এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  অন্যান্য

  • পর্বে পর্বে কবিতা - তৃতীয় পর্ব

    pi
    অন্যান্য | ১৭ ডিসেম্বর ২০১১ | ৫৫৩৫৫ বার পঠিত | রেটিং ৪.৭ (৩ জন)
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • প্রত্যয় ভুক্ত | ১৯ মার্চ ২০২২ ২২:১৮736045
  • এই জ‌ঙ্গলে
     
    দুনিয়াটা দিন দিন নয়নতারার জঙ্গল হয়ে যাচ্ছে।
    এমন জঙ্গলে তোমার জন্য গোলাপ কোথায় পাই বলো!
    কোত্থাও কোনো জঞ্জাল পড়ে নেই,সব ঢাকা আগাছায়,
    সবুজ চিকন কচি পাতা,নুলোর মতো সরু সব ডাল।
     
    কোথাও বড়ো বনস্পতির ছায়া নেই,নেই তোমার মত
    লাল সব , রানির মত মহিমাময়ী, সুন্দর মহার্ঘ গোলাপ।
    কাঁটাগাছ নেই,শুকনো ঘাসের গন্ধ নেই,জুঁইফুলের বাস-
    সব আজ শুকনো-তাজা ,রোগা নয়নতারার ডালে ঢাকা।
     
    কোথাও গোল হয়ে এসে রোদ্দুর পড়ে না,
    কতদিন দেখি না সূক্ষ সব ধুলো উড়ছে রোদে,
    আবর্জনার স্তূপ সব নীরবে ঢেকে যায় এখন
    গোলাপি যত সার সার এলোমেলো ফুলে ফুলে।
     
    গন্ধহীন যত নয়নতারা অগোচরে গজিয়ে ওঠে,
    গোলাপ,ডালিয়া-সব্বার জায়গা কেড়ে নিয়ে;
    বোকা বোকা সস্তা সৌন্দর্যের পসরা সাজায়,
    প্রজাপতিরাও আর আসে না কাছে।
     
    এমন ভ্রমরহীন,নিষ্পন্দ নরকে কী করি বলো?
    কোথাও একটা গোলাপ যেখানে পাইনা,নয়নতারার ভিড়ে বাগান যেখানে মৃত,সবুজ-গোলাপি মরুভূমি...
    এমন ভিড়ে আমি হারিয়ে যাচ্ছি ,হেরে যাচ্ছিইইই-
    গোলাপের বদলে তুমি আমার হৃৎপিন্ডখানা নিয়ে যাও-
    এক‌ই লালিমা,একই সুগন্ধ সেখানেও।
  • প্রত্যয় ভুক্ত | ২১ মার্চ ২০২২ ১২:৫৩736047
  • অষ্টনায়িকা ১
     
    বাসকসজ্জিতা
    যে সব কৃষ্ণ একা দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে 
    জ্বলেছিল বিকেলে ভোরের ফুল হাতে নিয়ে,
    তাদের কারুবাসনা নিয়ে কত নাকফুল 
    গেঁথেছি নাকে,আঁচড়েছি এলো চুল।
     
    কত রাগ,বিস্ময়,হতাশ দীর্ঘনিশ্বাস-
    লুব্ধ তরুণের ময়লা,ময়াল বাহুপাশ;
    ব্যর্থ করে হেঁটে গেছি মরালগামিনী,
    পায়ে ব্যঙ্গহাসি নুপূর বেজেছে রিনিঝিনি।
     
    কত শুকনো স্ততি,প্রণয় নিবেদন,অলীক প্রেমকাহিনি-
    বলা বাহুল্য,তাতে চিঁড়েচ্যাপ্টা হয়েছি,চিত্ত ভেজেনি।
    প্রেমপাগলের হৃৎপিন্ড মালা গেঁথে পরেছি গলায়,
    বিকেলে পর্দা সরিয়েও দাঁড়াইনি জানালায়।
     
