে চলে এসেছে সেরকম বোধায় আগে কোন ধর্মেই হয়নি। বোধায় মধ্যযুগে খৃশ্চানরা লাস্ট এরকম মাস স্কেলে টেররিজম করেছিল। এখন এই টেররিজমের ফেস আবার কিভাবে কমবে কেজানে!

    (ডিডিদা তো আগে আমাকে তুমি করে বলতেন, আবার আপনি কেন?)
  • SC | 34.3.17.255 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৯:৩১655700
  • আজকে কবির সুমনের একটা পোস্ট দেখলাম ফেসবুকে। এই সুমন আমার প্রিয় গায়ক চিরকাল থাকবেন।
    আজকে যতই antbhant লিখুন না কেন। তবে তাই মনেহয় আরো খারাপ লাগে দেখলে এইসব। এই ঘটনার নিন্দা করার মত সত্সাহস নেই, তাই দুনিয়ার যতরকমের excuse খোঁজার চেষ্টা করছেন। ছি:
    কবীর সুমনের মত শিক্ষিত, তথাকথিত লিবারাল মুসলমানরা যদি এরকম হন, তাহলে বাকি সমাজটার কি অবস্থা?
    আমাকে চাড্ডি বলুন, আর যাই বলুন, আমি এদের মুখ থেকে একটা শব্দও শুনছি না, আর সেটা পরিষ্কার করে বলে দিয়ে গেলাম।
    সমস্যা হচ্ছে, এখন এই সব আলবাল লিখলে, পরের দিন একটা ঠিক কথা লিখলেও লোকে পাত্তা দেবে না।
    তখন নরেন্দ্র মদির বিরুদ্ধে বলতে গেলেও লোকে বলবে, 'ও সেই সিকুলাররা', বলে উড়িয়ে দেবে।
  • ranjan roy | 113.240.99.126 | ১০ জানুয়ারি ২০১৫ ১৯:৫৭655702
  • রোবু, ডিসি, ডিডি ও এসসি কে ক।

    তবে আজকের "এই সময়" দেখুন। কিভাবে ধর্ম ও রাজনীতি হাত ধরাধরি করে চলছে। কয়েক বছর আগে ফ্রান্সের সরকার অফিসিয়ালি তিনটে ইসলামী জঙ্গী গ্রুপকে অস্ত্র সাহায্য দিয়েছে, গদ্দাফির বিরুদ্ধে লড়তে।
    এখন তারাই মাথাব্যথার কারণ। ঠিক যেমন ওসামাকে আমেরিকা মাথায় চড়িয়েছিল--- কাবুলে রুশ সমর্থক সরকারের বিরুদ্ধে। বা যেমন ইন্দিরা গান্ধী আকালীদের বিরুদ্ধে ভিন্দ্রনওয়ালে কে লেলিয়ে দিয়ে পরে ভস্মাসুর সৃষ্টি করেছিলেন!
    ডিঃ এর উদ্দেশ্য আদৌ প্যারিস জঙ্গী হামলাকে কোন বৈধতা দেওয়া নয়, বরং অল্পকালীন লাভের জন্যে ধার্মিক উগ্রবাদের হাত ধরার বিপদের দিকে আঙুল তোলা।
    ভাল কথা, ইউপির সেই বিএসপি নেতার বিরুদ্ধে কগনিজেবল অফেন্স রেজিস্টার হয়েছে।
  • যম | 181.207.109.41 | ১১ জানুয়ারি ২০১৫ ০৯:২৩655705
  • একটি জেন্ডার বায়াস প্রশ্ন। এই উগান্ডা, ফ্রান্সের আক্রমনে যেভাবে কিছু মহিলা লিড নিয়ে আক্রমন করছে, এইরকম মহিলা পরিচালিত জেহাদী আক্রমন অন্য কোনো ধর্মে হয়েছে। ইহুদি, খ্রিস্টানদের অত্যাচারের সময় ধরেই।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা খুশি মতামত দিন