বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

এই সুতোর পাতাগুলি [1]     এই পাতায় আছে1--2


           বিষয় : ভালোবাসার গল্প
          বিভাগ : বই
          শুরু করেছেন : Gourab Biswas
          IP Address : 340112.77.7845.90 (*)          Date:07 Jun 2018 -- 08:09 PM




Name:   Gourab Biswas           

IP Address : 340112.77.7845.90 (*)          Date:07 Jun 2018 -- 08:15 PM

ভালোবাসা, চেরি ফুলের মাঝের ছোট্ট লাল বিন্দুটা। সুগভীর। প্রজ্জ্বল। চেরি ফুলের মতোই গোলাপী আদরে তাকে আগলে রাখতে হয়। সে ভালবাসার খোঁজ জানে প্রজাপতিরা। রাকেশ ছোট বয়সে যে চেরি গাছ লাগিয়েছিল, বর্ষার শেষে তাতে নতুন পাতা ধরেছে। ভালোবাসা সেই কিশলয়ের মতোই নরম। সে চেরি গাছ যখন বড় হয়ে ওঠে, পাখালিরা তাতেই খোঁজে ভালোবাসার আশ্রয়। শীতের শুরুতে ঠাকুমা ভালোবাসা বোনেন। সেই ভালোবাসা গায়ে চাপিয়েই নাতি-নাতনীরা যখন শোনে রাজপুত্র-রাজকন্যার ভালোবাসার গল্প, বেলা শেষের রোদ্দুর তাদের চোখে, গায়ে, হাতে বুলিয়ে দেয় আদরের স্পর্শ। ভালোবাসা বিকেল শেষের উত্তাপের মতোই উষ্ণ। ভালোবাসা, হঠাৎ খুঁজে পাওয়া পুরনো কোনো ফটোগ্রাফ। ছোট্ট এক পাহাড়ী ষ্টেশন কিংবা পিপলনগরের মেহনতি মানুষজনের দিনগুজরানের গল্প। ভালোবাসা পাহাড়ীয়া বারিষের মেঘমল্লার। ভালোবাসা সুরেশের মতোই ‘most beautiful’। পাহাড়ের ঢালে মালবেরি লজে যে অশিতীপর বৃদ্ধা থাকেন, ভালোবাসা তাঁর হাত দুটির মতো বড় কোমল। ভালোবাসা মুসৌরি বাজারের বাদাম ভাজা কিংবা মেলা রামের দোকানের লস্যি। ভালোবাসা, দৃষ্টিহীন মেয়েটির অনুভবের মতোই নিবিড়। দেওলির সেই মেয়েটির ডাগর চোখদুটির মতোই চঞ্চল। প্রগলভ।
ভালোবাসা, পাশের বাড়ির মেয়েটির এক চিলতে হাসি। ভালোবাসাকে আঁকড়ে বেড়ে ওঠে বগনভেলিয়ার লতা। সে বসন্তে বগনভেলিয়া ভালোবাসে এক প্রজাপতিকে। পাহাড়ে গ্রীষ্ম আসে। ভালোবাসা, গ্রীষ্ম সন্ধ্যায় হানিসাকলের বুনো গন্ধে তার কথা মনে পড়া। পাহাড়ে বর্ষা নামে বিরহকে সাথ করে। পাইনের গা বেয়ে টুপ টাপ ঝরে পড়ছে বিরহ। ম্রিয়মাণ ফার্নেরা একটু একটু করে জেগে উঠছে পাহাড়িয়া প্রেমের দানে। ভালোবসা, বর্ষা শেষের ফার্নের মতোই চিরসবুজ।
এমনি করেই আবার বসন্ত আসে। রডোডেন্ড্রনের চুমুতে ঘুম ভাঙে অর্কিডের। ওদের প্রেমালাপ দেখে লজ্জায় আরক্তিম হয়ে ওঠে ক্রিসেন্থিমাম। যে কাঠবিড়ালীটি চিরকুমার থাকার প্রতিজ্ঞা করেছিল, বসন্ত আসলে তারও মনটা আজকাল আনচান করে। হুইস্লিং থ্রাস সারাটা বছর গান গেয়েছে একাকী। এ বসন্তে সে খুঁজে পায় তার গানের দোসর। দুজনায় ঘর বাঁধে ওয়ালনাট গাছে। দুজনায় বাঁধে সুর। পাহাড়িয়া বাতাসে সে সুর ভেসে আসে এক বৃদ্ধের কাছে। ভালোবাসারা একে একে মিশছে তার সত্তায়। পরম যত্নে সে বৃদ্ধ ভালোবাসা মাখিয়ে দিচ্ছেন শব্দদের গায়ে। জন্ম নিচ্ছে ভালোবাসার গল্পরা।
https://www.modernliterature.org/2018/03/03/wind-last-night-new-collec
ted-poems-ruskin-bond/



Name:   বিপ্লব রহমান           

IP Address : 340112.231.126712.74 (*)          Date:12 Jul 2018 -- 11:01 PM

পাগলের প্রলাপ টই এ লিখেছি, কথাগুলো এখানেও থাক!
~~~~~~

আমার ঘরের ঘুলঘুলিতে বাসা বেধেছে তরুণ চড়ুই দম্পতি, আমি তাদের নাম রেখেছি, জিম আর ডেলা, নাগরিক পাখি তাই।

দুজনে ঘুলঘুলির খোপে কুড়িয়ে আনা শুকনো ঘাস গুজে দেয়, খুনসুঁটি করে, আমি মুগ্ধ হয়ে দেখি।

আমি তাদের প্রেমের নাম দিয়েছি, ভেন্টিকলোজিয়াম। মানে, ঘুলঘুলিতে উপ-উপনিবেশ।

একদিন চলে এস, দেখে যাও।

আমার বাড়ি আইস বন্ধু, চিল চিৎকার দুপুরে/চু বিচ্চি আর কাঞ্জি খাওমু/ গলা শুকানোর কালে! 💌

এই সুতোর পাতাগুলি [1]     এই পাতায় আছে1--2