     
    বুক দুরুদুরু,মন উড়ুউড়ু:যত্ত কাঁচা ছেলের দল-
    মন খুলে বকবক করেছি ,হেসেছি অনর্গল।
    মোহদৃষ্টি থেকে সিঁচে নেওয়া কাজল মদির,
    কটাক্ষে ঘায়েল করেছি কত বীর-মহাবীর।
     
    ন‌ওলকিশোরের রাতস্বপ্নের জ্যোৎস্না শ্বেত,
     নিষিদ্ধ যত কুহকের হাতছানির লজ্জারেত-
    তেমনি সাদা সব জুঁই-বেলি,চিকন চামেলি নিয়ে
    বেঁধেছি ফুলবেণী,পুষ্পবাণ নিয়েছি শানিয়ে।
     
    তবে এখন কেন সাজি?কেনো...সাজি?
    এখন কেন হাতছানি দেয় অতল জলরাজি?
    বুঝি গো সই-আমার ডুবতে সাধ যায় ভারি;
    পথের বঁধুর ডাক ,এবার শুনেছে নারী।
  • lcm | ২১ মার্চ ২০২২ ১৩:৪২736048
  • গভীর রাত 
    === === 
     
    রাত গভীর না হলে গভীর ঘুম আসে না,
    গভীর রাত আসে কখন?
    আকাশের দিকে তাকিয়ে এইসব ভাবতে থাকি,
    একটু ভয়ও লাগে,
    এরকমভাবে একসময় ভোর হয়ে যাবে নাকি।
    তবু তাকিয়ে থাকি, তাকিয়েই থাকি,
    একটা সময় বুঝতেও পারি না চোখটা বন্ধ না খোলা।

    তারপরে একসময় মনে হয়
    কয়েকটা তারা যেন বেশি দেখতে পাচ্ছি,
    একটা তারার পিছনে আরও একটা তারা,
    ওটা তো এতক্ষণ দেখি নি,
    ওই পিছনে আরও একটা,
    একি রে ভাই, এ যে একের পর এক,
    কয়েক সেকেন্ড পর পর দেখছি নতুন তারা,
    চোখ বন্ধ করেও দেখতে পাচ্ছি।

    একটা তারা একটু সাইজে বড় হয়ে গেল যেন,
    একি, ওটা তো অবিকল একটা ছেলের মুখ,
    ওহ, ও তো বাপন, ছোটোবেলায় যে বাপনের সঙ্গে ফুটবল খেলতাম,
    কিছু একটা বলছে বাপন, শুনতে পাচ্ছি -

    কিরে বাচ্চু, অনেকদিন পর, কেমন আছিস,
    আমার ঘুম আসছিল না বুঝলি,
    আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতে
    হঠাৎ একটা তারার মধ্যে তোকে দেখতে পেলাম।

    মনে হচ্ছে রাত গভীর হল।

     
  • b | 14.139.196.16 | ২১ মার্চ ২০২২ ১৬:৪৮736053
  • এল সি এম !!!!!
  • সাধারন পাঠক | 2a0b:f4c2:3::93 | ২১ মার্চ ২০২২ ২৩:০৬736060
  • 1cm এর পদ্যটা সহজ লাগল বুঝতে পারলাম
  • kk | 2600:6c40:7b00:1231:acf4:ee15:2035:1f46 | ২২ মার্চ ২০২২ ০১:৫৬736064
  • lcm দা'র কবিতা অসম্ভব ভালো লাগলো।
  • &/ | 151.141.85.8 | ২২ মার্চ ২০২২ ০২:০৮736066
  • এলসিএম,
    কী অসাধারণ কবিতা!!!!
  • সে | 2001:1711:fa42:f421:d8c4:9655:26a5:9063 | ২২ মার্চ ২০২২ ০৩:০৬736067
  • ঠিক যেন তারাপদ দা
  • যদুবাবু | ২২ মার্চ ২০২২ ০৫:৫৩736068
  • লসাগুদার কবিতা পড়ে  সত্যিই তারাপদ রায়ের কথা মনে পড়ে গেলো। টুপি খুললাম। আরো হোক। 
  • ফরিদা | ২১ এপ্রিল ২০২২ ১৬:১২736317
  • ভালোবাসার কথা বোলো না
    ওতে অভ্যস্ত নই আমি 
    শিরদাঁড়া বেয়ে কেন্নো নামা ওঠা করে।

    তাইই বলো, যা বলে এসেছ এতদিন —
    অকম্মার ঢেঁকি, বংশের গতি আর যাবে কোথায়,
    এত অকৃতজ্ঞ, ন্যূনতম দায়িত্ববোধ কর্তব্য নেই
    নিজের পরিবারের ওপর?

    ভাতের ফ্যান গালা হয়, ডালে ফোড়ণের গন্ধ…
     
  • নির্মাল্য কুমার মুখোপাধ্যায় | 223.223.144.218 | ২১ এপ্রিল ২০২২ ১৮:৩৭736318
  • স্তব্ধ 
  • ফরিদা | ২১ এপ্রিল ২০২২ ২১:১২736319
  • চলো আজ অন্য কথা বলি
    চেনা পথ নয়, শহরের প্রথম অসূর্যম্পশ্যা গলি
    দেখে আসি পর্যটন আগ্রহে।
    ওইখানে ভাঙা জানলার পাশে 
    পক্ষাঘাতক্লিষ্ট শিবুজেঠু খোঁজ খবর নেন
    প্রতিটি পথচারীর। 
    এই যে  ফ্রক পরা স্কুলশিশুরা  প্রজাপতি হ'ল
    রকের ক্যারাম ছেড়ে ছোকরারা
    চায়ের দোকানে আজকাল বর্তমান।
    আবার খবরের কাগজওলা বিশু
    আচমকা বুড়ো হয়ে যায় প্রবাসীর চোখে।
    দেখে আসি পাত পেড়ে বসে থাকে মা
    কাটা ঘুড়ির পিছু পিছু দৌড়য় বালকে। 
     
  • Souvik Banerjee | ২৩ এপ্রিল ২০২২ ০০:৩৭736324
  • জমা-খরচের কাব্য 
    শৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায় 

    মেঝেতে খোপ খোপ । তার মাঝে মাঝে, 
    খাঁজে, যেটুকু ময়লা জমে শক্ত 
    থাকতো, কাঠি দিয়ে অবিশ্রাম খুঁচিয়ে, 
    গুছিয়ে সঞ্চয় অভ্যেস হয়ে যায়, 
    প্রায়, তবু সেই প্রাণবন্ত দুর্বিনীত মনে, 
    কোণে, যেটুকু যা জমা ছিল বলে 
    চলে যেতে না যেতে ফের সেই শীত, 
    রুগ্ন পিরিত, এটো হয়ে শেষ পাতে, 
    পান্তাভাতে ফুলুরির মতো, নির্ভেজাল জাঁক, 
    যাক, সেসব কথা, আজ বরং এখানেই থাক ।
  • শ্ব | 2409:4060:2e80:c18:7ca1:ef4a:736e:97fa | ৩০ এপ্রিল ২০২২ ২২:১৪736417
  • ~~~

    ঝড় টি দুরন্ত হোক,  আমি 
    চুপচাপ শুয়ে থাকি। কাঁচ গুলো, 
    হাওয়ার 
    ধাক্কায় ফেটে, হাসে যেন ফুলন্ত বেলুন , 

    আর বারান্দায় আমাদের প্রিয় শেফালিকাগুলি 
    টব শুদ্ধু উথলে গিয়ে থেতলে থেতলে  রক্তঝিম
    মিশে যায় জলের কালারে,  সেইসব, 

    মিলে যাওয়া মিশে যাওয়া বারান্দায় 
    সারে সারে লিলিদের শব
    এডেনিয়ামের ঝড়া দেহ, 
    চ্যুত শেফালিকা,  আর মাতৃপিতৃকাল জুড়ে 

    ওয়ালে স্টেটাস ঝরে ; জানিনা হুঁজুর 
    সব ঝড়ে উড়ে গ্যাছে।  ব্যাল্কনি ধুয়ে
     যায়, 
           চুপচাপ স্রেফ  শুয়ে থাকি।। 
     
  • r2h | 2405:201:8005:9947:b8e0:aa25:145:36d0 | ৩০ এপ্রিল ২০২২ ২২:২০736418
  • আহ!
    এইটা অন্যরকম।
  • ফরিদা | ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ০৮:০৮739102
  • যেদিন ব্রাজিল হারে - ৯ ডিসেম্বর ২২

    যেদিন ব্রাজিল হারে, তার কথা বহুদিন মনে থাকে
    সারাদিন কি কি করেছিলাম, কোন জামা গায়ে
    কাকে কি বলেছিলাম, কাগজে কে কি লিখেছিল
    সে’দিন সকালে।

    বিশদে মনে পড়ে গোল খেয়ে মাটিতে আছড়ে পড়া — 
    শেষে টাইব্রেকারে একে একে
    ধীরে ধীরে অবশ হ'তে হ'তে চুপ করে যাওয়া 
    একা একা নি:শব্দ ঝড়ে।  
    পরে, দিনের সংবাদপত্রগুলি 
    যন্ত্রণায় জ্বলন্ত কাঠ চেপে ধরে।

    জিতে গেলে অত মনে থাকত না কিছুতে
    তখনি খরচ হ'ত খোলান কুচিতে অভাবের সংসারে। 

    জানি, এ কিছু গর্বের বিষয় নয়, 
    যাবতীয় ব্যক্তিগত  বিষাদ-সঞ্চয় দূরগামী ট্রেনে তুলে 
    ছেড়ে দেওয়া অনির্দিষ্ট নক্ষত্র অভিমুখী সবার অজান্তে
    কমে আসা আলোটুকু গতরাতে ধীরে ধীরে পৃথিবী ছাড়লে — 
    আমার পুঙ্খানুপুঙ্খ মনে পড়ে দিনটিকে  —  
    ব্রাজিল হারলে। 


    যত অতৃপ্তি ক্ষোভ অভিমান হেমন্তের 
    ঝরা পাতার অক্ষরে অক্ষরে —
    বাজী রেখেছিলাম সে সবই যা সম্পূর্ণ নিজস্ব
    ব্রাজিলের ওপর, যাতে তা বদলে গিয়ে 
    ঝকঝকে সকালের কাঞ্চনজঙ্ঘা নিয়ে ফেরে।

    সে সবও গিয়েছে ছেড়ে, আশাতীত হারে —
    ভালোই হয়েছে একদিকে, সমুদ্রের ধারে 
    আর কোনও অভিযোগ নেই। 
    ব্যক্তিগত অপমানের মুহূর্তগুলি — 
    ধীরে ধীরে অপাঙক্তেয় হয়ে পড়ে। 

     
  • M. Das Bhattacharjee | ১১ ডিসেম্বর ২০২২ ২৩:০২739107
  • কবিতা
     
    শিরোনাম - অসমাপ্ত
  • M. Das Bhattacharjee | ১১ ডিসেম্বর ২০২২ ২৩:১৮739108
  • শিরোনাম - অসমাপ্ত
    কলমে - মহুয়া দাস
     
    অসমাপ্ত রাত কাছে এসে বলে, একটু ছুঁই?  
    যে মেয়েটি ক্লান্তির আবেগ নিয়ে ছুঁতে চায়
    ফিরিয়ে দিলো বালকের স্পর্ধা
    কম্পিত হলো শরীর, স্থির হল এক নিমেষে
    ঝড় এসে আছড়ে দিয়ে গেল
    একমুহূর্ত, সমাপ্তির রেখা টেনে দিল।

    দুর্জনের চোখের  আড়ালে স্মিত তির্যক হাসি
    অজান্তে ভয়, বাঁচার তাগিদ, লালসা
    দেহ বেচে তার আহার জোটে, যৌনতার খুদা
    নিবারণ করতে একটুখানি বস্ত্র সে ও পাওয়া।

    আত্মমগ্ন অসমাপ্ত রাত অনাদিকালের জন্য
    একদৃষ্টে চেয়ে থাকলো মাতৃ আদর পেতে।

    বস্তির পচা গন্ধ গলিত লাশ আনেনি মুক্তি
    আনেনি উত্তর, দিয়েছে ঘৃণা, লাঞ্ছনা
    ত্যাগের ওপর নাম দিলাম - অসম্মান
    কখন দেখা হবে পূর্ণিমা রাতে অনাদরে রয়েছে যে মেয়েটি তার সাথে।

    আমি  তবে একা?
    আসি তবে ...
    তোমাকে জাগাতে এক দিপান্তরে।

              
  • ফরিদা | ০৫ জানুয়ারি ২০২৩ ১৮:৪৯739220
  • আমি বাবার মতো হ'তে চাইতাম না কখনও
    হঠকারী, কিছুটা আলসে, বিষয়-বুদ্ধি কম
    বাক্সর বাইরে গিয়ে ভাবা অভ্যাস করতে করতে
    যেন নিজেই কিছুটা ছিটকে গিয়ে 
    গল্পের বই হয়ে গেছে মানুষটা — 
    যা কি না আমোদে আহ্লাদে কাজে এলেও
    পরীক্ষায় পাস করায় না।

    কখনও চাইতাম না অমনটা হ'তে। 
    কাজের কথা মন দিয়ে শুনতাম। 
    হুটহাট কিছু করিনি তেমন
    তবু উঠতে বসতে কথা শুনি —
    "বাবার স্বভাবই পেয়েছে"।

    কে জানে — 
    বাবাও হয়ত অমন হ'তে চায় নি কখনও।
  • ফরিদা | ০৮ জানুয়ারি ২০২৩ ০৯:০২739226
  • তুমি আমায় যেখানে রেখেছ
    আর আমি তোমায় যেখানে —
    তারা কেউ কাউকে কখনও 
    চোখেও দেখে নি, 
    চেনাশোনা তো দূরস্থান। 

    কথাবার্তা নেই, টুকটাক শুভেচ্ছা পাঠাই.... 

     
  • ফরিদা | ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ২০:৩৮739338
  • ব্যাঞ্জন জোটে না সহজে
    ভাত লিখি শুধু ভাত লিখি
    এক সমুদ্র জলে টগবগিয়ে ফোটে —
    দেখি। 

    জিভে লালারস খলবল করে
    ভাতের গন্ধে আসন্ন বিপদের কথা 
    মনেও থাকে না আর। 

    ব্যাঞ্জনাহীন সাদা ভাত ফোটে
    এক আস্ত সমুদ্র জুড়ে 
    দেখি আর লিখি।
     
  • &/ | 151.141.85.8 | ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ০১:৪১739417
  • এই টইটা বড় ভালো। এখানে মাঝে মাঝে এসে কবিতা পড়ে যাই।
  • ফরিদা | ২১ মার্চ ২০২৩ ২৩:১৯739810
  • সরোদে বেজেছি —
    তুমি চেয়েছিলে বলে
    বৃষ্টি ধুয়েছে চরাচর, 
    ফেরা অসম্ভব হ'লে থেমে গেছি।  
    নিজেকে হারিয়ে খুঁজেছি পরস্পর।

    চিঠি হ'লে, কখনও পেতে না আমায়
    ছুটি হ'লে কাটাঘুড়ি হই 
    ঠিকানার জামা ছেড়ে। 
    অন্যথায়, ডাকটিকিট জমাই।
  • ফরিদা | ২৩ মার্চ ২০২৩ ১৪:১২739830
  • অমিতাভ , 
    বড় ভালো লাগল।  যদিও বিশ্বাস করি প্রকাশিত হওয়ার পর কবিতা একান্তই পাঠকের।
     
    যাই হোক, এ-পাতায় শুধু কথা বলে চলে যাব না। 
    তাই এটা রইল।... 
     
    স্বপ্নের ভিতরে গতকাল যা যা বলেছি 
    তার পারস্পর্য যথেষ্ট প্রাসঙ্গিক মনে হয়েছিল।
    কত কাছাকাছি থাকতাম আমরা বল  — 
    তোদের বাড়িতে কত আসা যাওয়া ছিল। 
    কতদিন অমনই হাত ধরে পাশাপাশি হেঁটেছি
    নির্জন রাস্তায় অন্ধকারে অবান্তর গল্প গাথায়।

    কিছুমাত্র ভুল নেই এতে। জেগে উঠে তিলমাত্র
    অপরাধবোধ কণা খুঁজে পাই নি এখনও।
    বিশ্বাস করি আবারও এমন স্বপ্নের গাড়ি পেলে
    সে'দিনের মতো হাত ধরে নির্জনে বহুদূর যেতে।
     
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী | ২৪ মার্চ ২০২৩ ০৮:২৫739838
  • প্রিয় ফরিদা, আমার মন্তব্যে আপনার কাছ থেকে আরেকটি কবিতা পাওয়া হল। অসামান্য এ প্রাপ্তি। এই টইয়ের উপযুক্ত কোন লেখা এখনো লিখে উঠতে পারিনি। তাই মুগ্ধতা জানিয়েই থামলাম। 
  • ফরিদা | ২৬ মার্চ ২০২৩ ১৩:০৩739844
  • সর্বস্ব তুলে দিয়ে ফের সাদা পাতাটির কাছে
    হাত পাতি, যেহেতু বসন্ত ঋতু, শুকনো ডালেও
    সবুজের কুঁচি উঁকি মারে, আঙুল নাড়ায় শিশু
    ঘুমন্ত তখনও, কান্না শুরুর আগে মুখ কোঁচকায়
    কিছু পরে গোঙানির শব্দ। বাতাসে ভেসে আসা
    ধুলো-বালি কিছু একটা পেলেই অক্ষর আঁকড়াবে 
    সামান্য শব্দটুকু, চেনা গন্ধ স্মৃতি উদ্রেককারী
    কৌতূহলী বড় চোখদু'টি মেলে, আশ্চর্য মনে হয়।

    হয়ত সর্বস্ব নয়। অশেষ রহস্যাবৃত রচনা কাহিনীর
    প্রথম অক্ষরটি তার হাত,পা,চোখ, ডানা, খুঁটে খুঁটে 
    নিজস্ব বর্ণমালা বানিয়ে নিজে মিশে গেল দলে। 
    এখন অনন্য সবাই। যে যার পছন্দসই শব্দ নিয়ে
    ভাঙে আর জোড়ে — ছেলেখেলা, তবু স্মৃতিহীন।
    সাদা পাতা ভরছে ক্রমশ। নির্জন বনফুল স্বাধীন। 
     
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী | ২৭ মার্চ ২০২৩ ০০:০৯739845
  • ভূতগ্রস্ত পংক্তিমালা
    নিরন্তর
    ঘাই মারে, টেনে নেয়।

    তিন পংক্তির বেশি
    অর্থহীন
    অনিঃশেষ রতিসাধে দাপাদাপি তবু।

    সমস্ত কবিতাই স্বপ্নাদ্য
    পুরুষও
    তা বলে মোহনবাঁশি বাজাবিনা বুঝি!

    চকমকি ঠুসে যায় গোপন
    শরীর
    ছুঁয়েছে কি পুড়ে কাঠ।

    অলৌকিক সন্ধ্যা আনে যে
    দহন
    কি করে ফেরাই তাকে?
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আদরবাসামূলক মতামত দিন